alt

রাজনীতি

সম্মানজনক আসন চায় ১৪ দল

কাদের বললেন ‘আজকালের মধ্যে’, আমু বললেন ‘১৭ ডিসেম্বর’

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : মঙ্গলবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩

https://sangbad.net.bd/images/2023/December/05Dec23/news/pic1.jpg

মঙ্গলবার ধানমন্ডিতে রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ১৪ দল সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন ওবায়দুল কাদের -সংবাদ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোট কেন্দ্রীয় ১৪ দলের শরিকরা সম্মানজনক আসন প্রত্যাশা করছে। বর্তমান সংসদে শরিকদের ১০ জন (২ জন সংরক্ষিতসহ) সংসদ সদস্য আছেন। এবার শরিকদের প্রত্যাশা ২০টি আসন।

https://sangbad.net.bd/images/2023/December/05Dec23/news/pic2.jpg

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, ১৪ দলের সঙ্গে আসন ভাগাভাগির বিষয়ে সিদ্ধান্ত ‘আজকালের মধ্যে’ চূড়ান্ত হয়ে যাবে। মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

বিকেলে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং ১৪ দলের সমন্বয়ক আমির হোসেন আমু বলেন, আসন বিন্যাস ও প্রার্থী চূড়ান্ত করা নিয়ে শরিকদের ১৭ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

টানা তিন মেয়াদ ক্ষমতায় থাকা আওয়ামী লীগ গত তিনটি সংসদ নির্বাচন ১৪ দলের সঙ্গে জোট বেঁধে করেছে। জোট শরিক জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনুর (কুষ্টিয়া-২) আসন ছাড়া শরিকদের সব আসনেই ক্ষমতাসীনরা প্রার্থী দিয়েছে। এমন প্রেক্ষাপটে গত সোমবার গণভবনে গিয়ে জোট নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করেন ১৪ দলের নেতারা।

ওই বৈঠকের বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মূলত দলীয় জোটের চেয়ারম্যানের বক্তব্যটাই তারা (শরিক দলগুলোর নেতা) শুনতে আগ্রহী ছিলেন। তার কাছে অনেক বিষয়ই, জাতীয়-আন্তর্জাতিক, তারপরে ভূরাজনৈতিক পরিস্থিতি- এসব বিষয় নিয়ে তাদেরও জানার আগ্রহ ছিল যে, জোটের চেয়ারম্যান ও আমাদের প্রধানমন্ত্রী কী ভাবছেন।’

দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির দিকে ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বাংলাদেশকে নিয়ে বাইরের স্বার্থের যে খেলা, এটা আজ নয়, বহুদিন আগে থেকেই আছে এবং এদেশে পঁচাত্তর ঘটে গেছে, তেসরা নভেম্বরও হয়েছে। বারে বারে তো হামলা আসছে।’ বৈঠকে জোটের নেতারা প্রত্যেকে প্রত্যেকের ‘ভিউজ, কী করণীয়’ এনিয়ে আলোচনা করেছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের মূল কথা হচ্ছে আমরা সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা রক্ষা করব। সে ব্যাপারে আমরা সবাই একমত।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৪ দলের সঙ্গে আসন বণ্টনের বিষয়টি ‘আজকালের মধ্যে’ চূড়ান্ত হয়ে যাবে। এটা নিয়ে কোনো সমস্যা হবে না। বিষয়টি দেখভালে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমুর কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমু ভাই আছেন, তিনি কো-অর্ডিনেটর’।

মঙ্গলবার বিকেলে আমির হোসেন আমুর ইস্কাটনের বাসভবনে বৈঠক করেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার।

রাশেদ খান মেনন বলেন, জোটের পক্ষ থেকে একটা তালিকা দেয়া হয়েছে, আগের চেয়ে কিছু আসন বেশি চেয়েছে ১৪ দল। জোটের মর্যাদা ও সম্মান রক্ষা করে যেন আসন ভাগাভাগির বিষয়টি চূড়ান্ত হয় সেটা নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

হাসানুল হক ইনু বলেন, আসন ভাগাভাগি যেন জোটের জন্য সম্মানজনক হয় সেটাই প্রত্যাশা। আমাদের এখন ১০ জন সংসদ সদস্য আছেন, প্রত্যাশা ২০ জনের। জোটের প্রার্থীরা নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করবেন জানিয়ে তিনি বলেন, যেখানে জোটের প্রার্থী আসবে, সেখানে আওয়ামী লীগের প্রার্থী উঠে যাবেন।

আমির হোসেন আমু গণমাধ্যমকে বলেন, ‘কিছু আসনে আমরা একসঙ্গে নির্বাচন করব। আর কিছু আসনে শরিক দলগুলো নিজেদের মতো নির্বাচন করবে। একসঙ্গে নির্বাচন করা আসনগুলোয় শরিকেরা নৌকা প্রতীক ব্যবহার করবে। বাকি আসনগুলোয় তাদের নিজেদের প্রতীক ব্যবহার করবে।’

১৪ দলীয় জোটের সমন্বয়ক বলেন, ১৪ দলের শরিকদের আসন ভাগাভাগির বিষয়টি জাতীয় পার্টির সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে নির্ধারিত হবে। তিনি বলেন, নির্বাচন জোটগতভাবে হবে, আগামীকাল জাতীয় পার্টির সঙ্গে আলোচনা করবে আওয়ামী লীগ। তিনি বলেন, জোটের আসন বিন্যাস ও প্রার্থী চূড়ান্ত করা নিয়ে ১৭ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

আমির হোসেন আমু বলেন, আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধেও আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট (শক্তিশালী) প্রার্থী আছে। ১৪ দল আদর্শিক জোট। আসন বিন্যাসের ওপর জোটের সম্পর্ক নির্ভর করে না। অন্যান্য দলের মতো ১৪ দল ভাগাভাগির জোট নয়।

এদিকে দুপুরে ধানমন্ডিতে সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের উত্তর দেন।

কয়েক জায়গায় আওয়ামী লীগ মনোনীতদের প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছে- এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘প্রার্থিতা যদি যৌক্তিকভাবে নির্বাচন কমিশন বাতিল করে, তা আমরা তো সেটা নিয়ে কোনো আপত্তি করতে যাব না।’ ওই আসনগুলো শূন্য থাকবে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘শূন্য এবার কোথাও থাকবে না।’

বিএনপির নির্বাচন বর্জনে ভোটার উপস্থিতি বাড়াতে আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায় থেকে এবার স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ভোটে দাঁড়ানোর বিষয়ে সবুজ সংকেত এসেছে।

দলের স্বতন্ত্র প্রার্থীর বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এটা আমাদের স্ট্র্যাটেজি। ইলেকশন স্ট্র্যাটেজি। এটা তো ওপেনলি আমাদের চেয়ারম্যান বলে দিয়েছেন, জোটের চেয়ারম্যান, আমাদের প্রধানমন্ত্রী, আওয়ামী লীগ সভাপতি। একাধিকবার তিনি বলেছেন।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘স্বতন্ত্র স্বতন্ত্রের জায়গায় আছে। একজন স্বতন্ত্র প্রার্থীকে আমি যদি চাপ দিয়ে নির্বাচন থেকে সরাতে চাই, সেটা কি নির্বাচনের আচরণবিধি লঙ্ঘন হবে না?’ নৌকার প্রার্থীরা স্বতন্ত্র প্রার্থীদের বাধার সম্মুখীন হচ্ছে, এক্ষেত্রে দলের সিদ্ধান্ত কী হবে, জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘পার্টির লোক হোক, যেই হোক, বাধা দেয়ার কোনো অধিকার কারো নেই।’

তৃণমূলের কর্মীদের মধ্যে একটা বিভ্রান্তি আছে। তারা দীর্ঘদিন ধরে কোনো না কোনো নেতার সমর্থক। যাদের নেতা এবার নৌকার মনোনয়ন পাননি কিন্তু স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন ওই কর্মীরা কার পক্ষে নির্বাচন করবে- এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এটা তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার।’

একতরফা নির্বাচনের অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা একতরফা নির্বাচনে যাওয়ার বিষয় নয়। যারা (এটা) বলে, তারা একতরফা বাধা দিচ্ছে। আমাদের একতরফা এই যে বাধা দিচ্ছে, এর বিরুদ্ধে আমরা ঐক্যবদ্ধ।’

ছবি

বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেও দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে : কাদের

ছবি

বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি হবে ‘মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা’: রিজভী

ছবি

সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলতাফের জামিন, মুক্তি ‘এখনই না’

ছবি

জামিনে মুক্তি পেলেন বিএনপি নেতা মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল

ছবি

সাম্প্রদায়িকতার বিষবৃক্ষকে সমূলে উৎপাটন করা হবে : কাদের

ছবি

আমরা গণতন্ত্র, মানবাধিকার ও ভোটাধিকারহারা: রিজভী

ছবি

ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের গ্রাজুয়েট হলেন তিন দলের ২৫ তরুণ নেতা

ছবি

‘যত কঠোর হওয়া দরকার আমরা হবো’: কাদের

ছবি

বিএনপি নেতারা নিজেদের মুখ রক্ষায় অসংলগ্ন কথা বলছেন

ছবি

একুশের চেতনা গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন তীব্রতর করবে: মির্জা ফখরুল

ছবি

মিউনিখে সাহসী কূটনীতি দেখিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী: ওবায়দুল কাদের

ছবি

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বিএনপির কর্মসূচি ঘোষণা আওয়ামী লীগ এখন বন্দুকনির্ভর দলে পরিণত হয়েছে: রিজভী

ছবি

কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন মির্জা আব্বাস

ছবি

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের নারী আসন ৫০ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ

ছবি

সভ্যতার জন্য বৈরী সংগঠন ছাত্রলীগ : রিজভী

ছবি

বিএনপির শীর্ষ ৭ আইনজীবীর আদালত অবমাননার শুনানি দুই মাস পেছাল

ছবি

বিরোধী দল নিষিদ্ধ করতে চায় আওয়ামী লীগ: মঈন খান

ছবি

আরেক মামলায় মির্জা আব্বাসের জামিন

ছবি

জাতি ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর অবদান শ্রদ্ধাভরে স্মরণ রাখবে

ছবি

সংরক্ষিত ৪৮ আসনে আ. লীগের মনোনয়নপত্র জমা

ছবি

তারেক রহমান বিএনপিকে ধ্বংস করছে : নানক

ছবি

নির্বাচনে অংশ নিয়ে গণতন্ত্রকে বাঁচিয়েছি: চুন্নু

ছবি

স্বাধীনতার মূল আদর্শে আওয়ামী লীগ আঘাত করেছে : মঈন খান

ছবি

৯ মার্চ জাতীয় পার্টির কাউন্সিল ঘোষণা করলেন রওশন

ছবি

নারায়ণগঞ্জ আ. লীগ : আনোয়ারের কমিটি, অবাঞ্ছিত ঘোষণা আইভীর

ছবি

দেশে বিএনপির চেয়ে বড় উগ্রবাদী কারা, প্রশ্ন ওবায়দুল কাদেরের

ছবি

এ দেশে যে কেউ যা তা করবে, সেটা হতে দেওয়া যায় না : গণফোরাম

ছবি

ক্ষমতা হারানোর ভয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে আওয়ামী লীগ : ফখরুল

ছবি

কৌশল পরিবর্তন করে আবার ঘুরে দাড়াতে চায় বিএনপি

ছবি

ইউনূসে সরকারের কোনো হাত নেই : আইনমন্ত্রী

ছবি

রোজায় পণ্যের সংকট হবে না, বেঁধে দেওয়া হবে তেলের দাম: প্রতিমন্ত্রী

ছবি

ফখরুল আবারও দিবাস্বপ্নে বিভোর : কাদের

ছবি

নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্ঘন: এমপি মহিউদ্দিন বাচ্চুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

ছবি

ফখরুল-খসরুর মুক্তি, বললেন তাদের কোন ক্ষতি হয়নি

ছবি

সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিলে শহীদুজ্জামান সরকার

ছবি

বিএনপি নেতা অ্যানি কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন

tab

রাজনীতি

সম্মানজনক আসন চায় ১৪ দল

কাদের বললেন ‘আজকালের মধ্যে’, আমু বললেন ‘১৭ ডিসেম্বর’

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

মঙ্গলবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩

https://sangbad.net.bd/images/2023/December/05Dec23/news/pic1.jpg

মঙ্গলবার ধানমন্ডিতে রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ১৪ দল সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন ওবায়দুল কাদের -সংবাদ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোট কেন্দ্রীয় ১৪ দলের শরিকরা সম্মানজনক আসন প্রত্যাশা করছে। বর্তমান সংসদে শরিকদের ১০ জন (২ জন সংরক্ষিতসহ) সংসদ সদস্য আছেন। এবার শরিকদের প্রত্যাশা ২০টি আসন।

https://sangbad.net.bd/images/2023/December/05Dec23/news/pic2.jpg

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, ১৪ দলের সঙ্গে আসন ভাগাভাগির বিষয়ে সিদ্ধান্ত ‘আজকালের মধ্যে’ চূড়ান্ত হয়ে যাবে। মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

বিকেলে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং ১৪ দলের সমন্বয়ক আমির হোসেন আমু বলেন, আসন বিন্যাস ও প্রার্থী চূড়ান্ত করা নিয়ে শরিকদের ১৭ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

টানা তিন মেয়াদ ক্ষমতায় থাকা আওয়ামী লীগ গত তিনটি সংসদ নির্বাচন ১৪ দলের সঙ্গে জোট বেঁধে করেছে। জোট শরিক জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনুর (কুষ্টিয়া-২) আসন ছাড়া শরিকদের সব আসনেই ক্ষমতাসীনরা প্রার্থী দিয়েছে। এমন প্রেক্ষাপটে গত সোমবার গণভবনে গিয়ে জোট নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করেন ১৪ দলের নেতারা।

ওই বৈঠকের বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মূলত দলীয় জোটের চেয়ারম্যানের বক্তব্যটাই তারা (শরিক দলগুলোর নেতা) শুনতে আগ্রহী ছিলেন। তার কাছে অনেক বিষয়ই, জাতীয়-আন্তর্জাতিক, তারপরে ভূরাজনৈতিক পরিস্থিতি- এসব বিষয় নিয়ে তাদেরও জানার আগ্রহ ছিল যে, জোটের চেয়ারম্যান ও আমাদের প্রধানমন্ত্রী কী ভাবছেন।’

দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির দিকে ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বাংলাদেশকে নিয়ে বাইরের স্বার্থের যে খেলা, এটা আজ নয়, বহুদিন আগে থেকেই আছে এবং এদেশে পঁচাত্তর ঘটে গেছে, তেসরা নভেম্বরও হয়েছে। বারে বারে তো হামলা আসছে।’ বৈঠকে জোটের নেতারা প্রত্যেকে প্রত্যেকের ‘ভিউজ, কী করণীয়’ এনিয়ে আলোচনা করেছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের মূল কথা হচ্ছে আমরা সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা রক্ষা করব। সে ব্যাপারে আমরা সবাই একমত।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৪ দলের সঙ্গে আসন বণ্টনের বিষয়টি ‘আজকালের মধ্যে’ চূড়ান্ত হয়ে যাবে। এটা নিয়ে কোনো সমস্যা হবে না। বিষয়টি দেখভালে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমুর কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমু ভাই আছেন, তিনি কো-অর্ডিনেটর’।

মঙ্গলবার বিকেলে আমির হোসেন আমুর ইস্কাটনের বাসভবনে বৈঠক করেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার।

রাশেদ খান মেনন বলেন, জোটের পক্ষ থেকে একটা তালিকা দেয়া হয়েছে, আগের চেয়ে কিছু আসন বেশি চেয়েছে ১৪ দল। জোটের মর্যাদা ও সম্মান রক্ষা করে যেন আসন ভাগাভাগির বিষয়টি চূড়ান্ত হয় সেটা নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

হাসানুল হক ইনু বলেন, আসন ভাগাভাগি যেন জোটের জন্য সম্মানজনক হয় সেটাই প্রত্যাশা। আমাদের এখন ১০ জন সংসদ সদস্য আছেন, প্রত্যাশা ২০ জনের। জোটের প্রার্থীরা নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করবেন জানিয়ে তিনি বলেন, যেখানে জোটের প্রার্থী আসবে, সেখানে আওয়ামী লীগের প্রার্থী উঠে যাবেন।

আমির হোসেন আমু গণমাধ্যমকে বলেন, ‘কিছু আসনে আমরা একসঙ্গে নির্বাচন করব। আর কিছু আসনে শরিক দলগুলো নিজেদের মতো নির্বাচন করবে। একসঙ্গে নির্বাচন করা আসনগুলোয় শরিকেরা নৌকা প্রতীক ব্যবহার করবে। বাকি আসনগুলোয় তাদের নিজেদের প্রতীক ব্যবহার করবে।’

১৪ দলীয় জোটের সমন্বয়ক বলেন, ১৪ দলের শরিকদের আসন ভাগাভাগির বিষয়টি জাতীয় পার্টির সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে নির্ধারিত হবে। তিনি বলেন, নির্বাচন জোটগতভাবে হবে, আগামীকাল জাতীয় পার্টির সঙ্গে আলোচনা করবে আওয়ামী লীগ। তিনি বলেন, জোটের আসন বিন্যাস ও প্রার্থী চূড়ান্ত করা নিয়ে ১৭ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

আমির হোসেন আমু বলেন, আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধেও আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট (শক্তিশালী) প্রার্থী আছে। ১৪ দল আদর্শিক জোট। আসন বিন্যাসের ওপর জোটের সম্পর্ক নির্ভর করে না। অন্যান্য দলের মতো ১৪ দল ভাগাভাগির জোট নয়।

এদিকে দুপুরে ধানমন্ডিতে সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের উত্তর দেন।

কয়েক জায়গায় আওয়ামী লীগ মনোনীতদের প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছে- এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘প্রার্থিতা যদি যৌক্তিকভাবে নির্বাচন কমিশন বাতিল করে, তা আমরা তো সেটা নিয়ে কোনো আপত্তি করতে যাব না।’ ওই আসনগুলো শূন্য থাকবে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘শূন্য এবার কোথাও থাকবে না।’

বিএনপির নির্বাচন বর্জনে ভোটার উপস্থিতি বাড়াতে আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায় থেকে এবার স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ভোটে দাঁড়ানোর বিষয়ে সবুজ সংকেত এসেছে।

দলের স্বতন্ত্র প্রার্থীর বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এটা আমাদের স্ট্র্যাটেজি। ইলেকশন স্ট্র্যাটেজি। এটা তো ওপেনলি আমাদের চেয়ারম্যান বলে দিয়েছেন, জোটের চেয়ারম্যান, আমাদের প্রধানমন্ত্রী, আওয়ামী লীগ সভাপতি। একাধিকবার তিনি বলেছেন।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘স্বতন্ত্র স্বতন্ত্রের জায়গায় আছে। একজন স্বতন্ত্র প্রার্থীকে আমি যদি চাপ দিয়ে নির্বাচন থেকে সরাতে চাই, সেটা কি নির্বাচনের আচরণবিধি লঙ্ঘন হবে না?’ নৌকার প্রার্থীরা স্বতন্ত্র প্রার্থীদের বাধার সম্মুখীন হচ্ছে, এক্ষেত্রে দলের সিদ্ধান্ত কী হবে, জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘পার্টির লোক হোক, যেই হোক, বাধা দেয়ার কোনো অধিকার কারো নেই।’

তৃণমূলের কর্মীদের মধ্যে একটা বিভ্রান্তি আছে। তারা দীর্ঘদিন ধরে কোনো না কোনো নেতার সমর্থক। যাদের নেতা এবার নৌকার মনোনয়ন পাননি কিন্তু স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন ওই কর্মীরা কার পক্ষে নির্বাচন করবে- এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এটা তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার।’

একতরফা নির্বাচনের অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা একতরফা নির্বাচনে যাওয়ার বিষয় নয়। যারা (এটা) বলে, তারা একতরফা বাধা দিচ্ছে। আমাদের একতরফা এই যে বাধা দিচ্ছে, এর বিরুদ্ধে আমরা ঐক্যবদ্ধ।’

back to top