alt

রাজনীতি

এ দেশে যে কেউ যা তা করবে, সেটা হতে দেওয়া যায় না : গণফোরাম

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

দ্বিজাতিতত্ত্বের ভিত্তিতে দেশকে যে ভাগ করা হয়েছিল, তা ঠিক ছিল না বলে মন্তব্য করেছেন গণফোরামের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এস এম আলতাফ হোসেন।

তিনি বলেন, আবারও আমাদের মুক্তিযুদ্ধ করতে হয়েছে। এটা বীরের দেশ, এই বীরের দেশে যে কেউ যা তা করবে, সেটা হতে দেওয়া যায় না।

গতকাল বিকেলে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে গণফোরাম আয়োজিত ‘একুশের উত্তরাধিকার এবং আজকের উপলব্ধি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আলতাফ হোসেন বলেন, ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের যে ধারা, সেই ধারায় আমরা ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ করেছি। ইতোমধ্যে আমাদের হাজার হাজার কর্মী মৃত্যুবরণ করেছে। অনেকে আহত হয়েছেন, বিভিন্নভাবে নিহত হয়েছেন। সবারই একটা আশা ছিল এই দেশ স্বাধীনভাবে সুন্দরভাবে চলবে। কারণ আমরা যুদ্ধ করে কেউ পৈতৃক সম্পত্তি পাইনি। শ্বশুরের সম্পত্তিও পাইনি।। আমরা শুধুমাত্র যুদ্ধ করে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছি। এটা বীরের দেশ। এই বীরের দেশে যে কেউ যা তা করবে, সেটা হতে দেওয়া যায় না।

তিনি বলেন, ড. কামাল হোসেন স্যারকে সামনে রেখে বলতে চাই। আপনার এই কথা আমাদের মনে থাকবে, অসুস্থ মাকে সুস্থ করার জন্য মাঠে থাকতে হবে। আমরা এখন যারা গণফোরাম করি, তারা সবাই মাঠে থাকব এ প্রতিজ্ঞা আপনাকে দিতে পারে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণফোরামের ইমেরিটাস সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেন, রাষ্ট্রভাষা হিসেবে আমরা রক্তের বিনিময়ে যেটা প্রতিষ্ঠা করেছিলাম, তার একটা ধারাবাহিকতার মধ্য দিয়ে দিনটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এই দিনটির মর্যাদা রক্ষা করার জন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। ভাষা আন্দোলনের মধ্যে যে শক্তি ছিল, সেটাকে বজায় রাখতে আমরা সবাই চেষ্টা করে যাব। ঐক্য আর শক্তির মধ্য দিয়েই এই মর্যাদা ধরে রাখা সম্ভব হবে।

আলোচনায় দৈনিক সমকালের উপদেষ্টা সম্পাদক মো. আবু সাঈদ খান বলেন, ভাষা আন্দোলনের মধ্যেই ধর্মনিরপেক্ষতা ও শোষণ মুক্তির আকুতি ছিল। গণতান্ত্রিক চেতনাও ভাষা আন্দোলনের মধ্যে লুকায়িত ছিল। ১৯৫২ সালে যে আন্দোলনের সূচনা হয়েছি ১৯৭১ সালে আমরা তা অর্জন করেছিলাম। দুঃখজনক হলেও সত্য বর্তমানে সেই অর্জন অনেকটাই ছিনতাই হয়ে গেছে। এখন আগের দিনই নির্বাচনের ফলাফল লেখা হয়ে যায়। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে গণফোরাম বা কিছু বাম দল ধারণ করছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ বা বিএনপি এর ধারেকাছেও নেই।

পটুয়াখালী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. আবদুল লতিফ মাসুম বলেন, গত ১৭ বছরে ভাষা আন্দোলন ও স্বাধীনতার চেতনা ভূলুণ্ঠিত হয়েছে। প্রতিদিন হাজার হাজার কোটিপতির সংখ্যা বাড়ছে। আগে স্লোগান উঠত, ঢাকা না পিন্ডি? এখন স্লোগান উঠে, ঢাকা না দিল্লি। গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মো. মিজানুর রহমান বলেন, বায়ান্নতে একদল দামাল ছেলেরা বুকের রক্ত দিয়ে লড়াইয়ের সূচনা করেছিলেন। পাকিস্তানে ভোটাধিকার ছিল না, ভোটে জয়ী হলেও রাষ্ট্রক্ষমতা দেওয়া হয়নি, সে কারণেই আমাদের মুক্তিযুদ্ধ করতে হয়েছিল। কিন্তু আজকে নির্বাচনের নামে আওয়ামী লীগ বনাম আওয়ামী লীগ নির্বাচন হচ্ছে, হাজার হাজার মানুষকে জেলে রাখা হচ্ছে।

ছবি

বিএনপিসহ স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তিকে প্রতিহত করতে হবে : ওবায়দুল কাদের

ছবি

মুজিবনগর দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

ছবি

মনোনয়নে বিএনপি-জামায়াতের নেতারা, তবে দল দু’টির বর্জনের ঘোষণা

ছবি

আনুষ্ঠানিকভাবে উপজেলা নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা বিএনপির

ছবি

হিটলারের চেয়েও ভয়ঙ্কর নেতানিয়াহু : ওবায়দুল কাদের

ছবি

এমপি-মন্ত্রীদের হস্তক্ষেপ না করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

ফখরুলকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন ওবায়দুল কাদের

সকল ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হওয়ায় বিএনপি এখন মনগড়া তথ্য দিয়ে মিথ্যাচার করছে : ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রকে সত্যিকার অর্থে পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করেছে : মির্জা ফখরুল

ছবি

দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো না, গ্রামের মানুষ কষ্টে দিন কাটাচ্ছে

ছবি

এবারের ঈদ বাংলাদেশের মানুষের জন্য দুঃখ-কষ্ট নিয়ে এসেছে : মির্জা ফখরুল

ছবি

ঈদে মধ্যবিত্তরা মুখ লুকিয়ে কাঁদছে: রিজভী

রংপুরে পুনঃ গননা, জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহফুজার রহমানকে ৩শ ৩ ভোটে বিজয়ী ঘোষনা

ছবি

বিএনপি গণতন্ত্রের শত্রু ও আন্তর্জাতিকভাবে চিহ্নিত একটি সন্ত্রাসী দল : ওবায়দুল কাদের

ছবি

বিএনপিই এ দেশে গণতান্ত্রিক আদর্শ বাস্তবায়নের প্রধান প্রতিবন্ধক : ওবায়দুল কাদের

ছবি

রমজানে দ্রব্যমূল্যে উর্ধ্বগতি সরকারের দোষ নয় , এটা আমাদের রক্তে সমস্যা : এমপি রুমা চক্রবর্তী

ছবি

পাহাড়ে কেএনএফের সশস্ত্র তৎপরতা বিচ্ছিন্ন ঘটনা: ওবায়দুল কাদের

ছবি

সরকার নিজেই দস্যুদের মতো আচরণ করছে: রিজভী

ছবি

সকলের অংশগ্রহণে অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন নিশ্চিত করাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লক্ষ্য- অর্থ প্রতিমন্ত্রী ওয়াসিকা আয়শা খান

ছবি

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অবগত থাকলেও তাদের সম্পর্কে খোঁজখবর রাখেননি: পাহাড় নিয়ে রিজভী

ছবি

বিএনপি ক্ষমতায় গেলে গোটা বাংলাদেশ গিলে খাবে : ওবায়দুল কাদের

ছবি

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের বিভাগভিত্তিক কমিটি ঘোষণা

বিভক্ত বিএনপি : দলের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে আইনজীবী সমিতির সভাপতির দায়িত্ব নিচ্ছেন মাহবুব উদ্দীন খোকন

ছবি

বান্দরবানের বিষয়ে কঠোর অবস্থানে সরকার: সেতুমন্ত্রী

কোন্দলের শঙ্কার মধ্যেই ‘উৎসবমুখর’ উপজেলা ভোটের চ্যালেঞ্জ আ’লীগের

ছবি

ভারতীয় পণ্য বর্জনের ডাক দিয়েও বিএনপি ব্যর্থ: কাদের

আগামীকাল আওয়ামী লীগের খুলনা বিভাগের মতবিনিময় সভা

ছবি

বুয়েটে চলমান আন্দোলনে ছাত্রদলের সংহতি

ছবি

চিকিৎসা শেষে বাসায় ফিরেছেন খালেদা জিয়া

ছবি

সরকার দেশকে পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করেছে: মির্জা ফখরুল

ছবি

ঈদের আগে গার্মেন্টসসহ সকল সেক্টরের শ্রমিকদের বেতন ভাতা পরিশোধের দাবি:এবি পার্টির

ছবি

উপজেলা নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে : কাদের

ছবি

সিসিইউতে খালেদা জিয়ার অবস্থা ‘স্থিতিশীল’

রংপুরে আওয়ামী লীগের ৬ থানা কমিটির অনুমোদন দেবার ক্ষমতা খর্ব করলো দলের হাইকমান্ড

ছবি

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের খরচ পৌনে ৩ কোটি টাকা

ছবি

ছাত্র রাজনীতি অবশ্যই চাই, সমস্যা করছে ছাত্রলীগ: গয়েশ্বর

tab

রাজনীতি

এ দেশে যে কেউ যা তা করবে, সেটা হতে দেওয়া যায় না : গণফোরাম

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

দ্বিজাতিতত্ত্বের ভিত্তিতে দেশকে যে ভাগ করা হয়েছিল, তা ঠিক ছিল না বলে মন্তব্য করেছেন গণফোরামের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এস এম আলতাফ হোসেন।

তিনি বলেন, আবারও আমাদের মুক্তিযুদ্ধ করতে হয়েছে। এটা বীরের দেশ, এই বীরের দেশে যে কেউ যা তা করবে, সেটা হতে দেওয়া যায় না।

গতকাল বিকেলে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে গণফোরাম আয়োজিত ‘একুশের উত্তরাধিকার এবং আজকের উপলব্ধি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আলতাফ হোসেন বলেন, ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের যে ধারা, সেই ধারায় আমরা ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ করেছি। ইতোমধ্যে আমাদের হাজার হাজার কর্মী মৃত্যুবরণ করেছে। অনেকে আহত হয়েছেন, বিভিন্নভাবে নিহত হয়েছেন। সবারই একটা আশা ছিল এই দেশ স্বাধীনভাবে সুন্দরভাবে চলবে। কারণ আমরা যুদ্ধ করে কেউ পৈতৃক সম্পত্তি পাইনি। শ্বশুরের সম্পত্তিও পাইনি।। আমরা শুধুমাত্র যুদ্ধ করে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছি। এটা বীরের দেশ। এই বীরের দেশে যে কেউ যা তা করবে, সেটা হতে দেওয়া যায় না।

তিনি বলেন, ড. কামাল হোসেন স্যারকে সামনে রেখে বলতে চাই। আপনার এই কথা আমাদের মনে থাকবে, অসুস্থ মাকে সুস্থ করার জন্য মাঠে থাকতে হবে। আমরা এখন যারা গণফোরাম করি, তারা সবাই মাঠে থাকব এ প্রতিজ্ঞা আপনাকে দিতে পারে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণফোরামের ইমেরিটাস সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেন, রাষ্ট্রভাষা হিসেবে আমরা রক্তের বিনিময়ে যেটা প্রতিষ্ঠা করেছিলাম, তার একটা ধারাবাহিকতার মধ্য দিয়ে দিনটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এই দিনটির মর্যাদা রক্ষা করার জন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। ভাষা আন্দোলনের মধ্যে যে শক্তি ছিল, সেটাকে বজায় রাখতে আমরা সবাই চেষ্টা করে যাব। ঐক্য আর শক্তির মধ্য দিয়েই এই মর্যাদা ধরে রাখা সম্ভব হবে।

আলোচনায় দৈনিক সমকালের উপদেষ্টা সম্পাদক মো. আবু সাঈদ খান বলেন, ভাষা আন্দোলনের মধ্যেই ধর্মনিরপেক্ষতা ও শোষণ মুক্তির আকুতি ছিল। গণতান্ত্রিক চেতনাও ভাষা আন্দোলনের মধ্যে লুকায়িত ছিল। ১৯৫২ সালে যে আন্দোলনের সূচনা হয়েছি ১৯৭১ সালে আমরা তা অর্জন করেছিলাম। দুঃখজনক হলেও সত্য বর্তমানে সেই অর্জন অনেকটাই ছিনতাই হয়ে গেছে। এখন আগের দিনই নির্বাচনের ফলাফল লেখা হয়ে যায়। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে গণফোরাম বা কিছু বাম দল ধারণ করছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ বা বিএনপি এর ধারেকাছেও নেই।

পটুয়াখালী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. আবদুল লতিফ মাসুম বলেন, গত ১৭ বছরে ভাষা আন্দোলন ও স্বাধীনতার চেতনা ভূলুণ্ঠিত হয়েছে। প্রতিদিন হাজার হাজার কোটিপতির সংখ্যা বাড়ছে। আগে স্লোগান উঠত, ঢাকা না পিন্ডি? এখন স্লোগান উঠে, ঢাকা না দিল্লি। গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মো. মিজানুর রহমান বলেন, বায়ান্নতে একদল দামাল ছেলেরা বুকের রক্ত দিয়ে লড়াইয়ের সূচনা করেছিলেন। পাকিস্তানে ভোটাধিকার ছিল না, ভোটে জয়ী হলেও রাষ্ট্রক্ষমতা দেওয়া হয়নি, সে কারণেই আমাদের মুক্তিযুদ্ধ করতে হয়েছিল। কিন্তু আজকে নির্বাচনের নামে আওয়ামী লীগ বনাম আওয়ামী লীগ নির্বাচন হচ্ছে, হাজার হাজার মানুষকে জেলে রাখা হচ্ছে।

back to top