alt

রাজনীতি

মানহীন পাঠ্যপুস্তক বাতিল করতে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে : ফখরুল

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

ভুলে ভরা ‘মানহীন পাঠ্যপুস্তক’ বাতিলের দাবি জানিয়ে দেশের শিক্ষিত সমাজ ও বুদ্ধিজীবীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, ‘আজকে মূল কথা একটা- উঠে দাঁড়ান, উঠে দাঁড়াতে হবে। তা না হলে আপনাকে কেউ রক্ষা করবে না। বাইরে থেকে কেউ এসে স্যাংশন (নিষেধাজ্ঞা) দিয়ে আপনাকে রক্ষা করবে না। আপনার জন্য কেউ নতুন করে কিছু তৈরি করে দেবে না। যতক্ষণ পর্যন্ত না শিক্ষিত সমাজ, বুদ্ধিজীবী তারা রুখে না দাঁড়াচ্ছেন, মুক্তি মিলবে না- এটা ইতিহাস, এটাই ইতিহাস।’

‘মানহীন পাঠ্যপুস্তকের’ বিষয়ে কথা বলতে দেশের শিক্ষকদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আজকে আমার স্বকীয়তা, আমার স্বাতন্ত্র্য, আমার ঐতিহ্য, আমার কৃষ্টি, আমার সংস্কৃতিকে রক্ষা করবার জন্য আমি কেন উঠে দাঁড়াচ্ছি না। কথা বলতে হবে। বিএনপির শিক্ষা বিভাগ ও ইউনিভার্সিটি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইউট্যাব) এই কাজটি করছে। এই প্রতিবাদগুলোকে সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে হবে।’

‘আজ পাঠ্যপুস্তকে অজস্র ভুলে ভরা ইতিহাস ও তথ্য সংযোজন করা হয়েছে। আর সেগুলোই নতুন প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের শেখানো হচ্ছে। যারা কারিকুলাম তৈরি করেন কেউ কিন্তু ভাবেন না যে ছেলেমেয়েরা কী শিখছে? জাতির মূল জায়গা হলো শিক্ষা। আর সেখানেই হাত দিয়েছে সরকার। এতক্ষণে অরিন্দম কহিলা বিষাদে।’

বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে বিএনপি ও ইউনিভার্সিটি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ইউট্যাব) যৌথ উদ্যোগে ‘অপরিণামদর্শী কারিকুলাম ও মানহীন পাঠ্যপুস্তক- দেশের ইতিহাস, ঐহিত্য ও সংস্কৃতি ধ্বংসের নীলনকশা’ শীর্ষক এক আলোচনাসভায় এসব কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে ব্যর্থ করতে শিক্ষাব্যবস্থায় হাত দিয়েছে। কেউ কিন্তু কোন প্রতিবাদ করছে না। আমাদের তো আলাদা সংস্কৃতি, ঐতিহ্য এবং পরিচয় আছে। সত্যকে সত্য ও মিথ্যাকে মিথ্যা বলতে ভয় কেন? আজ শিশুদের ভ্রান্ত ধারণা ও ইতিহাস শিক্ষা দিচ্ছে। আজ আমাদের পরিচয় ভুলিয়ে দিতে চায়। এই চক্রান্তের বিরুদ্ধে জেগে উঠতে হবে। এটা জাতির অস্তিত্বের লড়াই। আসুন সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে যাই।

তিনি বলেন, সরকার আমাদের পাল্টে দিতে চায়। যার প্রমাণ এই পাঠ্যপুস্তকে ইতিহাস বিকৃতি ও ভুল তথ্য সংযোজন। আজ যেসব সন্তান যারা প্রাথমিক শিক্ষা নেয় সেটা তার সারাজীবনের জন্য থেকে যায়। এই শিক্ষাকে পুঁজি করে সামনের দিকে এগিয়ে যায়। প্রাথমিক বিদ্যালয় হলো শিক্ষার মূল। দুর্ভাগ্যবশত এখনও আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। যদিও পাকিস্তান আমলেও এ ধরনের পরীক্ষা ও বিভিন্ন শিক্ষা কমিশন গঠন করা হয়েছিল। শুধু বারবার পরীক্ষা ও শিক্ষানীতি হচ্ছে। এখনও সেটা চলছে।

তিনি আরও বলেন, সরকার যা খুশি তাই করছে। দিনকে রাত আর রাতকে দিন বলছে। মুরগির ডিমকে অশ্বডিম্ব বলছে। আমরা যেন কেউ বেঁচে নেই। ঘা দিয়েও বাঁচানো যাচ্ছে না। আমাদের তো জেগে উঠতেই হবে। আমার স্বকীয়তা ও ইতিহাস-ঐতিহ্য রক্ষার জন্য জেগে উঠতেই হবে। ভুলে ভরা পাঠ্যবই অবিলম্বে বাতিল করতে হবে।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ইউট্যাবের সভাপতি এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম। সংগঠনটির মহাসচিব মোর্শেদ হাসান খান ও হেলেন জেরিন খানের পরিচালনায় সভায় সংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম ও শাহ শামীম আহমেদ। তারা ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণীর বিভিন্ন পাঠ্যবইয়ের কার্বন-ডাই-অক্সাইড, মানুষের উৎপত্তি নিয়ে বিতর্কিত তত্ত্বসহ বেশকিছু বইয়ের অসংখ্য ভুল এবং অসত্য তথ্য তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন পেশাজীবী পরিষদের আহ্বায়ক এ জেড এম জাহিদ হোসেন, তাজমেরী এস ইসলাম, নূরুল আমিন বেপারী, আবদুল করিম, লুৎফর রহমান, গোলাম হাফিজ কেনেডি, মোহাম্মদ ছিদ্দিকুর রহমান খান, কাদের গণি চৌধুরী, মো. জাকির হোসেন, মো. আল আমিন, শামসুল আলম সেলিম, কামরুল আহসান, নূরুল ইসলাম, মামুনুর রশিদ, আবুল হাসনাত মোহাম্মদ শামীম, মাসুদুল হাসান, শফিকুল ইসলাম, শরিফুল করিম, শের মাহমুদ, তৌফিকুল ইসলাম মিথিল প্রমুখ।

ছবি

‘যত কঠোর হওয়া দরকার আমরা হবো’: কাদের

ছবি

বিএনপি নেতারা নিজেদের মুখ রক্ষায় অসংলগ্ন কথা বলছেন

ছবি

একুশের চেতনা গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন তীব্রতর করবে: মির্জা ফখরুল

ছবি

মিউনিখে সাহসী কূটনীতি দেখিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী: ওবায়দুল কাদের

ছবি

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বিএনপির কর্মসূচি ঘোষণা আওয়ামী লীগ এখন বন্দুকনির্ভর দলে পরিণত হয়েছে: রিজভী

ছবি

কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন মির্জা আব্বাস

ছবি

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের নারী আসন ৫০ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ

ছবি

সভ্যতার জন্য বৈরী সংগঠন ছাত্রলীগ : রিজভী

ছবি

বিএনপির শীর্ষ ৭ আইনজীবীর আদালত অবমাননার শুনানি দুই মাস পেছাল

ছবি

বিরোধী দল নিষিদ্ধ করতে চায় আওয়ামী লীগ: মঈন খান

ছবি

আরেক মামলায় মির্জা আব্বাসের জামিন

ছবি

জাতি ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর অবদান শ্রদ্ধাভরে স্মরণ রাখবে

ছবি

সংরক্ষিত ৪৮ আসনে আ. লীগের মনোনয়নপত্র জমা

ছবি

তারেক রহমান বিএনপিকে ধ্বংস করছে : নানক

ছবি

নির্বাচনে অংশ নিয়ে গণতন্ত্রকে বাঁচিয়েছি: চুন্নু

ছবি

স্বাধীনতার মূল আদর্শে আওয়ামী লীগ আঘাত করেছে : মঈন খান

ছবি

৯ মার্চ জাতীয় পার্টির কাউন্সিল ঘোষণা করলেন রওশন

ছবি

নারায়ণগঞ্জ আ. লীগ : আনোয়ারের কমিটি, অবাঞ্ছিত ঘোষণা আইভীর

ছবি

দেশে বিএনপির চেয়ে বড় উগ্রবাদী কারা, প্রশ্ন ওবায়দুল কাদেরের

ছবি

এ দেশে যে কেউ যা তা করবে, সেটা হতে দেওয়া যায় না : গণফোরাম

ছবি

ক্ষমতা হারানোর ভয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে আওয়ামী লীগ : ফখরুল

ছবি

কৌশল পরিবর্তন করে আবার ঘুরে দাড়াতে চায় বিএনপি

ছবি

ইউনূসে সরকারের কোনো হাত নেই : আইনমন্ত্রী

ছবি

রোজায় পণ্যের সংকট হবে না, বেঁধে দেওয়া হবে তেলের দাম: প্রতিমন্ত্রী

ছবি

ফখরুল আবারও দিবাস্বপ্নে বিভোর : কাদের

ছবি

নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্ঘন: এমপি মহিউদ্দিন বাচ্চুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

ছবি

ফখরুল-খসরুর মুক্তি, বললেন তাদের কোন ক্ষতি হয়নি

ছবি

সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিলে শহীদুজ্জামান সরকার

ছবি

বিএনপি নেতা অ্যানি কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন

ছবি

কারামুক্ত ফখরুল ও খসরু

ছবি

১০৮ দিন পর জামিনে মুক্ত হলেন মির্জা ফখরুল

ছবি

বিকেলে কারামুক্তি পেতে পারেন ফখরুল-খসরু

ছবি

বিএনপিকে নিষিদ্ধ করার চিন্তা আ.লীগ এখনো করেনি: ওবায়দুল কাদের

ছবি

কোন উপজেলায় কবে ভোট: ইসি

ছবি

আ’লীগের সংরক্ষিত এমপি, অধিকাংশই নতুন মুখ

ছবি

সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

tab

রাজনীতি

মানহীন পাঠ্যপুস্তক বাতিল করতে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে : ফখরুল

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

ভুলে ভরা ‘মানহীন পাঠ্যপুস্তক’ বাতিলের দাবি জানিয়ে দেশের শিক্ষিত সমাজ ও বুদ্ধিজীবীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, ‘আজকে মূল কথা একটা- উঠে দাঁড়ান, উঠে দাঁড়াতে হবে। তা না হলে আপনাকে কেউ রক্ষা করবে না। বাইরে থেকে কেউ এসে স্যাংশন (নিষেধাজ্ঞা) দিয়ে আপনাকে রক্ষা করবে না। আপনার জন্য কেউ নতুন করে কিছু তৈরি করে দেবে না। যতক্ষণ পর্যন্ত না শিক্ষিত সমাজ, বুদ্ধিজীবী তারা রুখে না দাঁড়াচ্ছেন, মুক্তি মিলবে না- এটা ইতিহাস, এটাই ইতিহাস।’

‘মানহীন পাঠ্যপুস্তকের’ বিষয়ে কথা বলতে দেশের শিক্ষকদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আজকে আমার স্বকীয়তা, আমার স্বাতন্ত্র্য, আমার ঐতিহ্য, আমার কৃষ্টি, আমার সংস্কৃতিকে রক্ষা করবার জন্য আমি কেন উঠে দাঁড়াচ্ছি না। কথা বলতে হবে। বিএনপির শিক্ষা বিভাগ ও ইউনিভার্সিটি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইউট্যাব) এই কাজটি করছে। এই প্রতিবাদগুলোকে সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে হবে।’

‘আজ পাঠ্যপুস্তকে অজস্র ভুলে ভরা ইতিহাস ও তথ্য সংযোজন করা হয়েছে। আর সেগুলোই নতুন প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের শেখানো হচ্ছে। যারা কারিকুলাম তৈরি করেন কেউ কিন্তু ভাবেন না যে ছেলেমেয়েরা কী শিখছে? জাতির মূল জায়গা হলো শিক্ষা। আর সেখানেই হাত দিয়েছে সরকার। এতক্ষণে অরিন্দম কহিলা বিষাদে।’

বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে বিএনপি ও ইউনিভার্সিটি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ইউট্যাব) যৌথ উদ্যোগে ‘অপরিণামদর্শী কারিকুলাম ও মানহীন পাঠ্যপুস্তক- দেশের ইতিহাস, ঐহিত্য ও সংস্কৃতি ধ্বংসের নীলনকশা’ শীর্ষক এক আলোচনাসভায় এসব কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে ব্যর্থ করতে শিক্ষাব্যবস্থায় হাত দিয়েছে। কেউ কিন্তু কোন প্রতিবাদ করছে না। আমাদের তো আলাদা সংস্কৃতি, ঐতিহ্য এবং পরিচয় আছে। সত্যকে সত্য ও মিথ্যাকে মিথ্যা বলতে ভয় কেন? আজ শিশুদের ভ্রান্ত ধারণা ও ইতিহাস শিক্ষা দিচ্ছে। আজ আমাদের পরিচয় ভুলিয়ে দিতে চায়। এই চক্রান্তের বিরুদ্ধে জেগে উঠতে হবে। এটা জাতির অস্তিত্বের লড়াই। আসুন সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে যাই।

তিনি বলেন, সরকার আমাদের পাল্টে দিতে চায়। যার প্রমাণ এই পাঠ্যপুস্তকে ইতিহাস বিকৃতি ও ভুল তথ্য সংযোজন। আজ যেসব সন্তান যারা প্রাথমিক শিক্ষা নেয় সেটা তার সারাজীবনের জন্য থেকে যায়। এই শিক্ষাকে পুঁজি করে সামনের দিকে এগিয়ে যায়। প্রাথমিক বিদ্যালয় হলো শিক্ষার মূল। দুর্ভাগ্যবশত এখনও আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। যদিও পাকিস্তান আমলেও এ ধরনের পরীক্ষা ও বিভিন্ন শিক্ষা কমিশন গঠন করা হয়েছিল। শুধু বারবার পরীক্ষা ও শিক্ষানীতি হচ্ছে। এখনও সেটা চলছে।

তিনি আরও বলেন, সরকার যা খুশি তাই করছে। দিনকে রাত আর রাতকে দিন বলছে। মুরগির ডিমকে অশ্বডিম্ব বলছে। আমরা যেন কেউ বেঁচে নেই। ঘা দিয়েও বাঁচানো যাচ্ছে না। আমাদের তো জেগে উঠতেই হবে। আমার স্বকীয়তা ও ইতিহাস-ঐতিহ্য রক্ষার জন্য জেগে উঠতেই হবে। ভুলে ভরা পাঠ্যবই অবিলম্বে বাতিল করতে হবে।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ইউট্যাবের সভাপতি এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম। সংগঠনটির মহাসচিব মোর্শেদ হাসান খান ও হেলেন জেরিন খানের পরিচালনায় সভায় সংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম ও শাহ শামীম আহমেদ। তারা ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণীর বিভিন্ন পাঠ্যবইয়ের কার্বন-ডাই-অক্সাইড, মানুষের উৎপত্তি নিয়ে বিতর্কিত তত্ত্বসহ বেশকিছু বইয়ের অসংখ্য ভুল এবং অসত্য তথ্য তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন পেশাজীবী পরিষদের আহ্বায়ক এ জেড এম জাহিদ হোসেন, তাজমেরী এস ইসলাম, নূরুল আমিন বেপারী, আবদুল করিম, লুৎফর রহমান, গোলাম হাফিজ কেনেডি, মোহাম্মদ ছিদ্দিকুর রহমান খান, কাদের গণি চৌধুরী, মো. জাকির হোসেন, মো. আল আমিন, শামসুল আলম সেলিম, কামরুল আহসান, নূরুল ইসলাম, মামুনুর রশিদ, আবুল হাসনাত মোহাম্মদ শামীম, মাসুদুল হাসান, শফিকুল ইসলাম, শরিফুল করিম, শের মাহমুদ, তৌফিকুল ইসলাম মিথিল প্রমুখ।

back to top