alt

সাময়িকী

তাপস গায়েনের কবিতা

: সোমবার, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

[চার]
অন্ধ আত্মমগ্নতায় খুঁজে ফিরি নারীর শরীর

সুবাতাস ফিরে যায়, ব্যর্থ হয়ে ফিরে ফিরে যায়

থির গাঙের শুশুক ব্যাকুল ভাদ্রের ভরা জলে

এ কী অস্থির কৌতুক নিরন্তর আমাকে ভাবায়

[পাঁচ]
শুধু ব্যর্থ দগ্ধ সিগারেট! এ কি দাহ না উৎসব

না কি রঙধনু ছুঁয়ে ক্রমাগত স্মৃতি পারাপার

তোমার নিশ্চুপ হাতে ঝরেছিল আলোর সরণি

দেহ আর দ্রোহ নিয়ে নিঃশব্দ আমার করতালি

[সাত]
জলের প্রবাহে আছি। এই নগ্নরূপে বহুদিন

শূন্যে ভেসে গেছে ঘুড়ি। এইভাবে কে কী নিয়ে যায়

যৌবন মেধাবী জানি। জলে শুধু নিরন্তর ঢেউ

দেহের পুরাণ আছে। কেন আমি নিশ্চল পাথর

[আট]
বরফ হয়েছ তুমি! কেনো, তরল দেখোনি বলে

এসো ভাসি অবেলায়। এইভাবে হাত রাখো হাতে

জলে ঠোঁট রেখে বুঝি, আমি নই সহজ সরল

খুব বৃষ্টি শেষে বলে ওঠো তুমি, হয়েছি তরল

[নয়]
শব্দের কিনারে আছি। দূর সমুদ্রে জাহাজের ভোঁ

ফাৎনায় মুহূর্ত কাঁপে। ঝরে পড়ে অস্থির সময়

ব্যর্থ বায়ু ফিরে যায়; খুঁজে যায় ব্যথিত বলয়

প্রবল বাতাসে ঈশ্বর কি কাঁপে ফাৎনার ডগায়

[দশ]
ইতিহাসের মূঢ়তা শিখেছে কি একাকী মানুষ

তবে জটিল জল্পনা কেন বুনো জলের সারল্যে

বুর্জোয়া স্বভাবে নেই কোনো জলজ বৃত্তের ভঙ্গি

মুক্তির আনন্দ লিখে রেখো দেহের গোপন ভাঁজে

[এগারো]
স্তন-যোনি-জানু নিয়ে খেলা। এই খেলা বহুদিন

শৈশবের দিন ফেলে আমি আছি উন্মুল জীবনে

অনতি অতীত থেকে উঠে আসে সাহসী মানুষ

আমি এক পোড়াকাঠ, ভেসেছি দূরতর অতীতে

[বারো]
লিখো নাম অবিরাম সহজ জলের কলস্বরে

দাও উড়িয়ে বুদ্বুদে জরা দাহ দেহের সন্তাপ

ছোট বড় ঢেউ সব মুছে দেয় নাম অবিরাম

খুব বেশি নগ্ন হয়ে ভাবি- শৈশব কি শুধু স্মৃতি

ছবি

এক অখ্যাত কিশোরের মুক্তিযুদ্ধ

ছবি

শিকিবু

ছবি

ব্রুকলিন ব্রিজ

ছবি

বঙ্গবন্ধুর স্বাস্থ্য ভাবনা

ছবি

সাময়িকী কবিতা

ছবি

সাহিত্যের ভাষা, ভাব ও রচনারীতি প্রসঙ্গে

ছবি

সাযুজ্য : অগ্রজ নোবেল লরিয়েট

ছবি

আব্দুলরাজাক গুরনাহ

ছবি

গুরনাহর উপন্যাসে ঔপনিবেশিকতা বাস্তুচ্যুতি ও অভিবাসী জীবনের ট্রমা

ছবি

শিকিবু

সাময়িকী কবিতা

ছবি

এক অখ্যাত কিশোরের মুক্তিযুদ্ধ

ছবি

ইকরাম কবীর নিজেই নিজের গল্পের প্রেরণা

ছবি

বাউল, বাউলেশ্বর আর বাউলবিদ্বেষের অজান খবর

ছবি

চৌধুরী সালাহউদ্দীন মাহমুদের জীবনানন্দ ভ্রমণ

ছবি

খানসামা

ছবি

মোরগের ডাক

ছবি

নিরন্তর ধুলা ওড়ে

ছবি

ঘুণপোকা

ছবি

শামীম আজাদ-এর কবিতা

ছবি

এক অখ্যাত কিশোরের মুক্তিযুদ্ধ

ছবি

করোনার টুকরো খবর

সাময়িকী কবিতা

ছবি

অঘ্রানের গন্ধের মতন : শাহিদ আনোয়ারের কবিতা

ছবি

শাহিদ আনোয়ার ও তাঁর কবিতা

ছবি

তাঁর দীর্ঘ ছায়া

ছবি

‘মেঘের ভিতরে তুমি দ্যাখো কোন পাখির চককর?’

ছবি

বানিয়ে বলা গল্পই হলো অমূল্য সম্ভার

ছবি

নব্বইয়ের দশকের কবিতা: বিশেষত্ব, বৈশিষ্ট্য ও সৃষ্টিশৈলী

ছবি

শিকিবু

ছবি

কবিতায় যখন অন্ত্যজ মানুষের কথা

ছবি

এক অখ্যাত কিশোরের মুক্তিযুদ্ধ

ছবি

ছলম

ছবি

তারাশঙ্করের ‘কবি’ এবং উত্তরহীন অনন্ত জিজ্ঞাসা

ছবি

রবীন্দ্রনাথ ও মানবতা

ছবি

বাংলা ভাষার নব্বইয়ের দশকের প্রধান কবিদের কবিতা

tab

সাময়িকী

তাপস গায়েনের কবিতা

সোমবার, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

[চার]
অন্ধ আত্মমগ্নতায় খুঁজে ফিরি নারীর শরীর

সুবাতাস ফিরে যায়, ব্যর্থ হয়ে ফিরে ফিরে যায়

থির গাঙের শুশুক ব্যাকুল ভাদ্রের ভরা জলে

এ কী অস্থির কৌতুক নিরন্তর আমাকে ভাবায়

[পাঁচ]
শুধু ব্যর্থ দগ্ধ সিগারেট! এ কি দাহ না উৎসব

না কি রঙধনু ছুঁয়ে ক্রমাগত স্মৃতি পারাপার

তোমার নিশ্চুপ হাতে ঝরেছিল আলোর সরণি

দেহ আর দ্রোহ নিয়ে নিঃশব্দ আমার করতালি

[সাত]
জলের প্রবাহে আছি। এই নগ্নরূপে বহুদিন

শূন্যে ভেসে গেছে ঘুড়ি। এইভাবে কে কী নিয়ে যায়

যৌবন মেধাবী জানি। জলে শুধু নিরন্তর ঢেউ

দেহের পুরাণ আছে। কেন আমি নিশ্চল পাথর

[আট]
বরফ হয়েছ তুমি! কেনো, তরল দেখোনি বলে

এসো ভাসি অবেলায়। এইভাবে হাত রাখো হাতে

জলে ঠোঁট রেখে বুঝি, আমি নই সহজ সরল

খুব বৃষ্টি শেষে বলে ওঠো তুমি, হয়েছি তরল

[নয়]
শব্দের কিনারে আছি। দূর সমুদ্রে জাহাজের ভোঁ

ফাৎনায় মুহূর্ত কাঁপে। ঝরে পড়ে অস্থির সময়

ব্যর্থ বায়ু ফিরে যায়; খুঁজে যায় ব্যথিত বলয়

প্রবল বাতাসে ঈশ্বর কি কাঁপে ফাৎনার ডগায়

[দশ]
ইতিহাসের মূঢ়তা শিখেছে কি একাকী মানুষ

তবে জটিল জল্পনা কেন বুনো জলের সারল্যে

বুর্জোয়া স্বভাবে নেই কোনো জলজ বৃত্তের ভঙ্গি

মুক্তির আনন্দ লিখে রেখো দেহের গোপন ভাঁজে

[এগারো]
স্তন-যোনি-জানু নিয়ে খেলা। এই খেলা বহুদিন

শৈশবের দিন ফেলে আমি আছি উন্মুল জীবনে

অনতি অতীত থেকে উঠে আসে সাহসী মানুষ

আমি এক পোড়াকাঠ, ভেসেছি দূরতর অতীতে

[বারো]
লিখো নাম অবিরাম সহজ জলের কলস্বরে

দাও উড়িয়ে বুদ্বুদে জরা দাহ দেহের সন্তাপ

ছোট বড় ঢেউ সব মুছে দেয় নাম অবিরাম

খুব বেশি নগ্ন হয়ে ভাবি- শৈশব কি শুধু স্মৃতি

back to top