alt

ক্যাম্পাস

আ.লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে জবিশিসের ৫ প্রস্তাবনা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি : সোমবার, ২৭ নভেম্বর ২০২৩

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশি-বিদেশি শিক্ষক, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনকে উচ্চশিক্ষা কমিশনে রূপান্তরের দাবিসহ ৫ প্রস্তাবনা দিয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (জবিশিস)।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) জবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আইনুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. একেএম লুৎফর রহমান স্বাক্ষরিত এসব প্রস্তাবনা আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার প্রণয়ন কমিটি-২০২৩ এর আহবায়ক ড. মো. আব্দুর রাজ্জাককে পাঠানো হয়েছে।

প্রস্তাবনায় শিক্ষক নেতারা উল্লেখ করেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘শিক্ষা প্রদানের জন্য জাপানের সম্রাট মেইজির মত আমাদেরকেও আজকের প্রয়োজন মেটাতে বিদেশ থেকে শিক্ষক নিয়ে আসতে হবে।’ প্রধানমন্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয় গুলোকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেই এই কথা বলেছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশি-বিদেশি শিক্ষক থাকবে, আন্তর্জাতিক কোলেবরেশনে কাজ হবে এটাই স্বাভাবিক। এলক্ষে ইশতিহারে কিছু নির্দেশনা থাকা দরকার বলে আমরা মনে করি।

প্রস্তাবনায় বলা হয়, শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে বাজেট বরাদ্দ বাড়লেও আনুপাতিক হারে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর তুলনায় বাংলাদেশের শিক্ষার সার্বিক মান উন্নয়নে শিক্ষায় বরাদ্দ আরো বাড়ানো প্রয়োজন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি মনে করে একটি বুদ্ধিদীপ্ত, উদ্ভাবনী ও সৃষ্টিশীল জাতি বিনির্মাণের লক্ষ্যকে সামনে রেখে টেকসই উন্নয়ন ও মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক মানদন্ড অনুযায়ী জাতীয় বাজেটের ২০% এবং জিডিপির ৫ থেকে ৬% শিক্ষা খাতে ব্যয় করা দরকার। এই ব্যাপারে ইশতিহারে সুনির্দিষ্ট ঘোষণা থাকলে দেশবাসীসহ দেশের সর্ব পর্যায়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অনেক বেশি আশাবাদী হবেন।

আরও বলা হয়, উচ্চশিক্ষার মানকে বিশ্বমানে উন্নীত করার লক্ষে বর্তমান ‘বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন’কে ‘উচ্চশিক্ষা কমিশনে’ রূপান্তর করা সময়ের দাবি।

প্রস্তাবনায় বলা হয়, দেশের সকল পর্যায়ের প্রাথমিক থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জন্য স্বতন্ত্র বেতন স্কেল বাস্তবায়ন করে যোগ্য দক্ষ ও অধিকতর মেধাবীদের শিক্ষাকতা পেশায় আকৃষ্ট করার প্রতিশ্রুতি থাকা জরুরি বলে মনে করি।

আরও বলা হয়, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে মানসম্মত গবেষণা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া জরুরি। দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পোস্ট-ডক পজিশন, আর.এ.টি.এ. পজিশন চালু করা দরকার এজন্য বাজেটে সুনির্দিষ্ট বরাদ্দ রাখার প্রস্তাব করছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সুযোগ সুবিধা বাড়িয়ে মেধাবিদের শিক্ষকতায় আকৃষ্ট করতে হবে।

প্রস্তাবনায় বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীর জন্য মানসম্মত আবাসিক সুবিধা নিশ্চিত করার দরকার। সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য উন্নত বিশ্বেরমত চাহিদা অনুযায়ী ঋণ (সফট লোন) সুবিধা প্রদানের বিষয়টি ইশতেহারে থাকা জরুরি যাতে গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীরা এই সুবিধার আওতায় একটি মানসম্মত উচ্চ শিক্ষা অর্জন করতে পারে।

এবিষয়ে জবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. একেএম লুৎফর রহমান বলেন, উচ্চশিক্ষার মান উন্নয়নে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে দেশি-বিদেশি শিক্ষক প্রয়োজন। আর এজন্য প্রয়োজন শিক্ষাক্ষেত্রে আমাদের বাজেট আরও বৃদ্ধি করা। অন্যান্য দেশে শিক্ষার্থীদের জন্যে সফট লোনের ব্যবস্থা থাকে, চাকরি পেয়ে তারা পরিশোধ করে। আমাদের দেশে সে সুবিধা নেই। আমরা চাই আমাদের দেশের দরিদ্র শিক্ষার্থীদের জন্য এই সুবিধাটা চালু করা হোক। সর্বোপরি আমরা শিক্ষার মানোন্নয়নে বেশ কিছু প্রস্তাবনা দিয়েছি যেন তা নির্বাচনী ইশতেহারে থাকে।

জবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আইনুল ইসলাম বলেন, দেশ স্বাধীনের পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শিক্ষাক্ষেত্রে বড় একটি বাজেট দিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা যেন শিক্ষাক্ষেত্রে গুরুত্ব দিয়ে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করে সেজন্যই আমরা বেশ কিছু প্রস্তাবনা পাঠিয়েছি।

ছবি

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে জবিতে আন্তর্জাতিক সেমিনার

ছবি

নতুন ক্যাম্পাসের ঘাট ও এক ভবন নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

ছবি

বাধঁন জবি ইউনিটের নেতৃত্বে বিজয়-মেহেদী

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে নানান অসঙ্গতি

ছবি

ঢাবিতে ছাত্রলীগ নেতার কক্ষ থেকে অস্ত্র উদ্ধার, প্রাধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগ

ছবি

গুচ্ছ ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদনের সময় বাড়ল

ছবি

শেষ হলো ঢাবির ‘সি’ ইউনিটের পরীক্ষা

আজ শুরু হলো জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিযুদ্ধ, আসন প্রতি লড়বে ১০৮ জন

ছবি

জবি শিক্ষকদের রুমে লুকিয়ে চিঠি, আটকের পর জানা গেল হিযবুত তাহরীর সদস্য

ছবি

জবিতে শহীদ দিবস উপলক্ষ্যে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

রাবির হল প্রাধ্যক্ষকে ছাত্রলীগ নেতার হুমকি, কক্ষ সিলগালা

ছবি

জবির প্রক্টরিয়াল বডিতে নতুন দুই মুখ

ছবি

পাঁচ দফা দাবিতে জাবিতে নিপীড়নবিরোধী মঞ্চের মশাল মিছিল

ছবি

জবির নতুন প্রক্টর অধ্যাপক জাহাঙ্গীর

ছবি

জবি ছাত্রলীগের মারামারির দুই মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ২১ মার্চ

ছবি

রাবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় শিক্ষক দিবস পালিত

ছবি

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি মুছে ফেলার প্রতিবাদে দ্বিতীয় দিনেও আমরণ অনশনে জাবির ২ ছাত্রলীগ নেতা

ছবি

জবিতে জাতীয় স্নাতক গণিত অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত

ছবি

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি মুছে ফেলার প্রতিবাদে ছাত্রলীগ নেতার আমরণ অনশন

ছবি

জবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত অন্তত ১০

ছবি

জবিতে সরস্বতী পূজায় নারী পুরোহিত

ঢাবিতে ক্যান্টিন মালিকের দাড়ি ছিঁড়ে ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

ছবি

৩৬ পূজামণ্ডপে হবে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সরস্বতী পূজা

ঢাবি সাংবাদিকের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইলেন দুই ছাত্রলীগ নেতা

ছবি

জাবিতে পাঁচ দফা দাবিতে প্রতীকী অবরোধ

ঢাবি অধ্যাপকের বিরুদ্ধে যৌন ইঙ্গিতপূর্ণ কথা ও গোপন ক্যামেরায় ছাত্রীকে নজরদারির অভিযোগ

ছবি

দিনব্যাপী নানা আয়োজনে উন্মুক্ত লাইব্রেরির দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

ছবি

শিক্ষার্থীদের মনোজগতে মানবিক বাংলাদেশ সৃষ্টির আগ্রহ তৈরি করা জরুরি: উপাচার্য মশিউর রহমান

মোটরসাইকেলের হর্ন না শুনায় শিক্ষার্থীকে জবি ছাত্রলীগ নেতার মারধর

ছবি

আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় জুডোতে স্বর্ণপদক পেলেন জবি শিক্ষার্থী ইমন

ছবি

জবি চলচ্চিত্র সংসদের নেতৃত্বে সৈকত-রিক

ছবি

জবিতে পঞ্চম আবৃত্তি উৎসব অনুষ্ঠিত

ছবি

জাবিতে ধর্ষণের প্রতিবাদের নতুন প্ল্যাটফর্ম ‘নিপীড়নবিরোধী মঞ্চ’

ছবি

অবৈধভাবে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের ৫ দিনের মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ

ছবি

জবির প্রক্টরিয়াল বডিতে বড় পরিবর্তন

জাবিতে ধর্ষণের ঘটনায় ৬ জনের সনদ স্থগিত, বহিষ্কৃত ৩

tab

ক্যাম্পাস

আ.লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে জবিশিসের ৫ প্রস্তাবনা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

সোমবার, ২৭ নভেম্বর ২০২৩

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশি-বিদেশি শিক্ষক, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনকে উচ্চশিক্ষা কমিশনে রূপান্তরের দাবিসহ ৫ প্রস্তাবনা দিয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (জবিশিস)।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) জবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আইনুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. একেএম লুৎফর রহমান স্বাক্ষরিত এসব প্রস্তাবনা আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার প্রণয়ন কমিটি-২০২৩ এর আহবায়ক ড. মো. আব্দুর রাজ্জাককে পাঠানো হয়েছে।

প্রস্তাবনায় শিক্ষক নেতারা উল্লেখ করেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘শিক্ষা প্রদানের জন্য জাপানের সম্রাট মেইজির মত আমাদেরকেও আজকের প্রয়োজন মেটাতে বিদেশ থেকে শিক্ষক নিয়ে আসতে হবে।’ প্রধানমন্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয় গুলোকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেই এই কথা বলেছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশি-বিদেশি শিক্ষক থাকবে, আন্তর্জাতিক কোলেবরেশনে কাজ হবে এটাই স্বাভাবিক। এলক্ষে ইশতিহারে কিছু নির্দেশনা থাকা দরকার বলে আমরা মনে করি।

প্রস্তাবনায় বলা হয়, শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে বাজেট বরাদ্দ বাড়লেও আনুপাতিক হারে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর তুলনায় বাংলাদেশের শিক্ষার সার্বিক মান উন্নয়নে শিক্ষায় বরাদ্দ আরো বাড়ানো প্রয়োজন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি মনে করে একটি বুদ্ধিদীপ্ত, উদ্ভাবনী ও সৃষ্টিশীল জাতি বিনির্মাণের লক্ষ্যকে সামনে রেখে টেকসই উন্নয়ন ও মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক মানদন্ড অনুযায়ী জাতীয় বাজেটের ২০% এবং জিডিপির ৫ থেকে ৬% শিক্ষা খাতে ব্যয় করা দরকার। এই ব্যাপারে ইশতিহারে সুনির্দিষ্ট ঘোষণা থাকলে দেশবাসীসহ দেশের সর্ব পর্যায়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অনেক বেশি আশাবাদী হবেন।

আরও বলা হয়, উচ্চশিক্ষার মানকে বিশ্বমানে উন্নীত করার লক্ষে বর্তমান ‘বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন’কে ‘উচ্চশিক্ষা কমিশনে’ রূপান্তর করা সময়ের দাবি।

প্রস্তাবনায় বলা হয়, দেশের সকল পর্যায়ের প্রাথমিক থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জন্য স্বতন্ত্র বেতন স্কেল বাস্তবায়ন করে যোগ্য দক্ষ ও অধিকতর মেধাবীদের শিক্ষাকতা পেশায় আকৃষ্ট করার প্রতিশ্রুতি থাকা জরুরি বলে মনে করি।

আরও বলা হয়, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে মানসম্মত গবেষণা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া জরুরি। দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পোস্ট-ডক পজিশন, আর.এ.টি.এ. পজিশন চালু করা দরকার এজন্য বাজেটে সুনির্দিষ্ট বরাদ্দ রাখার প্রস্তাব করছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সুযোগ সুবিধা বাড়িয়ে মেধাবিদের শিক্ষকতায় আকৃষ্ট করতে হবে।

প্রস্তাবনায় বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীর জন্য মানসম্মত আবাসিক সুবিধা নিশ্চিত করার দরকার। সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য উন্নত বিশ্বেরমত চাহিদা অনুযায়ী ঋণ (সফট লোন) সুবিধা প্রদানের বিষয়টি ইশতেহারে থাকা জরুরি যাতে গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীরা এই সুবিধার আওতায় একটি মানসম্মত উচ্চ শিক্ষা অর্জন করতে পারে।

এবিষয়ে জবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. একেএম লুৎফর রহমান বলেন, উচ্চশিক্ষার মান উন্নয়নে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে দেশি-বিদেশি শিক্ষক প্রয়োজন। আর এজন্য প্রয়োজন শিক্ষাক্ষেত্রে আমাদের বাজেট আরও বৃদ্ধি করা। অন্যান্য দেশে শিক্ষার্থীদের জন্যে সফট লোনের ব্যবস্থা থাকে, চাকরি পেয়ে তারা পরিশোধ করে। আমাদের দেশে সে সুবিধা নেই। আমরা চাই আমাদের দেশের দরিদ্র শিক্ষার্থীদের জন্য এই সুবিধাটা চালু করা হোক। সর্বোপরি আমরা শিক্ষার মানোন্নয়নে বেশ কিছু প্রস্তাবনা দিয়েছি যেন তা নির্বাচনী ইশতেহারে থাকে।

জবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আইনুল ইসলাম বলেন, দেশ স্বাধীনের পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শিক্ষাক্ষেত্রে বড় একটি বাজেট দিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা যেন শিক্ষাক্ষেত্রে গুরুত্ব দিয়ে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করে সেজন্যই আমরা বেশ কিছু প্রস্তাবনা পাঠিয়েছি।

back to top