alt

ক্যাম্পাস

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

চাকরি প্রার্থীদের আটকে রেখে মারধর, ছাত্রলীগের সভাপতিসহ ৬ জনকে আসামি করে মামলা

যশোর অফিস : শুক্রবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) লিফট অপারেটরের নিয়োগ পরীক্ষা দিতে এসে ১৭ চাকরি প্রার্থীকে অপহরণের ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে বিশ^বিদ্যালয় ছাত্রলীগের ৬ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে যশোর কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী আরাফাত হোসেন। অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে আরও ৫-৬ জনকে। তবে ঘটনার সঙ্গে জড়িত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

এদিকে আসামিদের আটকের জন্যে গত বৃহস্পতিবার রাত দুইটার দিকে পুলিশ বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মসিয়ূর রহমান ছাত্র হলে অভিযানে গেলে হলের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় তার দলীয় স্লোগান দিতে থাকে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে লিফট অপারেটর পদে চাকরি পরীক্ষা দিতে ক্যাম্পাসে গেলে শহীদ মসিয়ূর রহমান ছাত্র হলের বেলাল হোসেন, রাফি হাসান, রেদোয়ান হাসান রাফি, রায়হান রাব্বি, শোয়েব, শাহিনুরসহ অজ্ঞাত আরও ৫-৬ জন মিলে চাকরি প্রার্থীদের ধরে হলের ভেতরে নিয়ে যায়। সেখানে আটকে রেখে তাদের লোহার রড, এসএস পাইপ, হকিস্টিক ও লাঠিসোঁটা দিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর করে। পরে চোখ বেঁধে যশোর-ঝিনাইদহ মহাসড়কে নিয়ে ছেড়ে দেয়। অভিযোগ অস্বীকার করে ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল রানা বলেন, ‘আমি বিষয়টি সাংবাদিকদের মাধ্যমে শুনেছি। আমার কোনো লোকজন কাউকে আটকে রাখেনি। যেসব কক্ষের কথা বলা হচ্ছে, সেখানে আমার প্রতিপক্ষের এক নেতার অনুসারীরা থাকে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি আবদুর রাজ্জাক বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরি প্রার্থীদের আটকে রাখার ঘটনায় এক প্রার্থী ৬ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্যে রাতেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র হলে অভিযান চালানো হয়। কিন্তু কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জানান, রাত দুইটার দিকে পুলিশ ক্যাম্পাসে আসে। ছাত্রলীগের কর্মীরা আগেই খবর পেয়ে যায়। যে কারণে হলের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে ছাত্রলীগ হলের ভিতর থেকে স্লোগান দিতে থাকে। পুলিশ রাতে হলের ভিতরে প্রবেশের চেষ্টা করেনি। এ বিষয়ে ওসি আবদুর রাজ্জাক কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি লিফট অপারেটরের ১২টি পদে জনবল নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই শেষে ৩৮ প্রার্থীকে পরীক্ষার জন্যে গত বৃহস্পতিবার ক্যাম্পাসে ডাকা হয়। সকাল ১০টা থেকে চাকরি প্রার্থীরা ক্যাম্পাসে আসতে থাকেন। বেলা সাড়ে তিনটা পর্যন্ত তাদের ব্যবহারিক পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। এর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে খবর আসে প্রার্থীদের মধ্যে অত্যন্ত ১৭ জনকে ক্যাম্পাসের ছাত্র হলে নিয়ে আটকে রাখা হয়। পরে পুলিশ ক্যাম্পাসে পৌঁছালে বিকেলে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। এই ঘটনায় ভুক্তভোগীর পরিবার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দেয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বিষয়টি তদন্তের স্বার্থে সিসি ক্যামেরার হার্ডডিস্ক সংগ্রহ করতে গেলে সেটিও ছিনিয়ে নেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এরপর সন্ধ্যায় আটকে রাখা প্রার্থীদের মধ্যে আরো পাঁচজনের পরীক্ষা নেয়া হয়। ৩৮ প্রার্থীর ২৬ জন শেষ পর্যন্ত পরীক্ষা দিতে পেরেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘চাকরির পরীক্ষা দিতে এলে ১৭ প্রার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল রানার লোকজন আটকে রাখে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ছাত্র হলের যে কক্ষগুলোতে প্রার্থীদের আটকে রাখা হয়, সেসব কক্ষে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা থাকে। ক্যাম্পাসে পুলিশ ডাকা হলে বিকেলে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। এ ঘটনায় অপহরণ ও সিসিটিভি ক্যামেরার হার্ড ডিস্ক ছিনতাইয়ের ঘটনার অপরাধে মামলা করা হবে। একই সঙ্গে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। আগামীকাল বিশ্ববিদ্যালয় রিজেন্ড বোর্ডের বৈঠক রয়েছে। ওই বৈঠকে বিষয়টি উত্থাপন করা হবে। তারপরেই মামলা ও তদন্ত কমিটি হবে।

ছবি

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে জবিতে আন্তর্জাতিক সেমিনার

ছবি

নতুন ক্যাম্পাসের ঘাট ও এক ভবন নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

ছবি

বাধঁন জবি ইউনিটের নেতৃত্বে বিজয়-মেহেদী

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে নানান অসঙ্গতি

ছবি

ঢাবিতে ছাত্রলীগ নেতার কক্ষ থেকে অস্ত্র উদ্ধার, প্রাধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগ

ছবি

গুচ্ছ ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদনের সময় বাড়ল

ছবি

শেষ হলো ঢাবির ‘সি’ ইউনিটের পরীক্ষা

আজ শুরু হলো জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিযুদ্ধ, আসন প্রতি লড়বে ১০৮ জন

ছবি

জবি শিক্ষকদের রুমে লুকিয়ে চিঠি, আটকের পর জানা গেল হিযবুত তাহরীর সদস্য

ছবি

জবিতে শহীদ দিবস উপলক্ষ্যে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

রাবির হল প্রাধ্যক্ষকে ছাত্রলীগ নেতার হুমকি, কক্ষ সিলগালা

ছবি

জবির প্রক্টরিয়াল বডিতে নতুন দুই মুখ

ছবি

পাঁচ দফা দাবিতে জাবিতে নিপীড়নবিরোধী মঞ্চের মশাল মিছিল

ছবি

জবির নতুন প্রক্টর অধ্যাপক জাহাঙ্গীর

ছবি

জবি ছাত্রলীগের মারামারির দুই মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ২১ মার্চ

ছবি

রাবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় শিক্ষক দিবস পালিত

ছবি

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি মুছে ফেলার প্রতিবাদে দ্বিতীয় দিনেও আমরণ অনশনে জাবির ২ ছাত্রলীগ নেতা

ছবি

জবিতে জাতীয় স্নাতক গণিত অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত

ছবি

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি মুছে ফেলার প্রতিবাদে ছাত্রলীগ নেতার আমরণ অনশন

ছবি

জবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত অন্তত ১০

ছবি

জবিতে সরস্বতী পূজায় নারী পুরোহিত

ঢাবিতে ক্যান্টিন মালিকের দাড়ি ছিঁড়ে ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

ছবি

৩৬ পূজামণ্ডপে হবে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সরস্বতী পূজা

ঢাবি সাংবাদিকের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইলেন দুই ছাত্রলীগ নেতা

ছবি

জাবিতে পাঁচ দফা দাবিতে প্রতীকী অবরোধ

ঢাবি অধ্যাপকের বিরুদ্ধে যৌন ইঙ্গিতপূর্ণ কথা ও গোপন ক্যামেরায় ছাত্রীকে নজরদারির অভিযোগ

ছবি

দিনব্যাপী নানা আয়োজনে উন্মুক্ত লাইব্রেরির দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

ছবি

শিক্ষার্থীদের মনোজগতে মানবিক বাংলাদেশ সৃষ্টির আগ্রহ তৈরি করা জরুরি: উপাচার্য মশিউর রহমান

মোটরসাইকেলের হর্ন না শুনায় শিক্ষার্থীকে জবি ছাত্রলীগ নেতার মারধর

ছবি

আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় জুডোতে স্বর্ণপদক পেলেন জবি শিক্ষার্থী ইমন

ছবি

জবি চলচ্চিত্র সংসদের নেতৃত্বে সৈকত-রিক

ছবি

জবিতে পঞ্চম আবৃত্তি উৎসব অনুষ্ঠিত

ছবি

জাবিতে ধর্ষণের প্রতিবাদের নতুন প্ল্যাটফর্ম ‘নিপীড়নবিরোধী মঞ্চ’

ছবি

অবৈধভাবে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের ৫ দিনের মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ

ছবি

জবির প্রক্টরিয়াল বডিতে বড় পরিবর্তন

জাবিতে ধর্ষণের ঘটনায় ৬ জনের সনদ স্থগিত, বহিষ্কৃত ৩

tab

ক্যাম্পাস

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

চাকরি প্রার্থীদের আটকে রেখে মারধর, ছাত্রলীগের সভাপতিসহ ৬ জনকে আসামি করে মামলা

যশোর অফিস

শুক্রবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) লিফট অপারেটরের নিয়োগ পরীক্ষা দিতে এসে ১৭ চাকরি প্রার্থীকে অপহরণের ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে বিশ^বিদ্যালয় ছাত্রলীগের ৬ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে যশোর কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী আরাফাত হোসেন। অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে আরও ৫-৬ জনকে। তবে ঘটনার সঙ্গে জড়িত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

এদিকে আসামিদের আটকের জন্যে গত বৃহস্পতিবার রাত দুইটার দিকে পুলিশ বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মসিয়ূর রহমান ছাত্র হলে অভিযানে গেলে হলের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় তার দলীয় স্লোগান দিতে থাকে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে লিফট অপারেটর পদে চাকরি পরীক্ষা দিতে ক্যাম্পাসে গেলে শহীদ মসিয়ূর রহমান ছাত্র হলের বেলাল হোসেন, রাফি হাসান, রেদোয়ান হাসান রাফি, রায়হান রাব্বি, শোয়েব, শাহিনুরসহ অজ্ঞাত আরও ৫-৬ জন মিলে চাকরি প্রার্থীদের ধরে হলের ভেতরে নিয়ে যায়। সেখানে আটকে রেখে তাদের লোহার রড, এসএস পাইপ, হকিস্টিক ও লাঠিসোঁটা দিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর করে। পরে চোখ বেঁধে যশোর-ঝিনাইদহ মহাসড়কে নিয়ে ছেড়ে দেয়। অভিযোগ অস্বীকার করে ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল রানা বলেন, ‘আমি বিষয়টি সাংবাদিকদের মাধ্যমে শুনেছি। আমার কোনো লোকজন কাউকে আটকে রাখেনি। যেসব কক্ষের কথা বলা হচ্ছে, সেখানে আমার প্রতিপক্ষের এক নেতার অনুসারীরা থাকে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি আবদুর রাজ্জাক বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরি প্রার্থীদের আটকে রাখার ঘটনায় এক প্রার্থী ৬ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্যে রাতেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র হলে অভিযান চালানো হয়। কিন্তু কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জানান, রাত দুইটার দিকে পুলিশ ক্যাম্পাসে আসে। ছাত্রলীগের কর্মীরা আগেই খবর পেয়ে যায়। যে কারণে হলের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে ছাত্রলীগ হলের ভিতর থেকে স্লোগান দিতে থাকে। পুলিশ রাতে হলের ভিতরে প্রবেশের চেষ্টা করেনি। এ বিষয়ে ওসি আবদুর রাজ্জাক কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি লিফট অপারেটরের ১২টি পদে জনবল নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই শেষে ৩৮ প্রার্থীকে পরীক্ষার জন্যে গত বৃহস্পতিবার ক্যাম্পাসে ডাকা হয়। সকাল ১০টা থেকে চাকরি প্রার্থীরা ক্যাম্পাসে আসতে থাকেন। বেলা সাড়ে তিনটা পর্যন্ত তাদের ব্যবহারিক পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। এর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে খবর আসে প্রার্থীদের মধ্যে অত্যন্ত ১৭ জনকে ক্যাম্পাসের ছাত্র হলে নিয়ে আটকে রাখা হয়। পরে পুলিশ ক্যাম্পাসে পৌঁছালে বিকেলে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। এই ঘটনায় ভুক্তভোগীর পরিবার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দেয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বিষয়টি তদন্তের স্বার্থে সিসি ক্যামেরার হার্ডডিস্ক সংগ্রহ করতে গেলে সেটিও ছিনিয়ে নেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এরপর সন্ধ্যায় আটকে রাখা প্রার্থীদের মধ্যে আরো পাঁচজনের পরীক্ষা নেয়া হয়। ৩৮ প্রার্থীর ২৬ জন শেষ পর্যন্ত পরীক্ষা দিতে পেরেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘চাকরির পরীক্ষা দিতে এলে ১৭ প্রার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল রানার লোকজন আটকে রাখে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ছাত্র হলের যে কক্ষগুলোতে প্রার্থীদের আটকে রাখা হয়, সেসব কক্ষে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা থাকে। ক্যাম্পাসে পুলিশ ডাকা হলে বিকেলে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। এ ঘটনায় অপহরণ ও সিসিটিভি ক্যামেরার হার্ড ডিস্ক ছিনতাইয়ের ঘটনার অপরাধে মামলা করা হবে। একই সঙ্গে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। আগামীকাল বিশ্ববিদ্যালয় রিজেন্ড বোর্ডের বৈঠক রয়েছে। ওই বৈঠকে বিষয়টি উত্থাপন করা হবে। তারপরেই মামলা ও তদন্ত কমিটি হবে।

back to top