alt

ক্যাম্পাস

জাবি শিক্ষার্থীকে হেনস্থা করে হলচু্্য: তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলে গাফিলতির অভিযোগ

জাবি প্রতিনিধি : রোববার, ০৯ জুন ২০২৪

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) মীর মশাররফ হোসেন হলের এক আবাসিক শিক্ষার্থীকে হেনস্থা করে বের করে দেওয়ার ঘটনার একমাস অতিক্রম হলেও হল প্রশাসন কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন দাখিল করতে অপারগতার অভিযোগ উঠেছে।

এর আগে ২ মে হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. সাব্বির আলম বরাবর এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলেন ভুক্তভোগী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫২ তম ব্যাচের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী মোহাম্মদ আবিদুল ইসলাম।

অভিযোগ দায়ের করার পর হলের আবাসিক শিক্ষক অধ্যাপক মো. বশিরুজ্জামান খোকনকে আহ্বায়ক করে ৪ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কিন্তু অভিযোগ দায়েরের একমাসেরও বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও এখনও তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে পারেনি তদন্ত কমিটি।

হতাশা প্রকাশ করে ভুক্তভোগী মোহাম্মদ আবিদুল ইসলাম বলেন, “একেবারে প্রথম থেকেই তদন্তের ব্যাপারে সেরকম আস্থা পাচ্ছিলাম না। মনে হচ্ছিল না কিছু হবে। সময় না বেঁধে দেওয়ায় তদন্তের বিষয়টি দীর্ঘসূত্রিতায় পর্যবসিত হয়েছে। এখন দেখা যাক কতদূর কি হয়!”

তদন্তের অগ্রগতির ব্যাপারে তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক মো. বশিরুজ্জামান খোকন বলেন, ‘তদন্তের কাজ একদম শেষ করেছি প্রায়। কিছু টেকনিক্যাল সমস্যা, ক্যাম্পাস বন্ধ ও হলের ফিস্টসহ নানাবিধ ব্যস্ততার কারণে একটু বিলম্ব হয়েছে। তবে আগামী ২-৪ দিনের মধ্যেই রিপোর্ট জমা দিতে পারবো বলে আশা করছি।’

হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. সাব্বির আলম বলেন, ‘আমি জেনেছি এ বিষয়ে তদন্ত কমিটির কাজ শেষ হয়েছে। তবে তদন্ত রিপোর্ট এখনো আমি হাতে পায়নি। তদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে আমরা পরবর্তী ব্যবস্থা নিব।’

এদিকে অভিযোগপত্র সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ এপ্রিল রাত দেড়টার দিকে আবিদুল হলে ফিরলে ৫১ তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা তাকে নানাভাবে হেনস্থা করে, জোরপূর্বক পরিচিত হবার চেষ্টা করে। তাদের আচরণে সাড়া না দিলে একপর্যায়ে তাকে রুমে যেতে বলা হয়। পরবর্তীতে সে ওয়াসরুম থেকে ফিরে আসার কিছুক্ষণ পর ৫১ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা ফোনে ভিডিও ক্যামেরা চালু করে তার কক্ষে প্রবেশ করে। এসময় তারা জিনিসপত্র তল্লাশি করতে শুরু করে। এভাবে তারা কিছু ট্যাবলেট আর একটি প্লাস্টিকের বোতল পায়, এরপর তারা ভিডিও দেখিয়ে বলে আমি নাকি মাদকসেবন করি। অত:পর তারা উক্ত শিক্ষার্থীকে বলতে থাকে সে মাদক সেবন করে। কিন্তু তারা কোনো কথা না শুনেই তার জিনিসপত্র হল গেইটে রেখে আসে এবং তাকে হল থেকে বেরিয়ে যেতে বলে। এরপর আবিদুল আতঙ্কিত হয়ে পড়ে এবং উপায় না পেয়ে হল ত্যাগ করে।

ছবি

ঈদের ছুটিতে হলে অবস্থান করায় ছাত্রীদের ডেকে শাসালেন জবির হল প্রভোস্ট

ছবি

ঢাবিতে বাজেট ২০২৪-২৫: প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি শীর্ষক সভা

ছবি

তীব্র গরমে লম্বা লাইনে ভোগান্তি শিক্ষার্থীদের

কোটা পুনবর্হালের প্রতিবাদে শিক্ষার্থী আন্দোলনে উত্তপ্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ছবি

কোটা পুনর্বহালের প্রতিবাদে উত্তাল ঢাবি

ছবি

প্লাস্টিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ইউনিলিভারের ‘অ্যাওয়্যার ওয়েভ’ ক্যাম্পেইন

ছবি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহালের প্রতিবাদ

ছবি

নারায়ণগঞ্জ থেকে শুরু হলো ওয়াইল্ড লাইফ অলিম্পিয়াড ২০২৪ এর আঞ্চলিকপর্ব

ছবি

কোটা পুনর্বহালের প্রতিবাদে ঢাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

ছবি

ছুটিতে ইবির আবাসিক হল খোলা রাখার দাবিতে স্মারকলিপি ও প্রধান ফটক অবরোধ

ছবি

ঈদের ছুটিতে বন্ধ ক্যাম্পাসে গাছ কাটার মহাযজ্ঞ

ছবি

স্বাস্থ্যবিমার আওতায় আনা হবে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের : জবি উপাচার্য

ছবি

জবিতে প্রজেক্ট শেষেও স্হাপনা না সরিয়ে ক্লাসরুম দখলে রাখার অভিযোগ

ছবি

নামাজ পড়ানোর অনুমতি পেল জবির ইমাম

অবৈধভাবে দখলকৃত রাস্তা উন্মুক্তকরণসহ ১১‌ দফা দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান

ছবি

জবিতে বসবাস করা কর্মচারীদের আবাসস্থল ত্যাগের নির্দেশ

ছবি

উদ্ভাবন ছাড়া টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয়- ঢাবি উপাচার্য

ছবি

জবির নতুন সহকারী প্রক্টরের দায়িত্বে দেওয়ান বদরুল

ছবি

জবির মসজিদে মধ্যরাতে ঘুমন্ত নারী, ইমামকে সাময়িক অব্যাহতি ও তদন্ত কমিটি

ছবি

ঢাকায় ৮ম নগর সংলাপ মঙ্গলবার

ছবি

অবন্তিকার আত্মহত্যা: অভিযুক্ত শিক্ষক দ্বীন ইসলাম ফিরতে চান ক্লাসে

ছবি

জবিতে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করছে ‘বাঁধন’

ছবি

মেয়েদের পাশাপাশি ছেলেরাও যৌন হয়রানির শিকার হচ্ছে: সাদেকা হালিম

ছবি

ক্যান্সার আক্রান্ত জবি অধ্যাপককে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন

ছবি

টিউশনের প্রলোভন দেখিয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রতারণা

ছবি

১১তম পরিবেশ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন রাবি

ছবি

যাদের প্রিয় কিছু নেই, তাদের জীবন অন্তঃসারশূন্য: জবি উপাচার্য

পেনশন স্কিম বাতিলের দাবিতে কর্মবিরতিসহ কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি ঢাবি শিক্ষক সমিতির

ছবি

জাবিতে স্বেচ্ছাচারিতা ও অসৌজন্যমূলক আচরণের প্রতিবাদে প্রভোস্ট কক্ষে তালা

৩.৬৫ পেয়ে তৃতীয় হলেন জবির সেই অবন্তিকা

ছবি

বশেমুরকৃবিতে কৃষিতে রিমোট সেন্সিং ও জিআইএস এর ব্যবহার বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

ছবি

বারিতে ক্যানসার কোষ কালচার বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত

ছবি

গাজীপুরে ডুয়েট শিক্ষকদের মৌন মিছিল, প্রতিবাদ সভা

ছবি

বশেমুরকৃবি ভেটেরিনারি টিচিং হসপিটালে ইয়ং ডক্টরস লার্নিং প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত

ছবি

কৃষ্ণচূড়ার আগুন রঙ্গে সেজেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস

ছবি

বিএআরআই বিজ্ঞানীদের নতুন প্রযুক্তি বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

tab

ক্যাম্পাস

জাবি শিক্ষার্থীকে হেনস্থা করে হলচু্্য: তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলে গাফিলতির অভিযোগ

জাবি প্রতিনিধি

রোববার, ০৯ জুন ২০২৪

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) মীর মশাররফ হোসেন হলের এক আবাসিক শিক্ষার্থীকে হেনস্থা করে বের করে দেওয়ার ঘটনার একমাস অতিক্রম হলেও হল প্রশাসন কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন দাখিল করতে অপারগতার অভিযোগ উঠেছে।

এর আগে ২ মে হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. সাব্বির আলম বরাবর এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলেন ভুক্তভোগী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫২ তম ব্যাচের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী মোহাম্মদ আবিদুল ইসলাম।

অভিযোগ দায়ের করার পর হলের আবাসিক শিক্ষক অধ্যাপক মো. বশিরুজ্জামান খোকনকে আহ্বায়ক করে ৪ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কিন্তু অভিযোগ দায়েরের একমাসেরও বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও এখনও তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে পারেনি তদন্ত কমিটি।

হতাশা প্রকাশ করে ভুক্তভোগী মোহাম্মদ আবিদুল ইসলাম বলেন, “একেবারে প্রথম থেকেই তদন্তের ব্যাপারে সেরকম আস্থা পাচ্ছিলাম না। মনে হচ্ছিল না কিছু হবে। সময় না বেঁধে দেওয়ায় তদন্তের বিষয়টি দীর্ঘসূত্রিতায় পর্যবসিত হয়েছে। এখন দেখা যাক কতদূর কি হয়!”

তদন্তের অগ্রগতির ব্যাপারে তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক মো. বশিরুজ্জামান খোকন বলেন, ‘তদন্তের কাজ একদম শেষ করেছি প্রায়। কিছু টেকনিক্যাল সমস্যা, ক্যাম্পাস বন্ধ ও হলের ফিস্টসহ নানাবিধ ব্যস্ততার কারণে একটু বিলম্ব হয়েছে। তবে আগামী ২-৪ দিনের মধ্যেই রিপোর্ট জমা দিতে পারবো বলে আশা করছি।’

হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. সাব্বির আলম বলেন, ‘আমি জেনেছি এ বিষয়ে তদন্ত কমিটির কাজ শেষ হয়েছে। তবে তদন্ত রিপোর্ট এখনো আমি হাতে পায়নি। তদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে আমরা পরবর্তী ব্যবস্থা নিব।’

এদিকে অভিযোগপত্র সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ এপ্রিল রাত দেড়টার দিকে আবিদুল হলে ফিরলে ৫১ তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা তাকে নানাভাবে হেনস্থা করে, জোরপূর্বক পরিচিত হবার চেষ্টা করে। তাদের আচরণে সাড়া না দিলে একপর্যায়ে তাকে রুমে যেতে বলা হয়। পরবর্তীতে সে ওয়াসরুম থেকে ফিরে আসার কিছুক্ষণ পর ৫১ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা ফোনে ভিডিও ক্যামেরা চালু করে তার কক্ষে প্রবেশ করে। এসময় তারা জিনিসপত্র তল্লাশি করতে শুরু করে। এভাবে তারা কিছু ট্যাবলেট আর একটি প্লাস্টিকের বোতল পায়, এরপর তারা ভিডিও দেখিয়ে বলে আমি নাকি মাদকসেবন করি। অত:পর তারা উক্ত শিক্ষার্থীকে বলতে থাকে সে মাদক সেবন করে। কিন্তু তারা কোনো কথা না শুনেই তার জিনিসপত্র হল গেইটে রেখে আসে এবং তাকে হল থেকে বেরিয়ে যেতে বলে। এরপর আবিদুল আতঙ্কিত হয়ে পড়ে এবং উপায় না পেয়ে হল ত্যাগ করে।

back to top