alt

ক্যাম্পাস

ঢাবিতে গাঁজা সেবনকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের দেশীয় অস্ত্রের মহড়া

ঢাবি প্রতিনিধি : শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২২

গাঁজা সেবনকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) হলে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে আটটায় সলিমুল্লাহ মুসলিম হলে ৩১ নাম্বার রুমে আরবি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আহসান শাহিদ তন্ময় তার কয়েকজন বন্ধুকে নিয়ে গাঁজা সেবন শুরু করলে একই রুমে থাকা লোক প্রশাসন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মো. কিবরিয়া হাসান তাকে নিষেধ করে। এরপর একই রুমে থাকা দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মাইনুল ইসলাম নওশাদ আবারও নিষেধ করলে তার উপর চড়াও হয় হন তন্ময় । এখবর পেয়ে মাইনুলের সিনিয়র বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিদ চন্দ্র দাসের অনুসারীরা দেশীয় রামদা, রড, স্ট্যাম্প নিয়ে ৩১ নম্বর রুমের সামনে আসেন। এসময় খবর পেয়ে তন্ময়ের সিনিয়র ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইনের অনুসারীরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সেখানে জড়ো হন। তবে তাদের মধ্যে কোনো সংঘর্ষর ঘটনা ঘটেনি। এরপর হলের সিনিয়র নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

হল সূত্রে জানা যায়, হলের ৩১,৭৯,১৭৭ ও ১৪৯ নম্বর রুমে নিয়মিত মদ ও গাঁজার আসর বসে। আর এতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের পড়াশুনার বিঘ্ন গঠলেও হল প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয় না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত আহসান শাহিদ তন্ময় মাদক সেবনের কথা অস্বীকার করেন।

মিশাত সরকার সংবাদকে বলেন, রুমে বন্ধু-বান্ধবদের মধ্যে অভ্যন্তরীণ কিছু ঝামেলা হইছিল। আমরা সিনিয়ররা গিয়ে সেটা মিটমাট করে দিয়ে আসছি।

আতিকুর রহমান আতিক বলেন, পলিটিকাল রুমগুলোতে ইয়ারমেটদের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে বাক-বিতন্ডার ঘটনা ঘটে। লাইট অফ-অন, সিগারেট খাওয়া নিয়ে মাঝে-মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এটা সেরকমই একটি বিষয়। গাঁজা খাওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যপ্রণোধিত একটি কথা। রড, রামদা, লাঠিসোটা নিয়েও কোনো মহড়া হয়নি। ঝামেলা হওয়ার পর দু’গ্রুপের সিনিয়ররা গিয়ে বিষয়টি সমাধান করে দিয়েছি।

হল প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মো. মুজিবর রহমান বলেন, আমি হাউজ টিউটরদের বলে দিয়েছি বিষয়টি দেখার জন্য। কেউ দোষী প্রমাণিত হলে বা ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। রুমগুলোতে কারো ব্যক্তিগত কোনো দেশীয় অস্ত্র, রড, রামদা আছে কিনা সেটিও খতিয়ে দেখা হবে।

ছবি

অনশন ভেঙে আলোচনায় রাজি নয় শিক্ষার্থীরা

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে সরকার বিরোধী আন্দোলনে রূপান্তরের অপচেষ্টা চলছে

ছবি

‘ভিসির চেয়ারের মূল্য বেশি নাকি শিক্ষার্থীর প্রাণ’

ছবি

‘গার্মেন্টস ব্যবসায় লস খেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবসায় নেমেছেন উপাচার্য ফরিদ’

ছবি

জাবি শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা চাইলেন শাবি উপাচার্য

পরীক্ষার দাবিতে নারায়ণগঞ্জে পরীক্ষার্থীদের মানববন্ধন

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা সশরীরে ক্লাস অনলাইনে

ববির সব পরীক্ষা সশরীরে হবে

ছবি

উপাচার্য ভবনের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করলেন শাবির শিক্ষার্থীরা

ছবি

শাবিপ্রবিতে এবার গণ-অনশনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা

ছবি

শাবির ৫ শিক্ষক ঢাকায়, শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক সন্ধ্যায়

ছবি

পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে নীলক্ষেত মোড় অবরোধ

ছবি

শিক্ষামন্ত্রীর আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান, ঢাকা যাচ্ছেন না শাবি শিক্ষার্থীরা

নোয়াখালী নার্সিং ইনস্টিটিউটের ৯১জন শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত

ছবি

শাবিপ্রবির শিক্ষার্থীদের ঢাকায় ডাকলেন শিক্ষামন্ত্রী

ছবি

শাবিপ্রবি : অনশনরত শিক্ষার্থীদের ১৫ জন অসুস্থ, ৩ জন হাসপাতালে ভর্তি

ছবি

শাবিপ্রবি : ২৪ শিক্ষার্থী আমরণ অনশনে

ছবি

ঢাবির হল থেকে অস্ত্রসহ ছাত্রলীগ নেতা আটক

ছবি

সেশনজট নিরসনে গ্রীষ্মকালীন ছুটি কমালো ঢাবি

ছবি

শাবিপ্রবি: ৩০০ শিক্ষার্থীকে আসামি করে পুলিশের মামলা

ছবি

ঢাবি অধ্যাপক তাজমেরির নিঃশর্ত মুক্তির দাবি সাদা দলের

ছবি

ঢাবি ঘৃণা স্তম্ভে শাবিপ্রবি ভিসি ফরিদ উদ্দীন

পরীক্ষা বর্জনের ডাক চুয়েট শিক্ষার্থীদের

ছবি

শাবি : দফায় দফায় সংঘর্ষ, আহত ৩৫

ছবি

শাবিপ্রবি বন্ধ ঘোষণা, হল ত্যাগের নির্দেশ

ছবি

শাবিপ্রবিতে পুলিশ-শিক্ষার্থী সংঘর্ষ, উত্তাল ক্যাম্পাস

ছবি

শাবিপ্রবিতে আন্দোলনরত ছাত্রীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

ছবি

উপাচার্যের সঙ্গে বৈঠক ‘ফলপ্রসূ হয়নি’, ফের আন্দোলনে শাবি ছাত্রীরা

ছবি

তাজমেরী ইসলামের মুক্তি দাবি করেছে সাদা দল

ববিতে স্বামীসহ ছাত্রী লাঞ্ছনার শিকার

ছবি

কাওয়ালি আসরে হামলা, প্রতিবাদে বিক্ষোভ-মিছিল-সমাবেশ

ঢাবির ডিন নির্বাচনে সব (২০২১-২২ আওয়ামীপন্থীদের জয়

ছবি

করোনা: বুয়েটেও সশরীরে ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ

ছবি

টিএসসিতে ছাত্রলীগের হামলায় বাম সংগঠনগুলোর প্রতিবাদ মিছিল

ছবি

এসডিজি অর্জন ও রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নে তরুণ প্রজন্মকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে: ঢাবি উপাচার্য

ছবি

ঢাবিতে দ্বিতীয়বার ভর্তির সুযোগের দাবিতে সমাবেশ

tab

ক্যাম্পাস

ঢাবিতে গাঁজা সেবনকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের দেশীয় অস্ত্রের মহড়া

ঢাবি প্রতিনিধি

শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২২

গাঁজা সেবনকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) হলে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে আটটায় সলিমুল্লাহ মুসলিম হলে ৩১ নাম্বার রুমে আরবি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আহসান শাহিদ তন্ময় তার কয়েকজন বন্ধুকে নিয়ে গাঁজা সেবন শুরু করলে একই রুমে থাকা লোক প্রশাসন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মো. কিবরিয়া হাসান তাকে নিষেধ করে। এরপর একই রুমে থাকা দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মাইনুল ইসলাম নওশাদ আবারও নিষেধ করলে তার উপর চড়াও হয় হন তন্ময় । এখবর পেয়ে মাইনুলের সিনিয়র বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিদ চন্দ্র দাসের অনুসারীরা দেশীয় রামদা, রড, স্ট্যাম্প নিয়ে ৩১ নম্বর রুমের সামনে আসেন। এসময় খবর পেয়ে তন্ময়ের সিনিয়র ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইনের অনুসারীরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সেখানে জড়ো হন। তবে তাদের মধ্যে কোনো সংঘর্ষর ঘটনা ঘটেনি। এরপর হলের সিনিয়র নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

হল সূত্রে জানা যায়, হলের ৩১,৭৯,১৭৭ ও ১৪৯ নম্বর রুমে নিয়মিত মদ ও গাঁজার আসর বসে। আর এতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের পড়াশুনার বিঘ্ন গঠলেও হল প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয় না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত আহসান শাহিদ তন্ময় মাদক সেবনের কথা অস্বীকার করেন।

মিশাত সরকার সংবাদকে বলেন, রুমে বন্ধু-বান্ধবদের মধ্যে অভ্যন্তরীণ কিছু ঝামেলা হইছিল। আমরা সিনিয়ররা গিয়ে সেটা মিটমাট করে দিয়ে আসছি।

আতিকুর রহমান আতিক বলেন, পলিটিকাল রুমগুলোতে ইয়ারমেটদের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে বাক-বিতন্ডার ঘটনা ঘটে। লাইট অফ-অন, সিগারেট খাওয়া নিয়ে মাঝে-মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এটা সেরকমই একটি বিষয়। গাঁজা খাওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যপ্রণোধিত একটি কথা। রড, রামদা, লাঠিসোটা নিয়েও কোনো মহড়া হয়নি। ঝামেলা হওয়ার পর দু’গ্রুপের সিনিয়ররা গিয়ে বিষয়টি সমাধান করে দিয়েছি।

হল প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মো. মুজিবর রহমান বলেন, আমি হাউজ টিউটরদের বলে দিয়েছি বিষয়টি দেখার জন্য। কেউ দোষী প্রমাণিত হলে বা ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। রুমগুলোতে কারো ব্যক্তিগত কোনো দেশীয় অস্ত্র, রড, রামদা আছে কিনা সেটিও খতিয়ে দেখা হবে।

back to top