alt

ক্যাম্পাস

উপাচার্যের সঙ্গে বৈঠক ‘ফলপ্রসূ হয়নি’, ফের আন্দোলনে শাবি ছাত্রীরা

প্রতিনিধি, সিলেট: : শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২২

ছবি: সংগৃহীত

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) একটি আবাসিক হলের প্রাধ্যক্ষ ও সহকারী প্রাধ্যক্ষদের পদত্যাগসহ তিন দফা দাবিতে উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সঙ্গে বৈঠকে অংশ নিয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের একটি প্রতিনিধিদল। ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক শেষে বেলা একটার দিকে উপাচার্য কার্যালয় থেকে বের হয়ে ওই শিক্ষার্থীরা দাবি করেন, বৈঠক ফলপ্রসূ হয়নি। তাঁরা পুনরায় উপাচার্য কার্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) বেলা তিনটা পর্যন্ত উপাচার্য কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে সিরাজুন্নেসা হলের প্রাধ্যক্ষ জাফরিন লিজার বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ এনে তাঁর পদত্যাগ চেয়ে স্লোগান দিতে দেখা গেছে ছাত্রীদের। পাশাপাশি হলের যাবতীয় সমস্যা দ্রুত দূর করারও দাবি জানান।

এর আগে বেলা ১১টায় উপাচার্যের কার্যালয়ে তিন দফা দাবি লিখিতভাবে জমা দেন ছাত্রীরা। দাবিগুলো হল- প্রভোস্ট কমিটিকে পদত্যাগ করতে হবে, হলের সব ধরনের অব্যবস্থাপনা দূর করে সুষ্ঠ পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে এবং অবিলম্বে ছাত্রীবান্ধব ও দায়িত্বশীল প্রভোস্ট নিয়োগ দিতে হবে।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ১০টার দিকে প্রাধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ এনে ছাত্রীরা বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে ছাত্রীরা উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিতে থাকেন। এ সময় ছাত্রীরা হলের প্রাধ্যক্ষ ও সহকারী প্রাধ্যক্ষদের পদত্যাগ এবং সবাইকে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা চাওয়ার দুই দফা দাবি উত্থাপন করেন।

এরই অংশ হিসেবে আজ দুপুর ১২টা থেকে আন্দোলনরত ছাত্রীদের একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে উপাচার্য বৈঠক করেন। বৈঠকে ছাত্রীদের প্রতিনিধিদল উপাচার্যের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ উত্থাপন করে তিন দফা দাবি তুলে ধরে। দাবিগুলো হলো সিরাজুন্নেসা হলের প্রাধ্যক্ষ ও সহকারী প্রাধ্যক্ষদের পদত্যাগ, অবিলম্বে হলের যাবতীয় অব্যবস্থাপনা দূর করে সুস্থ-স্বাভাবিক পরিবেশ নিশ্চিত করা এবং অবিলম্বে ছাত্রীবান্ধব ও দায়িত্বশীল প্রাধ্যক্ষ কমিটি নিয়োগ।

ছাত্রীদের অভিযোগ, ছোট-বড় কোনো সমস্যাতেই প্রাধ্যক্ষ জাফরিন লিজা দায়িত্ব নিতে চান না। বরং তিনি ছাত্রীদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করেন। কোনো সমস্যা নিয়ে গেলেই তিনি সিট বাতিলের হুমকি দেন। পরিবারের আর্থসামাজিক অবস্থা নিয়েও তিনি ছাত্রীদের হয়রানি করেন বলে তাঁরা দাবি করেন।

লিখিত অভিযোগে শিক্ষার্থীরা হলের খাবারের মান বাড়ানোর পাশাপাশি দাম কমানোর দাবিও জানিয়েছেন। তাঁরা হলের ভাড়া কিস্তিতে পরিশোধের দাবিও জানান। অভিভাবকদের হলের ভেতরে যাওয়ার অনুমতি প্রদান না করা, খাবার পানির সংকট, পরিচ্ছন্নতাকর্মীর স্বল্পতা, কাজে চরম অবহেলাসহ ছাত্রীরা হলের বেশ কিছু সমস্যার ব্যাপারে উপাচার্যকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে জাফরিন লিজা বলেন, ছাত্রীরা অতিরঞ্জিতভাবে বিষয়গুলোর বর্ণনা দিচ্ছেন। তাঁদের সঙ্গে কোনো ধরনের অশোভন আচরণের ঘটনা ঘটেনি। হলে খাবারের মান ও থাকার পরিবেশও খুব ভালো বলে তিনি দাবি করেন।

উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নেওয়া এক ছাত্রী বলেন, উপাচার্য এক মাসের সময় চেয়েছেন। পর্যাপ্ত শিক্ষক না থাকায় তিনি এখনই নতুন প্রাধ্যক্ষ নিয়োগ দিতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন। বৈঠক শেষে বাইরে এসে এ সিদ্ধান্তের কথা সাধারণ ছাত্রীদের জানানো হলে তাঁরা সেটা প্রত্যাখ্যান করেছেন। প্রাধ্যক্ষ অপসারণ না হলে ছাত্রীরা আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিত করবেন না।

জানতে চাইলে উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ছাত্রীদের প্রতিনিধিদলের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক ফলপ্রসূ হয়েছে। তাঁদের সব দাবি মেনে নেওয়া হয়েছে। এক মাসের মধ্যে তাঁদের দাবিগুলো পর্যায়ক্রমে সমাধান করা হবে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। তবে কিছু বামপন্থী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের প্রভাবে ছাত্রীরা আবার অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেছেন। এটা দুঃখজনক।

ছবি

অনশন ভেঙে আলোচনায় রাজি নয় শিক্ষার্থীরা

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে সরকার বিরোধী আন্দোলনে রূপান্তরের অপচেষ্টা চলছে

ছবি

‘ভিসির চেয়ারের মূল্য বেশি নাকি শিক্ষার্থীর প্রাণ’

ছবি

‘গার্মেন্টস ব্যবসায় লস খেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবসায় নেমেছেন উপাচার্য ফরিদ’

ছবি

জাবি শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা চাইলেন শাবি উপাচার্য

পরীক্ষার দাবিতে নারায়ণগঞ্জে পরীক্ষার্থীদের মানববন্ধন

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা সশরীরে ক্লাস অনলাইনে

ববির সব পরীক্ষা সশরীরে হবে

ছবি

উপাচার্য ভবনের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করলেন শাবির শিক্ষার্থীরা

ছবি

শাবিপ্রবিতে এবার গণ-অনশনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা

ছবি

শাবির ৫ শিক্ষক ঢাকায়, শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক সন্ধ্যায়

ছবি

পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে নীলক্ষেত মোড় অবরোধ

ছবি

শিক্ষামন্ত্রীর আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান, ঢাকা যাচ্ছেন না শাবি শিক্ষার্থীরা

নোয়াখালী নার্সিং ইনস্টিটিউটের ৯১জন শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত

ছবি

শাবিপ্রবির শিক্ষার্থীদের ঢাকায় ডাকলেন শিক্ষামন্ত্রী

ছবি

শাবিপ্রবি : অনশনরত শিক্ষার্থীদের ১৫ জন অসুস্থ, ৩ জন হাসপাতালে ভর্তি

ছবি

শাবিপ্রবি : ২৪ শিক্ষার্থী আমরণ অনশনে

ছবি

ঢাবির হল থেকে অস্ত্রসহ ছাত্রলীগ নেতা আটক

ছবি

সেশনজট নিরসনে গ্রীষ্মকালীন ছুটি কমালো ঢাবি

ছবি

শাবিপ্রবি: ৩০০ শিক্ষার্থীকে আসামি করে পুলিশের মামলা

ছবি

ঢাবি অধ্যাপক তাজমেরির নিঃশর্ত মুক্তির দাবি সাদা দলের

ছবি

ঢাবি ঘৃণা স্তম্ভে শাবিপ্রবি ভিসি ফরিদ উদ্দীন

পরীক্ষা বর্জনের ডাক চুয়েট শিক্ষার্থীদের

ছবি

শাবি : দফায় দফায় সংঘর্ষ, আহত ৩৫

ছবি

শাবিপ্রবি বন্ধ ঘোষণা, হল ত্যাগের নির্দেশ

ছবি

শাবিপ্রবিতে পুলিশ-শিক্ষার্থী সংঘর্ষ, উত্তাল ক্যাম্পাস

ছবি

শাবিপ্রবিতে আন্দোলনরত ছাত্রীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

ছবি

তাজমেরী ইসলামের মুক্তি দাবি করেছে সাদা দল

ছবি

ঢাবিতে গাঁজা সেবনকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের দেশীয় অস্ত্রের মহড়া

ববিতে স্বামীসহ ছাত্রী লাঞ্ছনার শিকার

ছবি

কাওয়ালি আসরে হামলা, প্রতিবাদে বিক্ষোভ-মিছিল-সমাবেশ

ঢাবির ডিন নির্বাচনে সব (২০২১-২২ আওয়ামীপন্থীদের জয়

ছবি

করোনা: বুয়েটেও সশরীরে ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ

ছবি

টিএসসিতে ছাত্রলীগের হামলায় বাম সংগঠনগুলোর প্রতিবাদ মিছিল

ছবি

এসডিজি অর্জন ও রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নে তরুণ প্রজন্মকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে: ঢাবি উপাচার্য

ছবি

ঢাবিতে দ্বিতীয়বার ভর্তির সুযোগের দাবিতে সমাবেশ

tab

ক্যাম্পাস

উপাচার্যের সঙ্গে বৈঠক ‘ফলপ্রসূ হয়নি’, ফের আন্দোলনে শাবি ছাত্রীরা

প্রতিনিধি, সিলেট:

ছবি: সংগৃহীত

শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২২

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) একটি আবাসিক হলের প্রাধ্যক্ষ ও সহকারী প্রাধ্যক্ষদের পদত্যাগসহ তিন দফা দাবিতে উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সঙ্গে বৈঠকে অংশ নিয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের একটি প্রতিনিধিদল। ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক শেষে বেলা একটার দিকে উপাচার্য কার্যালয় থেকে বের হয়ে ওই শিক্ষার্থীরা দাবি করেন, বৈঠক ফলপ্রসূ হয়নি। তাঁরা পুনরায় উপাচার্য কার্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) বেলা তিনটা পর্যন্ত উপাচার্য কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে সিরাজুন্নেসা হলের প্রাধ্যক্ষ জাফরিন লিজার বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ এনে তাঁর পদত্যাগ চেয়ে স্লোগান দিতে দেখা গেছে ছাত্রীদের। পাশাপাশি হলের যাবতীয় সমস্যা দ্রুত দূর করারও দাবি জানান।

এর আগে বেলা ১১টায় উপাচার্যের কার্যালয়ে তিন দফা দাবি লিখিতভাবে জমা দেন ছাত্রীরা। দাবিগুলো হল- প্রভোস্ট কমিটিকে পদত্যাগ করতে হবে, হলের সব ধরনের অব্যবস্থাপনা দূর করে সুষ্ঠ পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে এবং অবিলম্বে ছাত্রীবান্ধব ও দায়িত্বশীল প্রভোস্ট নিয়োগ দিতে হবে।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ১০টার দিকে প্রাধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ এনে ছাত্রীরা বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে ছাত্রীরা উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিতে থাকেন। এ সময় ছাত্রীরা হলের প্রাধ্যক্ষ ও সহকারী প্রাধ্যক্ষদের পদত্যাগ এবং সবাইকে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা চাওয়ার দুই দফা দাবি উত্থাপন করেন।

এরই অংশ হিসেবে আজ দুপুর ১২টা থেকে আন্দোলনরত ছাত্রীদের একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে উপাচার্য বৈঠক করেন। বৈঠকে ছাত্রীদের প্রতিনিধিদল উপাচার্যের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ উত্থাপন করে তিন দফা দাবি তুলে ধরে। দাবিগুলো হলো সিরাজুন্নেসা হলের প্রাধ্যক্ষ ও সহকারী প্রাধ্যক্ষদের পদত্যাগ, অবিলম্বে হলের যাবতীয় অব্যবস্থাপনা দূর করে সুস্থ-স্বাভাবিক পরিবেশ নিশ্চিত করা এবং অবিলম্বে ছাত্রীবান্ধব ও দায়িত্বশীল প্রাধ্যক্ষ কমিটি নিয়োগ।

ছাত্রীদের অভিযোগ, ছোট-বড় কোনো সমস্যাতেই প্রাধ্যক্ষ জাফরিন লিজা দায়িত্ব নিতে চান না। বরং তিনি ছাত্রীদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করেন। কোনো সমস্যা নিয়ে গেলেই তিনি সিট বাতিলের হুমকি দেন। পরিবারের আর্থসামাজিক অবস্থা নিয়েও তিনি ছাত্রীদের হয়রানি করেন বলে তাঁরা দাবি করেন।

লিখিত অভিযোগে শিক্ষার্থীরা হলের খাবারের মান বাড়ানোর পাশাপাশি দাম কমানোর দাবিও জানিয়েছেন। তাঁরা হলের ভাড়া কিস্তিতে পরিশোধের দাবিও জানান। অভিভাবকদের হলের ভেতরে যাওয়ার অনুমতি প্রদান না করা, খাবার পানির সংকট, পরিচ্ছন্নতাকর্মীর স্বল্পতা, কাজে চরম অবহেলাসহ ছাত্রীরা হলের বেশ কিছু সমস্যার ব্যাপারে উপাচার্যকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে জাফরিন লিজা বলেন, ছাত্রীরা অতিরঞ্জিতভাবে বিষয়গুলোর বর্ণনা দিচ্ছেন। তাঁদের সঙ্গে কোনো ধরনের অশোভন আচরণের ঘটনা ঘটেনি। হলে খাবারের মান ও থাকার পরিবেশও খুব ভালো বলে তিনি দাবি করেন।

উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নেওয়া এক ছাত্রী বলেন, উপাচার্য এক মাসের সময় চেয়েছেন। পর্যাপ্ত শিক্ষক না থাকায় তিনি এখনই নতুন প্রাধ্যক্ষ নিয়োগ দিতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন। বৈঠক শেষে বাইরে এসে এ সিদ্ধান্তের কথা সাধারণ ছাত্রীদের জানানো হলে তাঁরা সেটা প্রত্যাখ্যান করেছেন। প্রাধ্যক্ষ অপসারণ না হলে ছাত্রীরা আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিত করবেন না।

জানতে চাইলে উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ছাত্রীদের প্রতিনিধিদলের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক ফলপ্রসূ হয়েছে। তাঁদের সব দাবি মেনে নেওয়া হয়েছে। এক মাসের মধ্যে তাঁদের দাবিগুলো পর্যায়ক্রমে সমাধান করা হবে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। তবে কিছু বামপন্থী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের প্রভাবে ছাত্রীরা আবার অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেছেন। এটা দুঃখজনক।

back to top