alt

ক্যাম্পাস

অনশন ভেঙে আলোচনায় রাজি নয় শিক্ষার্থীরা

মোয়াজ্জেম আফরান, শাবিপ্রবি : সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২

শাবিপ্রবি : উপাচার্য বাসভবনের সামনের ফটক অবরোধ করে শুয়ে পড়ে শিক্ষার্থীরা -সংবাদ

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) চলমান সংকট নিরসনে শিক্ষামন্ত্রী ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বার বার উদ্যোগ নিচ্ছেন। তবে কর্ণপাত করছে না শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলমান রয়েছে। প্রতিটি ভবনে ঝুলছে তালা। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রমে স্থবিরতা বিরাজ করছে। শিক্ষার্থীদের শর্ত একটাই- উপাচার্যকে পদত্যাগ করতেই হবে। সোমবার (২৪ জানুয়ারি) উপাচার্যের বাসভবনের মূল ফটকের সামনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের পক্ষে এ কথা বলেন মোহাইমিনুল বাশার রাজ।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, উপাচার্যের কার্যালয়ের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করায় অনেকে বলছেন অমানবিক। আমরা বাধ্য হয়ে কঠোর হয়েছি। শিক্ষামন্ত্রীর বার বার অনশন ভাঙার অনুরোধের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অনশন কর্মসূচি থেকে আমাদের সরে আসার কোন সুযোগ নেই। একশ’ ঘণ্টার ওপরে আমাদের সহযোদ্ধারা না খেয়ে আছে। প্রয়োজনে মরবো, তারপরও অনশন ভাঙতে পারব না। অনশন ভেঙে কারও সঙ্গেই আলোচনায় বসবো না। শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষা উপমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যে ভিসি শিক্ষার্থীদের ওপর গুলি ছুড়তে পারে, বোমা মারতে পারে, তার পদত্যাগ ছাড়া আলোচনায় বসার প্রশ্নই ওঠে না। আগে পদত্যাগ তারপর আলোচনা।

এখনও অবরুদ্ধ উপাচার্য :

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের দ্বারা নিজ বাসভবনে দ্বিতীয় দিনের মতো অবরুদ্ধ অবস্থায় দিন কাটিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। বিদ্যুৎ, পানি ও ইন্টারনেটের সংযোগ কেটে দেয়ায় মানবিক সংকটে পড়েছেন উপাচার্য ও তার পরিবার। প্রয়োজনীয় খাবার, পানি ও ওষুধ নিয়ে কাউকে ভেতরে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না আন্দোলনকারীরা। সোমবার সন্ধ্যায় উপাচার্য ও তার পরিবারের জন্য প্রয়োজনীয় খাবার, পানি ও ওষুধ নিয়ে মূল ফটকে প্রবেশ করতে চাইলে শিক্ষার্থীরা ফিরিয়ে দেন। এ সময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শিক্ষকদের বাগবিতন্ডা হয়। বেশ কিছু শিক্ষার্থীকে ব্যারিকেড দিয়ে শুয়ে পড়তে দেখা যায়।

প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. আলমগীর কবীর, সহকারী প্রক্টর আবু হেনা পহিল, বঙ্গবন্ধু হলের সহকারী প্রভোস্ট মুনিরুজ্জামান সোহাগ মানবিক দিক থেকে বিবেচনা করে বারবার আকুতি জানালেও কর্ণপাত করেনি কেউ।

প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক ড. আলমগীর কবীর গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, ‘শুধু উপাচার্য মহোদয়ের জন্য খাবার নয়, গেস্ট হাউজ ও ডরমেটরিতে আমাদের বেশ কিছু শিক্ষক, কর্মকর্তা আটকা পড়ে আছেন। এদের মধ্যে একজন শিক্ষক অসুস্থ। উনি কি অবস্থায় আছেন তা আমরা জানি না। এমনকি যোগাযোগও সম্ভব হচ্ছে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘উপাচার্যের হার্টের সমস্যা, তার ওষুধ শেষ হয়ে গেছে। যদি ভেতরে যাওয়ার সুযোগ হতো তবে ওষুধের ব্যবস্থা করা যেত। এখন আর এই সুযোগ নেই।’

এর আগে বিকেল ৫টায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের জন্য খাবার নিয়ে আসেন শিক্ষক প্রতিনিধি দল। খাবার গ্রহণে বার বার অনুরোধ করলেও ফিরিয়ে দেন শিক্ষার্থীরা অনশনে অসুস্থ হয়ে

হাসপাতালে ১৪ শিক্ষার্থী

উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগের দাবিতে আমরণ অনশনরত শিক্ষার্থীরা অনশনের ১২৫ ঘণ্টা পার করেছেন। সোমবার আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে মোহাইমিনুল বাশার রাজ জানান, সর্বমোট ৭ জন শিক্ষার্থী হাসপাতাল থেকে ফিরলেও নতুন করে আরও তিনজন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

তিনি বলেন, আন্দোলনে অনশনরত শিক্ষার্থীরা যারা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তারা একটু সুস্থতাবোধ করায় ডাক্তারের ছাড়পত্র নিয়ে ক্যাম্পাসে ফিরে আসছেন। তারা সুস্থতাবোধ করায় হাসপাতালে থাকতে চাচ্ছে না। তাই তারা একটু সুস্থ হলেই ক্যাম্পাসে ফিরে আসছেন।

এছাড়া বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১৩ জন। সর্বশেষ গুরুতর অসুস্থ হয়ে ৩ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়। এ নিয়ে মোট ভর্তি রয়েছেন ১৪ জন। বাকি ১৪ জন অনশনরত অবস্থায় উপাচার্য বাস ভবনের মূল ফটকের সামনে অবস্থান করছেন। উপচার্যের পদত্যাগের দাবিতে ২৪ শিক্ষার্থী আমরণ অনশন শুরু করেন। এর মধ্যে অনশনকারী এক শিক্ষার্থীর পরিবারের সদস্য অসুস্থ হওয়ায় অনশন ভেঙে বাড়ি ফিরে গেছেন তিনি। পরে রোববার অনশনরত স্থানে নতুন করে আরও পাঁচ শিক্ষার্থী যোগ দেন। উপাচার্যের পদত্যাগ না হওয়া পর্যন্ত তারা আমরণ অনশন কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

ছাত্রদল ‘দমনে’ ব্যবহৃত হচ্ছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা

ছাত্রদল নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ নেতার মামলা

ছবি

কর্মসূচিতে বাধা : ঢাবিতে ফের সংঘর্ষে ছাত্রলীগ-ছাত্রদল

ছবি

ঢাবিতে ফের ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষে আতঙ্কে সাধারণ শিক্ষার্থীরা

ছবি

সাংবাদিককে পিটিয়ে মোবাইল ছিনতাই করেছে ছাত্রলীগ

ছবি

ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ঢাবি ক্যাম্পাসে ঢুকতে না দেয়ার পরিকল্পনা ছাত্রলীগের

ছবি

ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা ঢাবি প্রশাসনের

ছবি

ঢাবিতে সালাম না দেওয়ায় ছাত্রলীগের থাপ্পড় খেয়ে কানের শ্রবণশক্তি হারালো শিক্ষার্থী

ছবি

ছাত্রদলের দুই নেতাকে ড্রেনে রেখে পেটালো ছাত্রলীগ

ছবি

ঢাবিতে ছাত্রদলের উপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ৪০

ছবি

ঢাবিতে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ২

বিএসএমএমইউতে বিশ্বআইবিডি ও নার্স দিবস পালিত

ঢাবিতে সাংবাদিকের ওপর চড়াও হলেন ছাত্রলীগ নেতা

ছবি

ঢাবিতে সাংবাদিকের উপর চড়াও হলেন ছাত্রলীগ নেতা পুতুল

ছবি

বিএসএমএমইউতে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

ছবি

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষামন্ত্রীর আগমণকে কেন্দ্র করে শিক্ষকদের দুই পক্ষের বাকবিতন্ডা

ছবি

হলের ছাদ থেকে পড়ে জাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ছবি

১৭ তম নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় দিবস: শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়নের পথে নিরন্তর স্বপ্নযাত্রা

জাবিতে ভর্তি পরীক্ষা শুরু ১৮ মে

ছবি

আগামী শনিবার বিএসএমএমইউ এর ২৫তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস ও প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী

ছবি

‘খন্দকার মোশতাককে শ্রদ্ধা’, ঢাবি অধ্যাপক সহ তিন জনকে রহমত উল্লাহর আইনি নোটিশ

ঢাবির চারুকলায় ছাত্রদের সাথে নিয়ে ছাত্রীদের যৌন হেনস্তার অভিযোগ শিক্ষকের বিরুদ্ধে

ছবি

ক্ষমা চেয়ে বড় শাস্তি থেকে পার পেলেন যৌন নিপীড়নে অভিযুক্ত ঢাবি অধ্যাপক

টয়লেট ছাড়াই স্কুলভবন

ঢাকা কলেজে র‍্যাব ও ডিবির যৌথ অভিযান, আটক ১

ছবি

ছিনতাইকারীকে ধরতে চলন্ত ট্রেন থেকে লাফ দিলেন শিক্ষার্থী

ছবি

‘আমরা ঘরে বসে থাকলেও শেখ হাসিনা ক্ষমতায় যেতে পারবেন না’

ছবি

নিউমার্কেট সাংবাদিক নির্যাতন-লাঞ্ছনার ঘটনায় ডুজার উদ্বেগ

ছবি

নিউমার্কেটে সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে সতিকসাসের মানববন্ধন

বক্তব্যটি অধ্যাপক রহমত উল্লাহর ব্যক্তিগত, ঢাবি শিক্ষক সমিতির নয়

আন্দোলনে ঢাকা কলেজকে সমর্থন ঢাবি শিক্ষার্থীদের

হল ছাড়েনি ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা , অধ্যক্ষ অবরুদ্ধ

রমেক অধ্যক্ষের সরকারি বাস ভবনের মালামাল লুটের অভিযোগ

ছবি

৫ মে পর্যন্ত বন্ধ ঢাকা কলেজ , বিকেলের মধ্যে ছাড়তে হবে ছাত্রাবাস

ছবি

মধ্যরাতে ঢাকা কলেজের সব ক্লাস-পরীক্ষা ‘স্থগিত’

ছবি

ঢাবি থেকে অবসর চান সামিয়া রহমান

tab

ক্যাম্পাস

অনশন ভেঙে আলোচনায় রাজি নয় শিক্ষার্থীরা

মোয়াজ্জেম আফরান, শাবিপ্রবি

শাবিপ্রবি : উপাচার্য বাসভবনের সামনের ফটক অবরোধ করে শুয়ে পড়ে শিক্ষার্থীরা -সংবাদ

সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) চলমান সংকট নিরসনে শিক্ষামন্ত্রী ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বার বার উদ্যোগ নিচ্ছেন। তবে কর্ণপাত করছে না শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলমান রয়েছে। প্রতিটি ভবনে ঝুলছে তালা। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রমে স্থবিরতা বিরাজ করছে। শিক্ষার্থীদের শর্ত একটাই- উপাচার্যকে পদত্যাগ করতেই হবে। সোমবার (২৪ জানুয়ারি) উপাচার্যের বাসভবনের মূল ফটকের সামনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের পক্ষে এ কথা বলেন মোহাইমিনুল বাশার রাজ।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, উপাচার্যের কার্যালয়ের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করায় অনেকে বলছেন অমানবিক। আমরা বাধ্য হয়ে কঠোর হয়েছি। শিক্ষামন্ত্রীর বার বার অনশন ভাঙার অনুরোধের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অনশন কর্মসূচি থেকে আমাদের সরে আসার কোন সুযোগ নেই। একশ’ ঘণ্টার ওপরে আমাদের সহযোদ্ধারা না খেয়ে আছে। প্রয়োজনে মরবো, তারপরও অনশন ভাঙতে পারব না। অনশন ভেঙে কারও সঙ্গেই আলোচনায় বসবো না। শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষা উপমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যে ভিসি শিক্ষার্থীদের ওপর গুলি ছুড়তে পারে, বোমা মারতে পারে, তার পদত্যাগ ছাড়া আলোচনায় বসার প্রশ্নই ওঠে না। আগে পদত্যাগ তারপর আলোচনা।

এখনও অবরুদ্ধ উপাচার্য :

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের দ্বারা নিজ বাসভবনে দ্বিতীয় দিনের মতো অবরুদ্ধ অবস্থায় দিন কাটিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। বিদ্যুৎ, পানি ও ইন্টারনেটের সংযোগ কেটে দেয়ায় মানবিক সংকটে পড়েছেন উপাচার্য ও তার পরিবার। প্রয়োজনীয় খাবার, পানি ও ওষুধ নিয়ে কাউকে ভেতরে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না আন্দোলনকারীরা। সোমবার সন্ধ্যায় উপাচার্য ও তার পরিবারের জন্য প্রয়োজনীয় খাবার, পানি ও ওষুধ নিয়ে মূল ফটকে প্রবেশ করতে চাইলে শিক্ষার্থীরা ফিরিয়ে দেন। এ সময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শিক্ষকদের বাগবিতন্ডা হয়। বেশ কিছু শিক্ষার্থীকে ব্যারিকেড দিয়ে শুয়ে পড়তে দেখা যায়।

প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. আলমগীর কবীর, সহকারী প্রক্টর আবু হেনা পহিল, বঙ্গবন্ধু হলের সহকারী প্রভোস্ট মুনিরুজ্জামান সোহাগ মানবিক দিক থেকে বিবেচনা করে বারবার আকুতি জানালেও কর্ণপাত করেনি কেউ।

প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক ড. আলমগীর কবীর গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, ‘শুধু উপাচার্য মহোদয়ের জন্য খাবার নয়, গেস্ট হাউজ ও ডরমেটরিতে আমাদের বেশ কিছু শিক্ষক, কর্মকর্তা আটকা পড়ে আছেন। এদের মধ্যে একজন শিক্ষক অসুস্থ। উনি কি অবস্থায় আছেন তা আমরা জানি না। এমনকি যোগাযোগও সম্ভব হচ্ছে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘উপাচার্যের হার্টের সমস্যা, তার ওষুধ শেষ হয়ে গেছে। যদি ভেতরে যাওয়ার সুযোগ হতো তবে ওষুধের ব্যবস্থা করা যেত। এখন আর এই সুযোগ নেই।’

এর আগে বিকেল ৫টায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের জন্য খাবার নিয়ে আসেন শিক্ষক প্রতিনিধি দল। খাবার গ্রহণে বার বার অনুরোধ করলেও ফিরিয়ে দেন শিক্ষার্থীরা অনশনে অসুস্থ হয়ে

হাসপাতালে ১৪ শিক্ষার্থী

উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগের দাবিতে আমরণ অনশনরত শিক্ষার্থীরা অনশনের ১২৫ ঘণ্টা পার করেছেন। সোমবার আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে মোহাইমিনুল বাশার রাজ জানান, সর্বমোট ৭ জন শিক্ষার্থী হাসপাতাল থেকে ফিরলেও নতুন করে আরও তিনজন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

তিনি বলেন, আন্দোলনে অনশনরত শিক্ষার্থীরা যারা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তারা একটু সুস্থতাবোধ করায় ডাক্তারের ছাড়পত্র নিয়ে ক্যাম্পাসে ফিরে আসছেন। তারা সুস্থতাবোধ করায় হাসপাতালে থাকতে চাচ্ছে না। তাই তারা একটু সুস্থ হলেই ক্যাম্পাসে ফিরে আসছেন।

এছাড়া বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১৩ জন। সর্বশেষ গুরুতর অসুস্থ হয়ে ৩ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়। এ নিয়ে মোট ভর্তি রয়েছেন ১৪ জন। বাকি ১৪ জন অনশনরত অবস্থায় উপাচার্য বাস ভবনের মূল ফটকের সামনে অবস্থান করছেন। উপচার্যের পদত্যাগের দাবিতে ২৪ শিক্ষার্থী আমরণ অনশন শুরু করেন। এর মধ্যে অনশনকারী এক শিক্ষার্থীর পরিবারের সদস্য অসুস্থ হওয়ায় অনশন ভেঙে বাড়ি ফিরে গেছেন তিনি। পরে রোববার অনশনরত স্থানে নতুন করে আরও পাঁচ শিক্ষার্থী যোগ দেন। উপাচার্যের পদত্যাগ না হওয়া পর্যন্ত তারা আমরণ অনশন কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

back to top