alt

ক্যাম্পাস

নিউমার্কেট সাংবাদিক নির্যাতন-লাঞ্ছনার ঘটনায় ডুজার উদ্বেগ

ঢাবি প্রতিনিধি: : শুক্রবার, ২২ এপ্রিল ২০২২

ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজের ছাত্রদের সঙ্গে ব্যবসায়ী, কর্মচারী ও হকারদের সংঘর্ষের ঘটনার সংবাদ সংগ্রহ করতে যাওয়া সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (ডুজা)।

ডুজা বলেছে, সাংবাদিক নির্যাতন ও লাঞ্ছনার এসব ঘটনার মাধ্যমে সংবিধানস্বীকৃত গণমাধ্যমের স্বাধীনতাকে পদদলিত করা হয়েছে। এসব ঘটনায় ব্যবস্থা দাবি করেছে ডুজা।

শুক্রবার (২২ এপ্রিল) গণমাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে এই দাবি জানান ডুজার সভাপতি মামুন তুষার ও সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম।

যৌথ বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, নিউ মার্কেট এলাকায় সংঘর্ষের সময় দীপ্ত টিভির সাংবাদিক আসিফ সুমিত, মানবজমিনের শুভ্র দেব, ডেইলি স্টারের প্রবীর দাস ও বাংলা ট্রিবিউনের শাহেদ শফিকসহ আরও বেশ কয়েকজন সাংবাদিক হামলা ও লাঞ্ছনার শিকার হন। বিবাদমান দুই পক্ষের সমর্থকরা যেভাবে সাংবাদিকদের আক্রমণের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেছেন, তা কোনো সভ্য সমাজে কাম্য হতে পারে না। এ ঘটনার মাধ্যমে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আইন সংবিধান দ্বারা স্বীকৃত গণমাধ্যমের স্বাধীনতাকে পদদলিত করা হয়েছে৷ এই ঘটনা একইসঙ্গে মানবাধিকার লঙ্ঘনের নির্মম দৃষ্টান্ত।

“নিউ মার্কেট এলাকায় সংঘর্ষের সময় সাংবাদিক নির্যাতন ও লাঞ্ছনার ঘটনার বিভিন্ন ভিডিও ফুটেজ ও ছবি সামাজিক যোগাযোগ-মাধ্যমে আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে৷ কিন্তু আমরা বিস্ময়ের সঙ্গে লক্ষ্য করলাম, সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় পুলিশ-প্রশাসন বা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনো মাথা-ব্যথা নেই৷ গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে কোনো ধরনের তৎপরতা দেখা যাচ্ছে না৷ এটি অনুমেয় যে নির্যাতিত-লাঞ্ছিত সাংবাদিকেরা নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষের সমর্থন না পেলে আইনি জটিলতায় নিজেদের জড়াতে চাইবেন না৷”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি মনে করে, অতীতে সাংবাদিক নির্যাতনের বিভিন্ন ঘটনায় কোনো বিচার বা প্রশাসনিক পদক্ষেপের উদাহরণ না থাকায় সাংবাদিকদের ওপর হামলা প্রতিনিয়তই ঘটে চলেছে৷ নিউ মার্কেট এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনার সময় সাংবাদিকদের নির্যাতন-লাঞ্ছনার ঘটনাসহ অতীতে ঘটে যাওয়া এ ধরনের ঘটনায় ব্যবস্থা নিয়ে রাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সাংবিধানিক অঙ্গীকারের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করবে বলে আমরা প্রত্যাশা করি৷

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্তৃপক্ষের প্রতি আমাদের আহ্বান থাকবে, আপনারা প্রয়োজনীয় সব ধরনের সমর্থন নিয়ে নির্যাতিত-লাঞ্ছিত সাংবাদিকদের পাশে দাঁড়াবেন৷ কারণ প্রতিশ্রুতিশীল ও দক্ষ সাংবাদিকরাই গণমাধ্যমের প্রাণশক্তি৷ তারা ভালো থাকলে গণমাধ্যমও ভালো থাকবে৷ রাষ্ট্র ও সরকারের প্রতি আমাদের উদাত্ত আহ্বান, গণমাধ্যমের স্বাধীনতার সাংবিধানিক অঙ্গীকার বাস্তবায়নে সাংবাদিক নির্যাতন ও লাঞ্ছনার ঘটনার প্রতিকারে প্রয়োজনে পৃথক আদালত গঠন করা হোক৷ রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ও রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে গণমাধ্যমের অসামান্য ভূমিকাকে বিবেচনায় নিয়ে সাংবাদিক নির্যাতন ও লাঞ্ছনার বিরুদ্ধে জনসচেতনতা তৈরিতে রাষ্ট্রীয়ভাবে উদ্যোগ নেওয়া হোক৷

ছবি

শহীদ মিনার এলাকায় ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষ

ছবি

ঢাবিতে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ২

বিএসএমএমইউতে বিশ্বআইবিডি ও নার্স দিবস পালিত

ঢাবিতে সাংবাদিকের ওপর চড়াও হলেন ছাত্রলীগ নেতা

ছবি

ঢাবিতে সাংবাদিকের উপর চড়াও হলেন ছাত্রলীগ নেতা পুতুল

ছবি

বিএসএমএমইউতে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

ছবি

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষামন্ত্রীর আগমণকে কেন্দ্র করে শিক্ষকদের দুই পক্ষের বাকবিতন্ডা

ছবি

হলের ছাদ থেকে পড়ে জাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ছবি

১৭ তম নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় দিবস: শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়নের পথে নিরন্তর স্বপ্নযাত্রা

জাবিতে ভর্তি পরীক্ষা শুরু ১৮ মে

ছবি

আগামী শনিবার বিএসএমএমইউ এর ২৫তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস ও প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী

ছবি

‘খন্দকার মোশতাককে শ্রদ্ধা’, ঢাবি অধ্যাপক সহ তিন জনকে রহমত উল্লাহর আইনি নোটিশ

ঢাবির চারুকলায় ছাত্রদের সাথে নিয়ে ছাত্রীদের যৌন হেনস্তার অভিযোগ শিক্ষকের বিরুদ্ধে

ছবি

ক্ষমা চেয়ে বড় শাস্তি থেকে পার পেলেন যৌন নিপীড়নে অভিযুক্ত ঢাবি অধ্যাপক

টয়লেট ছাড়াই স্কুলভবন

ঢাকা কলেজে র‍্যাব ও ডিবির যৌথ অভিযান, আটক ১

ছবি

ছিনতাইকারীকে ধরতে চলন্ত ট্রেন থেকে লাফ দিলেন শিক্ষার্থী

ছবি

‘আমরা ঘরে বসে থাকলেও শেখ হাসিনা ক্ষমতায় যেতে পারবেন না’

ছবি

নিউমার্কেটে সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে সতিকসাসের মানববন্ধন

বক্তব্যটি অধ্যাপক রহমত উল্লাহর ব্যক্তিগত, ঢাবি শিক্ষক সমিতির নয়

আন্দোলনে ঢাকা কলেজকে সমর্থন ঢাবি শিক্ষার্থীদের

হল ছাড়েনি ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা , অধ্যক্ষ অবরুদ্ধ

রমেক অধ্যক্ষের সরকারি বাস ভবনের মালামাল লুটের অভিযোগ

ছবি

৫ মে পর্যন্ত বন্ধ ঢাকা কলেজ , বিকেলের মধ্যে ছাড়তে হবে ছাত্রাবাস

ছবি

মধ্যরাতে ঢাকা কলেজের সব ক্লাস-পরীক্ষা ‘স্থগিত’

ছবি

ঢাবি থেকে অবসর চান সামিয়া রহমান

ছবি

অধ্যাপক রহমত উল্লাহর শাস্তি চেয়েছে ঢাবি ছাত্রলীগ

খন্দকার মোশতাককে শ্রদ্ধাঃ ক্ষমা চেয়েছেন ঢাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি

ছবি

খন্দকার মোশতাককে ঢাবি শিক্ষক নেতার একইসাথে শ্রদ্ধা ও ঘৃণা!

ছবি

বিএসএমএমইউতে হচ্ছে ৫শ শয্যার কার্ডিও ভাস্কুল সাইন্স রিসার্চ

বিক্ষুব্ধ শিক্ষক শিক্ষার্থীর সড়ক অবরোধ

ছবি

বিশ্ব কন্ঠ দিবস পালিত

এমসি কলেজের মাঠ দখলের পাঁয়তারা, মানববন্ধনে শিক্ষার্থীদের অভিযােগ

ঢাবিতে সাংবাদিককে মারধরের অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে

ছবি

বর্ষবরণে প্রতিবন্ধী শিশুদের সাথে ইবি বুননের ইফতার

ছবি

ছাত্রীর অভিযোগে ঢাবি অধ্যাপক বিশ্বজিৎ ঘোষকে অব্যাহতি

tab

ক্যাম্পাস

নিউমার্কেট সাংবাদিক নির্যাতন-লাঞ্ছনার ঘটনায় ডুজার উদ্বেগ

ঢাবি প্রতিনিধি:

ছবি: সংগৃহীত

শুক্রবার, ২২ এপ্রিল ২০২২

রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজের ছাত্রদের সঙ্গে ব্যবসায়ী, কর্মচারী ও হকারদের সংঘর্ষের ঘটনার সংবাদ সংগ্রহ করতে যাওয়া সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (ডুজা)।

ডুজা বলেছে, সাংবাদিক নির্যাতন ও লাঞ্ছনার এসব ঘটনার মাধ্যমে সংবিধানস্বীকৃত গণমাধ্যমের স্বাধীনতাকে পদদলিত করা হয়েছে। এসব ঘটনায় ব্যবস্থা দাবি করেছে ডুজা।

শুক্রবার (২২ এপ্রিল) গণমাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে এই দাবি জানান ডুজার সভাপতি মামুন তুষার ও সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম।

যৌথ বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, নিউ মার্কেট এলাকায় সংঘর্ষের সময় দীপ্ত টিভির সাংবাদিক আসিফ সুমিত, মানবজমিনের শুভ্র দেব, ডেইলি স্টারের প্রবীর দাস ও বাংলা ট্রিবিউনের শাহেদ শফিকসহ আরও বেশ কয়েকজন সাংবাদিক হামলা ও লাঞ্ছনার শিকার হন। বিবাদমান দুই পক্ষের সমর্থকরা যেভাবে সাংবাদিকদের আক্রমণের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেছেন, তা কোনো সভ্য সমাজে কাম্য হতে পারে না। এ ঘটনার মাধ্যমে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আইন সংবিধান দ্বারা স্বীকৃত গণমাধ্যমের স্বাধীনতাকে পদদলিত করা হয়েছে৷ এই ঘটনা একইসঙ্গে মানবাধিকার লঙ্ঘনের নির্মম দৃষ্টান্ত।

“নিউ মার্কেট এলাকায় সংঘর্ষের সময় সাংবাদিক নির্যাতন ও লাঞ্ছনার ঘটনার বিভিন্ন ভিডিও ফুটেজ ও ছবি সামাজিক যোগাযোগ-মাধ্যমে আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে৷ কিন্তু আমরা বিস্ময়ের সঙ্গে লক্ষ্য করলাম, সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় পুলিশ-প্রশাসন বা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনো মাথা-ব্যথা নেই৷ গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে কোনো ধরনের তৎপরতা দেখা যাচ্ছে না৷ এটি অনুমেয় যে নির্যাতিত-লাঞ্ছিত সাংবাদিকেরা নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষের সমর্থন না পেলে আইনি জটিলতায় নিজেদের জড়াতে চাইবেন না৷”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি মনে করে, অতীতে সাংবাদিক নির্যাতনের বিভিন্ন ঘটনায় কোনো বিচার বা প্রশাসনিক পদক্ষেপের উদাহরণ না থাকায় সাংবাদিকদের ওপর হামলা প্রতিনিয়তই ঘটে চলেছে৷ নিউ মার্কেট এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনার সময় সাংবাদিকদের নির্যাতন-লাঞ্ছনার ঘটনাসহ অতীতে ঘটে যাওয়া এ ধরনের ঘটনায় ব্যবস্থা নিয়ে রাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সাংবিধানিক অঙ্গীকারের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করবে বলে আমরা প্রত্যাশা করি৷

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্তৃপক্ষের প্রতি আমাদের আহ্বান থাকবে, আপনারা প্রয়োজনীয় সব ধরনের সমর্থন নিয়ে নির্যাতিত-লাঞ্ছিত সাংবাদিকদের পাশে দাঁড়াবেন৷ কারণ প্রতিশ্রুতিশীল ও দক্ষ সাংবাদিকরাই গণমাধ্যমের প্রাণশক্তি৷ তারা ভালো থাকলে গণমাধ্যমও ভালো থাকবে৷ রাষ্ট্র ও সরকারের প্রতি আমাদের উদাত্ত আহ্বান, গণমাধ্যমের স্বাধীনতার সাংবিধানিক অঙ্গীকার বাস্তবায়নে সাংবাদিক নির্যাতন ও লাঞ্ছনার ঘটনার প্রতিকারে প্রয়োজনে পৃথক আদালত গঠন করা হোক৷ রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ও রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে গণমাধ্যমের অসামান্য ভূমিকাকে বিবেচনায় নিয়ে সাংবাদিক নির্যাতন ও লাঞ্ছনার বিরুদ্ধে জনসচেতনতা তৈরিতে রাষ্ট্রীয়ভাবে উদ্যোগ নেওয়া হোক৷

back to top