alt

ক্যাম্পাস

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়

যৌন হয়রানির অভিযোগ তদন্ত না করেই অব্যাহতি

জেলা বার্তা পরিবেশক, খুলনা : বুধবার, ১৫ জুন ২০২২

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌনহয়রানি, শারীরিক ও মানসিক নিপীড়নের অভিযোগ করেছিলেন এক নারীসহকর্মী। ওই নারীশিক্ষকের অভিযোগ, গত বছরের ২৬ জানুয়ারি রাতে ভাড়া বাসায় ডেকে নিয়ে তাকে যৌন নির্যাতন করা হয়।

অভিযোগের ১০ মাস পর বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌননিপীড়ন নিরোধ কমিটি বলছে, ক্যাম্পাসের বাইরের ঘটনা হওয়ায় অভিযোগটি তারা বিবেচনা করেননি। শারীরিক এবং মানসিক নিপীড়নের প্রমাণও পাওয়া যায়নি। কমিটির প্রধান অধ্যাপক মোসা. তাসলিমা খাতুন বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের বাইরে কোন ঘটনা ঘটলে তা বিশ্ববিদ্যালয়ের এখতিয়ারবহির্ভূত। তারা এ বিষয়ে কিছু করতে পারেন না।

তবে এটা জানাতে ১০ মাস সময় লাগার কোন সদুত্তর তিনি দিতে পারেননি তিনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) খান গোলাম কুদ্দুস বলেন, গত বছরের আগস্টে এ অভিযোগ ওঠার পর ওই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। তবে এ বিষয়ে তদন্ত কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে ৮ জুন বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেটের সভায় বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। সোমবার রেজিস্ট্রার দপ্তর থেকে এ বিষয়ে চিঠি ইস্যু করা হয়েছে।

গোলাম কুদ্দুস আরও বলেন, ওই নারী শিক্ষক এখন চাইলে আদালতের আশ্রয় নিতে পারবেন। এ বিষয়ে অভিযুক্ত ওই শিক্ষক বলেন, আমি প্রথম থেকেই বলে আসছি, আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগটি ষড়যন্ত্রমূলক এবং মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন। তদন্তেও অভিযোগটি মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। তবে অভিযোগকারী নারী শিক্ষক বলেন, অভিযোগ আমলে নিয়ে তদন্ত শুরু করেছিল কমিটি। তাকে তিনবার কমিটির কাছে সাক্ষাৎকার দিতে হয়েছে। ডিসিপ্লিনের সব শিক্ষকের সাক্ষাৎকারও নিয়েছে।

কিন্তু ১০ মাস পর জানানো হচ্ছে, অভিযোগটি নাকি কমিটির বিবেচনার বিষয় নয়। শারীরিক নির্যাতন ও মানসিক নিপীড়নের ব্যাপারে তারা নাকি কোন প্রমাণ পায়নি। ওই নারী শিক্ষক আরও বলেন, নিপীড়নের প্রমাণস্বরূপ বিভিন্ন সময় ওই শিক্ষকের দেয়া খুদে বার্তা তদন্ত কমিটিকে দেয়া হয়েছিল। ঘটনার পর তিনি যে ক্ষমা চেয়েছিলেন, সে সম্পর্কিত কল রেকর্ডও দেয়া হয়েছিল। এরপরও নাকি তদন্ত কমিটি কোন প্রমাণ পায়নি।

চাঁদা না দেয়ায় লেগুনা ভাঙচুরের অভিযোগ ঢাবি ছাত্রলীগ কর্মীদের বিরুদ্ধে

ঢাবির ৫০ গ্র্যাজুয়েটকে বাদ দিয়ে এনএসইউ ছাত্রীর নিয়োগ

নড়াইলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গোপনে ব্যবহার হচ্ছে মোবাইল ফোন, বন্ধে কঠোর নিদের্শনা

ছবি

স্টেট ইউনিভার্সিটির উদ্যোগে ট্রাফিক সচেতনতামূলক কর্মশালা

নড়াইলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ

ছবি

ঢাবির ১০১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত

রাবি ভর্তি পরীক্ষায় আবেদন ১ লাখ ৭৮ হাজার

ঢাবির মনোবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ৭ শিক্ষকের অনাস্থা

ঢাবিতে র‍্যাগ ডে’কে ‘এক দিনের শিক্ষা সমাপনী উৎসবে’ পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত

ছবি

ঢাবির মনোবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ৭ শিক্ষকের অনাস্থা

ছবি

সংখ্যালঘু শিক্ষকদের লাঞ্ছিত ও হত্যা এবং রাবি শিক্ষকের জমি দখলের প্রতিবাদ

ছবি

রুয়েটে রোবটিক্স ফেয়ার ‘রোবোট্রনিক ২.০’ শুরু

ছবি

রাবির বহিস্কৃত শিক্ষার্থী ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার

ছবি

সামাজিক নিরাপত্তা ও নাগরিকের মর্যাদা প্রদানে ব্যার্থতার দায় সম্পূর্ণ সরকারের

ছবি

নড়াইলে অধ্যক্ষকে হেনস্তা এবং সাভারে শিক্ষক হত্যার প্রতিবাদ ছাত্র অধিকার পরিষদের

ছবি

সাভারে শিক্ষক হত্যাকারীকে গ্রেফতারের দাবিতে ঢাবিতে আমরণ অনশন

ছবি

ঢাবিতে বন্যার্তদের জন্য কনসার্ট, থাকছে দেশসেরা সব ব্যান্ড

ছবি

ঢাবির ‘খ’ ইউনিটের ফলাফল প্রকাশ কাল

ছবি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রতীকী অনশন

ছবি

উচ্চশিক্ষা মানেই উচ্চ পর্যায়ের চাকরির মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে: নওফেল

ছবি

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনীতে ইবিতে জমকালো কর্মসূচী

ছবি

খুলনায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের আত্মহনন, প্রেমিকা গ্রেপ্তার

ছবি

শিক্ষার্থীকে মারধর করে হল থেকে নামিয়ে দিলেন ছাত্রলীগ

ঢাবি শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটিয়ে হল ছাড়া করলো ছাত্রলীগ

মধ্যরাতে ঢাবি ক্লাবে রিজভীর অবস্থান, তদন্ত কমিটি

ছবি

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ২ ঢাবি শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার চেষ্টা

ছবি

ছাত্র ফ্রন্টের নেতাকর্মীদের উপর ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের হামলা

ছবি

১২ দফা দাবিতে রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তাদের মানব বন্ধন

স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের বিশেষ বর্ধিতসভা

বর্ধিত উন্নয়ন ফি কমানোর দাবি করায় বহিষ্কারের হুমকি

ঢাবির সিনেটে ‘‘বাংলাদেশ জিন্দাবাদ’’ স্লোগান নিয়ে তুমুল হট্টগোল

ছবি

সিলেটে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, এক সপ্তাহ বন্ধ শাবি

ছবি

ঢাবিতে ধনীদের সন্তানের কাছ থেকে বেশি ফি নেওয়ার প্রস্তাব

ছবি

সিনেটে ৯২২ কোটি ৪৮ লাখ টাকার বাজেট অনুমোদন

ছবি

জবিতে উদীচী সংসদের ‘বর্ষাকল্প’ বরণে উৎসব

বেরোবির উপাচার্য অধ্যাপক রশীদের এক বছরপূর্তি

tab

ক্যাম্পাস

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়

যৌন হয়রানির অভিযোগ তদন্ত না করেই অব্যাহতি

জেলা বার্তা পরিবেশক, খুলনা

বুধবার, ১৫ জুন ২০২২

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌনহয়রানি, শারীরিক ও মানসিক নিপীড়নের অভিযোগ করেছিলেন এক নারীসহকর্মী। ওই নারীশিক্ষকের অভিযোগ, গত বছরের ২৬ জানুয়ারি রাতে ভাড়া বাসায় ডেকে নিয়ে তাকে যৌন নির্যাতন করা হয়।

অভিযোগের ১০ মাস পর বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌননিপীড়ন নিরোধ কমিটি বলছে, ক্যাম্পাসের বাইরের ঘটনা হওয়ায় অভিযোগটি তারা বিবেচনা করেননি। শারীরিক এবং মানসিক নিপীড়নের প্রমাণও পাওয়া যায়নি। কমিটির প্রধান অধ্যাপক মোসা. তাসলিমা খাতুন বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের বাইরে কোন ঘটনা ঘটলে তা বিশ্ববিদ্যালয়ের এখতিয়ারবহির্ভূত। তারা এ বিষয়ে কিছু করতে পারেন না।

তবে এটা জানাতে ১০ মাস সময় লাগার কোন সদুত্তর তিনি দিতে পারেননি তিনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) খান গোলাম কুদ্দুস বলেন, গত বছরের আগস্টে এ অভিযোগ ওঠার পর ওই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। তবে এ বিষয়ে তদন্ত কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে ৮ জুন বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেটের সভায় বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। সোমবার রেজিস্ট্রার দপ্তর থেকে এ বিষয়ে চিঠি ইস্যু করা হয়েছে।

গোলাম কুদ্দুস আরও বলেন, ওই নারী শিক্ষক এখন চাইলে আদালতের আশ্রয় নিতে পারবেন। এ বিষয়ে অভিযুক্ত ওই শিক্ষক বলেন, আমি প্রথম থেকেই বলে আসছি, আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগটি ষড়যন্ত্রমূলক এবং মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন। তদন্তেও অভিযোগটি মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। তবে অভিযোগকারী নারী শিক্ষক বলেন, অভিযোগ আমলে নিয়ে তদন্ত শুরু করেছিল কমিটি। তাকে তিনবার কমিটির কাছে সাক্ষাৎকার দিতে হয়েছে। ডিসিপ্লিনের সব শিক্ষকের সাক্ষাৎকারও নিয়েছে।

কিন্তু ১০ মাস পর জানানো হচ্ছে, অভিযোগটি নাকি কমিটির বিবেচনার বিষয় নয়। শারীরিক নির্যাতন ও মানসিক নিপীড়নের ব্যাপারে তারা নাকি কোন প্রমাণ পায়নি। ওই নারী শিক্ষক আরও বলেন, নিপীড়নের প্রমাণস্বরূপ বিভিন্ন সময় ওই শিক্ষকের দেয়া খুদে বার্তা তদন্ত কমিটিকে দেয়া হয়েছিল। ঘটনার পর তিনি যে ক্ষমা চেয়েছিলেন, সে সম্পর্কিত কল রেকর্ডও দেয়া হয়েছিল। এরপরও নাকি তদন্ত কমিটি কোন প্রমাণ পায়নি।

back to top