alt

ক্যাম্পাস

ঢাবির মনোবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ৭ শিক্ষকের অনাস্থা

প্রতিনিধি, ঢাবি : বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২

দুর্নীতিসহ ১২টি অভিযোগ এনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ার?ম্যান অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দীনের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছে চিঠি দিয়েছেন বিভাগের সাতজন শিক্ষক। গত ২৬ জুন উপাচার্যের কার্যালয়ে চিঠিটি জমা দেওয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের কর্মকর্তা ও সিন্ডিকেট সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

অনাস্থা জানানো সাত শিক্ষক হলেন অধ্যাপক ড. এ. কে. এম. রেজাউল করিম, অধ্যাপক ড. মোছা. আয়েশা সুলতানা, সহযোগী অধ্যাপক আরিফা রহমান, ড. আকিব-উল হক, সহকারী অধ্যাপক ছন্দা কর্মকার, সঞ্চারী প্রতিভা, ফারিয়া বকুল। এসব শিক্ষকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে বিষয়টি বিভাগের অভ্যন্তরীণ উল্লেখ করে আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দিতে রাজি হননি তারা। তবে চেয়ারম্যানের অনিয়মের বিষয়টি নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

উপাচার্যকে দেওয়া চিঠিতে সাত শিক্ষক লিখেছেন, বর্তমান চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দীনের অন্যায় কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে বিভাগীয় একাডেমিক কমিটি ও সিএন্ডডি কমিটির সভায় কথা বলতে গেলে বা তার অন্যায়কে সমর্থন না করলে আমাদের সবার প্রতিই তিনি ক্ষুব্ধ হন এবং অসদাচরণ করেন। আমরা নিম্ন স্বাক্ষরকারী সবাই তার ওপর আস্থা হারিয়ে ফেলেছি। আমরা কেউ কেউ মানসিকভাবে নির্যাতিত ও নিপীড়িত, কেউ কেউ অত্যন্ত ভীত ও শঙ্কিত। এতে করে আমাদের ব্যক্তিগত, পারিবারিক এবং স্বাভাবিক একাডেমিক কার্যক্রম চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। আপনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের অভিভাবক। এ অবস্থায় আমরা আপনার কাছে ন্যায়বিচার পাওয়ার আশা করছি।

দুর্নীতি ও বিভিন্ন অন্যায় কর্মকান্ডে জড়িত মনোবিজ্ঞান বিভাগের বর্তমান চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দীনের প্রতি অনাস্থা প্রস্তাব আসন্ন সিন্ডিকেট সভায় উত্থাপন করে তা তদন্ত ও প্রতিকারের ব্যবস্থা করে মনোবিজ্ঞান বিভাগে সবার জন্য স্বাভাবিক একাডেমিক কর্মপরিবেশ অক্ষুণ্ন রাখার আবেদন জানানো হয় সাত শিক্ষকের চিঠিতে।

ড. কামাল উদ্দীনের বিরুদ্ধে স্টোর কিপার নিয়োগেও অনিয়মের অভিযোগ আনা হয়েছে। পছন্দের লোক নিয়োগের জন্য দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে প্রতি মাসের সভায় শিক্ষক বা কর্মচারী নিয়োগের বা নতুন নতুন পদ সৃষ্টির এজেন্ডা দেন, যেটিকে দুর্নীতির অংশ বলে চিহ্নিত করেন সাত শিক্ষক।

আর্থিক বিষয় নিয়ে অভিযোগ থেকে জানা গেছে, সিএন্ডডি কমিটির অনুমোদন ছাড়া লাগামহীনভাবে অর্থ খরচ করেন চেয়ারম্যান। যে কারণে বিভাগের যৌথ একাউন্ট এবং বিভাগের ক্রয় কমিটি থেকে লিখিতভাবে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নেন অধ্যাপক রেজাউল করিম।

মিথ্যাচার, অসদাচরণ, মানসিক নির্যাতন ও হয়রানি নিয়ে আরও ৮টি অভিযোগ করা হয়েছে সাত শিক্ষকের চিঠিতে।

এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দীন বলেন, “এদের বিরুদ্ধে বিভাগের অন্য শিক্ষকদেরও অনাস্থা আছে। বিভাগের শিক্ষক ২০ জন, সাতজনের অনাস্থায় কিছু আসে যায় না। বিভাগের চেয়ারম্যান কি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান যে ভোটে নির্বাচিত হয় আবার অনাস্থা ভোটে পদত্যাগ করতে হবে?

আর্থিক দুর্নীতি ও অনিয়নের অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমি কোনো অনিয়ম করিনি। একাডেমিক কাউন্সিলে মেজরিটি অনুপাতেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তাছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে খরচের নিয়ম আছে। এই পাঁচ-সাত জনের কথায়তো আর বিভাগ চলে না।

ছবি

গুচ্ছ পরীক্ষায় প্রক্সি: ঢাবি শিক্ষার্থী আকতারুলের রিমান্ড নামঞ্জুর

ছবি

বরগুনার অতিরিক্ত এসপিকে বরখাস্তের দাবি ছাত্রলীগের

ছবি

বুয়েটে বসছে ‘জাতীয় পরিবেশ উৎসব’

ছবি

বঙ্গবন্ধুর শোক সভার বিরোধিতা নয়, রাজনীতি পুনরুত্থানের শঙ্কা ছিল বুয়েট শিক্ষার্থীদের

ছবি

বুয়েটে আবারো ছাত্র রাজনীতি চালু করা হোক: ছাত্রলীগ সভাপতি

কাল জাবি উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন: লড়বেন আ.লীগপন্থী শিক্ষকদের তিন গ্রুপের প্রার্থীরা

বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ পরীক্ষায় প্রথম মনোহরদীর মেয়ে সুমাইয়া

ছবি

সামিয়া রহমানের কাছে ১১ লাখ ৪১ হাজার টাকা দাবি ঢাবির

ছবি

বঙ্গমাতা মেমোরিয়াল স্বর্ণপদক ও বৃত্তি পেলেন ঢাবির ১২ শিক্ষার্থী

ছবি

সমাবেশে হামলার প্রতিবাদে বামজোটের বিক্ষোভ

ছবি

সিটি ইউনিভার্সিটিতে রবি বিডি অ্যাপস ন্যাশনাল হ্যাকাথন রোডশো অনুষ্ঠিত

ছবি

জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি: জাহাঙ্গীরনগরে বিক্ষোভ, মহাসড়ক অবরোধ

ছবি

সিলেটে বন্যার্ত শিক্ষার্থীদের পাশে মার্কেটিং অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন

তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে ঢাবিতে মশাল মিছিল, বাধা দেওয়ার অভিযোগ ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে

রাবি ছাত্রী হত্যা মামলায় স্বামী ৩ দিনের রিমান্ডে

যৌন নির্যাতনের অভিযোগে ঢাবি ছাত্র বহিষ্কার

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের লক্ষ্যে সপ্তাহে এক দিন অনলাইনে ক্লাস

চবিতে ছাত্রী নিপীড়নের দায়ে বহিষ্কৃত দুই ছাত্রলীগ কর্মী পরীক্ষায় বসেছেন

ছবি

ঢাবিতে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে বহিরাগতের মোটরসাইকেল, মোবাইল ও অর্থ ছিনতাইয়ের অভিযোগ

ছবি

প্রক্সিতে ধরা পড়েও রাবির ‘এ’ ইউনিটে প্রথম, অবশেষে ফল বাতিল

ছবি

ছাত্রলীগ : চিঠির ফাঁকা স্থানে নাম বসিয়ে দিলেই কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা!

ছবি

ছাত্রী হেনস্তা : চবি ছাত্রলীগের দুই কর্মী বহিষ্কার হয়েও দিচ্ছেন পরীক্ষা

ছবি

রাবির ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি দিয়ে ‘এ’ ইউনিটে প্রথম

ছবি

৪৬ দিন পর কলেজে ফিরছেন লাঞ্ছিত অধ্যক্ষ

ছবি

চবিতে ছাত্রলীগের অবরোধ স্থগিত

ছবি

লোডশেডিংয়ের প্রতিবাদে ঢাবি ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল

ঢাবি সুফিয়া কামাল হল ডিবেটিং ক্লাবের নেতৃত্বে মাহফুজা-তিথি

ছবি

ঢাবি শিক্ষকদের বিরুদ্ধে সাত কলেজের পরীক্ষার খাতা মূল্যায়নে অনিয়মের অভিযোগ

ছবি

কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে নম্বর জালিয়াতির বিষয়ে হাইকোর্টের রুল

ছবি

বেরোবির বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের নতুন ডীন ড. মতিউর রহমান

ছবি

মাঙ্কিপক্স নিয়ে বিএসএমএমইউ ভিসির সতর্কতা

ছবি

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা: শাবিপ্রবি কেন্দ্রে উপস্থিত ৯৪.৫৪ শতাংশ

ছবি

বুলবুল হত্যাকান্ড: ক্যাম্পাসে নিরাপত্তা জোরদার শাবিপ্রবি প্রশাসনের

ছবি

রাবি শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

রাবির ‘সি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ ১ আগস্ট

ছবি

আঘাতের ১৫ মিনিটেই মৃত্যু হয়েছে শাবি শিক্ষার্থী বুলবুলের: চিকিৎসক

tab

ক্যাম্পাস

ঢাবির মনোবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ৭ শিক্ষকের অনাস্থা

প্রতিনিধি, ঢাবি

বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২

দুর্নীতিসহ ১২টি অভিযোগ এনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ার?ম্যান অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দীনের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছে চিঠি দিয়েছেন বিভাগের সাতজন শিক্ষক। গত ২৬ জুন উপাচার্যের কার্যালয়ে চিঠিটি জমা দেওয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের কর্মকর্তা ও সিন্ডিকেট সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

অনাস্থা জানানো সাত শিক্ষক হলেন অধ্যাপক ড. এ. কে. এম. রেজাউল করিম, অধ্যাপক ড. মোছা. আয়েশা সুলতানা, সহযোগী অধ্যাপক আরিফা রহমান, ড. আকিব-উল হক, সহকারী অধ্যাপক ছন্দা কর্মকার, সঞ্চারী প্রতিভা, ফারিয়া বকুল। এসব শিক্ষকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে বিষয়টি বিভাগের অভ্যন্তরীণ উল্লেখ করে আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দিতে রাজি হননি তারা। তবে চেয়ারম্যানের অনিয়মের বিষয়টি নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

উপাচার্যকে দেওয়া চিঠিতে সাত শিক্ষক লিখেছেন, বর্তমান চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দীনের অন্যায় কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে বিভাগীয় একাডেমিক কমিটি ও সিএন্ডডি কমিটির সভায় কথা বলতে গেলে বা তার অন্যায়কে সমর্থন না করলে আমাদের সবার প্রতিই তিনি ক্ষুব্ধ হন এবং অসদাচরণ করেন। আমরা নিম্ন স্বাক্ষরকারী সবাই তার ওপর আস্থা হারিয়ে ফেলেছি। আমরা কেউ কেউ মানসিকভাবে নির্যাতিত ও নিপীড়িত, কেউ কেউ অত্যন্ত ভীত ও শঙ্কিত। এতে করে আমাদের ব্যক্তিগত, পারিবারিক এবং স্বাভাবিক একাডেমিক কার্যক্রম চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। আপনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের অভিভাবক। এ অবস্থায় আমরা আপনার কাছে ন্যায়বিচার পাওয়ার আশা করছি।

দুর্নীতি ও বিভিন্ন অন্যায় কর্মকান্ডে জড়িত মনোবিজ্ঞান বিভাগের বর্তমান চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দীনের প্রতি অনাস্থা প্রস্তাব আসন্ন সিন্ডিকেট সভায় উত্থাপন করে তা তদন্ত ও প্রতিকারের ব্যবস্থা করে মনোবিজ্ঞান বিভাগে সবার জন্য স্বাভাবিক একাডেমিক কর্মপরিবেশ অক্ষুণ্ন রাখার আবেদন জানানো হয় সাত শিক্ষকের চিঠিতে।

ড. কামাল উদ্দীনের বিরুদ্ধে স্টোর কিপার নিয়োগেও অনিয়মের অভিযোগ আনা হয়েছে। পছন্দের লোক নিয়োগের জন্য দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে প্রতি মাসের সভায় শিক্ষক বা কর্মচারী নিয়োগের বা নতুন নতুন পদ সৃষ্টির এজেন্ডা দেন, যেটিকে দুর্নীতির অংশ বলে চিহ্নিত করেন সাত শিক্ষক।

আর্থিক বিষয় নিয়ে অভিযোগ থেকে জানা গেছে, সিএন্ডডি কমিটির অনুমোদন ছাড়া লাগামহীনভাবে অর্থ খরচ করেন চেয়ারম্যান। যে কারণে বিভাগের যৌথ একাউন্ট এবং বিভাগের ক্রয় কমিটি থেকে লিখিতভাবে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নেন অধ্যাপক রেজাউল করিম।

মিথ্যাচার, অসদাচরণ, মানসিক নির্যাতন ও হয়রানি নিয়ে আরও ৮টি অভিযোগ করা হয়েছে সাত শিক্ষকের চিঠিতে।

এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দীন বলেন, “এদের বিরুদ্ধে বিভাগের অন্য শিক্ষকদেরও অনাস্থা আছে। বিভাগের শিক্ষক ২০ জন, সাতজনের অনাস্থায় কিছু আসে যায় না। বিভাগের চেয়ারম্যান কি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান যে ভোটে নির্বাচিত হয় আবার অনাস্থা ভোটে পদত্যাগ করতে হবে?

আর্থিক দুর্নীতি ও অনিয়নের অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমি কোনো অনিয়ম করিনি। একাডেমিক কাউন্সিলে মেজরিটি অনুপাতেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তাছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে খরচের নিয়ম আছে। এই পাঁচ-সাত জনের কথায়তো আর বিভাগ চলে না।

back to top