alt

ক্যাম্পাস

গেস্টরুমে যেতে দেরী, ছাত্রলীগের নির্যাতনের শিকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ শিক্ষার্থী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি : বুধবার, ৩১ আগস্ট ২০২২

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের(ঢাবি) হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলে ৬ শিক্ষার্থীকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে ৪ ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে।

গেস্টরুমে যেতে দেরি করায় ওই শিক্ষার্থীদেরকে লাঠিপেটা করেন ছাত্রলীগ কর্মীরা।

গতকাল মঙ্গলবার(৩০ আগষ্ট) রাত ১২টার দিকে ওই হলের ১০২৭ নাম্বার কক্ষে এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।

তবে হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হোসেনের দাবি, মারধর নয়, তাদেরকে খাবারের জন্য গেস্টরুমে ডাকা হয়েছে। তখন একটু ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে।

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মীরা হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন সায়েন্সেস বিভাগের শিক্ষার্থী এইচ আর মারুফ, তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের আশরাফুল ইসলাম, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের আরিফ, আইন বিভাগের নাবিল।

তারা সবাই বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের(২০১৯-২০) শিক্ষার্থী এবং হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হোসেনের ছোট ভাই হিসেবে পরিচিত। হোসেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের অনুসারী।

ভুক্তভোগী ছয়জন ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের (প্রথম বর্ষ) বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থী। তাঁরা হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পক্ষের নিয়ন্ত্রিত গণরুমে থাকেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভুক্তভোগী এক শিক্ষার্থী জানায়, ‘মঙ্গলবার রাতে বাংলাদেশ - আফগানিস্তানের ক্রিকেট ম্যাচ থাকায় আমরা ছাত্রলীগের বেঁধে দেয়া নির্ধারিত সময়ে গেস্টরুমে উপস্থিত হতে পারিনি। তাই আমাদেরকে আলাদাভাবে নেয়া হয় গেস্টরুম। চড় থাপ্পড় এমনকি লাঠিপেটা করা হয় আমাদের।’

জানা যায়, হলের ১০২৭ নাম্বার রুমটিকে ছাত্রলীগের তথাকথিত ‘গেস্টরুম’ হিসেবে ব্যবহার করা হয়। হল অফিসের অফিশিয়াল নথি অনুযায়ী এই রুমে কোনো আবাসিক শিক্ষার্থী নেই। দীর্ঘদিন ধরে এটি ছাত্রলীগের দখলে রয়েছে।

যেখানে সপ্তাহে ৬দিন কিংবা কখনো কখনো ৭ দিন প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের গেস্টরুমের নামে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করেন হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হোসেনের গ্রুপের নেতাকর্মীরা। নিয়মিত দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা ও মাঝে মাঝে তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা এসব গেস্টরুম পরিচালনা করেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী মারুফ বিষয়টি অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, এটা পুরোপুরি মিথ্যা ও বানোয়াট। এরকম কোন ঘটনা ঘটেনি। সামনে হলের পূর্নাঙ্গ কমিটি দেওয়া হবে। এজন্য কেউ ষড়যন্ত্র করে আমাদের নামে এসব মিথ্যাচার করছে।

এদিকে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী আশরাফুল ও আরিফকে ফোন করা হলে তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। আরেক অভিযুক্ত নাবিলকে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি সাড়া দেননি।

হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হোসেন সংবাদকে বলেন, মারধর নয়, তাদেরকে খাবারের জন্য গেস্টরুমে ডাকা হয়েছে। তখন একটু ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে। পরবর্তীতে আমি তাদেরকে ঢেকে নিয়ে বিষয়টি সমাধান করে দিয়েছি।

হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মাসুদুর রহমান বলেন, আমি সাংবাদিকদের মাধ্যমে জেনেছি। আমরা খোঁজ নিয়ে দেখছি। এখনো পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। লিখিত অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ছবি

এসি-ফ্রিজ নিয়ে রাজার হালে ঢাবির হলে থাকছেন চাকরিজীবী ছাত্রলীগ নেতা

ছবি

৩ বছরেও অধিগ্রহণ সম্পন্ন হয়নি ভূমি জটিলতায় স্থবির নির্মাণকাজ

ছবি

ইডেন ছাত্রলীগের সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টা মামলা

শাবিপ্রবিতে পরীক্ষায় অনিয়মের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন

উপাচার্যকে ‘চাকরবাকর’ বলার প্রতিবাদ ঢাবি শিক্ষক সমিতির

ইডেনের ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা, তদন্তের নির্দেশ

ক্যাম্পাসে সহাবস্থান নিশ্চিতের দাবি ঢাবির বিএনপিপন্থী শিক্ষকদের

ঢাবিতে ছাত্রদলের উপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ১০

ঢাবি ভিসির সঙ্গে সাক্ষাৎ নিয়ে ছাত্রলীগ-ছাত্রদলের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি

ছবি

ভিসির সঙ্গে সাক্ষাৎ: ঢাবি ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ১০

ছবি

ইডেনের ঘটনা তদন্তে কলেজ প্রশাসনের ৪ সদস্যের কমিটি

ছবি

ছাত্রলীগ কর্মীর জন্মদিনের অনুষ্ঠানে না যাওয়ায় সাংবাদিককে মারধরের অভিযোগ

ছবি

আমরণ অনশনের ঘোষণা ইডেন ছাত্রলীগের বহিষ্কৃতদের

ছবি

সংবাদ সম্মেলনেই ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের দু’পক্ষে সংঘর্ষ

ছবি

ইডেন কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদককে ‘অবাঞ্ছিত’ ঘোষণা

ছবি

জনরোষে হল ছেড়ে পালাল ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি-সেক্রেটারি

ইডেনে মুখোমুখি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপ,রাতভর উত্তেজনা

ছবি

অনিয়মিত ইউরোপফেরতদের প্রতি অপবাদ ও বৈষম্য কমাতে সিফারের মাইগ্র্যান্ট প্রোজেক্ট

চবি ফটকে তালা দিলেই অ্যাকশনে যাবে প্রশাসন

ছবি

ঢাবিতে ২০ লাখ টাকা ছিনতাই, মূল হোতাসহ ৫ জন গ্রেপ্তার

ছবি

ওয়ার্ল্ড রোবট অলিম্পিয়াড-বাংলাদেশের জাতীয় পর্ব এবছর অফলাইনে

ঢাবির জগন্নাথ হলে ঘুমের মধ্যে শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ছবি

ঢাবি সাংবাদিক সমিতির ৩৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

ছবি

সীমান্তে মিয়ানমারের আগ্রাসনের প্রতিবাদে ঢাবিতে বিক্ষোভ

ছবি

ইবিতে যুক্ত হলো নতুন ৫ টি গাড়ি

ছবি

ইবিতে ফটোগ্রাফিক সোসাইটির কর্মশালা

ছবি

আগামীতে জনসংখ্যাকে জনশক্তিতে রুপান্তর করাই হবে বড় চ্যালেঞ্জঃ ড. ফরাসউদ্দিন

ঢাবির সিন্ডিকেট নির্বাচনে সব পদে আওয়ামীপন্থীদের নিরঙ্কুশ জয়

ছবি

ওয়ার্ল্ড রোবট অলিম্পিয়াডের নিবন্ধন চলছে

ছবি

সীমান্তে হত্যার প্রতিবাদে ঢাবিতে বিক্ষোভ ও মশাল মিছিল

ইবি খালেদা জিয়া হল ডিবেটিং সোসাইটির নতুন কমিটি

ছবি

ঢাবির হলে পচা খাবার বিক্রি, দোকান বন্ধ করলেন শিক্ষার্থীরা

ঢাবি ছাত্রদলের নেতৃত্বে সোহেল-আরিফ

ছবি

সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে নতুন ক্যাম্পাসের কাজ শেষ করার দাবি শিক্ষার্থীদের

ছবি

গ্র্যাজুয়েট ক্লাব ইউএসএ-এর উদ্যোগে

ছবি

উর্মি হত্যার বিচার দাবীতে ইবিতে মানববন্ধন

tab

ক্যাম্পাস

গেস্টরুমে যেতে দেরী, ছাত্রলীগের নির্যাতনের শিকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ শিক্ষার্থী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

বুধবার, ৩১ আগস্ট ২০২২

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের(ঢাবি) হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলে ৬ শিক্ষার্থীকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে ৪ ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে।

গেস্টরুমে যেতে দেরি করায় ওই শিক্ষার্থীদেরকে লাঠিপেটা করেন ছাত্রলীগ কর্মীরা।

গতকাল মঙ্গলবার(৩০ আগষ্ট) রাত ১২টার দিকে ওই হলের ১০২৭ নাম্বার কক্ষে এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।

তবে হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হোসেনের দাবি, মারধর নয়, তাদেরকে খাবারের জন্য গেস্টরুমে ডাকা হয়েছে। তখন একটু ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে।

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মীরা হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন সায়েন্সেস বিভাগের শিক্ষার্থী এইচ আর মারুফ, তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের আশরাফুল ইসলাম, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের আরিফ, আইন বিভাগের নাবিল।

তারা সবাই বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের(২০১৯-২০) শিক্ষার্থী এবং হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হোসেনের ছোট ভাই হিসেবে পরিচিত। হোসেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের অনুসারী।

ভুক্তভোগী ছয়জন ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের (প্রথম বর্ষ) বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থী। তাঁরা হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পক্ষের নিয়ন্ত্রিত গণরুমে থাকেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভুক্তভোগী এক শিক্ষার্থী জানায়, ‘মঙ্গলবার রাতে বাংলাদেশ - আফগানিস্তানের ক্রিকেট ম্যাচ থাকায় আমরা ছাত্রলীগের বেঁধে দেয়া নির্ধারিত সময়ে গেস্টরুমে উপস্থিত হতে পারিনি। তাই আমাদেরকে আলাদাভাবে নেয়া হয় গেস্টরুম। চড় থাপ্পড় এমনকি লাঠিপেটা করা হয় আমাদের।’

জানা যায়, হলের ১০২৭ নাম্বার রুমটিকে ছাত্রলীগের তথাকথিত ‘গেস্টরুম’ হিসেবে ব্যবহার করা হয়। হল অফিসের অফিশিয়াল নথি অনুযায়ী এই রুমে কোনো আবাসিক শিক্ষার্থী নেই। দীর্ঘদিন ধরে এটি ছাত্রলীগের দখলে রয়েছে।

যেখানে সপ্তাহে ৬দিন কিংবা কখনো কখনো ৭ দিন প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের গেস্টরুমের নামে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করেন হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হোসেনের গ্রুপের নেতাকর্মীরা। নিয়মিত দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা ও মাঝে মাঝে তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা এসব গেস্টরুম পরিচালনা করেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী মারুফ বিষয়টি অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, এটা পুরোপুরি মিথ্যা ও বানোয়াট। এরকম কোন ঘটনা ঘটেনি। সামনে হলের পূর্নাঙ্গ কমিটি দেওয়া হবে। এজন্য কেউ ষড়যন্ত্র করে আমাদের নামে এসব মিথ্যাচার করছে।

এদিকে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী আশরাফুল ও আরিফকে ফোন করা হলে তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। আরেক অভিযুক্ত নাবিলকে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি সাড়া দেননি।

হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হোসেন সংবাদকে বলেন, মারধর নয়, তাদেরকে খাবারের জন্য গেস্টরুমে ডাকা হয়েছে। তখন একটু ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে। পরবর্তীতে আমি তাদেরকে ঢেকে নিয়ে বিষয়টি সমাধান করে দিয়েছি।

হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মাসুদুর রহমান বলেন, আমি সাংবাদিকদের মাধ্যমে জেনেছি। আমরা খোঁজ নিয়ে দেখছি। এখনো পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। লিখিত অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

back to top