alt

ক্যাম্পাস

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় দ্বিতীয় ক্যাম্পাস

৩ বছরেও অধিগ্রহণ সম্পন্ন হয়নি ভূমি জটিলতায় স্থবির নির্মাণকাজ

মাহমুদ তানজীদ, জবি : শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

২০১৬ সালে হল আন্দোলনের মুখে ঢাকার কেরানীগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় ক্যাম্পাস নির্মাণের ঘোষণা দেয়া হয়। ২০১৮ সালে দ্বিতীয় ক্যাম্পাসের জন্য ভূমি অধিগ্রহণ ও উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ১ হাজার ৯২০ কোটি ৯৪ লাখ ৩৯ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয় সরকার। কিন্তু টাকা হাতে পাওয়ার তিন বছর পেরিয়ে গেলেও পূর্ণভাবে ২০০ একর ভূমি অধিগ্রহণের কাজটাও সমাপ্ত করতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। সেখানে অধিগ্রহণ করা হয়েছে ১৮৮.৬০ একর জমি। অধিগ্রহণ করতে এখনও বাকি ১১.৪০ একর জমি।

জানা যায়, ২০১৮ সালের ৯ অক্টোবর কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়ায় ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ক্যাম্পাস স্থাপন : ভূমি অধিগ্রহণ ও উন্নয়ন’ প্রকল্প অনুমোদন করে একনেক। পরের বছর ২৪ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ক্যাম্পাসের নকশা দেখেন প্রধানমন্ত্রী। উক্ত প্রকল্পের আওতায় ছিল ভূমি অধিগ্রহণ, সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, মাস্টারপ্ল্যান, বালু ভরাট, লেক খনন, অভ্যন্তরীণ ড্রেন ও সারফেস নির্মাণ ইত্যাদি। কাজের মেয়াদ ছিল ২০২০ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত। কিন্তু কাজের মেয়াদ শুধু দফায় দফায় বাড়ানোই হয়েছে। এদিকে নতুন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক যোগদানের পর অনিয়মের দায়ে পূর্বের মাস্টারপ্ল্যানের পুরো প্রক্রিয়াই বাতিল করেন। এখনও পর্যন্ত নতুন মাস্টারপ্ল্যানটাও চূড়ান্ত হয়নি।

এদিকে অধিগ্রহণ অসম্পূর্ণ রেখেই চলতি বছরের প্রথমদিকে অতি ধীর গতিতে শুরু হয় ক্যাম্পাসের সীমানা প্রাচীর নির্মাণের কাজ। কিন্তু সময়মত বাকি ১১.৪০ একর ভূমি অধিগ্রহণ না হওয়ায় অনেকটাই স্থবির হয়ে গেছে সীমানা প্রাচীর নির্মাণসহ অন্যান্য কাজ। এই জটিলতার ফলে আটকে আছে ক্যাম্পাসের বালু ভরাট, লেক খনন এমনকি মাস্টারপ্ল্যানের কাজও।

বাকি ভূমি অধিগ্রহণের বিষয়ে জানতে চাইলে সহকারী রেজিস্ট্রার (ভূমি) কামাল হোসেন সরকার জানান, ওই ক্যাম্পাসের দক্ষিণ পাশে বাংলাদেশ রেওলয়ে এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিগ্রহণকৃত জমির মাঝে ৪২ শতাংশ জায়গা থেকে গেছে। এটা অধিগ্রহণ না করলে ভবিষ্যতে এখানে বস্তি এলাকা হয়ে যাবে। এটা অধিগ্রহণের অনুমতি পেতে দেড়বছর ধরে ঘুরছি। তবে এটা অধিগ্রহণের অনুমোদন এখনও পর্যন্ত পাইনি। আশাকরি শীঘ্রই পেয়ে যাবো। তাছাড়া আরও ভূমি অধিগ্রহণের জন্য ভূমি মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের চেষ্টা চলছে। এটা হয়ে গেলেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও জেলা প্রশাসন ফিজিবিলিটি টেস্ট (সম্ভাবনা পরীক্ষা) করবে। তারপর অধিগ্রহণ করা যাবে।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমেদ বলেন, সামান্য কিছু ভূমি অধিগ্রহণ করতে বাকি রয়েছে। এটার অধিগ্রহণও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। শীঘ্রই তা সম্পন্ন হয়ে যাবে।

ছবি

ঢাবি ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের অবাধ চলাচল ও ভারী যান বন্ধের দাবি

ছবি

নিরাপদ ক্যাম্পাসের দাবিতে ঢাবিতে অবস্থান কর্মসূচি

নিহতের ক্ষতিপূরণসহ ইবি শ্রমিকদের নিরাপত্তার দাবিতে সাত দিনের আলটিমেটাম

ছবি

ঢাবির বার্ষিক নাট্যোৎসব: মঞ্চায়িত হচ্ছে ১৫ টি নাটক

ছবি

মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নতুন প্রজন্মের মধ্যে জাগ্রত রাখতে হবে

ছবি

নিউইয়র্কে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ উদযাপন

ছবি

সিটিও ফোরাম ইনোভেশন হ্যাকাথনের চ্যাম্পিয়ন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

ছবি

মাইলস্টোন কলেজে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১২৫০ জন

বেঞ্চে বসা নিয়ে ইবিতে মারধর, তদন্ত কমিটি গঠন

ছবি

বিজনেস ক্লাব বিজবক্স এর উদ্যোগে

ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে হলের ছাদ থেকে পড়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ছবি

ইবির আন্তঃহল বিতর্কে চ্যাম্পিয়ন শেখ রাসেল ও বঙ্গমাতা হল

ছবি

মেজর জেনারেল আমিনুল হকের পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন

ছবি

শিক্ষার্জনকে সমাবর্তন আর সার্টিফিকেটেই সীমাবদ্ধ না রাখার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৩তম সমাবর্তন শুরু

চুয়েটে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় ঢাবি সাংবাদিক সমিতির নিন্দা

ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৩ তম সমাবর্তন কাল: ক্যাম্পাসজুড়ে উৎসবের আমেজ

ছবি

পরিবর্তনশীল বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: প্রধানমন্ত্রী

ছবি

শনিবার ঢাবির ৫৩তম সমাবর্তন

ছবি

সমাবর্তন ইস্যুতে সাত কলেজ শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

ছবি

ঢাবির হলে সাংবাদিক হেনস্তার অভিযোগ ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে

জবির আন্তঃবিভাগ বিতর্কে চ্যাম্পিয়ন আইন বিভাগ

ছবি

জবির আন্ত:বিভাগ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন আইন বিভাগ

ছবি

রড দিয়ে পিটিয়ে ঢাবি শিক্ষার্থীকে হাসপাতালে পাঠালো ছাত্রলীগ কর্মী

ছবি

আইসিপিসি ওয়ার্ল্ড ফাইনালস্ ঢাকা আসরের উদ্বোধন

ছবি

ফারদিনের হত্যাকারীদের দ্রুত বিচার চান বুয়েট শিক্ষার্থীরা

ছবি

ক্যাম্পাসে হলুদ বরণে ইবি ছাত্র

ছবি

‘হাল্ট প্রাইজ’ শুরু হচ্ছে ড্যাফোডিলে, মিলিয়ন ডলার জেতার সুযোগ

ছবি

ছাত্রলীগের উদ্যোগে ঢাবিতে রোবটিক্স ক্যাম্প 

ছবি

চিত্রশিল্পী হাশেম খানের সান্নিধ্যে আঁকিবুকিতে শিক্ষার্থীরা

বদরুন্নেসা কলেজে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত দুই

ছবি

অস্ট্রেলিয়া টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্যালারিতে ঢাকার ডিপিএস এসটিএস স্কুলের শিক্ষার্থীরা

ছবি

মাসব্যাপী মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উদযাপন করলো ঢাবি

ছবি

বাংলাদেশে গণতন্ত্র এবং মানবাধিকারের চেতনা সমুন্নত রাখা উচিত : কেনেডি জুনিয়র

পূর্বাচলের জমি সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়কে দেওয়ার সুপারিশের প্রতিবাদ

ঢাবিতে পুষ্টিবিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

tab

ক্যাম্পাস

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় দ্বিতীয় ক্যাম্পাস

৩ বছরেও অধিগ্রহণ সম্পন্ন হয়নি ভূমি জটিলতায় স্থবির নির্মাণকাজ

মাহমুদ তানজীদ, জবি

শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

২০১৬ সালে হল আন্দোলনের মুখে ঢাকার কেরানীগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় ক্যাম্পাস নির্মাণের ঘোষণা দেয়া হয়। ২০১৮ সালে দ্বিতীয় ক্যাম্পাসের জন্য ভূমি অধিগ্রহণ ও উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ১ হাজার ৯২০ কোটি ৯৪ লাখ ৩৯ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয় সরকার। কিন্তু টাকা হাতে পাওয়ার তিন বছর পেরিয়ে গেলেও পূর্ণভাবে ২০০ একর ভূমি অধিগ্রহণের কাজটাও সমাপ্ত করতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। সেখানে অধিগ্রহণ করা হয়েছে ১৮৮.৬০ একর জমি। অধিগ্রহণ করতে এখনও বাকি ১১.৪০ একর জমি।

জানা যায়, ২০১৮ সালের ৯ অক্টোবর কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়ায় ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ক্যাম্পাস স্থাপন : ভূমি অধিগ্রহণ ও উন্নয়ন’ প্রকল্প অনুমোদন করে একনেক। পরের বছর ২৪ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ক্যাম্পাসের নকশা দেখেন প্রধানমন্ত্রী। উক্ত প্রকল্পের আওতায় ছিল ভূমি অধিগ্রহণ, সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, মাস্টারপ্ল্যান, বালু ভরাট, লেক খনন, অভ্যন্তরীণ ড্রেন ও সারফেস নির্মাণ ইত্যাদি। কাজের মেয়াদ ছিল ২০২০ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত। কিন্তু কাজের মেয়াদ শুধু দফায় দফায় বাড়ানোই হয়েছে। এদিকে নতুন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক যোগদানের পর অনিয়মের দায়ে পূর্বের মাস্টারপ্ল্যানের পুরো প্রক্রিয়াই বাতিল করেন। এখনও পর্যন্ত নতুন মাস্টারপ্ল্যানটাও চূড়ান্ত হয়নি।

এদিকে অধিগ্রহণ অসম্পূর্ণ রেখেই চলতি বছরের প্রথমদিকে অতি ধীর গতিতে শুরু হয় ক্যাম্পাসের সীমানা প্রাচীর নির্মাণের কাজ। কিন্তু সময়মত বাকি ১১.৪০ একর ভূমি অধিগ্রহণ না হওয়ায় অনেকটাই স্থবির হয়ে গেছে সীমানা প্রাচীর নির্মাণসহ অন্যান্য কাজ। এই জটিলতার ফলে আটকে আছে ক্যাম্পাসের বালু ভরাট, লেক খনন এমনকি মাস্টারপ্ল্যানের কাজও।

বাকি ভূমি অধিগ্রহণের বিষয়ে জানতে চাইলে সহকারী রেজিস্ট্রার (ভূমি) কামাল হোসেন সরকার জানান, ওই ক্যাম্পাসের দক্ষিণ পাশে বাংলাদেশ রেওলয়ে এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিগ্রহণকৃত জমির মাঝে ৪২ শতাংশ জায়গা থেকে গেছে। এটা অধিগ্রহণ না করলে ভবিষ্যতে এখানে বস্তি এলাকা হয়ে যাবে। এটা অধিগ্রহণের অনুমতি পেতে দেড়বছর ধরে ঘুরছি। তবে এটা অধিগ্রহণের অনুমোদন এখনও পর্যন্ত পাইনি। আশাকরি শীঘ্রই পেয়ে যাবো। তাছাড়া আরও ভূমি অধিগ্রহণের জন্য ভূমি মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের চেষ্টা চলছে। এটা হয়ে গেলেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও জেলা প্রশাসন ফিজিবিলিটি টেস্ট (সম্ভাবনা পরীক্ষা) করবে। তারপর অধিগ্রহণ করা যাবে।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমেদ বলেন, সামান্য কিছু ভূমি অধিগ্রহণ করতে বাকি রয়েছে। এটার অধিগ্রহণও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। শীঘ্রই তা সম্পন্ন হয়ে যাবে।

back to top