alt

ক্যাম্পাস

ফরিদপুরে স্কুল বন্ধ রাখায় বই না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে শিক্ষার্থী!

ফরিদপুর সংবাদদাতা : সোমবার, ০২ জানুয়ারী ২০২৩

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার রুপাপাত বামনচন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় বন্ধ রাখায় বই উৎসবের দ্বিতীয় দিনে ভর্তি হতে আসা ও বই নিতে আসা অসংখ্য শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের ফেরত যেতে হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিকে সেশন ফি, ভর্তি ফিসহ ৭’শ টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। টাকা না দিলে বই মিলছে না শিক্ষার্থীদের। তবে, এসকল অভিযোগ অস্বীকার করেছেন স্কুলটির বরখাস্তকৃত প্রধান শিক্ষক মো. শাহজাহান মোল্যা।

সরকারী বন্ধ না থাকলেও স্কুল বন্ধ করে স্কুলের তালার চাবী নিয়ে লাপাত্তা হয়েছেন সাময়িক বরখাস্তকৃত প্রধান শিক্ষক এমনটাই দাবী স্কুলটির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির । ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবু সাহিদ ও বিদ্যালয়ের সভাপতি কাইয়ূম মোল্যাকে বিদ্যালয়ের মাঠে ও বাহিরে ঘুরতে দেখা যায় সোমবার (০২ জানুয়ারি) বই উৎসবের দ্বিতীয় দিন দুপুর ১২ টার দিকে।

সোমবার (০২ জানুয়ারি) সকালে বিদ্যালয় গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের অফিসসহ সকল কক্ষ তালা দেওয়া। অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা বই নিতে এসে শিক্ষকদের খুঁজে বেড়াচ্ছেন।

বই নিতে ও ভর্তি হতে আসা ৮ শ্রেণীর জান্নাতুল, সাদিয়াসহ কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, বই উৎসবের প্রথম দিন ৫টি বই পেয়েছি। আজ সোমবার স্কুলে এসে দেখি স্কুলের অফিসসহ সকল রুম তালা দেওয়া। ৮ম শ্রেণীর মিম বলেন, আমাকে শুধু বিজ্ঞান বই দিয়েছে। অন্য বই পাইনি।

উপজেলার কদমী গ্রামের এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক নাগর মিয়া বলেন, তার ছেলে হামিম মিয়াকে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি করানোর জন্য এসেছি, কিন্তু শিক্ষকরা না থাকায় ভর্তি না করে বই না নিয়ে ফিরে যেতে হচ্ছে।

ডহরনগর গ্রামের মোরশেদা বেগম বলেন, তার জমজ দুই ছেলে রাজু মিয়া ও রবি মিয়া এ বছর ৮ শ্রেণী থেকে পাশ করে ৯ম শ্রেণীতে উঠেছে। তাদের দুই ভাইকে ৯শ্রেণীতে ভর্তি ও বই নিতে এসেছি। তিনি আরো বলেন, প্রধান শিক্ষক বলেছেন ভর্তি ও সেশন ফিসহ ৭’শ টাকা লাগবে। টাকা না দিলে ভর্তি হতে পারবে না।

এব্যাপারে স্কুলটির ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবু সাহিদ বলেন, বই উৎসবের প্রথম দিন রবিবার (০১ জানুয়ারি) সকালে বরখাস্ত হওয়া প্রধান শিক্ষক মো. শাহজাহান মোল্যা সকালে স্কুলে এসে কয়েকজন শিক্ষার্থীকে বই দিয়ে স্কুল থেকে চলে যান। পরে সভাপতি সকলকে সাথে নিয়ে কিছু বই দিয়েছে। সোমবার (০২ জানুয়ারি) ভোরে বরখাস্ত হওয়া প্রধান শিক্ষক স্কুলের সকল রুম তালা দিয়ে রেখে চলে যায়। যার কারণে আমরা কোন শিক্ষার্থীকে বই দিতে পারছি না।

বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কাইয়ূম মোল্যা বলেন, বই উৎসবের প্রথম দিন বরখাস্ত হওয়া প্রধান শিক্ষক সকালে স্কুলে এসে কিছু শিক্ষার্থীর নিকট থেকে টাকা নিয়ে বই দিয়েছেন। জানতে পেরে সকল শিক্ষার্থীকে টাকা দিতে নিষেধ করি। পরে প্রধান শিক্ষক মো. শাহজাহান মোল্যা স্কুল থেকে চলে যায়। তিনি সকলকে সাথে নিয়ে কিছু শিক্ষার্থীকে বই দেন। 

তিনি আরো জানান, ৩০ অক্টোবর বিভিন্ন অনিয়মের কারণে প্রধান শিক্ষক শাহজাহান মোল্যাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে স্কুলটির ম্যানেজিং কমিটি দ্বারা বরখাস্তকৃত প্রধান শিক্ষক মো. শাহজাহান মোল্যা বলেন, এসব ভিত্তিহীন অভিযোগ। আমি বই দেওয়ার কথা বলে কারো কাছে থেকে টাকা নেইনি। তবে যারা ৫ম শ্রেণি থেকে আমাদের স্কুলে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হচ্ছেন তাদের কাছে থেকে ভর্তি ফি নেওয়া হয়েছে। এছাড়া কোনো টাকা নেওয়া হয়নি। 

তিনি বলেন, অফিসের জরুরি কাজে আমি ঢাকাতে এসেছি। তবে, স্কুলের চাবি আমার কাছে নয়।

তিনি বরখাস্তের ব্যাপারে বলেন, আমাকে অবৈধভাবে বরখাস্ত করেছে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ তিনজন সদস্য। কিন্তু, স্কুলটির ম্যানেজিং কমিটির অন্য ৯ সদস্যই আমার পক্ষে স্বাক্ষর করেছেন। তাহলে, আমাকে কিভাবে বৈধভাবে বরখাস্ত করা হলো! আমি সরকারিভাবে বৈধ।

এব্যাপারে বোয়ালমারী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, স্কুলটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের মধ্যে একটু অভ্যন্তরীণ বিরোধ রয়েছে। যা ঢাকা শিক্ষা অফিস পর্যন্ত জানেন। আমরা বিরোধ নিষ্পত্তির চেষ্টা করছি।

তিনি আরও বলেন, অভিযোগের ব্যাপারে খোঁজখবর নিতে আমি আগামীকাল মঙ্গলবার (০৩ জানুয়ারি) স্কুলটিতে যাবো।

এব্যাপারে বোয়ালমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মোশারেফ হোসাইন বলেন, এব্যাপারে খোঁজখবর নিচ্ছি। এছাড়া এব্যাপারে কোনো শিক্ষার্থী কিংবা অভিভাবকদের পক্ষ থেকে কোনো লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

ছবি

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে জবিতে আন্তর্জাতিক সেমিনার

ছবি

নতুন ক্যাম্পাসের ঘাট ও এক ভবন নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

ছবি

বাধঁন জবি ইউনিটের নেতৃত্বে বিজয়-মেহেদী

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে নানান অসঙ্গতি

ছবি

ঢাবিতে ছাত্রলীগ নেতার কক্ষ থেকে অস্ত্র উদ্ধার, প্রাধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগ

ছবি

গুচ্ছ ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদনের সময় বাড়ল

ছবি

শেষ হলো ঢাবির ‘সি’ ইউনিটের পরীক্ষা

আজ শুরু হলো জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিযুদ্ধ, আসন প্রতি লড়বে ১০৮ জন

ছবি

জবি শিক্ষকদের রুমে লুকিয়ে চিঠি, আটকের পর জানা গেল হিযবুত তাহরীর সদস্য

ছবি

জবিতে শহীদ দিবস উপলক্ষ্যে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

রাবির হল প্রাধ্যক্ষকে ছাত্রলীগ নেতার হুমকি, কক্ষ সিলগালা

ছবি

জবির প্রক্টরিয়াল বডিতে নতুন দুই মুখ

ছবি

পাঁচ দফা দাবিতে জাবিতে নিপীড়নবিরোধী মঞ্চের মশাল মিছিল

ছবি

জবির নতুন প্রক্টর অধ্যাপক জাহাঙ্গীর

ছবি

জবি ছাত্রলীগের মারামারির দুই মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ২১ মার্চ

ছবি

রাবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় শিক্ষক দিবস পালিত

ছবি

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি মুছে ফেলার প্রতিবাদে দ্বিতীয় দিনেও আমরণ অনশনে জাবির ২ ছাত্রলীগ নেতা

ছবি

জবিতে জাতীয় স্নাতক গণিত অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত

ছবি

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি মুছে ফেলার প্রতিবাদে ছাত্রলীগ নেতার আমরণ অনশন

ছবি

জবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত অন্তত ১০

ছবি

জবিতে সরস্বতী পূজায় নারী পুরোহিত

ঢাবিতে ক্যান্টিন মালিকের দাড়ি ছিঁড়ে ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

ছবি

৩৬ পূজামণ্ডপে হবে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সরস্বতী পূজা

ঢাবি সাংবাদিকের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইলেন দুই ছাত্রলীগ নেতা

ছবি

জাবিতে পাঁচ দফা দাবিতে প্রতীকী অবরোধ

ঢাবি অধ্যাপকের বিরুদ্ধে যৌন ইঙ্গিতপূর্ণ কথা ও গোপন ক্যামেরায় ছাত্রীকে নজরদারির অভিযোগ

ছবি

দিনব্যাপী নানা আয়োজনে উন্মুক্ত লাইব্রেরির দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

ছবি

শিক্ষার্থীদের মনোজগতে মানবিক বাংলাদেশ সৃষ্টির আগ্রহ তৈরি করা জরুরি: উপাচার্য মশিউর রহমান

মোটরসাইকেলের হর্ন না শুনায় শিক্ষার্থীকে জবি ছাত্রলীগ নেতার মারধর

ছবি

আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় জুডোতে স্বর্ণপদক পেলেন জবি শিক্ষার্থী ইমন

ছবি

জবি চলচ্চিত্র সংসদের নেতৃত্বে সৈকত-রিক

ছবি

জবিতে পঞ্চম আবৃত্তি উৎসব অনুষ্ঠিত

ছবি

জাবিতে ধর্ষণের প্রতিবাদের নতুন প্ল্যাটফর্ম ‘নিপীড়নবিরোধী মঞ্চ’

ছবি

অবৈধভাবে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের ৫ দিনের মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ

ছবি

জবির প্রক্টরিয়াল বডিতে বড় পরিবর্তন

জাবিতে ধর্ষণের ঘটনায় ৬ জনের সনদ স্থগিত, বহিষ্কৃত ৩

tab

ক্যাম্পাস

ফরিদপুরে স্কুল বন্ধ রাখায় বই না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে শিক্ষার্থী!

ফরিদপুর সংবাদদাতা

সোমবার, ০২ জানুয়ারী ২০২৩

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার রুপাপাত বামনচন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় বন্ধ রাখায় বই উৎসবের দ্বিতীয় দিনে ভর্তি হতে আসা ও বই নিতে আসা অসংখ্য শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের ফেরত যেতে হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিকে সেশন ফি, ভর্তি ফিসহ ৭’শ টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। টাকা না দিলে বই মিলছে না শিক্ষার্থীদের। তবে, এসকল অভিযোগ অস্বীকার করেছেন স্কুলটির বরখাস্তকৃত প্রধান শিক্ষক মো. শাহজাহান মোল্যা।

সরকারী বন্ধ না থাকলেও স্কুল বন্ধ করে স্কুলের তালার চাবী নিয়ে লাপাত্তা হয়েছেন সাময়িক বরখাস্তকৃত প্রধান শিক্ষক এমনটাই দাবী স্কুলটির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির । ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবু সাহিদ ও বিদ্যালয়ের সভাপতি কাইয়ূম মোল্যাকে বিদ্যালয়ের মাঠে ও বাহিরে ঘুরতে দেখা যায় সোমবার (০২ জানুয়ারি) বই উৎসবের দ্বিতীয় দিন দুপুর ১২ টার দিকে।

সোমবার (০২ জানুয়ারি) সকালে বিদ্যালয় গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের অফিসসহ সকল কক্ষ তালা দেওয়া। অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা বই নিতে এসে শিক্ষকদের খুঁজে বেড়াচ্ছেন।

বই নিতে ও ভর্তি হতে আসা ৮ শ্রেণীর জান্নাতুল, সাদিয়াসহ কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, বই উৎসবের প্রথম দিন ৫টি বই পেয়েছি। আজ সোমবার স্কুলে এসে দেখি স্কুলের অফিসসহ সকল রুম তালা দেওয়া। ৮ম শ্রেণীর মিম বলেন, আমাকে শুধু বিজ্ঞান বই দিয়েছে। অন্য বই পাইনি।

উপজেলার কদমী গ্রামের এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক নাগর মিয়া বলেন, তার ছেলে হামিম মিয়াকে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি করানোর জন্য এসেছি, কিন্তু শিক্ষকরা না থাকায় ভর্তি না করে বই না নিয়ে ফিরে যেতে হচ্ছে।

ডহরনগর গ্রামের মোরশেদা বেগম বলেন, তার জমজ দুই ছেলে রাজু মিয়া ও রবি মিয়া এ বছর ৮ শ্রেণী থেকে পাশ করে ৯ম শ্রেণীতে উঠেছে। তাদের দুই ভাইকে ৯শ্রেণীতে ভর্তি ও বই নিতে এসেছি। তিনি আরো বলেন, প্রধান শিক্ষক বলেছেন ভর্তি ও সেশন ফিসহ ৭’শ টাকা লাগবে। টাকা না দিলে ভর্তি হতে পারবে না।

এব্যাপারে স্কুলটির ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবু সাহিদ বলেন, বই উৎসবের প্রথম দিন রবিবার (০১ জানুয়ারি) সকালে বরখাস্ত হওয়া প্রধান শিক্ষক মো. শাহজাহান মোল্যা সকালে স্কুলে এসে কয়েকজন শিক্ষার্থীকে বই দিয়ে স্কুল থেকে চলে যান। পরে সভাপতি সকলকে সাথে নিয়ে কিছু বই দিয়েছে। সোমবার (০২ জানুয়ারি) ভোরে বরখাস্ত হওয়া প্রধান শিক্ষক স্কুলের সকল রুম তালা দিয়ে রেখে চলে যায়। যার কারণে আমরা কোন শিক্ষার্থীকে বই দিতে পারছি না।

বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কাইয়ূম মোল্যা বলেন, বই উৎসবের প্রথম দিন বরখাস্ত হওয়া প্রধান শিক্ষক সকালে স্কুলে এসে কিছু শিক্ষার্থীর নিকট থেকে টাকা নিয়ে বই দিয়েছেন। জানতে পেরে সকল শিক্ষার্থীকে টাকা দিতে নিষেধ করি। পরে প্রধান শিক্ষক মো. শাহজাহান মোল্যা স্কুল থেকে চলে যায়। তিনি সকলকে সাথে নিয়ে কিছু শিক্ষার্থীকে বই দেন। 

তিনি আরো জানান, ৩০ অক্টোবর বিভিন্ন অনিয়মের কারণে প্রধান শিক্ষক শাহজাহান মোল্যাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে স্কুলটির ম্যানেজিং কমিটি দ্বারা বরখাস্তকৃত প্রধান শিক্ষক মো. শাহজাহান মোল্যা বলেন, এসব ভিত্তিহীন অভিযোগ। আমি বই দেওয়ার কথা বলে কারো কাছে থেকে টাকা নেইনি। তবে যারা ৫ম শ্রেণি থেকে আমাদের স্কুলে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হচ্ছেন তাদের কাছে থেকে ভর্তি ফি নেওয়া হয়েছে। এছাড়া কোনো টাকা নেওয়া হয়নি। 

তিনি বলেন, অফিসের জরুরি কাজে আমি ঢাকাতে এসেছি। তবে, স্কুলের চাবি আমার কাছে নয়।

তিনি বরখাস্তের ব্যাপারে বলেন, আমাকে অবৈধভাবে বরখাস্ত করেছে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ তিনজন সদস্য। কিন্তু, স্কুলটির ম্যানেজিং কমিটির অন্য ৯ সদস্যই আমার পক্ষে স্বাক্ষর করেছেন। তাহলে, আমাকে কিভাবে বৈধভাবে বরখাস্ত করা হলো! আমি সরকারিভাবে বৈধ।

এব্যাপারে বোয়ালমারী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, স্কুলটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের মধ্যে একটু অভ্যন্তরীণ বিরোধ রয়েছে। যা ঢাকা শিক্ষা অফিস পর্যন্ত জানেন। আমরা বিরোধ নিষ্পত্তির চেষ্টা করছি।

তিনি আরও বলেন, অভিযোগের ব্যাপারে খোঁজখবর নিতে আমি আগামীকাল মঙ্গলবার (০৩ জানুয়ারি) স্কুলটিতে যাবো।

এব্যাপারে বোয়ালমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মোশারেফ হোসাইন বলেন, এব্যাপারে খোঁজখবর নিচ্ছি। এছাড়া এব্যাপারে কোনো শিক্ষার্থী কিংবা অভিভাবকদের পক্ষ থেকে কোনো লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

back to top