alt

ক্যাম্পাস

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে লাল কার্ড দেখাল ছাত্র অধিকার পরিষদ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি : রোববার, ০৯ এপ্রিল ২০২৩

মত প্রকাশের স্বাধীনতা, সংবাদ পত্রের স্বাধীনতা হরণে ব্যবহৃত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে লাল কার্ড দেখিয়েছে ছাত্র অধিকার পরিষদ। এসময় তারা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ক্যাম্পাসে ছাত্র নির্যাতন বন্ধেরও আহবান জানান।

রবিবার (৯ এপ্রিল) দুপুর তিনটায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাস বিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে মুখে কালো কাপড় বেঁধে ছাত্র অধিকার পরিষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে এ লাল কার্ড প্রদর্শন করা হয়।

এসময় তারা তিনটি দাবি উত্থাপন করেন। দাবি তিনটি হল- ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করা, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অধীনে গ্রেফতারকৃত বন্দিদের নিঃশর্ত মুক্তি প্রদান ও অন্যায়ভাবে গ্রেফতারকৃতদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া।

ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আদিব বলেন, স্বাধীনতা দিবসে প্রথম আলোর এক সংবাদকে কেন্দ্র করে সরকার যা শুরু করেছে সেটা অত্যন্ত অন্যায় ও অমানবিক। এই নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে বিরোধী দলের মতকে চেপে ধরা হচ্ছে। সামনে নির্বাচন, আর এই নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকার এই আইনের মাধ্যমে অসংখ্য মানুষকে জেলে ভরছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র অধিকার পরিষদের সাবেক সভাপতি আখতার হোসেন বলেন, এখন সবাই ভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কি-না কি বলছি সেটার জন্য জেলে ঢুকতে হবে। এই আইনের ফলে অসংখ্য মানুষকে বিনা দোষে, বিনা বিচারে বছরের পর বছর জেলে বন্দি রাখা হচ্ছে। এই আইনের মাত্র একটা সুফল আছে। আর সেটা হল সরকারদলীয়দের বিপক্ষে কেউ কিছু বলতে পারছে না।

আখতার হোসেন আরও বলেন, আমরা দেখছি দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসগুলোতে সরকারদলীয় ছাত্র সংগঠনের নেতৃত্বে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নির্যাতন করা হচ্ছে। তাই আমাদের দাবি অবিলম্বে ছাত্র নির্যাতন বিরোধী আইন তৈরি করে ছাত্র নির্যাতন বন্ধ করতে হবে।

বিন ইয়ামিন মোল্লা বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে এক শ্রেণীর প্রতিবাদী মানুষ, বিরোধী দলের রাজনীতিবিদ, সাংবাদিকদের রাতের আঁধারে তুলে আনা হচ্ছে। ফলে কেউ সরকারের খারাপ দিকগুলো জনসম্মুখে বলতে সাহস করছে না।

তিনি আরও বলেন, ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি বাহিনী যেভাবে মুক্তিযোদ্ধাদের নির্যাতন করতো সেভাবে এই সরকারের ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা শিক্ষার্থীদের নির্যাতন করছে। বর্তমানে দেশের বিচার বিক্রি হয়ে গেছে, বিবেক বিক্রি হয়ে গেছে। ঢাবির শিক্ষকরা এমনকি উপাচার্যও রাস্তায় নেমে আন্দোলন করছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের পক্ষে। অথচ তার শিক্ষার্থীরাই এক বেলা না খেয়ে দিন কাটাচ্ছে।

সভাপতির বক্তব্যে ঢাবি ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাবি সভাপতি আসিফ মাহমুদ বলেন, এই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন হলো এমন একটি আইন যেটা মানুষের সংবিধান স্বীকৃত অধিকার ও স্বাধীনতাকে ক্ষুন্ন করছে। ভিসি যেখানে প্রথম আলোর বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে মাঠে নামেন সেসময় তারই একজন শিক্ষার্থী বলছেন সাহরি খাওয়ার সময় কান্না চলে আসে। টাকার অভাবে ভালো খাবার খেতে পারেন না। খাবারে ভর্তুকি দিতে বললেও প্রশাসনেরর কোনও খবর থাকে না।

ছবি

জাবিতে বাংলা বর্ষবরণ ও মঙ্গল শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত

ছবি

জবিতে বৈশাখ রাঙায় চারুকলার শিক্ষার্থীদের শৈল্পিক কাজ, বাজেট বৃদ্ধির দাবি

ছবি

ইমতিয়াজ রাব্বিকে হলে সিট ফেরত দেওয়ার নির্দেশ

মতিঝিল আইডিয়ালে গভর্নিং বডির সিদ্ধান্ত ছাড়াই ফি ধার্য, অভিভাবকদের ‘অসন্তোষ’

ছবি

ডিমেনশিয়া রোগ নির্ণয়ে জাবি-এনটিইউর যৌথ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

ছবি

রিকশাচিত্রে জবিতে বৈশাখের প্রস্তুতি, উদযাপন হবে ১৮ এপ্রিল

ছবি

মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়নের দাবি জাবি সাংস্কৃতিক জোটের

ছবি

জবি উপাচার্যের নামে ভুয়া ই-মেইল, সতর্ক করলো প্রশাসন

ছবি

জাবিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটার সাক্ষাৎকারের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

ছবি

বুয়েটে প্রগতিশীল রাজনীতির চর্চায় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আরজি জানালেন ৬ শিক্ষার্থী

যৌন হয়রানির দায়ে জবির এক শিক্ষকে সাময়িক বরখাস্ত, আরেকজনকে আবারও কারণ দর্শানোর নোটিশ

জাবিতে কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কর্মচারীর স্ত্রীর সাথে অশালীন আচরণের অভিযোগ

ছবি

এবার রাজনীতিমুক্ত রাখতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে বুয়েট শিক্ষার্থীদের আর্জি

ছবি

জাবিতে শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করায় মানহানির মামলা দায়ের

ছবি

বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত স্থগিত করে হাইকোর্টের আদেশ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন অমান্য করে লিয়েন ছুটিতে শিক্ষক,তদন্ত কমিটি গঠন

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ঈদের ছুটি বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত

ছবি

ছাত্ররাজনীতিমুক্ত ক্যাম্পাস দাবিতে অটল বুয়েট শিক্ষার্থীরা

ঢাবি দুই অধ্যাপকের বিরুদ্ধে চৌর্যবৃত্তি ও যৌন হয়রানির অভিযোগ, তদন্তে কমিটি

ছবি

হাইকোর্টের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে বুয়েটে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা

‘ব্যক্তিগত’ কারণ দেখিয়ে কুবি সহকারী প্রক্টরের পদত্যাগ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে মাদক সেবনকালে দুই শিক্ষার্থী আটক

ছবি

কোচিং বাণিজ্য, নির্বাচন ঘিরে আধিপত্যের লড়াই মতিঝিল আইডিয়ালে

ছবি

একাডেমিক কার্যক্রমে ফিরতে চায় বুয়েটের আন্দোলনকারীরা

ক্যাম্পাস রাজনীতিমুক্ত থাকলে ক্লাস-পরীক্ষায় ফিরবে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

ছবি

শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা চাইলে বুয়েটে ছাত্র রাজনীতির অনুমতি দেয়া যেতে পারে: উপাচার্যের

ছবি

বুয়েটে প্রবেশ করলো ছাত্রলীগ, দাবি সাংগঠনিক রাজনীতির

ছবি

শতাধিক গাছ কেটে ভবন নির্মাণ করতে যাচ্ছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

ছবি

বুয়েটে অবশ্যই ছাত্র রাজনীতি থাকতে হবে: ছাত্রলীগ সভাপতি

ছবি

বুয়েট : অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত, চলছে শিক্ষার্থীদের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন

সাড়ে ৫ ঘণ্টা বিক্ষোভের পর কাল ফের অবস্থানের ঘোষণা বুয়েট শিক্ষার্থীদের

ছবি

দ্বিতীয় দিনের মতো আন্দোলনে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব: বুয়েট উপাচার্য

ছবি

আবারও উত্তাল বুয়েট, ছাত্ররাজনীতি প্রতিরোধে ৬ দফা

ছবি

ছাড়পত্র ছাড়া কুবিতে আবারো পাহাড় কাটা, এবার হবে বাস্কেটবল মাঠ

প্রশাসনিক দুই পদ থেকে পদত্যাগ করলেন কুবি শিক্ষক

tab

ক্যাম্পাস

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে লাল কার্ড দেখাল ছাত্র অধিকার পরিষদ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

রোববার, ০৯ এপ্রিল ২০২৩

মত প্রকাশের স্বাধীনতা, সংবাদ পত্রের স্বাধীনতা হরণে ব্যবহৃত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে লাল কার্ড দেখিয়েছে ছাত্র অধিকার পরিষদ। এসময় তারা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ক্যাম্পাসে ছাত্র নির্যাতন বন্ধেরও আহবান জানান।

রবিবার (৯ এপ্রিল) দুপুর তিনটায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাস বিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে মুখে কালো কাপড় বেঁধে ছাত্র অধিকার পরিষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে এ লাল কার্ড প্রদর্শন করা হয়।

এসময় তারা তিনটি দাবি উত্থাপন করেন। দাবি তিনটি হল- ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করা, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অধীনে গ্রেফতারকৃত বন্দিদের নিঃশর্ত মুক্তি প্রদান ও অন্যায়ভাবে গ্রেফতারকৃতদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া।

ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আদিব বলেন, স্বাধীনতা দিবসে প্রথম আলোর এক সংবাদকে কেন্দ্র করে সরকার যা শুরু করেছে সেটা অত্যন্ত অন্যায় ও অমানবিক। এই নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে বিরোধী দলের মতকে চেপে ধরা হচ্ছে। সামনে নির্বাচন, আর এই নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকার এই আইনের মাধ্যমে অসংখ্য মানুষকে জেলে ভরছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র অধিকার পরিষদের সাবেক সভাপতি আখতার হোসেন বলেন, এখন সবাই ভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কি-না কি বলছি সেটার জন্য জেলে ঢুকতে হবে। এই আইনের ফলে অসংখ্য মানুষকে বিনা দোষে, বিনা বিচারে বছরের পর বছর জেলে বন্দি রাখা হচ্ছে। এই আইনের মাত্র একটা সুফল আছে। আর সেটা হল সরকারদলীয়দের বিপক্ষে কেউ কিছু বলতে পারছে না।

আখতার হোসেন আরও বলেন, আমরা দেখছি দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসগুলোতে সরকারদলীয় ছাত্র সংগঠনের নেতৃত্বে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নির্যাতন করা হচ্ছে। তাই আমাদের দাবি অবিলম্বে ছাত্র নির্যাতন বিরোধী আইন তৈরি করে ছাত্র নির্যাতন বন্ধ করতে হবে।

বিন ইয়ামিন মোল্লা বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে এক শ্রেণীর প্রতিবাদী মানুষ, বিরোধী দলের রাজনীতিবিদ, সাংবাদিকদের রাতের আঁধারে তুলে আনা হচ্ছে। ফলে কেউ সরকারের খারাপ দিকগুলো জনসম্মুখে বলতে সাহস করছে না।

তিনি আরও বলেন, ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি বাহিনী যেভাবে মুক্তিযোদ্ধাদের নির্যাতন করতো সেভাবে এই সরকারের ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা শিক্ষার্থীদের নির্যাতন করছে। বর্তমানে দেশের বিচার বিক্রি হয়ে গেছে, বিবেক বিক্রি হয়ে গেছে। ঢাবির শিক্ষকরা এমনকি উপাচার্যও রাস্তায় নেমে আন্দোলন করছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের পক্ষে। অথচ তার শিক্ষার্থীরাই এক বেলা না খেয়ে দিন কাটাচ্ছে।

সভাপতির বক্তব্যে ঢাবি ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাবি সভাপতি আসিফ মাহমুদ বলেন, এই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন হলো এমন একটি আইন যেটা মানুষের সংবিধান স্বীকৃত অধিকার ও স্বাধীনতাকে ক্ষুন্ন করছে। ভিসি যেখানে প্রথম আলোর বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে মাঠে নামেন সেসময় তারই একজন শিক্ষার্থী বলছেন সাহরি খাওয়ার সময় কান্না চলে আসে। টাকার অভাবে ভালো খাবার খেতে পারেন না। খাবারে ভর্তুকি দিতে বললেও প্রশাসনেরর কোনও খবর থাকে না।

back to top