alt

নগর-মহানগর

আর্টিকেল নাইনটিনের আয়োজনে বিদ্বেষমূলক বক্তব্য প্রতিরোধ বিষয়ক ওয়েবিনার

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : মঙ্গলবার, ২১ জুন ২০২২

সমাজে ক্রমবর্ধমান বিদ্বেষ প্রতিরোধে শিক্ষা, সচেতনতা ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের প্রসার জরুরী। কেবল আইন করে বিদ্বেষমূলক বক্তব্য ঠেকানো যাবে না। সামাজিক সংহতি ও শান্তির জন্য বৈচিত্র্যকে সম্মানের সঙ্গে গ্রহণ করার মানসিকতা গড়ে তুলতে হবে। বিদ্বেষমূলক বক্তব্য প্রতিরোধের প্রথম আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক ওয়েবিনারে এসব কথা বলেন বক্তারা।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা আর্টিকেল নাইনটিন গত ২০ জুন এ ওয়েবিনারের আয়োজন করে। আর্টিকেল নাইনটিন দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক ফারুখ ফয়সলের সঞ্চালনায় ওয়েবিনারে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী অফিসের জ্যেষ্ঠ মানবাধিকার উপদেষ্টা হুমা খান, আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং, জেন্ডার এক্টিভিস্ট নেওয়াজুল কবির এবং আর্টিকেল নাইনটিনের হিউম্যান রাইট অ্যাম্বাসেডর ফেলো মেছান হ্লা।

আর্টিকেল নাইনটিনের সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার রুমকি ফারহানা অনুষ্ঠানে বিদ্বেষ প্রতিরোধ দিবসের উদ্দেশ্য ও করণীয় বিষয়ে একটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। ওয়েবিনারে বাংলাদেশ ও নেপালের সাংবাদিক, শিক্ষক ও অধিকারকর্মীরা অংশ নেন।

হুমা খান বলেন, সমালোচনা কিংবা ভিন্নমত বিদ্বেষমূলক বক্তব্য নয়। তাই মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সমুন্নত রেখেই বিদ্বেষমূলক বক্তব্য মোকাবেলা করতে হবে। এজন্য শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নয়, প্রয়োজন ইতিবাচক কর্মপরিকল্পনা।

আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং বলেন, বিদ্বেষ মোকাবেলায় শিক্ষার ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বৈচিত্র্য সমাজের জন্য হুমকি নয়; বরং শক্তি – এই মানসিকতা তরুণ প্রজন্মের মধ্যে গড়ে তোলার উদ্যোগ নিতে হবে। পাশপাশি সামাজিক সম্প্রীতি ও শান্তির জন্য সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের প্রসার এবং বিভিন্ন ধর্ম ও সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে নিয়মিত সংলাপের আয়োজন করতে হবে।

জেন্ডার এক্টিভিস্ট নেওয়াজুল কবির বলেন, ‘যৌন বৈচিত্রের মানুষের প্রতি বিদ্বেষপূর্ণ মনোভাব ও আচরণের মূল কারণ সুশিক্ষার অভাব। বৈচিত্র্যকে সাদরে গ্রহণে পরিবার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা ইতিবাচক হতে হবে।। এছাড়া জেন্ডারভিত্তিক বিদ্বেষ-কুসংস্কার প্রতিরোধে সচেতনতা তৈরিতে মূলধারার গণমাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্যাম্পেইন কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে।’

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিদ্বেষমূলক আচরণের শিকার হওয়ার মানসিক যন্ত্রণা তুলে ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মেছান হ্লা বলেন, ‘আমার স্কুলে একমাত্র আমিই আদিবাসী শিক্ষার্থী ছিলাম। ভাষা ও দৈহিক গড়নে অন্যদের থেকে আলাদা হওয়ায় আমি সবসময়ই বিদ্বেষমূলক বক্তব্য ও হয়রানির শিকার হয়েছি। বিশ্ববিদ্যালয়ে এই পরিস্থিতি আরও খারাপ। আদিবাসীরা ভিন্ন কেউ নয়, এই দেশেরই নাগরিক। তাই ঘৃণা ও বৈষম্যমূলক আচরণ আমাদের প্রাপ্য নয়।’

অনুষ্ঠানে আর্টিকেল নাইনটিন দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক ফারুখ ফয়সল বলেন, বিদ্বেষমূলক বক্তব্য সমাজে বৈষম্য বাড়ায় ও সহিংসতা উস্কে দেয়। বাংলাদেশে বিভিন্ন ধর্মীয়, জাতিগত ও যৌন বৈচিত্রের মানুষেরা সবচেয়ে বেশি বিদ্বেষের শিকার। সংখ্যালঘুদের সুরক্ষায় বিদ্বেষমূলক বক্তব্য প্রতিরোধের দায়িত্ব প্রধানত রাষ্ট্রের। এজন্য সরকারের সঠিক কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করা অত্যন্ত জরুরী। একইসঙ্গে বিদ্বেষমূলক বক্তব্য প্রতিরোধে সচেতনতামূলক কর্মকাণ্ডে গণমাধ্যম ও নাগরিক অধিকার সংগঠনগুলোকেও সম্মিলিতভাবে এগিয়ে আসতে হবে।

ছবি

ড্রোন দিয়ে ডেঙ্গু মশা খুঁজবে ডিএনসিসি

ছবি

ডিএনসিসির ৬ গরুর হাটে হবে ডিজিটাল লেনদেন

রাজধানীতে ৪৩ চোরাই মোবাইল উদ্ধার, মালিক খুঁজছে পুলিশ

এবার ঢাকা দক্ষিণে ৬টি ‘কৃষকের বাজার’ হচ্ছে

রাজধানীতে মলম পার্টি ও ছনতাইকারী চক্রের ২৬ গ্রেপ্তার

ছবি

শাহবাগে ট্রাকের ধাক্কায় কলেজশিক্ষার্থী নিহত

ছবি

দক্ষিণ সিটির উপ-কর কর্মকর্তাসহ চাকরি হারালেন ৩২ জন

রাজধানীতে মলম পার্টি ও ছিনতাইকারী চক্রের ২৬ সদস্য গ্রেপ্তার

ছবি

মতিঝিলে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার মাদক কারবারি

ছবি

মাদকবিরোধী অভিযান: রাজধানীতে আটক ৪২

রাজধানীতে ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল চালক নিহত

রাষ্ট্রপতির ছেলের গাড়িচালককে মারধর, মামলা ছাত্রলীগকর্মীর নামে

গাড়ীর ধাক্কায় মোটর সাইকেল আরোহী নিহত

ছবি

বংশালে বিস্ফোরণে একই পরিবারের দগ্ধ ৪

ছবি

পদ্মা সেতু উদ্বোধন: বর্ণিল সাজে সেজেছে ঢাকা উত্তর সিটি

ছবি

রামপুরায় গৃহকর্মীর মৃত্যুর রহস্য খুঁজছে পুলিশ

ছবি

রাজধানীতে মদ-হেরোইনসহ গ্রেপ্তার ৬৮

বন্যা, খরা ও লবণাক্ততা সহিষ্ণু জাতের উদ্ভাবনের দিকে জোর কৃষিমন্ত্রীর

ছবি

তিন দিনব্যাপী ‘ঢাকা মোটর শো-২০২২’ শুরু কাল

১ সেপ্টেম্বর তিন রুটে ২০০ বাস দিয়ে চালু হবে ঢাকা নগর পরিবহন

ছবি

ইউনিলিভার ও সার্কুলার এর যৌথ অংশীদারিত্বে প্লাস্টিক সংগ্রহের উদ্যোগ

ছবি

‘১ সেপ্টেম্বর থেকে আরও তিন রুটে ঢাকা নগর পরিবহনের ২০০ বাস নামবে’

ছবি

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযান, ৫৪ মামলায় গ্রেফতার ৭৪

ছবি

বাংলাদেশ ব্যাংকের আগুন নিয়ন্ত্রণে

ছবি

রন্ধন শিল্পী তৈরির কারিগরদের সম্মাননা দিলো বেকিং এন্ড কুকিং এন্টারপ্রেনারস বিডি

ছবি

আজ রন্ধন শিল্পীদের সম্মাননা

ছবি

‘গৃহ সুখন’ এর রিমা জুলফিকার, দিন বদলের পালাকার

ছবি

মুনিরা সুলতানার ‘আপন ঘর’, চলছে আপন গতিতে

ছবি

রাজধানীতে হেরোইন-ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ৫২

ছবি

আন্তর্জাতিক জলবায়ু তহবিল সংগ্রহে স্থানীয় সরকার কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

হাইকোর্ট মোড়ে ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

ছবি

আলোয় ঝলমল পুরো পদ্মা সেতু

রাজধানীতে ৬ জুলাই থেকে বসবে অস্থায়ী কোরবানির পশুর হাট

ছবি

জুরাইনের ঘটনায় যেই অপরাধ করুক তার বিচার হবে : আপিল বিভাগ

বিরোধীদল ছাড়া স্বচ্ছ নির্বাচনও গ্রহণযোগ্যতা হারাতে পারে : সিইসি

ছবি

শেষ মুহূর্তে প্রকল্প এলাকায় চলছে ৮ ধরনের কাজ

tab

নগর-মহানগর

আর্টিকেল নাইনটিনের আয়োজনে বিদ্বেষমূলক বক্তব্য প্রতিরোধ বিষয়ক ওয়েবিনার

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

মঙ্গলবার, ২১ জুন ২০২২

সমাজে ক্রমবর্ধমান বিদ্বেষ প্রতিরোধে শিক্ষা, সচেতনতা ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের প্রসার জরুরী। কেবল আইন করে বিদ্বেষমূলক বক্তব্য ঠেকানো যাবে না। সামাজিক সংহতি ও শান্তির জন্য বৈচিত্র্যকে সম্মানের সঙ্গে গ্রহণ করার মানসিকতা গড়ে তুলতে হবে। বিদ্বেষমূলক বক্তব্য প্রতিরোধের প্রথম আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক ওয়েবিনারে এসব কথা বলেন বক্তারা।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা আর্টিকেল নাইনটিন গত ২০ জুন এ ওয়েবিনারের আয়োজন করে। আর্টিকেল নাইনটিন দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক ফারুখ ফয়সলের সঞ্চালনায় ওয়েবিনারে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী অফিসের জ্যেষ্ঠ মানবাধিকার উপদেষ্টা হুমা খান, আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং, জেন্ডার এক্টিভিস্ট নেওয়াজুল কবির এবং আর্টিকেল নাইনটিনের হিউম্যান রাইট অ্যাম্বাসেডর ফেলো মেছান হ্লা।

আর্টিকেল নাইনটিনের সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার রুমকি ফারহানা অনুষ্ঠানে বিদ্বেষ প্রতিরোধ দিবসের উদ্দেশ্য ও করণীয় বিষয়ে একটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। ওয়েবিনারে বাংলাদেশ ও নেপালের সাংবাদিক, শিক্ষক ও অধিকারকর্মীরা অংশ নেন।

হুমা খান বলেন, সমালোচনা কিংবা ভিন্নমত বিদ্বেষমূলক বক্তব্য নয়। তাই মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সমুন্নত রেখেই বিদ্বেষমূলক বক্তব্য মোকাবেলা করতে হবে। এজন্য শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নয়, প্রয়োজন ইতিবাচক কর্মপরিকল্পনা।

আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং বলেন, বিদ্বেষ মোকাবেলায় শিক্ষার ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বৈচিত্র্য সমাজের জন্য হুমকি নয়; বরং শক্তি – এই মানসিকতা তরুণ প্রজন্মের মধ্যে গড়ে তোলার উদ্যোগ নিতে হবে। পাশপাশি সামাজিক সম্প্রীতি ও শান্তির জন্য সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের প্রসার এবং বিভিন্ন ধর্ম ও সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে নিয়মিত সংলাপের আয়োজন করতে হবে।

জেন্ডার এক্টিভিস্ট নেওয়াজুল কবির বলেন, ‘যৌন বৈচিত্রের মানুষের প্রতি বিদ্বেষপূর্ণ মনোভাব ও আচরণের মূল কারণ সুশিক্ষার অভাব। বৈচিত্র্যকে সাদরে গ্রহণে পরিবার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা ইতিবাচক হতে হবে।। এছাড়া জেন্ডারভিত্তিক বিদ্বেষ-কুসংস্কার প্রতিরোধে সচেতনতা তৈরিতে মূলধারার গণমাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্যাম্পেইন কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে।’

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিদ্বেষমূলক আচরণের শিকার হওয়ার মানসিক যন্ত্রণা তুলে ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মেছান হ্লা বলেন, ‘আমার স্কুলে একমাত্র আমিই আদিবাসী শিক্ষার্থী ছিলাম। ভাষা ও দৈহিক গড়নে অন্যদের থেকে আলাদা হওয়ায় আমি সবসময়ই বিদ্বেষমূলক বক্তব্য ও হয়রানির শিকার হয়েছি। বিশ্ববিদ্যালয়ে এই পরিস্থিতি আরও খারাপ। আদিবাসীরা ভিন্ন কেউ নয়, এই দেশেরই নাগরিক। তাই ঘৃণা ও বৈষম্যমূলক আচরণ আমাদের প্রাপ্য নয়।’

অনুষ্ঠানে আর্টিকেল নাইনটিন দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক ফারুখ ফয়সল বলেন, বিদ্বেষমূলক বক্তব্য সমাজে বৈষম্য বাড়ায় ও সহিংসতা উস্কে দেয়। বাংলাদেশে বিভিন্ন ধর্মীয়, জাতিগত ও যৌন বৈচিত্রের মানুষেরা সবচেয়ে বেশি বিদ্বেষের শিকার। সংখ্যালঘুদের সুরক্ষায় বিদ্বেষমূলক বক্তব্য প্রতিরোধের দায়িত্ব প্রধানত রাষ্ট্রের। এজন্য সরকারের সঠিক কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করা অত্যন্ত জরুরী। একইসঙ্গে বিদ্বেষমূলক বক্তব্য প্রতিরোধে সচেতনতামূলক কর্মকাণ্ডে গণমাধ্যম ও নাগরিক অধিকার সংগঠনগুলোকেও সম্মিলিতভাবে এগিয়ে আসতে হবে।

back to top