alt

নগর-মহানগর

স্ট্রিট ফুডে যত বিপত্তি

ওসমান গনি: : রোববার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২

ছবি: সংবাদ

রাজধানীর ফুটপাতে খোলামেলা জায়গায় বিভিন্ন ধরনের মুখরোচক খাবার খেলে পেটের নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। গরমে তৈলাক্ত ও বেশি ঝালযুক্ত খাবার পরিমিত খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এ খাবারগুলো পোকা-মাকড় ধুলাবালি মাছি দ্বারা দূষিত। রাস্তার পাশে প্রায় সব দোকানের খাবার খোলা আকাশের নিচে উন্মুক্ত অবস্থায় তৈরি, বিক্রি ও সাজিয়ে রাখা হয়।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্য বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ডা. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘ঝালমুড়ি খাওয়া ক্ষতিকর কিছু না, যদি মুড়িটা প্যাকেটে রাখা যায়। তাইলে মুড়িটা খাওয়া যাবে। ফুটপাতের চিকেন ফ্রাই, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই যদি গরম গরম খাওয়া যায় আর পোড়া তেলে ভাজা না হয় তাইলে খাওয়া যাবে। এর ফলে স্বাস্থ্যগত দিক দিয়ে ক্ষতি হওয়ার সম্ভবনা কম থাকে। শরবতের ক্ষেত্রে পানিটা ভালো হতে হবে।’

সরেজমিন ফুটপাতে বা রাস্তার মোড়ে খোলা জায়গায় বিভিন্ন পদের মুখরোচক খাবার বিক্রি করতে দেখা গেছে। আলুর চপ ও ছোলা নিয়ে লালন নামে এক বিক্রেতা বলেন, ‘আমার যতটুকু সম্ভব ঢেকে রেখে বেচাকেনা করি। আর আমার দোকান চারধারে গ্লাস দিয়ে ঢাকা আছে। তারপরও ধুলাবালি ঢুকলে আমার কিছু করার নাই।’ এভাবেই কথাগুলো বলেছেন এ বিক্রেতা।

তিনি আরও জানান, তার সারাদিন হাজার টাকার মতো বেচাকেনা হয়। গেন্ডারিয়া এলাকায় এক বস্তিতে স্ত্রী ও এক মেয়ে নিয়ে কোনরকম জীবন বাঁচে। তার একমাত্র আয় এখান থেকে। তিনি আরও বলেন, ‘প্রতিদিনের খাবার প্রতিদিনই বিক্রি করি। আমরা গরিব মানুষ ছোট ব্যবস্যা করে কোনরকম মাথা গোঁজার ঠাঁই হয় এই শহরে। তাই একটু স্বাস্থসম্মতভাবে ভালো খাবার বিক্রি করার চেষ্টা করি।’

কামাল নামে এক বিক্রেতা বলেন, ‘ভাই আমরা ছোট দোকানদার, ফুটপাতে ট্যাক্স দিয়ে কোনরকম খাবার বিক্রি করে সংসার চালাই। হোটেলে গিয়ে দেখেন, পোড়া তেল দিয়ে সারাদিন পার করে দেয়। আমার কথা লিখে লাভ নাই, আমরা তো ছোট দোকানদারি করি।’

আতাউর রহমান গুলিস্তান এলাকায় ১০ বছর ধরে চিকেন রোলসহ বিভিন্ন মুখরোচক খাবার উন্মুক্ত স্থানে বিক্রি করেন। তার খাবার খেয়ে কেউ অসুস্থ হয়েছে এমন কোন রেকর্ড নেই বলে দাবি তার।

তিনি বলেন, ‘আমার কম দামের খাবার খেয়ে হাসপাতালে থাকতে হয় না। আপনি খোঁজ নিয়ে দেখেন, বড় বড় হোটেলে পোড়া তেলের খাবার খেয়ে কয়জন অসুস্থ হয়।’

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) করা ২০১০ সালের এক গবেষণায় উঠে আসে, বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার রাস্তার পাশের এসব খাবার পরিবেশনের সঙ্গে সম্পৃক্ত ২৫ ভাগ মানুষই অশিক্ষিত, যাদের নেই কোন একাডেমিক যোগ্যতা।

আরও বলা হয়েছে, এদের অধিকাংশই দিনে ১৩ থেকে ১৮ ঘণ্টা কাজে নিয়োজিত থাকেন টয়লেট সুবিধা ছাড়াই। এই দোকানগুলোর ৬৮ ভাগ দোকান ফুটপাতে অবস্থিত। আর ৩০ ভাগ দোকান ড্রেনের কাছাকাছি অবস্থিত।

করোনা আক্রান্ত ডিএনসিসির মেয়র আতিক

কামরাঙ্গীরচরে ভেজাল প্রসাধনীসহ গ্রেপ্তার ৭

রাজধানীতে পলিথিন ব্যবসায়ীকে অজ্ঞান করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে

বাংলাদেশে সম্প্রীতির উজ্জ্বল নজির রয়েছে : আইজিপি

ছবি

তৃতীয়বার করোনায় আক্রান্ত মেয়র আতিক

ছবি

গুলিস্তানে দুই বাসের চাপায় নারীর মৃত্যু

ছবি

ভিকারুননিসার অভিভাবক প্রতিনিধি নির্বাচনের কার্যক্রম বন্ধ রাখতে নোটিশ

১৫ বছর ধরে বিমানবন্দরে সক্রিয় এক ‘অজ্ঞান পার্টি’

ছবি

বাসায় পড়েছিল অর্ধগলিত লাশ, পুলিশ বলছে হত্যাকাণ্ড

ছবি

অনলাইনে কর পরিশোধে ১০ শতাংশ ছাড় দেবে ডিএনসিসি

ছবি

পরিবাগে ছুরিকাঘাতে তৃতীয় লিঙ্গের একজন নিহত

ছবি

বর্জ্য রিসাইকেল করার লক্ষ্যে কর্ডএইডকে তহবিল সহায়তা দিচ্ছে কোকা-কোলা ফাউন্ডেশন

ছবি

উত্তরায় হোটেল থেকে ব্রিটিশ নাগরিকের লাশ উদ্ধার

ছবি

রাজধানীতে অচেতন অবস্থায় তরুণী উদ্ধার, ধর্ষণের অভিযোগ

ছবি

শেখ হাসিনা নারী জাগরণে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছেন: আইভী

ছবি

রাজধানীতে ব্যাংক কর্মকর্তার স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার

‘স্বাধীনতার পরাজিত শত্রুরা সাম্প্রাদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার অপচেষ্টায় লিপ্ত’

ছবি

সমাবেশের আগেই হাজারীবাগে আ.লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ

ছবি

মোহাম্মদপুরে স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার

ছবি

দেশে বর্তমানে ১৩ কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

ছবি

বংশালে সাততলা থেকে পড়ে উদয়নের শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ছবি

বুয়েট এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় নিহত ১

ছবি

ডিএমপির ঊর্ধ্বতন ৯ কর্মকর্তাকে বদলি

ছবি

‘হিডেন হেরিটেজ: হোমস ইন ঢাকা’ প্রকল্পের উন্মোচন

ছবি

রাজধানীতে ঘুমের ওষুধ খেয়ে গৃহবধূর মৃত্যু!

ছবি

পুরান ঢাকায় আগুনে পুড়ল দুই দোকান

ছবি

চার্জশিটে একাধিক সন্ত্রাসী ও আ’লীগ নেতার নাম থাকতে পারে

ছবি

সড়ক ও ফুটপাতে রাখা নির্মাণসামগ্রী নিলামে তুলে বিক্রি

ছবি

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৩৯

বিএনপির ২ শতাধিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে পুলিশের মামলা

মুগদা ও আশপাশের এলাকায় গ্যাস সংকট চরমে

ছবি

সিআইডি পরিচয়ে তুলে নেয়া চিকিৎসক শাকির সিটিটিসি হেফাজতে

শাহজাহানপুরে কলেজ শিক্ষার্থীর মৃত্যু, আত্মহত্য বলে পুলিশের ধারণা

ছবি

শিক্ষার্থী নিহত, নিরাপদ সড়কের দাবিতে বিক্ষোভ

ছবি

দক্ষ মানবসম্পদ তৈরি করতে না পারলে আগামী দিনে পিছিয়ে পড়তে হবে: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক

ছবি

বিমানের সিটের নিচে দেড় কোটি টাকার স্বর্ণ

tab

নগর-মহানগর

স্ট্রিট ফুডে যত বিপত্তি

ওসমান গনি:

ছবি: সংবাদ

রোববার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২

রাজধানীর ফুটপাতে খোলামেলা জায়গায় বিভিন্ন ধরনের মুখরোচক খাবার খেলে পেটের নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। গরমে তৈলাক্ত ও বেশি ঝালযুক্ত খাবার পরিমিত খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এ খাবারগুলো পোকা-মাকড় ধুলাবালি মাছি দ্বারা দূষিত। রাস্তার পাশে প্রায় সব দোকানের খাবার খোলা আকাশের নিচে উন্মুক্ত অবস্থায় তৈরি, বিক্রি ও সাজিয়ে রাখা হয়।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্য বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ডা. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘ঝালমুড়ি খাওয়া ক্ষতিকর কিছু না, যদি মুড়িটা প্যাকেটে রাখা যায়। তাইলে মুড়িটা খাওয়া যাবে। ফুটপাতের চিকেন ফ্রাই, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই যদি গরম গরম খাওয়া যায় আর পোড়া তেলে ভাজা না হয় তাইলে খাওয়া যাবে। এর ফলে স্বাস্থ্যগত দিক দিয়ে ক্ষতি হওয়ার সম্ভবনা কম থাকে। শরবতের ক্ষেত্রে পানিটা ভালো হতে হবে।’

সরেজমিন ফুটপাতে বা রাস্তার মোড়ে খোলা জায়গায় বিভিন্ন পদের মুখরোচক খাবার বিক্রি করতে দেখা গেছে। আলুর চপ ও ছোলা নিয়ে লালন নামে এক বিক্রেতা বলেন, ‘আমার যতটুকু সম্ভব ঢেকে রেখে বেচাকেনা করি। আর আমার দোকান চারধারে গ্লাস দিয়ে ঢাকা আছে। তারপরও ধুলাবালি ঢুকলে আমার কিছু করার নাই।’ এভাবেই কথাগুলো বলেছেন এ বিক্রেতা।

তিনি আরও জানান, তার সারাদিন হাজার টাকার মতো বেচাকেনা হয়। গেন্ডারিয়া এলাকায় এক বস্তিতে স্ত্রী ও এক মেয়ে নিয়ে কোনরকম জীবন বাঁচে। তার একমাত্র আয় এখান থেকে। তিনি আরও বলেন, ‘প্রতিদিনের খাবার প্রতিদিনই বিক্রি করি। আমরা গরিব মানুষ ছোট ব্যবস্যা করে কোনরকম মাথা গোঁজার ঠাঁই হয় এই শহরে। তাই একটু স্বাস্থসম্মতভাবে ভালো খাবার বিক্রি করার চেষ্টা করি।’

কামাল নামে এক বিক্রেতা বলেন, ‘ভাই আমরা ছোট দোকানদার, ফুটপাতে ট্যাক্স দিয়ে কোনরকম খাবার বিক্রি করে সংসার চালাই। হোটেলে গিয়ে দেখেন, পোড়া তেল দিয়ে সারাদিন পার করে দেয়। আমার কথা লিখে লাভ নাই, আমরা তো ছোট দোকানদারি করি।’

আতাউর রহমান গুলিস্তান এলাকায় ১০ বছর ধরে চিকেন রোলসহ বিভিন্ন মুখরোচক খাবার উন্মুক্ত স্থানে বিক্রি করেন। তার খাবার খেয়ে কেউ অসুস্থ হয়েছে এমন কোন রেকর্ড নেই বলে দাবি তার।

তিনি বলেন, ‘আমার কম দামের খাবার খেয়ে হাসপাতালে থাকতে হয় না। আপনি খোঁজ নিয়ে দেখেন, বড় বড় হোটেলে পোড়া তেলের খাবার খেয়ে কয়জন অসুস্থ হয়।’

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) করা ২০১০ সালের এক গবেষণায় উঠে আসে, বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার রাস্তার পাশের এসব খাবার পরিবেশনের সঙ্গে সম্পৃক্ত ২৫ ভাগ মানুষই অশিক্ষিত, যাদের নেই কোন একাডেমিক যোগ্যতা।

আরও বলা হয়েছে, এদের অধিকাংশই দিনে ১৩ থেকে ১৮ ঘণ্টা কাজে নিয়োজিত থাকেন টয়লেট সুবিধা ছাড়াই। এই দোকানগুলোর ৬৮ ভাগ দোকান ফুটপাতে অবস্থিত। আর ৩০ ভাগ দোকান ড্রেনের কাছাকাছি অবস্থিত।

back to top