alt

অপরাধ ও দুর্নীতি

আদালতের রায়ের পরও বিনা নোটিশে জায়গায় লাল নিশান

জেলা বার্তা পরিবেশক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া : শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১
image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে আদালতের রায়ের পরও জায়গার উপর লাল নিশান স্থাপন করাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। উপজেলার পত্তন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের দাবি, মামলায় রায়ে নিস্পত্তি হওয়ার পরও জায়গাটি দখলের চেষ্টা করছে ভূমি অফিস। আর ভূমি অফিসের দাবি, এই জায়গা সংক্রান্ত মামলা এখন চলমান আছে। বিষয়টি নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও চলছে সমালোচনার ঝড়।

পত্তন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান রতন অভিযোগ করে বলেন, এই জায়গাটি ১.৫৬একর। যার সাবেক দাগ নম্বর ২৮৪৮। এরমধ্যে সরকারের ১.১১একর ও আমার ৪৫শতাংশ জায়গা। একই দাগে যেহেতু দুইটি জায়গা, তাই ২০০২সালে আমি বন্টন করতে মামলা দায়ের করেছিলাম। যার মামলা নং-১৮৩। ২০০৫ সালে আদালতে এই মামলার রায়ে আমি আমার জায়গা বুঝে পাই। মামলায় রায় আমার পক্ষে আসায় ভূমি অফিস আপিল করে। যার আপিল নং-১৭৯। ২০১০সালে ওই আপিলে জজ আদালতের রায় আমার পক্ষে দেন। রায়ের পর আমার জায়গা বন্টন করে দিতে ডিক্রি জারি করেছিলাম। ডিক্রি জারির পর আমার ৪৫শতাংশ জায়গা বুঝিয়ে দেন। ২০১২সালে সরকারের পক্ষ থেকে এই জায়গা নিয়ে হাইকোর্টে পুনরায় আপিল করেন। ২০১৬সালে হাইকোর্টের আপিলের রায়েও আমার পক্ষে রায় আসে। সম্প্রতি আমি আমার জায়গায় ঘর উঠাতে গেলে ইউনিয়ন ভূমি অফিসে তহশিলদার জায়গায় লাল নিশান সাটিয়ে দিয়েছেন। এর ব্যাখা জানতে চাইলে তহশিলদার জাকির হোসেন আমাকে জানিয়েছেন, উনারা আপিল করবেন সুপ্রিম কোর্টে। আপিল করার কাগজপত্র তো আমি খোঁজ করেও পায়নি। তাহলে আপিল করার আগেই কেন আদালতের রায় দেওয়ার পরও আমার জায়গায় বাধা দেওয়া হচ্ছে? আমি আমার ৪৫শতাংশ জায়গা ঘর তুলছি, সরকারি ১.১১একর জায়গায় দখল করেনি। তিনি বলেন, এনিয়ে ফেসবুক সহ বিভিন্ন মাধ্যমে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। এর পেছনে কলকাঠি নাড়ছেন সাবেক এক ইউপি চেয়ারম্যান।

বিনা নোটিশে কেন জায়গা লাল নিশান স্থাপন করা হলো? এই প্রশ্নের জবাবে পত্তন ইউনিয়ন ভূমি অফিসের তহশিলদার জাকির হোসেন বলেন, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ এই জায়গা লাল নিশান স্থাপন করেছি। কেন নিশানা স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছেন, এটা উনারা বলতে পারবেন।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রাবেয়া আফসার সায়মা বলেন, এই জায়গা নিয়ে মামলা বিচারাধীন আছে। মামলা নিস্পত্তি এখনো হয়নি। তাই উনি এখানে ঘর তুলতে পারেন না।

ছবি

শুল্কমুক্ত পণ্য খোলাবাজারে বিক্রি, গ্রেপ্তার ১১

ছবি

হেলেনা জাহাঙ্গীরকে ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান সেফুদার

ছবি

মিথ্যাচার, অপপ্রচারের অভিযোগে হেলেনা জাহাঙ্গীর গ্রেফতার

ছবি

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় পাওয়া মদ-ক্যাসিনো নিয়ে যা বললেন তার মেয়ে

ছবি

দেশে ফেরার সময় বাংলাদেশি নারীকে ক্যাম্পে ধর্ষণ, বিএসএফ সদস্য গ্রেফতার

ব্যবসায়ী হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করেছে র‌্যাব

ছবি

মুনিয়ার ‘আত্মহত্যায় প্ররোচনা’ মামলা: নিয়মিত আদালত চালু হলে পুলিশের প্রতিবেদনের ওপর শুনানি

ছবি

প্রেমিকাকে হত্যার পর মরদেহের ওপর যা লিখে গেলেন প্রেমিক

চাঁদাবাজির মামলায় ঢাবি ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

ছবি

দুর্নীতি মামলায় ওসি প্রদীপ দম্পতির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

ছবি

বিমানে নানা কৌশলে ঢাকায় আসছে ইয়াবা

ছবি

সুবর্ণচরে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ

ছবি

ফতুল্লায় যুবক খুন, ছুরিসহ আটক ১

ছবি

পদ্মা সেতুর পিলারে ফেরির ধাক্কা দেয়া সেই মাস্টার আটক

হাসপাতালে করোনা রোগীর ছুরিকাঘাতে দুই নার্স ও ওয়ার্ডবয় আহত

ট্রলার ভাড়া বিবাদে বৃদ্ধকে হত্যা

শৈলকুপায় জমি বিবাদে গৃহবধূ নির্যাতন, বাইক ভাংচুর-টাকা লুট

ছবি

মুনিয়ার ‘আত্নহত্যা’: বসুন্ধরার আনভীরকে অব্যাহতি দিয়ে পুলিশের প্রতিবেদন

ছবি

রূপগঞ্জে আগুন: হাসেম ও তার বাকি দুই ছেলের জামিন

গোমস্তাপুরে অস্ত্রসহ আটক ১

আশুলিয়ায় শিশু ধর্ষণ মামলা

ছবি

কক্সবাজারে আশু আলী বাহিনীর প্রধান আশু আলী নিহত

ছবি

হরিদেবপুরে ৫ বছরের শিশুকে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেপ্তার

ভেড়ামারায় শিশুকে ধর্ষণ অভিযোগে গ্রেপ্তার ১

রূপগঞ্জে পুলিশ পরিচয়ে অপহরণ ও মুক্তিপণ মামলা নেয়নি পুলিশ

ছবি

ইভ্যালির চেয়ারম্যান ও এমডির দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

ছবি

টেকনাফে র‌্যাবের সাথে গোলাগুলিতে রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত

ছবি

গরুর হাটে ব্যবসায়ীকে মারধর করে ৮ লাখ টাকা লুটে নেওয়ার অভিযোগ

ছবি

বগুড়ায় চাঞ্চল্যকর গৃহবধুকে গণধর্ষণ ঘটনার প্রধান আসামী রাব্বিসহ ৪জন গ্রেফতার

ছবি

কাশিমপুর কারাগারে জেএমবি সদস্যের ফাঁসি কার্যকর

ছবি

কুষ্টিয়ায় বিষ দিয়ে কৃষকের দুটি গরু হত্যা

গোদাগাড়ীতে জমি বিবাদে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

চেকপোস্ট বসিয়ে ছিনতাই করত ওরা

৯ বছরের শিশুকে ধর্ষণ ও হত্যা

ছবি

২২ বছর সাজা খেটে বেরিয়েই ফের হত্যাচেষ্টা

স্ত্রী-সন্তানকে হত্যা করে মাটিচাপা

tab

অপরাধ ও দুর্নীতি

আদালতের রায়ের পরও বিনা নোটিশে জায়গায় লাল নিশান

জেলা বার্তা পরিবেশক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
image

শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে আদালতের রায়ের পরও জায়গার উপর লাল নিশান স্থাপন করাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। উপজেলার পত্তন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের দাবি, মামলায় রায়ে নিস্পত্তি হওয়ার পরও জায়গাটি দখলের চেষ্টা করছে ভূমি অফিস। আর ভূমি অফিসের দাবি, এই জায়গা সংক্রান্ত মামলা এখন চলমান আছে। বিষয়টি নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও চলছে সমালোচনার ঝড়।

পত্তন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান রতন অভিযোগ করে বলেন, এই জায়গাটি ১.৫৬একর। যার সাবেক দাগ নম্বর ২৮৪৮। এরমধ্যে সরকারের ১.১১একর ও আমার ৪৫শতাংশ জায়গা। একই দাগে যেহেতু দুইটি জায়গা, তাই ২০০২সালে আমি বন্টন করতে মামলা দায়ের করেছিলাম। যার মামলা নং-১৮৩। ২০০৫ সালে আদালতে এই মামলার রায়ে আমি আমার জায়গা বুঝে পাই। মামলায় রায় আমার পক্ষে আসায় ভূমি অফিস আপিল করে। যার আপিল নং-১৭৯। ২০১০সালে ওই আপিলে জজ আদালতের রায় আমার পক্ষে দেন। রায়ের পর আমার জায়গা বন্টন করে দিতে ডিক্রি জারি করেছিলাম। ডিক্রি জারির পর আমার ৪৫শতাংশ জায়গা বুঝিয়ে দেন। ২০১২সালে সরকারের পক্ষ থেকে এই জায়গা নিয়ে হাইকোর্টে পুনরায় আপিল করেন। ২০১৬সালে হাইকোর্টের আপিলের রায়েও আমার পক্ষে রায় আসে। সম্প্রতি আমি আমার জায়গায় ঘর উঠাতে গেলে ইউনিয়ন ভূমি অফিসে তহশিলদার জায়গায় লাল নিশান সাটিয়ে দিয়েছেন। এর ব্যাখা জানতে চাইলে তহশিলদার জাকির হোসেন আমাকে জানিয়েছেন, উনারা আপিল করবেন সুপ্রিম কোর্টে। আপিল করার কাগজপত্র তো আমি খোঁজ করেও পায়নি। তাহলে আপিল করার আগেই কেন আদালতের রায় দেওয়ার পরও আমার জায়গায় বাধা দেওয়া হচ্ছে? আমি আমার ৪৫শতাংশ জায়গা ঘর তুলছি, সরকারি ১.১১একর জায়গায় দখল করেনি। তিনি বলেন, এনিয়ে ফেসবুক সহ বিভিন্ন মাধ্যমে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। এর পেছনে কলকাঠি নাড়ছেন সাবেক এক ইউপি চেয়ারম্যান।

বিনা নোটিশে কেন জায়গা লাল নিশান স্থাপন করা হলো? এই প্রশ্নের জবাবে পত্তন ইউনিয়ন ভূমি অফিসের তহশিলদার জাকির হোসেন বলেন, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ এই জায়গা লাল নিশান স্থাপন করেছি। কেন নিশানা স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছেন, এটা উনারা বলতে পারবেন।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রাবেয়া আফসার সায়মা বলেন, এই জায়গা নিয়ে মামলা বিচারাধীন আছে। মামলা নিস্পত্তি এখনো হয়নি। তাই উনি এখানে ঘর তুলতে পারেন না।

back to top