alt

সংস্কৃতি

১৬ দিনে মেলায় বিক্রির শীর্ষে যেসব বই

প্রতিনিধি, ঢাবি : বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

বইমেলায় নবীণ ও তরুণ লেখকদের বই কয়েক বছর ধরে বিক্রির শীর্ষে থাকছে। তবে এসব তরুণ লেখকদের ভীড়ে হারিয়ে যাননি কিংবদন্তি লেখকরা। এখনও তরুণ সব জনপ্রিয় লেখকের ভীড়ে ঠাঁয় দাঁড়িয়ে আছে তারা। বৃহস্পতিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত এবারের বইমেলায় সর্বোচ্চ বিক্রিত বইগুলোর খোঁজ করে সংবাদ। কয়েকটি জনপ্রিয় প্রকাশনীর সঙ্গে কথা হয় প্রতিবেদকের।

বৃহস্পতিবার মেলার ১৬তম দিনে মেলা প্রাঙ্গন ঘুরে আঁচ করা যায় বিক্রির শীর্ষে থাকা বইগুলো। মেলার এই সময়ে দাঁড়িয়ে পাঠকরা সহজেই খুঁজে নিতে পারছেন তাদের পছন্দের বই। কারণ মোটামুটি প্রত্যাশিত সব লেখকের বই ইতোমধ্যেই মেলায় প্রকাশিত হয়েছে। ফলে এখন আর লেখকের বই প্রকাশের জন্য কোন ধরনের অপেক্ষা করতে হচ্ছেনা বা যাচাই করতে হচ্ছে না। পাঠকরা আগে পড়ে যে বইগুলোর রিভিও ভালো বলছেন সেগুলো অতি সহজেই কিনে নিতে পারছেন।

প্রকাশনা সংস্থা চারুলিপি প্রকাশনীতে বিক্রির শীর্ষে রয়েছে শহীদুল্লাহ কায়সারের সারেং বৌ, সংশপ্তক, জাহানারা ইমামের একাত্তরের দিনগুলি। মিজান পাবলিশার্সে সর্বাধিক বিক্রিত বইয়ের মধ্যে রয়েছে লেখক ও অভিনেত্রী রওনক বিশাকা শ্যামলীর লেখা পৃথিবীতে প্রেম বলে কিছু নেই, আনিসুল হকের চার কিশোর গোয়েন্দা ও ধর্মীয় বই দুআ-ই ইবাদত। ঐতিহ্য প্রকাশনীতে পাওয়া যাচ্ছে বর্তমান বিশ্বের অর্থনীতি নিয়ে লিখা মোহাইমিন পাটোয়ারীর লিখা গল্পে গল্পে অর্থনীতি, ব্যাংক ব্যবস্থা ও টাকার গোপন রহস্য, ইসলামি ব্যাংক ব্যবস্থার শুভংকরের ফাঁকি।

শব্দশৈলীতে বিক্রির শীর্ষে রয়েছে বিভূতিভূষণ বন্দোপাধ্যায়ের আদর্শ হিন্দু হোটেল, নাফিজ ফুয়াদের সাইকোলজিক্যাল বই পজিটিভ সাইকোলজি অ্যান্স মেন্টাল হেলথ, কামরুন নাহার মুক্তির দ্য ইন্ড অফ মেন্টাল ডিসঅর্ডার। তাম্রলিপিতে বিক্রির শীর্ষে রয়েছে তরুণ কার্টুনিস্ট অন্তিক মাহমুদের লিখা দুইশ পঞ্চাশ, মুহম্মদ জাফর ইকবালের লিখা ফেরা ও তাশফিকাল সামির রোমান্টিক উপন্যাস নব্বই দশকের ভালোবাসা।

মাওলা ব্রাদার্সের শীর্ষে রয়েছে আহমদ ছফার যদ্যপি আমার গুরু, শাহাদুজ্জামানের ক্রাচের কর্ণেল। হুমায়ূন প্রেমীরা খুঁজতে খুঁজতে চলে আসেন অন্যপ্রকাশে। এই প্রকাশনীতে বেস্ট সেলারে রয়েছে কিংবদন্তি এই কথাসাহিত্যিকের লিখা উপন্যাস দেয়াল, মাতাল হাওয়া, নন্দিত নরকে, শঙ্খনীল, মধ্যাহ্ন অখ-।

অনন্যাতেও রয়েছে কিংবদন্তি এই কথাসাহিত্যিকের সারি সারি বই। বিক্রয়কর্মীরা জানান, এখানেও পাঠক চাহিদার শীর্ষে রয়েছে হুমায়ূন আহমেদ। হুমায়ূন আহমেদের বাইরে এখানে বিক্রির শীর্ষে রয়েছে হানিফ সংকেতের লিখা আবেগ যখন বিবেকহীন, নিশাত ইসলামের তবুও জীবনে প্রেম আসে, মোহাম্মদ এজাজ হোসেনের একাত্তর ও আমার শৈশব।

অনিন্দ্য প্রকাশনীতে বেস্ট সেলারের মধ্যে রয়েছে মোশতাক আহমেদের প্যারাসাইকোলজি থ্রিলার স্বপ্নখুনি, ভৌতিক থ্রিলার ছায়াআত্মা ও সায়েন্স ফিকশন নিতিনা। আরকান ফয়সালের ক্রাইম থ্রিলার ডার্ক কিলার ও ডার্ক মাইন্ড গ্রুপ বইটিও রয়েছে বিক্রির শীর্ষে। রোমান্টিক উপন্যাসের মধ্যে বেশি বিক্রি হচ্ছে রেদোয়ান মাসুদের ভালোবাসি, জুলফিকার শাহিনের যে সুতোয় তুমি স্বপ্ন বোনো। বিপণনকর্মী মো. আবু ফাহিম বলেন, বিক্রির শীর্ষে রয়েছে থ্রিলার বই। মোশতাক আহমেদের বইগুলো সবথেকে বেশি বিক্রি হচ্ছে।

অন্যধারায় বিক্রির শীর্ষে রয়েছে জনপ্রিয় তরুণ লেখক সাদাত হোসাইনের লিখা স্মৃতিগন্ধা, শেষ অধ্যায় নেই, ছদ্মবেশ, সত্যটা মিথ্যা ও নির্বাসন। থ্রিলার বইয়ের মধ্যে রয়েছে রবিন জামান খানের সপ্তরিপু, রাজদ্রোহী ও রুদ্ধরাত। পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্সে রোমান্টিক ধারার উপন্যাস হাসানাত লোকমানের লিখা অপ্রেম, জাহিদুন্নবীর কৃষ্ণপক্ষের ধ্রুব ও মারুফ রসূলের মুহূর্ত থামো, তুমি সুন্দর বইটির কাটতি বেশি বলে জানান বিক্রয়কর্মী জাহিদ। এছাড়া থ্রিলারের মধ্যে রয়েছে অরুণ কুমার বিশ্বাসের চিলিংহ্যাম দুর্গে আতঙ্ক ও সাইকোপ্যাথ। জাহিদ বলেন, কবিতার বই বেশি প্রকাশ হলেও মূলত বিক্রি বেশি গল্প, উপন্যাস। অন্যদিকে থ্রিলার বইয়ের জনপ্রিয়তা ছাড়িয়ে যাচ্ছে সবকিছুকে। মেয়েরা বেশিরভাগ প্রেমের উপন্যাসই বেশি কিনছে।

বৃহস্পতিরের অনুষ্ঠান

বিকেল ৪টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকেন্দ্রীকরণ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ফরিদ আহমদ দুলাল। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মাহমুদ কামাল, নজিবুল ইসলাম এবং সাজ্জাদ আহসান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অনীক মাহমুদ।

প্রাবন্ধিক বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নকে টেকসই করতে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নকে অর্থবহ করে তোলা যেমন জরুরি, তেমনি অর্থনৈতিক উন্নয়নের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদের জীবনে সাংস্কৃতিক মুক্তি নিশ্চিত করাটাও অপরিহার্য। সাংস্কৃতিক মুক্তির জন্য আমাদের সমাজ-রাষ্ট্রের সব স্তরে সাংস্কৃতিক অগ্রযাত্রাকে সমন্বয় করতে হবে। দেশের মাঠপর্যায় থেকে রাষ্ট্রীয় পর্যায়, কখনো কখনো রাষ্ট্রীয় পর্যায় থেকে মাঠ পর্যায়ে নিয়ে যেতে হবে চিন্তা ও আকাক্সক্ষার স্বপ্নটি এবং সেখানেই বাংলা, ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকেন্দ্রীকরণের সৌন্দর্য লুক্কায়িত। ভাষা-সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকেন্দ্রীকরণ তখনই অর্থবহ হবে, যখন লোকবাংলার শুভ প্রবণতার চেতনা বিকেন্দ্রীকরণ করা হবে লোকমানস থেকে নীতিনির্ধারকদের কাছে।

সভাপতির বক্তব্যে অনীক মাহমুদ বলেন, জ্ঞানভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে হলে জাতির মূল শক্তিকে জাগ্রত করতে হবে। ভাষা-সাহিত্য ও সংস্কৃতিই একটি জাতির মূল শক্তি। সাংস্কৃতিক চর্চাকে বিকেন্দ্রীকরণের মাধ্যমে কেন্দ্রের সঙ্গে প্রান্তের মানুষদের সম্পৃক্ত করা সম্ভব।

শুক্রবারের অনুষ্ঠানমালা

আজ ১৭তম দিনে মেলা শুরু হবে বেলা ১১টায়, চলবে রাত ৯টা পর্যন্ত। শিশুপ্রহর : সকাল ১১টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত মেলায় শিশুপ্রহর চলবে। শিশু-কিশোর আবৃত্তি প্রতিযোগিতা ঃ সকাল ১০টায় বইমেলার মূলমঞ্চে শিশু-কিশোর আবৃত্তি প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্ব অনুষ্ঠিত হবে।

আলোচনা অনুষ্ঠান

বিকেল ৪টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে জন্মশতবার্ষিক শ্রদ্ধাঞ্জলি : সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন মহীবুল আজিজ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন অনিরুদ্ধ কাহালি ও মোহাম্মদ জয়নুদ্দীন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন সৈয়দ আকরম হোসেন।

ছবি

প্রান্তিক জনপদ নিয়ে কারু তিতাসের ‘মৃত্তিকা মোহ’

ছবি

আলসেমি উদযাপনের দিন আজ

ছবি

জবিতে মঞ্চায়িত হলো ‘উজানে মৃত্যু’

ছবি

নিউইয়র্কে ৪ দিনব্যাপী বিপার ৩০ বছর পূর্তি উৎসব

ছবি

সাহিত্যের দৈন্যতা কাটাতে তরুণদের প্রতি আহ্বান কামাল চৌধুরীর

ছবি

শহীদ বিধান স্মৃতি সম্মাননা পেলেন গাজী জাহাঙ্গীর

ছবি

সিলেটে বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সংসদের উদ্যোগে দুটি স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন

মৌলভীবাজারে বাংলাদেশ -ভারত মৈত্রি সম্মাননা

ছবি

গানে কবিতায় কবি আবদুল গফ্ফার দত্তচৌধুরীকে স্মরণ

উন্মুক্ত লাইব্রেরিতে ‘কাওয়াল সন্ধ্যা’ উদযাপিত

সিলেটে সাহিত্য মেলা নিয়ে মনক্ষুন্ন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

ছবি

‘সমাজকে অন্ধকার থেকে আলোতে আনতে পাঠাগারের বিকল্প নেই’

ছবি

এসএসসি ১৯৮২ সংগঠনের বর্ষপূর্তি ও ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

ছবি

সোনারগাঁয়ে বাংলাদেশ ভারত সাহিত্য-সাংস্কৃতিক উৎসব ও গুণীজন সংবর্ধনা

ছবি

‘অগ্নিবীণার শতবর্ষ : বঙ্গবন্ধুর চেতনায় শাণিত রূপ

ছবি

বগুড়া লেখক চক্রের নতুন কমিটির অভিষেক

ছবি

কবি রেজা সারোয়ারের তিনটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

ছবি

জাতীয় জাদুঘরে সেমিনার, আলোচনা সভা ও পটুয়া কামরুল হাসান গ্যালারি উদ্বোধন

মৃণাল সেনের জন্মশতবার্ষিকীতে ঢাবিতে চলচ্চিত্র প্রদর্শনী

ছবি

স্বর্গছেঁড়ার অনিমেষ ও কিছু কথাবার্তা

ছবি

বাঙালির অভিন্ন সাংস্কৃতিক মেলবন্ধন

ছবি

বর্ষবরণে প্রস্তুত ছায়ানট, হাল না ছাড়ার প্রত্যয়

ছবি

দেশকে স্বপ্নের ঠিকানায় পৌঁছাবে চলচ্চিত্র: হাছান মাহমুদ

ছবি

৭ বর্ণ বাদ গুজবে বিব্রত বাংলা একাডেমির সভাপতি

ছবি

‘প্রলয় বাজাও গানে, সাহস জাগাও প্রাণে’ যারা পেলেন উদীচীর পুরস্কার

ছবি

শালুক সাহিত্য পুরস্কার পেলেন তিন দেশের কথাসাহিত্যিক ও কবি

ছবি

ডিরেক্টরস গিল্ডের সভাপতি অনন্ত হীরা, ফের সম্পাদক সাগর

ছবি

গত বছরের চেয়ে পাঁচ কোটি টাকা কম বিক্রি

ছবি

বইমেলায় বাজছে বিদায়ের সুর

ছবি

বইমেলায় আলোচিত মাসরুর আরেফিনের সাক্ষাৎকারগ্রন্থ “‘মানবতাবাদী’ সাহিত্যের বিপক্ষে মাসরুর আরেফিন”

ছবি

বইমেলায় ওবায়েদ আকাশের গ্রন্থসমূহ

ছবি

দুটি গ্রন্থ নিয়ে বইমেলায় মাহফুজ আল-হোসেন

ছবি

হাসান কল্লোলের নতুন কবিতা বই ‘মুদ্রিত স্বপ্নের কোলাজ’

ছবি

বইমেলায় হাইকেল হাশমীর দুই বই

ছবি

গুণগত বইয়ের খোঁজে পাঠক

চিরকুট-এর ২০ বছর পূর্তিতে ‘টিএসসি টু ম্যাডিসন স্কয়ার গার্ডেন’ কনসার্ট

tab

সংস্কৃতি

১৬ দিনে মেলায় বিক্রির শীর্ষে যেসব বই

প্রতিনিধি, ঢাবি

বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

বইমেলায় নবীণ ও তরুণ লেখকদের বই কয়েক বছর ধরে বিক্রির শীর্ষে থাকছে। তবে এসব তরুণ লেখকদের ভীড়ে হারিয়ে যাননি কিংবদন্তি লেখকরা। এখনও তরুণ সব জনপ্রিয় লেখকের ভীড়ে ঠাঁয় দাঁড়িয়ে আছে তারা। বৃহস্পতিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত এবারের বইমেলায় সর্বোচ্চ বিক্রিত বইগুলোর খোঁজ করে সংবাদ। কয়েকটি জনপ্রিয় প্রকাশনীর সঙ্গে কথা হয় প্রতিবেদকের।

বৃহস্পতিবার মেলার ১৬তম দিনে মেলা প্রাঙ্গন ঘুরে আঁচ করা যায় বিক্রির শীর্ষে থাকা বইগুলো। মেলার এই সময়ে দাঁড়িয়ে পাঠকরা সহজেই খুঁজে নিতে পারছেন তাদের পছন্দের বই। কারণ মোটামুটি প্রত্যাশিত সব লেখকের বই ইতোমধ্যেই মেলায় প্রকাশিত হয়েছে। ফলে এখন আর লেখকের বই প্রকাশের জন্য কোন ধরনের অপেক্ষা করতে হচ্ছেনা বা যাচাই করতে হচ্ছে না। পাঠকরা আগে পড়ে যে বইগুলোর রিভিও ভালো বলছেন সেগুলো অতি সহজেই কিনে নিতে পারছেন।

প্রকাশনা সংস্থা চারুলিপি প্রকাশনীতে বিক্রির শীর্ষে রয়েছে শহীদুল্লাহ কায়সারের সারেং বৌ, সংশপ্তক, জাহানারা ইমামের একাত্তরের দিনগুলি। মিজান পাবলিশার্সে সর্বাধিক বিক্রিত বইয়ের মধ্যে রয়েছে লেখক ও অভিনেত্রী রওনক বিশাকা শ্যামলীর লেখা পৃথিবীতে প্রেম বলে কিছু নেই, আনিসুল হকের চার কিশোর গোয়েন্দা ও ধর্মীয় বই দুআ-ই ইবাদত। ঐতিহ্য প্রকাশনীতে পাওয়া যাচ্ছে বর্তমান বিশ্বের অর্থনীতি নিয়ে লিখা মোহাইমিন পাটোয়ারীর লিখা গল্পে গল্পে অর্থনীতি, ব্যাংক ব্যবস্থা ও টাকার গোপন রহস্য, ইসলামি ব্যাংক ব্যবস্থার শুভংকরের ফাঁকি।

শব্দশৈলীতে বিক্রির শীর্ষে রয়েছে বিভূতিভূষণ বন্দোপাধ্যায়ের আদর্শ হিন্দু হোটেল, নাফিজ ফুয়াদের সাইকোলজিক্যাল বই পজিটিভ সাইকোলজি অ্যান্স মেন্টাল হেলথ, কামরুন নাহার মুক্তির দ্য ইন্ড অফ মেন্টাল ডিসঅর্ডার। তাম্রলিপিতে বিক্রির শীর্ষে রয়েছে তরুণ কার্টুনিস্ট অন্তিক মাহমুদের লিখা দুইশ পঞ্চাশ, মুহম্মদ জাফর ইকবালের লিখা ফেরা ও তাশফিকাল সামির রোমান্টিক উপন্যাস নব্বই দশকের ভালোবাসা।

মাওলা ব্রাদার্সের শীর্ষে রয়েছে আহমদ ছফার যদ্যপি আমার গুরু, শাহাদুজ্জামানের ক্রাচের কর্ণেল। হুমায়ূন প্রেমীরা খুঁজতে খুঁজতে চলে আসেন অন্যপ্রকাশে। এই প্রকাশনীতে বেস্ট সেলারে রয়েছে কিংবদন্তি এই কথাসাহিত্যিকের লিখা উপন্যাস দেয়াল, মাতাল হাওয়া, নন্দিত নরকে, শঙ্খনীল, মধ্যাহ্ন অখ-।

অনন্যাতেও রয়েছে কিংবদন্তি এই কথাসাহিত্যিকের সারি সারি বই। বিক্রয়কর্মীরা জানান, এখানেও পাঠক চাহিদার শীর্ষে রয়েছে হুমায়ূন আহমেদ। হুমায়ূন আহমেদের বাইরে এখানে বিক্রির শীর্ষে রয়েছে হানিফ সংকেতের লিখা আবেগ যখন বিবেকহীন, নিশাত ইসলামের তবুও জীবনে প্রেম আসে, মোহাম্মদ এজাজ হোসেনের একাত্তর ও আমার শৈশব।

অনিন্দ্য প্রকাশনীতে বেস্ট সেলারের মধ্যে রয়েছে মোশতাক আহমেদের প্যারাসাইকোলজি থ্রিলার স্বপ্নখুনি, ভৌতিক থ্রিলার ছায়াআত্মা ও সায়েন্স ফিকশন নিতিনা। আরকান ফয়সালের ক্রাইম থ্রিলার ডার্ক কিলার ও ডার্ক মাইন্ড গ্রুপ বইটিও রয়েছে বিক্রির শীর্ষে। রোমান্টিক উপন্যাসের মধ্যে বেশি বিক্রি হচ্ছে রেদোয়ান মাসুদের ভালোবাসি, জুলফিকার শাহিনের যে সুতোয় তুমি স্বপ্ন বোনো। বিপণনকর্মী মো. আবু ফাহিম বলেন, বিক্রির শীর্ষে রয়েছে থ্রিলার বই। মোশতাক আহমেদের বইগুলো সবথেকে বেশি বিক্রি হচ্ছে।

অন্যধারায় বিক্রির শীর্ষে রয়েছে জনপ্রিয় তরুণ লেখক সাদাত হোসাইনের লিখা স্মৃতিগন্ধা, শেষ অধ্যায় নেই, ছদ্মবেশ, সত্যটা মিথ্যা ও নির্বাসন। থ্রিলার বইয়ের মধ্যে রয়েছে রবিন জামান খানের সপ্তরিপু, রাজদ্রোহী ও রুদ্ধরাত। পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্সে রোমান্টিক ধারার উপন্যাস হাসানাত লোকমানের লিখা অপ্রেম, জাহিদুন্নবীর কৃষ্ণপক্ষের ধ্রুব ও মারুফ রসূলের মুহূর্ত থামো, তুমি সুন্দর বইটির কাটতি বেশি বলে জানান বিক্রয়কর্মী জাহিদ। এছাড়া থ্রিলারের মধ্যে রয়েছে অরুণ কুমার বিশ্বাসের চিলিংহ্যাম দুর্গে আতঙ্ক ও সাইকোপ্যাথ। জাহিদ বলেন, কবিতার বই বেশি প্রকাশ হলেও মূলত বিক্রি বেশি গল্প, উপন্যাস। অন্যদিকে থ্রিলার বইয়ের জনপ্রিয়তা ছাড়িয়ে যাচ্ছে সবকিছুকে। মেয়েরা বেশিরভাগ প্রেমের উপন্যাসই বেশি কিনছে।

বৃহস্পতিরের অনুষ্ঠান

বিকেল ৪টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকেন্দ্রীকরণ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ফরিদ আহমদ দুলাল। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মাহমুদ কামাল, নজিবুল ইসলাম এবং সাজ্জাদ আহসান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অনীক মাহমুদ।

প্রাবন্ধিক বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নকে টেকসই করতে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নকে অর্থবহ করে তোলা যেমন জরুরি, তেমনি অর্থনৈতিক উন্নয়নের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদের জীবনে সাংস্কৃতিক মুক্তি নিশ্চিত করাটাও অপরিহার্য। সাংস্কৃতিক মুক্তির জন্য আমাদের সমাজ-রাষ্ট্রের সব স্তরে সাংস্কৃতিক অগ্রযাত্রাকে সমন্বয় করতে হবে। দেশের মাঠপর্যায় থেকে রাষ্ট্রীয় পর্যায়, কখনো কখনো রাষ্ট্রীয় পর্যায় থেকে মাঠ পর্যায়ে নিয়ে যেতে হবে চিন্তা ও আকাক্সক্ষার স্বপ্নটি এবং সেখানেই বাংলা, ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকেন্দ্রীকরণের সৌন্দর্য লুক্কায়িত। ভাষা-সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকেন্দ্রীকরণ তখনই অর্থবহ হবে, যখন লোকবাংলার শুভ প্রবণতার চেতনা বিকেন্দ্রীকরণ করা হবে লোকমানস থেকে নীতিনির্ধারকদের কাছে।

সভাপতির বক্তব্যে অনীক মাহমুদ বলেন, জ্ঞানভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে হলে জাতির মূল শক্তিকে জাগ্রত করতে হবে। ভাষা-সাহিত্য ও সংস্কৃতিই একটি জাতির মূল শক্তি। সাংস্কৃতিক চর্চাকে বিকেন্দ্রীকরণের মাধ্যমে কেন্দ্রের সঙ্গে প্রান্তের মানুষদের সম্পৃক্ত করা সম্ভব।

শুক্রবারের অনুষ্ঠানমালা

আজ ১৭তম দিনে মেলা শুরু হবে বেলা ১১টায়, চলবে রাত ৯টা পর্যন্ত। শিশুপ্রহর : সকাল ১১টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত মেলায় শিশুপ্রহর চলবে। শিশু-কিশোর আবৃত্তি প্রতিযোগিতা ঃ সকাল ১০টায় বইমেলার মূলমঞ্চে শিশু-কিশোর আবৃত্তি প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্ব অনুষ্ঠিত হবে।

আলোচনা অনুষ্ঠান

বিকেল ৪টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে জন্মশতবার্ষিক শ্রদ্ধাঞ্জলি : সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন মহীবুল আজিজ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন অনিরুদ্ধ কাহালি ও মোহাম্মদ জয়নুদ্দীন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন সৈয়দ আকরম হোসেন।

back to top