alt

খেলা

তামিমের সেঞ্চুরিতে জিম্বাবুয়ে হোয়াইটওয়াশ

বিশেষ প্রতিনিধি : মঙ্গলবার, ২০ জুলাই ২০২১
image

জিম্বাবুয়ে সফরে ওডিআই সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি দেশসেরা ওপেনার তথা অধিনায়ক তামিম ইকবাল। সময়মত ঠিকই দে;খালেন নিজের কারিশমা। হাঁটুর ইনজুরি নিয়ে হাঁকালেন ইনজুরি । ৯৭ বলে আট বাউন্ডারি ও তিন ছক্কায় খেললেন ১১২ রানের ইনিংস। তার এমন বীরত্বে আগে ব্যাট করে জিম্বাবুয়ের তোলা ২৯৮ রান টাইগাররা টপকে যায় উইকেট হাতে রেখে। এর মধ্য দিয়ে জিম্বাবুয়েকে তাদের মাটিতেই হোয়াইিটওয়াশ করল বাংলাদেশ দল। সেই সঙ্গে আইসিসি ওডিআই সুপার লীগে টাইগারদের ঝুলিতে যোগ হলো আরো দশ পয়েন্ট। শুধু কি তাই এটা যে ২০০৯ সালের পর বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের দ্বিতীয়বারের মত প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশের কৃতিত্ব। ২০০৯ সালের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে টাইগাররা প্রথমবারের মত প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশে সক্ষম হয়েছিলো।

মঙ্গলবারের ম্যাচে টস জিতে আগে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ব্যাটিংয়ে নেমে রীতিমত ঝড় তোলেন স্বাগতিকদের তিন ব্যাটার রেজিস চাকাভা (৯১ বলে সাত বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৮৪ রান), সিকান্দার রাজা (৫৪ বলে সাত বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৫৭ রান) ও রায়ান বার্ল ( ৪৩ বলে চারটি করে বাউন্ডারি ও ছক্কার মারে ৫৯ রান) । জিম্বাবুয়ের ইনিংস নির্ধারিত ৫০ ওভারের তিন বল বাকী থাকতেই থেমে গেলেও এদের তান্ডবে রান ওঠে ২৯৮। মোস্তাফিজুর রহমান ও মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন তিনটি করে, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ দুটো এবং সাকিব আল হাসান ও তাসকিন আহমেদ একটি করে উইকেটের পতন ঘটান।

জয়ের জন্য ২৯৯ রানের বিশাল লক্ষ্যে ছোটার পথে দলীয় ৮৮ রানে প্রথম ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান লিটন কুমার দাস (৩২), ১৪৭ রানে সাকিব আল হাসান (৩০) বিদায় নিলেও তামিম আগলে রাখেন একটা প্রান্ত। প্রথম ম্যাচে যেমন লিটন টেনে নিয়েছিলেন বাংলাদেশের ইনিংস, দ্বিতীয় ম্যাচে যেমন দায়িত্ব নিজের ঘাড়ে তুলে নিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান, ঠিক তেমনটাই তৃতীয় ম্যাচে করে দেখিয়েছেন তামিম ইকবাল। তিনি কজ্যারিয়ারের চতুর্দশ সেঞ্চুরি পূর্ন করেন ৮৭ বলে, ১১২ রানে আউট হওয়ার সময়ে দলের স্কোরবোর্ডে ২০৪ রান। ব্যাটিং অর্ডারে প্রমোশন পাওয়া মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এই ম্যাচে রানের খাতা না খুলেই ফিরলেও দুই তরুণ মোহাম্মদ মিথুন ও নুরুল হাসান গড়েন ৬৪ রানের পার্টনারশিপ। পঞ্চম উইকেট হিসাবে মিথুন (৩০) সাজঘরের পথ ধরেন। বাকী কাজটা আফিফ হোসেনকে নিয়ে সারেন নুরুল হাসান। আফিফ ১৭ বলে তিন বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ২৬ রানে এবং নুরুল হাসান ৩৯ বলে ছয় বাউন্ডারীতে ৪৫ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়ার সময়ে বাংলাদেশের স্কোর পাঁচ উইকেটে ৩০২, তখনো বাকী ১২টি বল।

ছবি

মেসির জন্য লা লিগার সহানুভূতি চাইলেন লাপোর্তা

ছবি

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টাইগারদের সম্ভাব্য একাদশ

ছবি

আমেরিকাকে হারিয়ে কানাডা মহিলা ফুটবলের ফাইনালে

ছবি

বাংলাদেশ সফরে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক ওয়েড

ছবি

সিরিজ শুরুর আগে ইনজুরিতে আরো এক অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার

ছবি

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মধ্যরাতে বাংলাদেশের দল ঘোষণা

ছবি

পিএসজিকে হারিয়ে লিলি জিতলো চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি

ছবি

ইটালির জ্যাকবস হলেন অলিম্পিকের দ্রুততম মানব

ছবি

সাঁতারে আবার দাপট ফিরছে অস্ট্রেলিয়ার

ছবি

হাফিজের রেকর্ড বোলিংয়ে পাকিস্তানের জয়

ছবি

১০০ মিটারে রেকর্ড গড়ে স্বর্ণ জিতলেন থমসন হেরাহ

ছবি

সেমিফাইনালে ব্রাজিলের মুখোমুখি মেক্সিকো

ছবি

ফুটবলের সেমিফাইনালে স্পেন ও জাপান মুখোমুখি

ছবি

নাইজেরিয়ান স্প্রিন্টার সাসপেন্ড

ছবি

ব্রোঞ্জ জিততেও ব্যর্থ হলেন জকোভিচ

ছবি

টেনিসের একক স্বর্ণ জেতা হলো না জকোভিচের

ছবি

ব্রাজিলের বিদায় : অস্ট্রেলিয়া কানাডা ও সুইডেন সেমিফাইনালে

ছবি

১০০ মিটার ফ্রি স্টাইলে এমার স্বর্ণ জয়

ছবি

ব্যাডমিন্টনে চীনকে হারিয়ে স্বর্ণ জিতল চীন

ছবি

অলিম্পিকে অদ্ভুত বুদ্ধিমত্তায় পদক জিতলেন অস্ট্রেলিয়ান এই তরুণী!

ছবি

৮০০ মিটার ফ্রি স্টাইলের প্রথম স্বর্ণ রবার্ট ফিনকের

ছবি

পিএসজির হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতা এমবাপ্পের স্বপ্ন

ছবি

৩ ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরেই সোজা হোটেলে টাইগাররা

ছবি

অলিম্পিক থেকে আর্জেন্টিনা ফুটবল দলের বিদায়

ছবি

কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিল ফুটবল দল

ছবি

মহিলাদের ১৫০০ মিটার ফ্রি স্টাইলের প্রথম স্বর্ন লেডেক্কির

ছবি

ওহাশির দ্বিতীয় স্বর্ণ জয়

ছবি

দারুণ শুরুর স্বপ্নভঙ্গ রোমান সানার

ছবি

ভারানেকে বিক্রি করে এমবাপ্পেকে কিনতে চায় রিয়াল

ছবি

অলিম্পিক ভলিবলে চির প্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনাকে হারাল ব্রাজিল

ছবি

দ্বিতীয় অলিম্পিক স্বর্ণপদক জিতে যা বললেন অ্যাডাম পিটি

ছবি

গ্রিজম্যান ও কুটিনহো এখন বার্সেলোনার গলার কাঁটা

ছবি

মাত্র ১৩ বছর বয়সে সোনা জিতলেন নিশিয়া

সৌম্যর অল রাউন্ড নৈপুন্যে টি২০ সিরিজ জিতল টাইগাররা

ছবি

ব্রাজিলকে রুখে দিয়েছে আইভরি কোস্ট

ছবি

মিশরকে হারিয়ে আশা বাচিয়ে রাখলো আর্জেন্টিনা

tab

খেলা

তামিমের সেঞ্চুরিতে জিম্বাবুয়ে হোয়াইটওয়াশ

বিশেষ প্রতিনিধি
image

মঙ্গলবার, ২০ জুলাই ২০২১

জিম্বাবুয়ে সফরে ওডিআই সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি দেশসেরা ওপেনার তথা অধিনায়ক তামিম ইকবাল। সময়মত ঠিকই দে;খালেন নিজের কারিশমা। হাঁটুর ইনজুরি নিয়ে হাঁকালেন ইনজুরি । ৯৭ বলে আট বাউন্ডারি ও তিন ছক্কায় খেললেন ১১২ রানের ইনিংস। তার এমন বীরত্বে আগে ব্যাট করে জিম্বাবুয়ের তোলা ২৯৮ রান টাইগাররা টপকে যায় উইকেট হাতে রেখে। এর মধ্য দিয়ে জিম্বাবুয়েকে তাদের মাটিতেই হোয়াইিটওয়াশ করল বাংলাদেশ দল। সেই সঙ্গে আইসিসি ওডিআই সুপার লীগে টাইগারদের ঝুলিতে যোগ হলো আরো দশ পয়েন্ট। শুধু কি তাই এটা যে ২০০৯ সালের পর বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের দ্বিতীয়বারের মত প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশের কৃতিত্ব। ২০০৯ সালের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে টাইগাররা প্রথমবারের মত প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশে সক্ষম হয়েছিলো।

মঙ্গলবারের ম্যাচে টস জিতে আগে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ব্যাটিংয়ে নেমে রীতিমত ঝড় তোলেন স্বাগতিকদের তিন ব্যাটার রেজিস চাকাভা (৯১ বলে সাত বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৮৪ রান), সিকান্দার রাজা (৫৪ বলে সাত বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৫৭ রান) ও রায়ান বার্ল ( ৪৩ বলে চারটি করে বাউন্ডারি ও ছক্কার মারে ৫৯ রান) । জিম্বাবুয়ের ইনিংস নির্ধারিত ৫০ ওভারের তিন বল বাকী থাকতেই থেমে গেলেও এদের তান্ডবে রান ওঠে ২৯৮। মোস্তাফিজুর রহমান ও মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন তিনটি করে, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ দুটো এবং সাকিব আল হাসান ও তাসকিন আহমেদ একটি করে উইকেটের পতন ঘটান।

জয়ের জন্য ২৯৯ রানের বিশাল লক্ষ্যে ছোটার পথে দলীয় ৮৮ রানে প্রথম ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান লিটন কুমার দাস (৩২), ১৪৭ রানে সাকিব আল হাসান (৩০) বিদায় নিলেও তামিম আগলে রাখেন একটা প্রান্ত। প্রথম ম্যাচে যেমন লিটন টেনে নিয়েছিলেন বাংলাদেশের ইনিংস, দ্বিতীয় ম্যাচে যেমন দায়িত্ব নিজের ঘাড়ে তুলে নিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান, ঠিক তেমনটাই তৃতীয় ম্যাচে করে দেখিয়েছেন তামিম ইকবাল। তিনি কজ্যারিয়ারের চতুর্দশ সেঞ্চুরি পূর্ন করেন ৮৭ বলে, ১১২ রানে আউট হওয়ার সময়ে দলের স্কোরবোর্ডে ২০৪ রান। ব্যাটিং অর্ডারে প্রমোশন পাওয়া মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এই ম্যাচে রানের খাতা না খুলেই ফিরলেও দুই তরুণ মোহাম্মদ মিথুন ও নুরুল হাসান গড়েন ৬৪ রানের পার্টনারশিপ। পঞ্চম উইকেট হিসাবে মিথুন (৩০) সাজঘরের পথ ধরেন। বাকী কাজটা আফিফ হোসেনকে নিয়ে সারেন নুরুল হাসান। আফিফ ১৭ বলে তিন বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ২৬ রানে এবং নুরুল হাসান ৩৯ বলে ছয় বাউন্ডারীতে ৪৫ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়ার সময়ে বাংলাদেশের স্কোর পাঁচ উইকেটে ৩০২, তখনো বাকী ১২টি বল।

back to top