alt

উপ-সম্পাদকীয়

যে বিষয়গুলো আড়ালেই থেকে যায়

সাঈদ চৌধুরী

: মঙ্গলবার, ১৬ নভেম্বর ২০২১

গাজীপুরের শ্রীপুরে এএসএম কেমিক্যালের আগুনে দুদিন আগে যে ফুলকি আর ধোঁয়ার দাপট ছিল তাতে বাস্তবিক ভয়াবহতার আড়ালে যা ঘটেছে- তা নিয়ে আমরা আমাদের তেমন উদ্বিগ্ন করিনি। আমরা এখনও কেউ আধুনিকভাবে বিজ্ঞানকে চিন্তা করতে পারিনি সে বিষয়টি এরকম অগ্নিকান্ড, দুর্যোগ বা যে কোন ধরনের বিপর্যয় দেখার পর আরও স্পষ্ট হয়ে ওঠে!

কেউ কেউ পত্রিকায় তুলে এনেছেন এই কোম্পানির ক্ষতি কত হয়েছে সে বিষয়টি। এএসএম কেমিক্যালের মানব সম্পদ বিভাগ থেকে জানানো হয়েছে প্রায় ৫০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে তাদের!

কিন্তু পরিবেশের কি ক্ষতি হল, আশপাশে যারা আছে বা ছিল তাদের কি ক্ষতি হলো এবং যারা সংস্পর্শে থেকে কাজ করে যাচ্ছে তাদের কি ক্ষতি হলো?

সাধারণ কাঠের মধ্যে আগুন জ্বললেও সেখান থেকে কার্বন ও অন্যান্য যত উপাদান মিশ্রিত হয় তাতে একজন মানুষের শ্বাসতন্ত্র প্রবলভাবে ক্ষতি হয়। এ নিয়ে গবেষণাও আছে। ইইউ রিসার্চ অ্যান্ড ইনোভেশন ম্যাগাজিন একটি রিসার্চ তথ্য প্রকাশ করেছিল এ বিষয়ে। সাধারণত বিশ্বে বনে আগুনের ফলে বাতাসে যে পরিবর্তনগুলো হয় তা তারা দেখাতে চেয়েছেন।

সেখানে বলা হয়েছে যেখানে আগুন লাগে তার থেকে দূরবর্তী অঞ্চলে সে আগুনের প্রভাব বিদ্যমান হয় এবং যত সময় বেশি ক্ষেপণ হয় তত বেশি দূষণের মাত্রা ও ভিন্নতা বাড়তে থাকে। গ্রিসের পাত্রাসের ইনস্টিটিউট অফ কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং সায়েন্সের বায়ুমন্ডলীয় রসায়নবিদ এথানাসিওস নেনেস বলেন, ‘পূর্ব ভূমধ্যসাগরে আমরা রাশিয়ার বনের আগুন থেকে ধোঁয়া পাই এবং যখন এটি ঘটে তখন সর্বত্র শুধু কুয়াশাযুক্ত ধোঁয়া থাকে।’ এটা বেশ নাটকীয় হতে পারে। তারা পুরো অঞ্চল বা মহাদেশের কিছু অংশে বায়ুর গুণমানকে প্রভাবিত করছে।

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে নেনেস এবং তার দল বায়ুমন্ডল, সূর্যালোক এবং অন্ধকারের সংস্পর্শে এলে ধোঁয়ায় কণার রসায়ন কিভাবে পরিবর্তিত হয় তা দেখতে সক্ষম হয়েছে। ২০১৭ সালে পাঁচ বছরের প্রকল্প শুরু হওয়ার পর থেকে দলটি যে মূল অনুসন্ধান করেছে, তার মধ্যে একটি হলো, বনভূমিতে আগুনে পুড়ে যাওয়া গাছ থেকে নির্গত কণাগুলো আরও বিষাক্ত হয়ে ওঠে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে।

বাতাসে থাকাকালীন ধোঁয়ার কণাগুলো রাসায়নিকভাবে ট্রেস বা র‌্যাডিকেলের সঙ্গে বিক্রিয়া করে- অযৌক্তিক বা অজানা ইলেকট্রনসহ অণু- একটি প্রক্রিয়া উৎপন্ন করে, যা অক্সিডেশন নামে পরিচিত। এটি ধোঁয়া কণার যৌগগুলোকে অত্যন্ত প্রতিক্রিয়াশীল যৌগগুলোতে রূপান্তরিত করে। যখন তারা শ্বাস নেয়, তখন এই প্রতিক্রিয়াশীল যৌগগুলো- ফ্রি রেডিক্যাল নামে পরিচিত এবং এই ফ্রি রেডিক্যাল শরীরের কোষ এবং টিস্যুকে ক্ষতি করতে পারে।

এখন আসি কেমিক্যাল মিশ্রিত কোন দ্রব্যে আগুন লাগলে কি ধরনের বিপর্যয় বা ক্ষতি হতে পারে। গত দুদিন আগে ব্লিচিং পাউডার প্লান্টে আগুন লাগে গাজীপুরের শ্রীপুরে। ব্লিচিং পাউডারে থাকে এভেইলবেল ক্লোরিন যা মানব স্বাস্থ্যের জন্য খুব ক্ষতিকর দ্রব্য । এখন ব্লিচিং পাউডারে যখন আগুন ধরে তখন ক্লোরিন বেইজড হওয়ায় সে আগুন আরও বেশি পরিমাণে দাহ্য বৈশিষ্ট্য প্রদর্শণ করে। যার ফলে প্রচুর ধোঁয়া এবং বিস্ফোরণ হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেয় ।

বাতাসে হাইপো ক্লোরাইড বেইজড ধোঁয়া মানুষের ইনহলেশনের জন্য খুব বেশি ক্ষতিকর। আগুন লাগার দূরবর্তী স্থানে এই পার্টিকেলগুলো যেতে শিশির ও রোদের কণার সঙ্গে বিক্রিয়ায় আরও ভয়ানক রিএকশনেবল প্রতিলিপি তৈরি করতে পারে।

এই অঞ্চলে বাতাস পরীক্ষার দাবি অনেক দিনের। প্রচুর গজাড়ি বন আর বৃক্ষ শোভিত হওয়ার কারণে তাৎক্ষণিক ক্ষতি বোঝা না গেলেও এই কেমিক্যাল ফ্যাক্টরির কারণে মানব স্বাস্থ্যের প্রভাব যে খুব বিরূপ তা স্পষ্ট হলেও কোন গবেষণা এখন পর্যন্ত হলো না। এখানকার বাতাস যেমনি পরীক্ষা করা প্রয়োজন তেমনি ব্লিচিং পুড়ে যাবার পর এগুলো মাটির সঙ্গে কন্টামিনেশন করে যে ধরনের যৌগ উৎপন্ন করছে তা দেখাও প্রয়োজন।

[লেখক : রসায়নবিদ]

ছবি

নারী জাগরণের পথিকৃৎ

পাহাড় কি শান্তিতে আছে?

আসামের ডিটেনশন সেন্টারের নাম কেন বদলাচ্ছে

বাঙালির অদম্য দেশপ্রেম

বিলুপ্তির পথে বিরল প্রজাতির হনুমান

বনগুলো কি হারিয়ে যাবে

ডিজিটাল সাম্য সমাজের বীজ বঙ্গবন্ধু বপন করেছেন

ছবি

বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের সংস্কৃতি

চাকরি পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁস, বিড়ম্বনা এবং অচলায়তন

বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে সাফল্য কি মিলল

ভয়কে জয় করা পরীক্ষা

শিক্ষা ও ভবিষ্যৎ প্রজন্ম

ভালোমন্দ বোধ বিভ্রান্ত হয়

খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা

কলকাতার পুরভোট ও সমকালীন রাজনীতি

ছবি

জেলখানার চিঠি - পিতা-পুত্রের কথোপকথন

ছবি

আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস

ছবি

নদী রক্ষার আন্দোলন

ছবি

রাজধানীর বাইরের শিক্ষার্থীরা কেন ‘হাফ পাস’ পাবে না

ছবি

রাজস্ব ও দেশের উন্নয়ন

অনলাইন জন্মনিবন্ধনে সমস্যা

ছবি

করোনার আরেক আতঙ্ক ওমিক্রন

শান্তিচুক্তি ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর অধিকার

পাঠ্যপুস্তক এবং আমাদের গোঁড়ামি

জগৎজ্যোতি দাস : ইতিহাসের বীরশ্রেষ্ঠ

শিক্ষা বিস্তারে সরকারিকরণ

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি

ছবি

বারবার কেন শিক্ষার্থীদের আন্দোলন করতে হচ্ছে

ছবি

প্রাথমিক শিক্ষা বোর্ড আইন বিতর্ক

সহনশীলতা : সৃষ্টির শক্তি

ছবি

ভোগ্যপণ্যের ওপর ডলারের দামের প্রভাব

ছবি

খেলা বনাম রাজনীতি

সুবর্ণ দিনের প্রত্যাশায়

ছবি

শহীদ ডা. মিলন ও স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন

ভারতের কৃষি আইন, মোদির ঘোষণা এবং রাজনীতি

তামাক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম বাস্তবায়ন নির্দেশিকা কেন দরকার?

tab

উপ-সম্পাদকীয়

যে বিষয়গুলো আড়ালেই থেকে যায়

সাঈদ চৌধুরী

মঙ্গলবার, ১৬ নভেম্বর ২০২১

গাজীপুরের শ্রীপুরে এএসএম কেমিক্যালের আগুনে দুদিন আগে যে ফুলকি আর ধোঁয়ার দাপট ছিল তাতে বাস্তবিক ভয়াবহতার আড়ালে যা ঘটেছে- তা নিয়ে আমরা আমাদের তেমন উদ্বিগ্ন করিনি। আমরা এখনও কেউ আধুনিকভাবে বিজ্ঞানকে চিন্তা করতে পারিনি সে বিষয়টি এরকম অগ্নিকান্ড, দুর্যোগ বা যে কোন ধরনের বিপর্যয় দেখার পর আরও স্পষ্ট হয়ে ওঠে!

কেউ কেউ পত্রিকায় তুলে এনেছেন এই কোম্পানির ক্ষতি কত হয়েছে সে বিষয়টি। এএসএম কেমিক্যালের মানব সম্পদ বিভাগ থেকে জানানো হয়েছে প্রায় ৫০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে তাদের!

কিন্তু পরিবেশের কি ক্ষতি হল, আশপাশে যারা আছে বা ছিল তাদের কি ক্ষতি হলো এবং যারা সংস্পর্শে থেকে কাজ করে যাচ্ছে তাদের কি ক্ষতি হলো?

সাধারণ কাঠের মধ্যে আগুন জ্বললেও সেখান থেকে কার্বন ও অন্যান্য যত উপাদান মিশ্রিত হয় তাতে একজন মানুষের শ্বাসতন্ত্র প্রবলভাবে ক্ষতি হয়। এ নিয়ে গবেষণাও আছে। ইইউ রিসার্চ অ্যান্ড ইনোভেশন ম্যাগাজিন একটি রিসার্চ তথ্য প্রকাশ করেছিল এ বিষয়ে। সাধারণত বিশ্বে বনে আগুনের ফলে বাতাসে যে পরিবর্তনগুলো হয় তা তারা দেখাতে চেয়েছেন।

সেখানে বলা হয়েছে যেখানে আগুন লাগে তার থেকে দূরবর্তী অঞ্চলে সে আগুনের প্রভাব বিদ্যমান হয় এবং যত সময় বেশি ক্ষেপণ হয় তত বেশি দূষণের মাত্রা ও ভিন্নতা বাড়তে থাকে। গ্রিসের পাত্রাসের ইনস্টিটিউট অফ কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং সায়েন্সের বায়ুমন্ডলীয় রসায়নবিদ এথানাসিওস নেনেস বলেন, ‘পূর্ব ভূমধ্যসাগরে আমরা রাশিয়ার বনের আগুন থেকে ধোঁয়া পাই এবং যখন এটি ঘটে তখন সর্বত্র শুধু কুয়াশাযুক্ত ধোঁয়া থাকে।’ এটা বেশ নাটকীয় হতে পারে। তারা পুরো অঞ্চল বা মহাদেশের কিছু অংশে বায়ুর গুণমানকে প্রভাবিত করছে।

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে নেনেস এবং তার দল বায়ুমন্ডল, সূর্যালোক এবং অন্ধকারের সংস্পর্শে এলে ধোঁয়ায় কণার রসায়ন কিভাবে পরিবর্তিত হয় তা দেখতে সক্ষম হয়েছে। ২০১৭ সালে পাঁচ বছরের প্রকল্প শুরু হওয়ার পর থেকে দলটি যে মূল অনুসন্ধান করেছে, তার মধ্যে একটি হলো, বনভূমিতে আগুনে পুড়ে যাওয়া গাছ থেকে নির্গত কণাগুলো আরও বিষাক্ত হয়ে ওঠে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে।

বাতাসে থাকাকালীন ধোঁয়ার কণাগুলো রাসায়নিকভাবে ট্রেস বা র‌্যাডিকেলের সঙ্গে বিক্রিয়া করে- অযৌক্তিক বা অজানা ইলেকট্রনসহ অণু- একটি প্রক্রিয়া উৎপন্ন করে, যা অক্সিডেশন নামে পরিচিত। এটি ধোঁয়া কণার যৌগগুলোকে অত্যন্ত প্রতিক্রিয়াশীল যৌগগুলোতে রূপান্তরিত করে। যখন তারা শ্বাস নেয়, তখন এই প্রতিক্রিয়াশীল যৌগগুলো- ফ্রি রেডিক্যাল নামে পরিচিত এবং এই ফ্রি রেডিক্যাল শরীরের কোষ এবং টিস্যুকে ক্ষতি করতে পারে।

এখন আসি কেমিক্যাল মিশ্রিত কোন দ্রব্যে আগুন লাগলে কি ধরনের বিপর্যয় বা ক্ষতি হতে পারে। গত দুদিন আগে ব্লিচিং পাউডার প্লান্টে আগুন লাগে গাজীপুরের শ্রীপুরে। ব্লিচিং পাউডারে থাকে এভেইলবেল ক্লোরিন যা মানব স্বাস্থ্যের জন্য খুব ক্ষতিকর দ্রব্য । এখন ব্লিচিং পাউডারে যখন আগুন ধরে তখন ক্লোরিন বেইজড হওয়ায় সে আগুন আরও বেশি পরিমাণে দাহ্য বৈশিষ্ট্য প্রদর্শণ করে। যার ফলে প্রচুর ধোঁয়া এবং বিস্ফোরণ হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেয় ।

বাতাসে হাইপো ক্লোরাইড বেইজড ধোঁয়া মানুষের ইনহলেশনের জন্য খুব বেশি ক্ষতিকর। আগুন লাগার দূরবর্তী স্থানে এই পার্টিকেলগুলো যেতে শিশির ও রোদের কণার সঙ্গে বিক্রিয়ায় আরও ভয়ানক রিএকশনেবল প্রতিলিপি তৈরি করতে পারে।

এই অঞ্চলে বাতাস পরীক্ষার দাবি অনেক দিনের। প্রচুর গজাড়ি বন আর বৃক্ষ শোভিত হওয়ার কারণে তাৎক্ষণিক ক্ষতি বোঝা না গেলেও এই কেমিক্যাল ফ্যাক্টরির কারণে মানব স্বাস্থ্যের প্রভাব যে খুব বিরূপ তা স্পষ্ট হলেও কোন গবেষণা এখন পর্যন্ত হলো না। এখানকার বাতাস যেমনি পরীক্ষা করা প্রয়োজন তেমনি ব্লিচিং পুড়ে যাবার পর এগুলো মাটির সঙ্গে কন্টামিনেশন করে যে ধরনের যৌগ উৎপন্ন করছে তা দেখাও প্রয়োজন।

[লেখক : রসায়নবিদ]

back to top