alt

ক্যাম্পাস

সীমান্তে হত্যার প্রতিবাদে ঢাবিতে বিক্ষোভ ও মশাল মিছিল

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি : সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২২

ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিএসএফের হাতে স্কুল ছাত্র মিনারুল ইসলাম হত্যার প্রতিবাদে এবং রবিবার পাবনার বেড়া উপজেলায় ছাত্র ফেডারেশনের মানববন্ধনে হামলাকারীদের চিহ্নিত ও বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মশাল মিছিল করেছে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।

সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতিকে নতজানু আখ্যা দিয়ে এর কঠোর সমালোচনা করেন। এসময় সীমান্তে হত্যাকান্ডের জন্য দুদেশের সরকারকেই দায়ী করা হয়৷

বক্তারা বলেন, শত শত সীমান্ত হত্যার উদাহরণ আছে। কোনো হত্যার বিচার করা হয়নি। গত ৭ সেপ্টেম্বর মিনারুলকে হত্যা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত তার মরদেহ আনা সম্ভব হয়নি। ফেলানীর বিচার আমরা আজ পর্যন্ত পাইনি। যারা হত্যার শিকার হয়েছে তাদের চোরাকারবারির ট্যাগ দেওয়া হয়েছে। এর দায় দুই দেশের সরকারের। আমরা আবারও হুঁশিয়ারি দিয়ে বলতে চাই, সীমান্ত হত্যা বন্ধ করুন, চোরাচালান বন্ধ করুন।

বক্তারা আরও বলেন, গতকাল পাবনার বেড়ায় ছাত্র ফেডারেশনের উপর যে হামলা হয়। তার বিচার করতে হবে। তারা মূলত ভারতকে খুশি রাখতে এ হামলা করছে। বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আবারও বলছি এ নতজানু পররাষ্ট্রনীতি থেকে সরে আসতে হবে।

মানববন্ধনে কেন্দ্রীয় ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি মশিউর রহমান রিচার্ড বলেন, সীমান্ত হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন করায় পুলিশের উপস্থিতিতে ছাত্রলীগ আমাদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় ছাত্র ফেডারেশনের লিমন সরকারসহ ১০ জন ছাত্রনেতা আহত হয়। ছাত্রলীগের গুণ্ডারা যখন হামলা করছে পুলিশ সেখানে নির্বিকার ভূমিকা পালন করছে। হামলাকারীদের চিহ্নিত করে অবিলম্বে শাস্তি দিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, এখন পর্যন্ত মিনারের পরিবার লাশ পায়নি। আমরা পত্রিকা মারফত জানতে পেরেছি একের পর এক পতাকা বৈঠক হচ্ছে। কিন্তু লাশ তারা হস্তান্তর করেনি। আমরা আশা করেছিলাম প্রধানমন্ত্রী এ খবর পেয়ে নিন্দা জানাবেন। আমরা দেখলাম সীমান্ত হত্যা নিয়ে একটি শব্দ হয়নি। সীমান্তে ভারী অস্ত্র ব্যবহার নিষিদ্ধের দাবি দীর্ঘদিন ধরে হচ্ছে। কিন্তু সরকারের উচ্চ মহল সে দাবি এখনও বাস্তবায়ন করতে পারছেন না। আজকে বাংলাদেশের লাশের উপর দাঁড়িয়ে তারা গদি রক্ষায় মগ্ন। গদির কাছে বাংলাদেশের জাতীয় স্বার্থ, মানুষের জীবন ও আমাদের সার্বভৌমত্ব সবকিছু ধুলোয় মিশে গেছে।

ছবি

ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত ৯ নেতার আগাম জামিন

ছবি

জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উপলক্ষে স্ক্রাচ প্রোগ্রামিং এবং রোবটিক্স কর্মশালা

ছবি

গ্রামীণফোনের স্কিটো হ্যাকাথনে বিজয়ী ‘সার্কিট ব্রোকার্স’

ছবি

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের গবেষণাভিত্তিক সংগঠন ‘ইআরডিএফবি’র আত্মপ্রকাশ

ছবি

ছাত্রলীগের দু-পক্ষের অস্ত্র মহড়া: কুবিতে হল বন্ধ, পরীক্ষা স্থগিত

ছবি

এসি-ফ্রিজ নিয়ে রাজার হালে ঢাবির হলে থাকছেন চাকরিজীবী ছাত্রলীগ নেতা

ছবি

৩ বছরেও অধিগ্রহণ সম্পন্ন হয়নি ভূমি জটিলতায় স্থবির নির্মাণকাজ

ছবি

ইডেন ছাত্রলীগের সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টা মামলা

শাবিপ্রবিতে পরীক্ষায় অনিয়মের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন

উপাচার্যকে ‘চাকরবাকর’ বলার প্রতিবাদ ঢাবি শিক্ষক সমিতির

ইডেনের ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা, তদন্তের নির্দেশ

ক্যাম্পাসে সহাবস্থান নিশ্চিতের দাবি ঢাবির বিএনপিপন্থী শিক্ষকদের

ঢাবিতে ছাত্রদলের উপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ১০

ঢাবি ভিসির সঙ্গে সাক্ষাৎ নিয়ে ছাত্রলীগ-ছাত্রদলের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি

ছবি

ভিসির সঙ্গে সাক্ষাৎ: ঢাবি ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ১০

ছবি

ইডেনের ঘটনা তদন্তে কলেজ প্রশাসনের ৪ সদস্যের কমিটি

ছবি

ছাত্রলীগ কর্মীর জন্মদিনের অনুষ্ঠানে না যাওয়ায় সাংবাদিককে মারধরের অভিযোগ

ছবি

আমরণ অনশনের ঘোষণা ইডেন ছাত্রলীগের বহিষ্কৃতদের

ছবি

সংবাদ সম্মেলনেই ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের দু’পক্ষে সংঘর্ষ

ছবি

ইডেন কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদককে ‘অবাঞ্ছিত’ ঘোষণা

ছবি

জনরোষে হল ছেড়ে পালাল ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি-সেক্রেটারি

ইডেনে মুখোমুখি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপ,রাতভর উত্তেজনা

ছবি

অনিয়মিত ইউরোপফেরতদের প্রতি অপবাদ ও বৈষম্য কমাতে সিফারের মাইগ্র্যান্ট প্রোজেক্ট

চবি ফটকে তালা দিলেই অ্যাকশনে যাবে প্রশাসন

ছবি

ঢাবিতে ২০ লাখ টাকা ছিনতাই, মূল হোতাসহ ৫ জন গ্রেপ্তার

ছবি

ওয়ার্ল্ড রোবট অলিম্পিয়াড-বাংলাদেশের জাতীয় পর্ব এবছর অফলাইনে

ঢাবির জগন্নাথ হলে ঘুমের মধ্যে শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ছবি

ঢাবি সাংবাদিক সমিতির ৩৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

ছবি

সীমান্তে মিয়ানমারের আগ্রাসনের প্রতিবাদে ঢাবিতে বিক্ষোভ

ছবি

ইবিতে যুক্ত হলো নতুন ৫ টি গাড়ি

ছবি

ইবিতে ফটোগ্রাফিক সোসাইটির কর্মশালা

ছবি

আগামীতে জনসংখ্যাকে জনশক্তিতে রুপান্তর করাই হবে বড় চ্যালেঞ্জঃ ড. ফরাসউদ্দিন

ঢাবির সিন্ডিকেট নির্বাচনে সব পদে আওয়ামীপন্থীদের নিরঙ্কুশ জয়

ছবি

ওয়ার্ল্ড রোবট অলিম্পিয়াডের নিবন্ধন চলছে

ইবি খালেদা জিয়া হল ডিবেটিং সোসাইটির নতুন কমিটি

ছবি

ঢাবির হলে পচা খাবার বিক্রি, দোকান বন্ধ করলেন শিক্ষার্থীরা

tab

ক্যাম্পাস

সীমান্তে হত্যার প্রতিবাদে ঢাবিতে বিক্ষোভ ও মশাল মিছিল

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২২

ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিএসএফের হাতে স্কুল ছাত্র মিনারুল ইসলাম হত্যার প্রতিবাদে এবং রবিবার পাবনার বেড়া উপজেলায় ছাত্র ফেডারেশনের মানববন্ধনে হামলাকারীদের চিহ্নিত ও বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মশাল মিছিল করেছে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।

সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতিকে নতজানু আখ্যা দিয়ে এর কঠোর সমালোচনা করেন। এসময় সীমান্তে হত্যাকান্ডের জন্য দুদেশের সরকারকেই দায়ী করা হয়৷

বক্তারা বলেন, শত শত সীমান্ত হত্যার উদাহরণ আছে। কোনো হত্যার বিচার করা হয়নি। গত ৭ সেপ্টেম্বর মিনারুলকে হত্যা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত তার মরদেহ আনা সম্ভব হয়নি। ফেলানীর বিচার আমরা আজ পর্যন্ত পাইনি। যারা হত্যার শিকার হয়েছে তাদের চোরাকারবারির ট্যাগ দেওয়া হয়েছে। এর দায় দুই দেশের সরকারের। আমরা আবারও হুঁশিয়ারি দিয়ে বলতে চাই, সীমান্ত হত্যা বন্ধ করুন, চোরাচালান বন্ধ করুন।

বক্তারা আরও বলেন, গতকাল পাবনার বেড়ায় ছাত্র ফেডারেশনের উপর যে হামলা হয়। তার বিচার করতে হবে। তারা মূলত ভারতকে খুশি রাখতে এ হামলা করছে। বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আবারও বলছি এ নতজানু পররাষ্ট্রনীতি থেকে সরে আসতে হবে।

মানববন্ধনে কেন্দ্রীয় ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি মশিউর রহমান রিচার্ড বলেন, সীমান্ত হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন করায় পুলিশের উপস্থিতিতে ছাত্রলীগ আমাদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় ছাত্র ফেডারেশনের লিমন সরকারসহ ১০ জন ছাত্রনেতা আহত হয়। ছাত্রলীগের গুণ্ডারা যখন হামলা করছে পুলিশ সেখানে নির্বিকার ভূমিকা পালন করছে। হামলাকারীদের চিহ্নিত করে অবিলম্বে শাস্তি দিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, এখন পর্যন্ত মিনারের পরিবার লাশ পায়নি। আমরা পত্রিকা মারফত জানতে পেরেছি একের পর এক পতাকা বৈঠক হচ্ছে। কিন্তু লাশ তারা হস্তান্তর করেনি। আমরা আশা করেছিলাম প্রধানমন্ত্রী এ খবর পেয়ে নিন্দা জানাবেন। আমরা দেখলাম সীমান্ত হত্যা নিয়ে একটি শব্দ হয়নি। সীমান্তে ভারী অস্ত্র ব্যবহার নিষিদ্ধের দাবি দীর্ঘদিন ধরে হচ্ছে। কিন্তু সরকারের উচ্চ মহল সে দাবি এখনও বাস্তবায়ন করতে পারছেন না। আজকে বাংলাদেশের লাশের উপর দাঁড়িয়ে তারা গদি রক্ষায় মগ্ন। গদির কাছে বাংলাদেশের জাতীয় স্বার্থ, মানুষের জীবন ও আমাদের সার্বভৌমত্ব সবকিছু ধুলোয় মিশে গেছে।

back to top