alt

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

ঘোড়াঘাটে বিকাশ কর্মকারের তৈরী বিদ্যুৎচালিত ‘হ্যামার’, কমেছে হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম

মাহতাব উদ্দিন আলমাহমুদ, ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) : রোববার, ০৯ জুলাই ২০২৩

গ্রামের কামারশালা মানেই কর্মকারের হাতে থাকা হাতুরি দিয়ে উত্তপ্ত আগুনে পোড়ানো লোহা পেটানোর কর্কশ শব্দ, পোড়া গন্ধ এবং পোড়া লোহা থেকে বিচ্ছুরিত আগুনের স্ফুলিঙ্গ। এমন চিত্র গ্রামগঞ্জের কামারশালার নিত্যদিনের দৃশ্য।

তবে সর্বত্রই যখন আধুনিকতার ছোঁয়া। তখন পিছিয়ে নেয় এই কামারশালাও। কামারশালায় সাধারণত লোহার কারিগর বাতাস প্রবাহিত করার বিশেষযন্ত্র ‘হাপর’ টেনে কয়লার আগুনকে উস্কে রাখে। কয়লার সেই আগুনে লোহাকে গরম করে পিটিয়ে বিভিন্ন জিনিস তৈরি করা হয়। সেসবের মধ্যে উল্লেখযোগ্য দা, বটি, চাকু, ছুরি, কোদাল, কাস্তে ও দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহারিত বিভিন্ন জিনিসপত্র।

তবে গ্রামীন জনপদের সেই কামারশালায় কয়লায় বাতাস প্রবাহে‘হাপর’টানার পরিবর্তে বিদ্যুতিক মোটরচালিত ফ্যানের সাহায্যে বাতাস প্রবাহ করা হচ্ছে। এছাড়াও আগুনে উত্তপ্ত করা লোহা দুজন কর্মকার মুখোমুখি বসে হাতুরি দিয়ে পিটিয়ে বিভিন্ন আকৃতির জিনিস তৈরি করলেও, বর্তমানে সেই একই কাজ করছে মোটরচালিত বিদ্যুতিক‘হ্যামার’।

এমনই এক আধুনিক কামারশালা নজর কাড়ছে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট পৌর এলাকায় আজাদ মোড়ে। দিনাজপুর-গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের ধারঘেঁষে গড়ে তোলা এই আধুনিক কামারশালার মালিকক চুকর্মকার ও তার ছেলে বিকাশ কর্মকার। সামাজিক যোগাযোগমা ধ্যম ফেসবুকে দেখে এই হ্যামার তৈরির উদ্যোগ নেন বিকাশকর্মকার।

এতে কামারশালায় কাজ করা লোহার জিনিসপত্র তৈরির কারিগরদের হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম যেমন কমেছে, তেমনি বেড়েছে কাজের গতি। সব মিলিয়ে স্বচ্ছলতা ফিরতে শুরু করেছে কর্মকারদের পরিবারে।

পুরোটি লোহাদ্ বারা তৈরি করা এই ‘হ্যামার’ তৈরি করতে তাদের খরচ হয়েছে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এখন থেকে বছর দু’য়েক আগে ফেসবুকের একটি ভিডিওতে আধুনিক এই হ্যামারের কিছু অংশ দেখেছিলেন বিকাশ কর্মকার। তবে সেই ভিডিওতে পুরো হ্যামারের ছবি দেখানো হয়নি। সেই ভিডিও দেখার পর নিজেও একটি ‘হ্যামার’ তৈরির সিদ্ধান্ত নেন তিনি। ধীরেধীরে তৈরি করায় এক বছর সময় লেগেছে এটি তৈরি করতে। এমনটাই দাবি বিকাশ কর্মকারের।

কামারশালায় একটি‘দা’ তৈরি করে নিতে এসেছিলেন রশিকনগর গ্রামের তারেকুজ্জামান। তিনি বলেন,‘বছরে দু’একবার কামারশালায় আসালাগে বিভিন্ন জিনিস তৈরি ও চাকু ধার দিতে।তবে আজ প্রথম দেখলাম মেশিন দিয়ে লোহা পিটিয়ে দা, বটি ও চাকু তৈরি করা হচ্ছে। জিনিস গুলো তৈরি করতে সময়ও অনেক কম লাগছে।’

আধুনিক কামারশালার লোহার কারিগর বিকাশ কর্মকার বলেন, ‘আগে লোহা পিটাতে হাতুড়ি দিয়ে দীর্ঘ সময় পেটাতে হতো। এতে হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম হতো আমাদের। তবে এই বিদ্যুৎচালিত হ্যামার তৈরির ফলে সেই পরিশ্রম একেবারেই কমে গেছে। পাশাপাশি কাজের গতিও অনেকটা বেড়েছে। আমার এই ছোট্ট দোকানে প্রতিদিন গড়ে দুই হাজার টাকার কেনাবেচা হয়।’

ছবি

কাঠ দিয়ে কৃত্রিম উপগ্রহ বানিয়ে তাক লাগিয়ে দিল জাপান

ছবি

৫০ জিবির বেশি ডাটাও এখন যোগ হবে নতুন প্যাকেজে

ছবি

বর্তমান অর্থবছরের মধ্যে বিটিসিএলকে লাভজনক করতে হবে : পলক

ছবি

এক চার্জে ৫০ বছর চলবে এই ব্যাটারি

ছবি

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে কাজ করতে চায় বাংলাদেশ

ছবি

হোয়াটসঅ্যাপে স্ক্রিন শেয়ার প্রতারণা থেকে বাঁচার কৌশল

ছবি

ইউটিউবে আয় বাড়ানোর নতুন ফিচার

ঢাকায় একটি বিদ্যুৎ বিতরণ পরিকল্পনা প্রণয়নে সরকারকে সহায়তা করবে জাইকা

ছবি

বিটিআরসির নতুন চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আহমেদ

ছবি

হোয়াটসঅ্যাপে নতুন ফিচার, লক করা যাবে গুরুত্বপূর্ণ চ্যাট

ছবি

বরখাস্ত হলেন ওপেনএআইয়ের সিইও

ছবি

মোবাইল নম্বর ছাড়াই চলবে হোয়াটসঅ্যাপ

ছবি

প্রথম বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সাইবার নিরাপত্তা অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে ছয় ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান

ছবি

শেখ রাসেল দিবসে ৫টি ‘স্মার্ট‘ উদ্যোগ চালু করলো এটুআই

ছবি

ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারেও এখন টাকা লাগবে

ছবি

প্রতিষ্ঠার ২৫ বছরে গুগল

ছবি

জাতিসংঘের এসডিজি ডিজিটাল গেম চেঞ্জার অ্যাওয়ার্ড পেলো এটুআই-এর একশপ

ছবি

শিবচরে শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট অফ ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজি এর নির্মাণ কাজ উদ্বোধন

ছবি

ডিজিটাল বৈষম্য কমিয়ে আনতে ‘জিরো ডিজিটাল ডিভাইড’ গ্লোবাল ক্যাম্পেইন উদ্বোধন

ছবি

৯ম বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের জাতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত

ছবি

হোয়াটসঅ্যাপে একাধিক অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের সুবিধা আসছে

ছবি

হোয়াটসঅ্যাপে ‘এইচডি কোয়ালিটি’র ছবি পাঠানোর সহজ পদ্ধতি

ছবি

অনুমোদনহীন বেতার যন্ত্র বেচাকেনা,সতর্ক করল বিটিআরসি

ছবি

ইনস্টাগ্রামের বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে ১০ লাখ টাকা হারালেন তরুণী!

ছবি

আইটি মাদ্রাস ও চেন্নাইয়ের রেলা ইনস্টিটিউট পরিদর্শন করলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক

ছবি

‘সুপারফাস্ট’ চার্জিং, ১০ মিনিটের চার্জে চলবে ৪০০ কিলোমিটার

ছবি

ভারতের যেসব খাতে হামলার টার্গেট করেছে বাংলাদেশি হ্যাকাররা

ছবি

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে আসছে নতুন ফিচার

ছবি

ফেসবুক ভিডিওতে আসছে চমৎকার কিছু সুবিধা

ছবি

তিন মাসে বাংলাদেশের ৪২ লাখ ভিডিও ডিলিট করেছে টিকটক

ছবি

কম্পিউটার মনিটর থেকে কত দূরে বসতে হবে

ছবি

টুইটারকে পেছনে ফেলে দ্রুত বাড়ছে থ্রেডসের জনপ্রিয়তা

ছবি

গুগলের গোপনীয়তা নীতিমালায় হঠাৎ পরিবর্তন, কিন্তু কেন

ছবি

এবার স্টোরি দেওয়া যাবে টেলিগ্রামেও

ছবি

দুই দিনে ঢাকা ছেড়েছেন সাড়ে ৫০ লাখ সিমধারী

ছবি

স্মার্ট ক্যাম্পাস নির্মাণে ঢাবি ছাত্রলীগের তথ্যপ্রযুক্তি কর্মশালা

tab

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

ঘোড়াঘাটে বিকাশ কর্মকারের তৈরী বিদ্যুৎচালিত ‘হ্যামার’, কমেছে হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম

মাহতাব উদ্দিন আলমাহমুদ, ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর)

রোববার, ০৯ জুলাই ২০২৩

গ্রামের কামারশালা মানেই কর্মকারের হাতে থাকা হাতুরি দিয়ে উত্তপ্ত আগুনে পোড়ানো লোহা পেটানোর কর্কশ শব্দ, পোড়া গন্ধ এবং পোড়া লোহা থেকে বিচ্ছুরিত আগুনের স্ফুলিঙ্গ। এমন চিত্র গ্রামগঞ্জের কামারশালার নিত্যদিনের দৃশ্য।

তবে সর্বত্রই যখন আধুনিকতার ছোঁয়া। তখন পিছিয়ে নেয় এই কামারশালাও। কামারশালায় সাধারণত লোহার কারিগর বাতাস প্রবাহিত করার বিশেষযন্ত্র ‘হাপর’ টেনে কয়লার আগুনকে উস্কে রাখে। কয়লার সেই আগুনে লোহাকে গরম করে পিটিয়ে বিভিন্ন জিনিস তৈরি করা হয়। সেসবের মধ্যে উল্লেখযোগ্য দা, বটি, চাকু, ছুরি, কোদাল, কাস্তে ও দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহারিত বিভিন্ন জিনিসপত্র।

তবে গ্রামীন জনপদের সেই কামারশালায় কয়লায় বাতাস প্রবাহে‘হাপর’টানার পরিবর্তে বিদ্যুতিক মোটরচালিত ফ্যানের সাহায্যে বাতাস প্রবাহ করা হচ্ছে। এছাড়াও আগুনে উত্তপ্ত করা লোহা দুজন কর্মকার মুখোমুখি বসে হাতুরি দিয়ে পিটিয়ে বিভিন্ন আকৃতির জিনিস তৈরি করলেও, বর্তমানে সেই একই কাজ করছে মোটরচালিত বিদ্যুতিক‘হ্যামার’।

এমনই এক আধুনিক কামারশালা নজর কাড়ছে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট পৌর এলাকায় আজাদ মোড়ে। দিনাজপুর-গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের ধারঘেঁষে গড়ে তোলা এই আধুনিক কামারশালার মালিকক চুকর্মকার ও তার ছেলে বিকাশ কর্মকার। সামাজিক যোগাযোগমা ধ্যম ফেসবুকে দেখে এই হ্যামার তৈরির উদ্যোগ নেন বিকাশকর্মকার।

এতে কামারশালায় কাজ করা লোহার জিনিসপত্র তৈরির কারিগরদের হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম যেমন কমেছে, তেমনি বেড়েছে কাজের গতি। সব মিলিয়ে স্বচ্ছলতা ফিরতে শুরু করেছে কর্মকারদের পরিবারে।

পুরোটি লোহাদ্ বারা তৈরি করা এই ‘হ্যামার’ তৈরি করতে তাদের খরচ হয়েছে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এখন থেকে বছর দু’য়েক আগে ফেসবুকের একটি ভিডিওতে আধুনিক এই হ্যামারের কিছু অংশ দেখেছিলেন বিকাশ কর্মকার। তবে সেই ভিডিওতে পুরো হ্যামারের ছবি দেখানো হয়নি। সেই ভিডিও দেখার পর নিজেও একটি ‘হ্যামার’ তৈরির সিদ্ধান্ত নেন তিনি। ধীরেধীরে তৈরি করায় এক বছর সময় লেগেছে এটি তৈরি করতে। এমনটাই দাবি বিকাশ কর্মকারের।

কামারশালায় একটি‘দা’ তৈরি করে নিতে এসেছিলেন রশিকনগর গ্রামের তারেকুজ্জামান। তিনি বলেন,‘বছরে দু’একবার কামারশালায় আসালাগে বিভিন্ন জিনিস তৈরি ও চাকু ধার দিতে।তবে আজ প্রথম দেখলাম মেশিন দিয়ে লোহা পিটিয়ে দা, বটি ও চাকু তৈরি করা হচ্ছে। জিনিস গুলো তৈরি করতে সময়ও অনেক কম লাগছে।’

আধুনিক কামারশালার লোহার কারিগর বিকাশ কর্মকার বলেন, ‘আগে লোহা পিটাতে হাতুড়ি দিয়ে দীর্ঘ সময় পেটাতে হতো। এতে হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম হতো আমাদের। তবে এই বিদ্যুৎচালিত হ্যামার তৈরির ফলে সেই পরিশ্রম একেবারেই কমে গেছে। পাশাপাশি কাজের গতিও অনেকটা বেড়েছে। আমার এই ছোট্ট দোকানে প্রতিদিন গড়ে দুই হাজার টাকার কেনাবেচা হয়।’

back to top