alt

মিডিয়া

মোদি সরকারের পরিকল্পনায় ভারতের এডিটর্স গিল্ডের উদ্বেগ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : শনিবার, ০৮ এপ্রিল ২০২৩

ভারতে স্বনিযুক্ত তথ্য-যাচাই ইউনিটের মাধ্যমে সরকার সমাজমাধ্যমে খবর সম্প্রচারের ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করতে চায় বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে এডিটরস গিল্ড অব ইন্ডিয়া।

গিল্ডের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বিষয়টি দমনমূলক ও সেন্সরশিপের সমতুল্য। তবে ভারতের কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী রাজীব চন্দ্রশেখর একটি সাক্ষাৎকারে সেই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন।

তথ্যপ্রযুক্তি আইনে কিছুটা সংশোধনী এনেছে ভারত সরকার। এতে বলা হয়েছে, সমাজমাধ্যমে ইন্টারনেটে সরকার-সংক্রান্ত ‘জাল, মিথ্যা বা বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রকাশ করা, প্রচার করা বা রাখা’ যাবে না কোনোভাবেই। সরকারি তথ্য-যাছাই ইউনিট তৈরির কথাও বলা হয়েছে।

এ নিয়েই প্রশ্ন তুলেছে গিল্ড। তাদের প্রশ্ন- সরকারি তথ্য-যাছাই ইউনিটের পরিচালন-পদ্ধতি কী হবে। সত্য-মিথ্যা নিরূপণের প্রশ্নে তাদের ক্ষমতা কতটা একচেটিয়া হবে? এমন ক্ষেত্রে সরকারি সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে আবেদনের সুযোগ আদৌ কতটা থাকছে?

আইনের সংশোধনীর পর গিল্ডের বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে- দমনমূলক নিয়ম চাপিয়ে এমন নির্দেশিকা আক্ষেপের বিষয়। আবেদন করা হচ্ছে, সেটি বাতিল করে সম্প্রচার সংস্থা ও সংবাদ-সংগঠনগুলোর সঙ্গে আলোচনা করা হোক।’’ ওই নির্দেশিকায় ‘জাল’, ‘মিথ্যা’ ও ‘বিভ্রান্তিকর’ শব্দগুলো যেভাবে ব্যবহার করা হয়েছে, তাতে প্রশাসনের তরফ থেকে নিয়মের অপব্যবহারের আশঙ্কা থেকে যায়।

ছবি

মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক কমান্ডের নির্বাচন

ছবি

নোয়াবের নতুন কমিটি, আবারও সভাপতি এ.কে.আজাদ

‘সরকারকে জবাবদিহির আওতায় আনতে ৭০ অনুচ্ছেদ বাধা হবে না’

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের এক যুগপূর্তি

মানিক সাহাসহ সাংবাদিক হত্যাকা-ে জড়িতদের চিহ্নিত করতে গণতদন্ত কমিশন গঠনের দাবি

ছবি

উৎসবমুখর পরিবেশে চলছে ক্র্যাবের ভোটগ্রহণ

ছবি

চারণসাংবাদিক মোনাজাতউদ্দিনের মৃত্যুবার্ষিকী কাল

ছবি

নগর উন্নয়ন সাংবাদিক ফোরামের নেতৃত্বে মতিন-ফয়সাল

ছবি

অর্থনীতিবিদদের সঙ্গে নোয়াবের মতবিনিময় সভা

ছবি

শিশুবিষয়ক খবরে গণমাধ্যমকে বেশী গুরুত্ব দেয়ার আহবান

ছবি

নরসিংদী প্রেস ক্লাবের নব নির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের শপথ গ্রহণ

ছবি

আহমদুল কবির কখনো প্রাসঙ্গিকতা হারাবেন না

চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের প্রয়াত সাংবাদিকদের স্মরণে সভা

ছবি

গুজব রোধে গণমাধ্যমকর্মীদের কর্মশালা অনুষ্ঠিত

ছবি

সাংবাদিকরা ভুল করলে ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা হবে - প্রেস কাউন্সিল চেয়ারম্যান

ছবি

ক্ষমা না চাইলে বিএনপির সংবাদ পরিহারের ডাক ডিইউজের

মাহেলা বেগম

ছবি

বর্ণাঢ্য আয়োজনে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত

ছবি

সাগর-রুনি হত্যা : ১০২ বার পেছাল তদন্ত প্রতিবেদন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গণমাধ্যমের স্বাধীনতাকে সমর্থন করে

ছবি

ভিসা নীতিঃ সম্পাদক পরিষদের উদ্বেগ ও মার্কিন রাষ্ট্রদূতের ব্যাখ্যা

বর্ণাঢ্য আয়োজনে ঢাবি সাংবাদিক সমিতির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত

ছবি

কপিরাইট বিল পাস

ছবি

ওয়ার্ল্ড ভিশন মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড পেলেন সংবাদ প্রতিবেদকসহ ৬ সাংবাদিক

ছবি

ওয়ার্ল্ড ভিশন মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড পেলেন সংবাদ প্রতিবেদকসহ ৬ সাংবাদিক

ছবি

র‍্যামন ম্যাগসাইসাই পুরস্কার পেলেন করভি রাখসান্দ

ছবি

সাংবাদিক হাববিুর রহমান খান মারা গেছেন

ছবি

কক্সবাজার কণ্ঠ হোক গণমানুষের কন্ঠ: মতবিনিময় সভায় বক্তারা

ছবি

সাগর-রুনি হত্যা মামলার প্রতিবেদন পেছানোর সেঞ্চুরি

ছবি

জাতীয় প্রেস ক্লাবের স্থায়ী সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা এম. শাহজাহান মিয়া আর নেই

ছবি

কার্টুনিস্ট এমএ কুদ্দুস আর নেই

ছবি

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পেশাগত দায়িত্ব পালনে হুমকি তৈরি করছে

ছবি

পি কে হালদারের বান্ধবী নাহিদা রুনাইয়ের জামিন স্থগিত

ছবি

৯৯ বার পেছাল সাগর-রুনি হত্যা মামলার প্রতিবেদন

ছবি

ঢাবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি সাদী, সাধারণ সম্পাদক মাহী

ছবি

কলকাতার ইন্দো-বাংলা প্রেসক্লাবে বাংলাদেশের আম উৎসব

tab

মিডিয়া

মোদি সরকারের পরিকল্পনায় ভারতের এডিটর্স গিল্ডের উদ্বেগ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

শনিবার, ০৮ এপ্রিল ২০২৩

ভারতে স্বনিযুক্ত তথ্য-যাচাই ইউনিটের মাধ্যমে সরকার সমাজমাধ্যমে খবর সম্প্রচারের ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করতে চায় বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে এডিটরস গিল্ড অব ইন্ডিয়া।

গিল্ডের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বিষয়টি দমনমূলক ও সেন্সরশিপের সমতুল্য। তবে ভারতের কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী রাজীব চন্দ্রশেখর একটি সাক্ষাৎকারে সেই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন।

তথ্যপ্রযুক্তি আইনে কিছুটা সংশোধনী এনেছে ভারত সরকার। এতে বলা হয়েছে, সমাজমাধ্যমে ইন্টারনেটে সরকার-সংক্রান্ত ‘জাল, মিথ্যা বা বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রকাশ করা, প্রচার করা বা রাখা’ যাবে না কোনোভাবেই। সরকারি তথ্য-যাছাই ইউনিট তৈরির কথাও বলা হয়েছে।

এ নিয়েই প্রশ্ন তুলেছে গিল্ড। তাদের প্রশ্ন- সরকারি তথ্য-যাছাই ইউনিটের পরিচালন-পদ্ধতি কী হবে। সত্য-মিথ্যা নিরূপণের প্রশ্নে তাদের ক্ষমতা কতটা একচেটিয়া হবে? এমন ক্ষেত্রে সরকারি সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে আবেদনের সুযোগ আদৌ কতটা থাকছে?

আইনের সংশোধনীর পর গিল্ডের বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে- দমনমূলক নিয়ম চাপিয়ে এমন নির্দেশিকা আক্ষেপের বিষয়। আবেদন করা হচ্ছে, সেটি বাতিল করে সম্প্রচার সংস্থা ও সংবাদ-সংগঠনগুলোর সঙ্গে আলোচনা করা হোক।’’ ওই নির্দেশিকায় ‘জাল’, ‘মিথ্যা’ ও ‘বিভ্রান্তিকর’ শব্দগুলো যেভাবে ব্যবহার করা হয়েছে, তাতে প্রশাসনের তরফ থেকে নিয়মের অপব্যবহারের আশঙ্কা থেকে যায়।

back to top