alt

রাজনীতি

গাজীপুর মেয়রের শাস্তি না ক্ষমা, সিদ্ধান্ত বিকেলে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : শুক্রবার, ১৯ নভেম্বর ২০২১

দেশের বৃহত্তম সিটি করপোরেশন গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কটূক্তি এবং মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন তোলায় তাকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবি ওঠে।

এরপর দল থেকে জাহাঙ্গীরকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। নোটিশের জবাবও দিয়েছেন মেয়র। এখন জনমনে প্রশ্ন- জাহাঙ্গীর কি দল থেকে বহিষ্কৃত হচ্ছেন? নাকি স্বপদে বহাল থাকছেন? এসব জল্পনা কল্পনার অবসান হচ্ছে শুক্রবার (১৯ নভেম্বর)।

শুক্রবার বিকেল ৪টায় গণভবনে বাংলাদেশ আওয়ামি লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভা। ওই সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কার্যনির্বাহী সদস্যদের নিয়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশন মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন বলে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন আওয়ামি লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

এর আগে, গত ২২ সেপ্টেম্বর (বুধবার) ৪ মিনিটের একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। তাতে দেখা যায়— ঘরোয়া আলোচনায় মেয়র তার ঘনিষ্ঠ কারও সঙ্গে কথা বলছেন। সেখানে তার কথায় স্পর্শকাতর অনেক বিষয় ছিল। যা নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য উঠে আসে। এতে গাজীপুর আওয়ামী লীগের একটি অংশ মেয়রকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবি তোলে।

পরেরদিন ২২ সেপ্টেম্বর বিকেল থেকে টানা কয়েকদিন ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বিভিন্ন এলাকা অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন আওয়ামী লীগের একটি অংশ। এতে নেতৃত্ব দেন গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ, প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর মামুন মন্ডলসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী।

পরে ২৪ সেপ্টেম্বর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলেন। তিনি জানান, তার বিরুদ্ধে কুৎসা রটনা করা হচ্ছে। ভিডিওটি ভিত্তিহীন। জনগণকে সাথে নিয়ে কৃৎসা রটনাকারীদের মোকাবেলা করা হবে। তারা অনেক মানুষকে ভুল বুঝিয়েছে। মিথ্যা আইডি দিয়ে ফেসবুক খুলে তাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে।

এ ঘটনার পর থেকে গাজীপুরের রাজনৈতিক পরিবেশ গরম হতে শুরু করে। আওয়ামী লীগ বিভক্ত হয়ে যায় দুটি পক্ষে। একটি অংশ মেয়রের পক্ষে থাকে। অপরটি বিপক্ষে।

এসব পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে গত ৩ অক্টোবর জাহাঙ্গীরের কাছে ব্যাখ্যা দাবি করে চিঠি দেয় আওয়ামী লীগ। এতে তাকে ১৫ দিন সময় দেওয়া হয়। বেঁধে দেওয়া সময়সীমার আগেই মেয়র জাহাঙ্গীর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর নোটিশের জবাব দিয়েছেন।

ছবি

কিছুদিনের মধ্যেই খালেদার বিদেশে চিকিৎসার বিষয়ে সিদ্ধান্ত: আইনমন্ত্রী

ছবি

খালেদা জিয়ার আবারও রক্তক্ষরণ হচ্ছে : ফখরুল

ছবি

নাসিক নির্বাচন: মনোনয়নপত্র নিলেন নৌকার প্রার্থী আইভী

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর দাবিতে ২০ ডিসেম্বর থেকে বিএনপির জেলা পর্যায়ে সমাবেশ

ছবি

মুরাদের পদত্যাগপত্রেও ভুল

ছবি

শুধু পদত্যাগ না, মুরাদকে গ্রেপ্তার করতে হবে : রিজভী

ছবি

‘ব্যক্তিগত কারণ’ দেখিয়ে ইমেইলে পদত্যাগপত্র পাঠালেন মুরাদ

ছবি

প্রতিমন্ত্রী মুরাদকে নিয়ে ফখরুলের সঙ্গে তর্কে জড়ালেন যুবদল নেতা

ছবি

তথ্য প্রতিমন্ত্রীর পদত্যাগ চাইলেন মির্জা ফখরুল

ছবি

বক্তব্য প্রত্যাহারের প্রশ্নই ওঠে না : তথ্য প্রতিমন্ত্রী

ছবি

খালেদাকে মুক্তি না দিলে কোটি মানুষ রাস্তায় নেমে আসবে

ছবি

নেত্রীও স্কুল ড্রেস পরে আন্দোলন করছেন: তথ্যমন্ত্রী

ছবি

শিক্ষার্থীরা রাজনৈতিক দলের উস্কানিতে রাস্তায়: কাদের

ছবি

জনগণই আমার শক্তির উৎস: আইভী

ছবি

ছাত্র আন্দোলনে হয়রানি হলে রাজপথে জবাব দেব: নুর

ছবি

খালেদা জিয়াকে তিলে তিলে হত্যার ষড়যন্ত্র চলছে : ফখরুল

ছবি

দেশে ভালো ডাক্তার আছেন, খালেদা জিয়া সুস্থ হয়ে উঠবেন: তথ্যমন্ত্রী

ছবি

‘খালেদার বিদেশে যেতে বাধা আইন নয়, সরকার’

ছবি

খালেদার বিদেশে চিকিৎসার জটিলতার জন্য আ’লীগ দায়ী নয়: সেতুমন্ত্রী

ছবি

ইউপি নির্বাচন দিয়ে আ’লীগের পতন শুরু হয়ে গেছে: ফখরুল

ছবি

ইউপি নির্বাচনে চর দখলের মতোই কেন্দ্র দখল হচ্ছে: জিএম কাদের

ছবি

হেফাজতের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব সাজিদুর রহমান

ছবি

খালেদা জিয়ার অসুস্থতার জন্য বিএনপিই দায়ী: কাদের

ছবি

কে হচ্ছে হেফাজতের মহাসচিব

ছবি

মারা গেছেন হেফাজতের মহাসচিব নুরুল ইসলাম

ছবি

এমপিরা বেক্কলের মতো ঘোরেন: সংসদে জাপা মহাসচিব

ছবি

কেন্দ্রে গিয়ে শোনেন তার ভোট হয়ে গেছে

ছবি

বিএনপি দেশে অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে: কৃষিমন্ত্রী

ছবি

খালেদার পরিপাকতন্ত্রে রক্তক্ষরণ হচ্ছে: মির্জা ফখরুল

ছবি

পাবলিক আমাদের আ.লীগের দালাল বলে: জাপা মহাসচিব

রাজাকার পুত্র হাইমচরে নৌকার প্রার্থী

ছবি

আমি টাকা পাচার করি না, কারা করে কীভাবে জানবো : অর্থমন্ত্রী

ছবি

সংসদে পাকিস্তান ক্রিকেট দলের পক্ষে কথা বলে তোপে সাংসদ হারুন

ছবি

রাষ্ট্রপতি ক্ষমা করলেই খালেদার দণ্ড মওকুফ: হানিফ

ছবি

খালেদাকে স্লো পয়জনিং করলে ফখরুলরা করছেন: ওবায়দুল কাদের

ছবি

খালেদার চিকিৎসায় বিদেশ থেকে চিকিৎসক আনছেন না কেন: আইনমন্ত্রী

tab

রাজনীতি

গাজীপুর মেয়রের শাস্তি না ক্ষমা, সিদ্ধান্ত বিকেলে

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

শুক্রবার, ১৯ নভেম্বর ২০২১

দেশের বৃহত্তম সিটি করপোরেশন গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কটূক্তি এবং মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন তোলায় তাকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবি ওঠে।

এরপর দল থেকে জাহাঙ্গীরকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। নোটিশের জবাবও দিয়েছেন মেয়র। এখন জনমনে প্রশ্ন- জাহাঙ্গীর কি দল থেকে বহিষ্কৃত হচ্ছেন? নাকি স্বপদে বহাল থাকছেন? এসব জল্পনা কল্পনার অবসান হচ্ছে শুক্রবার (১৯ নভেম্বর)।

শুক্রবার বিকেল ৪টায় গণভবনে বাংলাদেশ আওয়ামি লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভা। ওই সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কার্যনির্বাহী সদস্যদের নিয়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশন মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন বলে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন আওয়ামি লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

এর আগে, গত ২২ সেপ্টেম্বর (বুধবার) ৪ মিনিটের একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। তাতে দেখা যায়— ঘরোয়া আলোচনায় মেয়র তার ঘনিষ্ঠ কারও সঙ্গে কথা বলছেন। সেখানে তার কথায় স্পর্শকাতর অনেক বিষয় ছিল। যা নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য উঠে আসে। এতে গাজীপুর আওয়ামী লীগের একটি অংশ মেয়রকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবি তোলে।

পরেরদিন ২২ সেপ্টেম্বর বিকেল থেকে টানা কয়েকদিন ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বিভিন্ন এলাকা অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন আওয়ামী লীগের একটি অংশ। এতে নেতৃত্ব দেন গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ, প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর মামুন মন্ডলসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী।

পরে ২৪ সেপ্টেম্বর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলেন। তিনি জানান, তার বিরুদ্ধে কুৎসা রটনা করা হচ্ছে। ভিডিওটি ভিত্তিহীন। জনগণকে সাথে নিয়ে কৃৎসা রটনাকারীদের মোকাবেলা করা হবে। তারা অনেক মানুষকে ভুল বুঝিয়েছে। মিথ্যা আইডি দিয়ে ফেসবুক খুলে তাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে।

এ ঘটনার পর থেকে গাজীপুরের রাজনৈতিক পরিবেশ গরম হতে শুরু করে। আওয়ামী লীগ বিভক্ত হয়ে যায় দুটি পক্ষে। একটি অংশ মেয়রের পক্ষে থাকে। অপরটি বিপক্ষে।

এসব পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে গত ৩ অক্টোবর জাহাঙ্গীরের কাছে ব্যাখ্যা দাবি করে চিঠি দেয় আওয়ামী লীগ। এতে তাকে ১৫ দিন সময় দেওয়া হয়। বেঁধে দেওয়া সময়সীমার আগেই মেয়র জাহাঙ্গীর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর নোটিশের জবাব দিয়েছেন।

back to top