alt

সম্পাদকীয়

ভূমিকম্পে বিপর্যস্ত আফগানিস্তানের পাশে দাঁড়ান

: বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন ২০২২

গত দুই দশকের মধ্যে সবচেয়ে প্রাণঘাতী ভূমিকম্পের কবলে পড়েছে সার্কভুক্ত দেশ আফগানিস্তান। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ৬ দশমিক ১ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পে এক হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন এবং আহত হয়েছেন দেড় হাজার। নিখোঁজ রয়েছেন অনেক মানুষ। আশঙ্কা করা হচ্ছে, মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। আমরা নিহতদের স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানাই, আহতদের সুস্থতা কামনা করি।

আফগানিস্তানে নতুন বিপর্যয় নিয়ে হাজির হয়েছে ভূমিকম্প। দেশটি দীর্ঘদিন ধরে রাজনৈতিক সংকটের মধ্যদিয়ে যাচ্ছে। পশ্চিমা শক্তি সেখান থেকে সৈন্য প্রত্যাহার করায় তালেবান ক্ষমতায় এসেছে। রাজনৈতিক ভাঙা-গড়ার খেলায় সেখানকার মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। এখন ভূমিকম্পে স্বজন আর সম্পদ হারিয়ে তাদের অনেকেই দিশেহারা। যদিও যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির ভুক্তভোগী মানুষদের হারানোর মতো খুব কম সম্পদই ছিল বলে গণমাধ্যমের খবরে জানা যাচ্ছে। তারপরও সহায়-সম্বল যতটুকু অবশিষ্ট ছিল ভূমিকম্পের কারণে তাও অনেকে হারিয়েছেন।

প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের শিকার জনগণের পাশে দাঁড়ানোর সামর্থ্যটুকুও নেই তালেবান সরকারের। বিধ্বস্ত বাড়িঘর বা স্থাপনায় আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধার করার মতো যন্ত্রপাতি তাদের নেই। ভুক্তভোগী মানুষকে দিতে পারছে না প্রয়োজনীয় সাহায্য-সহায়তা। এই অসহায়ত্ব তালেবান নেতারা খোলাখুলি স্বীকারও করেছেন। তারা আন্তর্জাতিক সাহায্য প্রার্থনা করেছেন।

জ্যেষ্ঠ তালেবান নেতা আব্দুল কাহার বালখি বলেছেন, ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের যে পরিমাণ সহায়তা দরকার তা দেয়ার মতো আর্থিক সামর্থ্য আফগান সরকারের নেই। ভূমিকম্পের ভয়বহতার কথা উল্লেখ করে তিনি বড় আকারের সাহয্যের আবেদন জানিয়েছেন।

জাতিসংঘের পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ আফগানিস্তানের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে। আমরা আশা করব, দেশটির মানুষদের সহায়তায় বাংলাদেশও পাশে দাঁড়াবে। যদিও আমাদের এখন বন্যার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করতে হচ্ছে। অর্থনৈতিক অনেক টানাপড়েন আছে। তারপরও তাদের মানবিক সংকটে আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী সাহায্য করা জরুরি।

বাংলাদেশ ভূমিকম্পের ঝুঁকিতে আছে। এ ঝুঁকি মোকাবিলায় আমাদের যথেষ্ট প্রস্তুতি নেই বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন। তারা হুঁশিয়ার করে বিভিন্ন সময় বলেছেন, যথাযথ প্রস্তুতি না থাকলে বড় আকারের ভূমিকম্পে ভয়াবহ পরিস্থতির উদ্ভব হতে পারে। আমরা বলতে চাই, ভূমিকম্পের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় সংশ্লিষ্টদের এখনই প্রস্তুতি নিতে হবে।

আবাসিক হলগুলোতে শিক্ষার্থী নির্যাতন বন্ধ করুন

বন্যাপরবর্তী পুনর্বাসন কাজে সর্বাত্মক উদ্যোগ নিতে হবে

রাজধানীর খালগুলোকে দখলমুক্ত করুন

ভোজ্যতেলের দাম দেশের বাজারে কেন কমছে না

টিসিবির কার্ড বিতরণে অনিয়ম

রেলের দুর্দশা

কিশোর-কিশোরী ক্লাবের নামে হরিলুট

চাই টেকসই বন্যা ব্যবস্থাপনা

উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রমে হরিলুট বন্ধ করুন

জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো নিয়ে বিতর্ক

ছত্রাকজনিত রোগের চিকিৎসা প্রসঙ্গে

পাহাড় ধসে মৃত্যু থামবে কবে

বজ্রপাতে মৃত্যু প্রতিরোধে জনসচেতনতা বাড়াতে হবে

এবার কি জলাবদ্ধতা থেকে রাজধানীবাসীর মুক্তি মিলবে

ফেরির টিকিট নিয়ে দালালদের অপতৎপরতা বন্ধ করুন

বন্যার্তদের সর্বাত্মক সহায়তা দিন

চিংড়ি পোনা নিধন প্রসঙ্গে

টানবাজারের রাসায়নিক দোকানগুলো সরিয়ে নিন

নদীর তীরের মাটি কাটা বন্ধে ব্যবস্থা নিন

মাদক বাণিজ্য বন্ধ করতে হলে শর্ষের ভূত তাড়াতে হবে

শূন্যপদে দ্রুত শিক্ষক নিয়োগ দিন

বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়ান

ডেঙ্গু প্রতিরোধে এখনই সতর্ক হোন

বখাটেদের যন্ত্রণা থেকে নারীর মুক্তি মিলবে কীভাবে

নওগাঁয় আম চাষিদের হিমাগার স্থাপনের দাবি

বস্তিবাসী নারীদের জন্য চাই নিরাপদ গোসলখানা

শিল্পবর্জ্যে বিপন্ন পরিবেশ

বস্তিবাসীর সমস্যার টেকসই সমাধান করতে হবে

শিশু নিপীড়ন রোধের দায়িত্ব নিত হবে সমাজকে

বিজেপির দুই নেতার বিরুদ্ধে ধর্মীয় অবমাননার অভিযোগ প্রসঙ্গে

অনুকরণীয় উদাহরণ

টিলা ধসে মৃত্যু প্রসঙ্গে

বাজেট : মানুষের স্বস্তি আর দেশের উন্নতির বাসনা

খাল অবৈধ দখলমুক্ত করুন

মজুরি বৈষম্যের অবসান চাই

‘ঢলন’ প্রথা থেকে আমচাষিদের মুক্তি দিতে হবে

tab

সম্পাদকীয়

ভূমিকম্পে বিপর্যস্ত আফগানিস্তানের পাশে দাঁড়ান

বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন ২০২২

গত দুই দশকের মধ্যে সবচেয়ে প্রাণঘাতী ভূমিকম্পের কবলে পড়েছে সার্কভুক্ত দেশ আফগানিস্তান। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ৬ দশমিক ১ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পে এক হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন এবং আহত হয়েছেন দেড় হাজার। নিখোঁজ রয়েছেন অনেক মানুষ। আশঙ্কা করা হচ্ছে, মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। আমরা নিহতদের স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানাই, আহতদের সুস্থতা কামনা করি।

আফগানিস্তানে নতুন বিপর্যয় নিয়ে হাজির হয়েছে ভূমিকম্প। দেশটি দীর্ঘদিন ধরে রাজনৈতিক সংকটের মধ্যদিয়ে যাচ্ছে। পশ্চিমা শক্তি সেখান থেকে সৈন্য প্রত্যাহার করায় তালেবান ক্ষমতায় এসেছে। রাজনৈতিক ভাঙা-গড়ার খেলায় সেখানকার মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। এখন ভূমিকম্পে স্বজন আর সম্পদ হারিয়ে তাদের অনেকেই দিশেহারা। যদিও যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির ভুক্তভোগী মানুষদের হারানোর মতো খুব কম সম্পদই ছিল বলে গণমাধ্যমের খবরে জানা যাচ্ছে। তারপরও সহায়-সম্বল যতটুকু অবশিষ্ট ছিল ভূমিকম্পের কারণে তাও অনেকে হারিয়েছেন।

প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের শিকার জনগণের পাশে দাঁড়ানোর সামর্থ্যটুকুও নেই তালেবান সরকারের। বিধ্বস্ত বাড়িঘর বা স্থাপনায় আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধার করার মতো যন্ত্রপাতি তাদের নেই। ভুক্তভোগী মানুষকে দিতে পারছে না প্রয়োজনীয় সাহায্য-সহায়তা। এই অসহায়ত্ব তালেবান নেতারা খোলাখুলি স্বীকারও করেছেন। তারা আন্তর্জাতিক সাহায্য প্রার্থনা করেছেন।

জ্যেষ্ঠ তালেবান নেতা আব্দুল কাহার বালখি বলেছেন, ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের যে পরিমাণ সহায়তা দরকার তা দেয়ার মতো আর্থিক সামর্থ্য আফগান সরকারের নেই। ভূমিকম্পের ভয়বহতার কথা উল্লেখ করে তিনি বড় আকারের সাহয্যের আবেদন জানিয়েছেন।

জাতিসংঘের পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ আফগানিস্তানের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে। আমরা আশা করব, দেশটির মানুষদের সহায়তায় বাংলাদেশও পাশে দাঁড়াবে। যদিও আমাদের এখন বন্যার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করতে হচ্ছে। অর্থনৈতিক অনেক টানাপড়েন আছে। তারপরও তাদের মানবিক সংকটে আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী সাহায্য করা জরুরি।

বাংলাদেশ ভূমিকম্পের ঝুঁকিতে আছে। এ ঝুঁকি মোকাবিলায় আমাদের যথেষ্ট প্রস্তুতি নেই বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন। তারা হুঁশিয়ার করে বিভিন্ন সময় বলেছেন, যথাযথ প্রস্তুতি না থাকলে বড় আকারের ভূমিকম্পে ভয়াবহ পরিস্থতির উদ্ভব হতে পারে। আমরা বলতে চাই, ভূমিকম্পের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় সংশ্লিষ্টদের এখনই প্রস্তুতি নিতে হবে।

back to top