alt

সম্পাদকীয়

সাম্প্রদায়িক হামলা : এখন আর রাতের আঁধারের অপেক্ষায় থাকতে হয় না

: বৃহস্পতিবার, ০২ সেপ্টেম্বর ২০২১

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে একটি হিন্দু পরিবারের বসতভিটা দখল করার অপচেষ্টা করছে স্থানীয় একটি চক্র। দখলে বাধা দেয়ায় গত সোমবার জমির মালিক পুষ্পরানী মন্ডলের ওপর (৫১) হামলা চালিয়েছে দখলকারীরা। স্থানীয় প্রশাসন দখলদারদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়নি বলে গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে আজ সংবাদ-এ বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

দেশে যেন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা, তাদের সম্পদ দখলের প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। গণমাধ্যমে নিয়মিতই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় স্থাপনা, ঘরবাড়ি ভাঙচুরের খবর ছাপা হয়। ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের সম্পদ আত্মসাতের অপচেষ্টা চলমান আছে। স্বাধীনতার এত বছর পরও তাদের জানমালের নিরাপত্তা নিয়ে সবসময় শঙ্কিত থাকতে হয়। স্বাধীনতার পক্ষের বা অসাম্প্রদায়িক শক্তি বলে নিজেদের দাবি করে যে রাজনৈতিক দল তাদের শাসন আমলেও এই শঙ্কা দূর হয়নি।

একটি উগ্র ধর্মীয় গোষ্ঠী বরাবরই প্রকাশ্যে সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প ছড়ায়। মসজিদ-মাদ্রাসা থেকে মাইকে ঘোষণা দিয়ে সাম্প্রদায়িক হামলা চালানোর নজির দেশে রয়েছে। এর পাশাপাশি একটি চক্র সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সম্পদ দিন-দুপুরেই দখল করে নেয়, রাতের আঁধারের জন্য তারা অপেক্ষা করে না। প্রশাসনের নাকের ডগার ওপর দিয়ে জনসম্মুখেই হামলা আর দখলের মচ্ছব চলে। সুচতুর এই চক্র কখনও কখনও হামলা-দখলের মচ্ছবে অংশ নিতে স্থানীয় বাসিন্দাদেরকেও উসকানি দেয়।

সাম্প্রদায়িক হামলা বন্ধে সরকারগুলো কার্যকর কোন ব্যবস্থা নেয় না বলেই দেশে হিন্দু সম্প্রদায় বারবার নানা ভাবে নানা মাত্রায় হামলার শিকার হচ্ছে। আশ্বাস আর তদন্তের মধ্যে সাম্প্রদায়িক হামলা বা সহিংসতার ঘটনার বিচার আটকে থাকে। বাস্তবে বিচার হয় না বললেই চলে। বিচারহীনতার অপসংস্কৃতি আর রাজনৈতিক আশ্রয়-প্রশয়ের কারণে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর বাড় বাড়ন্ত হয়েছে।

সিরাজদিখানে কারা হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা চালিয়েছে তাদের সম্পদ দখলের অপচেষ্টা করছে সেটা অজানা নয়। জরুরি হচ্ছে তাদের গ্রেপ্তার করে উপযুক্ত শাস্তি দেয়া। শাস্তি দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করা গেলে সাম্প্রদায়িক হামলা বন্ধ হতে পারে। সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীকে মদদ দেয়া বা রাজনৈতিক প্রশ্রয় দেয়া বন্ধ করাও জরুরি। স্থানীয় প্রশাসন হিন্দু পরিবারটির জমি দখলের অপচেষ্টা রুখতে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়নি বলে যে অভিযোগ উঠেছে সেটাও খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

মহাসড়কে ধীরগতির যান চলাচল বন্ধ করুন

ট্যানারির বর্জ্যে বিপন্ন ধলেশ্বরী

চাঁদাবাজির দুষ্টচক্র থেকে পরিবহন খাতকে মুক্তি দিন

বিমানবন্দরে দ্রুত কোভিড টেস্টের ব্যবস্থা করুন

বাক্সবন্দী রোগ নির্ণয় যন্ত্র

জাতীয় শিক্ষাক্রমে পরিবর্তন

রোহিঙ্গাদের কাছে জাতীয় পরিচয়পত্র ও পাসপোর্ট, এখনই ব্যবস্থা নিন

খুলেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্যবিধি যেন মেনে চলা হয়

বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরণ লাইন উন্নয়নের কাজ ত্বরান্বিত করুন

ধান সংগ্রহে লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা যাচ্ছে না কেন

বাঁশখালীর বাঁশের সেতু সংস্কার করুন

ঝুমন দাশের মুক্তি কোন পথে

দুস্থদের ভাতা আত্মসাৎ, দ্রুত ব্যবস্থা নিন

খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, চালু রাখতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে দায়িত্বশীল হতে হবে

আত্মহত্যা কোন সমাধান হতে পারে না

বৃত্তাকার নৌপথের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে হবে

অস্ত্র চোরাচালানের মূল হোতাদের ধরুন

আয়হীন প্রান্তিক নারীদের আয়কর পরিশোধের নোটিশ

এইচএসসির ফরম পূরণে অতিরিক্ত টাকা নেয়া হচ্ছে কেন

সীমান্তহত্যা বন্ধে ভারতকে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে হবে

‘প্রকৃতির পরিচ্ছন্নতা কর্মীকে’ বাঁচাতে হবে

সিডও সনদের ধারা দুটির ওপর থেকে সংরক্ষণ তুলে নিন

মা ও শিশুকল্যাণ কেন্দ্রটিতে লোকবল নিয়োগ দিন

কিশোর অপরাধ রুখতে চাই সম্মিলিত চেষ্টা

পানি শোধনাগারের সক্ষমতার পূর্ণাঙ্গ ব্যবহার নিশ্চিত করুন

বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়ান

দূষণের ক্রনিক রোগে ধুঁকছে রাজধানী, ভুগছে মানুষ

সর্বগ্রাসী দুর্নীতির আরেক নমুনা

বন্যপ্রাণী ও ফসল দুটোই রক্ষা পাক

দুর্গম চরে গুচ্ছগ্রাম

স্বাস্থ্যবিধি না মানলে ঝুঁকি আছে

প্রণোদনার অর্থ বিতরণে নয়ছয় কাম্য নয়

প্রকল্পের মেয়াদ ও ব্যয় বাড়ানোর অপসংস্কৃতি বন্ধ করতে হবে

গুমের কারণ খুঁজে বের করে ব্যবস্থা নিন

ডেঙ্গু চিকিৎসায় হাসপাতালগুলোকে দ্রুত প্রস্তুত করুন

ঝুঁকিপূর্ণ ও অবৈধ ভবন এবার কি ভাঙা হবে

tab

সম্পাদকীয়

সাম্প্রদায়িক হামলা : এখন আর রাতের আঁধারের অপেক্ষায় থাকতে হয় না

বৃহস্পতিবার, ০২ সেপ্টেম্বর ২০২১

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে একটি হিন্দু পরিবারের বসতভিটা দখল করার অপচেষ্টা করছে স্থানীয় একটি চক্র। দখলে বাধা দেয়ায় গত সোমবার জমির মালিক পুষ্পরানী মন্ডলের ওপর (৫১) হামলা চালিয়েছে দখলকারীরা। স্থানীয় প্রশাসন দখলদারদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়নি বলে গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে আজ সংবাদ-এ বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

দেশে যেন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা, তাদের সম্পদ দখলের প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। গণমাধ্যমে নিয়মিতই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় স্থাপনা, ঘরবাড়ি ভাঙচুরের খবর ছাপা হয়। ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের সম্পদ আত্মসাতের অপচেষ্টা চলমান আছে। স্বাধীনতার এত বছর পরও তাদের জানমালের নিরাপত্তা নিয়ে সবসময় শঙ্কিত থাকতে হয়। স্বাধীনতার পক্ষের বা অসাম্প্রদায়িক শক্তি বলে নিজেদের দাবি করে যে রাজনৈতিক দল তাদের শাসন আমলেও এই শঙ্কা দূর হয়নি।

একটি উগ্র ধর্মীয় গোষ্ঠী বরাবরই প্রকাশ্যে সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প ছড়ায়। মসজিদ-মাদ্রাসা থেকে মাইকে ঘোষণা দিয়ে সাম্প্রদায়িক হামলা চালানোর নজির দেশে রয়েছে। এর পাশাপাশি একটি চক্র সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সম্পদ দিন-দুপুরেই দখল করে নেয়, রাতের আঁধারের জন্য তারা অপেক্ষা করে না। প্রশাসনের নাকের ডগার ওপর দিয়ে জনসম্মুখেই হামলা আর দখলের মচ্ছব চলে। সুচতুর এই চক্র কখনও কখনও হামলা-দখলের মচ্ছবে অংশ নিতে স্থানীয় বাসিন্দাদেরকেও উসকানি দেয়।

সাম্প্রদায়িক হামলা বন্ধে সরকারগুলো কার্যকর কোন ব্যবস্থা নেয় না বলেই দেশে হিন্দু সম্প্রদায় বারবার নানা ভাবে নানা মাত্রায় হামলার শিকার হচ্ছে। আশ্বাস আর তদন্তের মধ্যে সাম্প্রদায়িক হামলা বা সহিংসতার ঘটনার বিচার আটকে থাকে। বাস্তবে বিচার হয় না বললেই চলে। বিচারহীনতার অপসংস্কৃতি আর রাজনৈতিক আশ্রয়-প্রশয়ের কারণে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর বাড় বাড়ন্ত হয়েছে।

সিরাজদিখানে কারা হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা চালিয়েছে তাদের সম্পদ দখলের অপচেষ্টা করছে সেটা অজানা নয়। জরুরি হচ্ছে তাদের গ্রেপ্তার করে উপযুক্ত শাস্তি দেয়া। শাস্তি দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করা গেলে সাম্প্রদায়িক হামলা বন্ধ হতে পারে। সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীকে মদদ দেয়া বা রাজনৈতিক প্রশ্রয় দেয়া বন্ধ করাও জরুরি। স্থানীয় প্রশাসন হিন্দু পরিবারটির জমি দখলের অপচেষ্টা রুখতে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়নি বলে যে অভিযোগ উঠেছে সেটাও খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

back to top