alt

জাতীয়

*৫০ লাখ পরিবারকে ১৫ টাকা দরে দেড় লাখ টন চাল বিতরণ *৩০ স্থানে গরু ৬০০ ও খাসির মাংস ৯০০ টাকা কেজি বিক্রি

রমজানে নিত্যপণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখার আশ্বাস ৪ মন্ত্রি-প্রতিমন্ত্রীর ডিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন

*আঙ্গুর-খেজুরের পরিবর্তে বরই-পেয়ারা দিয়ে ইফতার করার পরামর্শ *কৃষকরা দাম পাচ্ছে তাই পেঁয়াজের দাম কমানো হচ্ছে না

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪

রমজানে নিত্যপণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখার আশ^াস দিয়েছেন মন্ত্রিসভার চার সদস্য। তারা গতকাল জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে ডিসিদের সঙ্গে পৃথক কার্যঅধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানিয়েছেন।

রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে চারদিনব্যাপী এ সম্মেলনের কার্যঅধিবেশন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সম্মেলনে ডিসিদের পাশাপাশি বিভাগীয় কমিশনাররাও ছিলেন। কার্যঅধিবেশনগুলিতে সভাপতিত্ব করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মাহবুব হোসেন।

৫০ লাখ পরিবারকে ১৫ টাকা কেজি দরে চাল:

ডিসিদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার সাংবাদিকদের বলেছেন, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় পবিত্র রমজান উপলক্ষে আগামী ১০ মার্চের মধ্যে ৫০ লাখ পরিবারকে ১৫ টাকা দরে দেড় লাখ টন চাল বিতরণ করা হবে।

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি ১ মার্চ থেকেই ‘লিফটিং’ (ডিলারদের চাল উঠাতে) করতে বলা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘১ থেকে ২০ মার্চ পর্যন্ত আমাদের একটি সিদ্ধান্ত ছিল। সেটি কমিয়ে ১০ মার্চের মধ্যে ৫০ লাখ পরিবারকে দেড় লাখ টন খাদ্য বিতরণ শেষ করা হবে।’

এই উদ্যোগে বাজারে স্বস্তি ফিরবে কিনা এমন প্রশ্নে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দেড় লাখ টন চাল যদি বাজারে ১৫ টাকা দরে যায়, তাহলে ৫০ লাখ পরিবারকে তো আর বাজার থেকে চাল কিনতে হবে না। এতে স্বস্তি আসবে বলে মনে করি।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, মজুদবিরোধী অভিযান ‘অনেকাংশেই সফল’ হয়েছে। ডিসিদের কাছে আবেদন জানিয়েছি, নির্দেশনা দিয়েছি যাতে বস্তার গায়ে জাতের নাম লেখা নিয়ে যে পরিবর্তন এসেছে, সেটি বাস্তবায়নে সার্বিক সহযোগিতা করে।

৩০ ট্রাকে মাংস ও ডিম বিক্রি:

ডিসিদের সঙ্গে কার্যঅধিবেশন শেষে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী আব্দুর রহমান সাংবাদিকদের বলেছেন, রমজান মাসে রাজধানীর ৩০টি স্থানে ট্রাকে করে কম দামে মাংস ও ডিম বিক্রি করা হবে। ১০ মার্চ থেকে ঈদ পর্যন্ত রাজধানীর ৩০টি স্থানে ট্রাকে করে গরুর মাংস ৬০০ ও খাসির মাংস ৯০০ টাকা কেজি হিসেবে বিক্রি করা হবে।

একই সঙ্গে ড্রেসিং করা মুরগির (ব্রয়লার) মাংস প্রতি কেজি ২৮০ টাকা এবং প্রতি পিস ডিম ১০ টাকা ৫০ পয়সা করে বিক্রি করা হবে জানান মন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘ব্যবসায়ীদের কাছে অনুরোধ, আপনারা মানুষকে কষ্ট দিয়ে অধিক মুনাফা লাভের চেষ্টা করবেন না।’

আপাতত ঢাকায় ৩০টি স্থানে মাংস ও ডিম বিক্রি করা হবে জানিয়ে আব্দুর রহমান বলেন, ‘পর্যায়ক্রমে সামর্থ্য অনুসারে আরও বেশি জায়গায় প্রসারিত করার চেষ্টা করব।

কী কী পরিকল্পনা ডিসিদের জানানো হয়েছে-জানতে চাইলে মৎস্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের চ্যালেঞ্জগুলোর মধ্যে আছে, কারেন্টের জাল ব্যবহার। এটা দিয়ে যত্রতত্র মাছ ধরা হয়। যে মাছ থেকে মাছের বিস্তার হবে, সেটাও কারেন্ট জাল দিয়ে ধরা হয়। এ বিষয়টা আমরা ডিসিদের বলেছি। মাইকিং করে জালগুলো তুলে ফেলতে হবে। না করলে জেলা প্রশাসকদের নেতৃত্ব আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে জালগুলো আটক করতে হবে।’

পণ্যের দাম বাড়ার সুযোগ নেই:

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ডিসিদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু।

দেশে পণ্যের ‘যথেষ্ট’ সরবরাহ আছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘রমজান উপলক্ষে এবার কোনো পণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার সুযোগ নেই। আমাদের প্রত্যেকটি বড় তেল উৎপাদনকারী ফ্যাক্টরি ভোক্তা অধিদপ্তর থেকে পরিদর্শন করা হয়েছে। তেলের মূল্য ঠিকভাবে লেখা হচ্ছে কিনা সেটি পরিদর্শন শেষ।’

ডিসিদের বাজার মনিটরিং করতে বলা হয়েছে জানিয়ে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘পরিবহন ব্যবস্থা যাতে শৃঙ্খলিত থাকে এবং সরবরাহে কোথাও যাতে প্রতিবন্ধকতা না হয়, সেই বিষয়ে পরামর্শ ও নির্দেশনা দিয়েছি।’

কৃষক দাম পাচ্ছে, তাই পেঁয়াজের দাম বেশি:

পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়া প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে আহসানুল হক টিটু বলেন, ‘কৃষকরা দাম পাচ্ছে, তাই দাম কমানো হচ্ছে না। কৃষক দাম পেলে আগামীতে আরও পেঁয়াজ উৎপাদন করবে।’

মৌসুমের সময় পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি ৩০-৪০ টাকা হয়, এ সময়ে দাম এত বেশি কেন জানতে চাইলে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কৃষক যাতে পেঁয়াজের দাম পায় সেদিকে জোর দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া বাজারে অন্যান্য দ্রব্যের দাম বেড়েছে, তাই পেঁয়াজের দামও বেড়েছে। এবার হাটগুলোতে ৮০-১০০ টাকার মধ্যে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে, যা গত বছর অর্ধেক ছিল, এটা ঠিক।’

আঙ্গুর-খেজুরের পরিবর্তে বরই-পেয়ারা দিয়ে ইফতার করার পরামর্শ:

আঙ্গুর, খেজুরের পরিবর্তে বরই ও পেয়ারা দিয়ে ইফতার করার পরামর্শ দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন।

ডিসিদের সঙ্গে পৃথক কার্যঅধিবেশন শেষে শিল্পমন্ত্রী সাংবাদিকদের আরো বলেন, ‘আপেল লাগে কেন? আঙুর লাগে কেন? আর কিছু নেই আমাদের। ইফতারে বরই খান, পেয়ারা খান, আমাদের যা আছে সেগুলো ব্যবহার করুন। ইফতারের প্লেট সেভাবে সাজান।’

অনেক পণ্য আমদানি করতে হয়- এজন্য দাম বেশি পরে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের অভাব-অভিযোগ আছে। প্রধানমন্ত্রী বলে দিয়েছেন ইফতার পার্টি হবে না। আপনারা যেমন পরিবারের সমস্যাগুলো দেখেন, সেভাবে দেশের সমস্যাগুলো নিজেদের মনে করে দেখতে হবে।’

দেশের পণ্যগুলো বিশ্বমানের করতে হবে মন্তব্য করে শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘মন্ত্রণালয় কাজ করছে। জেলা প্রশাসকেরা গুরুত্বের সঙ্গে কাজ করছেন। প্রতিটি এলাকার জেলা প্রশাসকদের গুরুত্বপূর্ণ পণ্যগুলো জিআই করার জন্য আবেদন করতে বলা হয়েছে। তারা আন্তরিকভাবে কাজ করছেন।’

অর্থনীতি নিয়ে অনিশ্চয়তা নেই-দাবি অর্থমন্ত্রীর:

ডিসিদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, অর্থনৈতিক সবগুলো সূচক বাড়ছে। কাজেই এখানে ‘অনিশ্চয়তা ও হতাশার’ কিছু নেই।

তিনি বলেন, ‘আমি একটি বিষয় তাদের (ডিসি) বলেছি। এ পর্যন্ত স্বাধীন বাংলাদেশের ইতিহাসে আমরা আজ সর্বোচ্চ স্থানে এসে দাঁড়িয়েছি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। আমাদের যে সূচকগুলো আছে উন্নয়নের, সেগুলো বাড়ছে।’

ফেব্রুয়ারি মাসে ২১৬ মিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স এসেছে জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সবগুলো সূচকই-তো বাড়ছে। কাজেই আমদের এখানে অনিশ্চয়তার কিছু নেই, হতাশারও কিছু নেই। এগুলো নিয়ে মিথ্যা প্রোপাগান্ডা ছড়ানো হচ্ছে।’

মানুষের মূল নজর মূল্যস্ফীতিতে- সে ব্যাপারে ডিসিদের কোনো নির্দেশনা দিয়েছেন কি না জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘খালি ইনফ্লেশনটাই কনসার্ন হয়ে গেলো! আর কিছু না? এক কোটি লোককে কার্ড দেয়া হয়েছে, তারা সস্তা দামে পাচ্ছে।’

এছাড়াও পৃথক কার্যঅধিবেশনে গতকাল বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক, পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক, নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান ডিসিদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

ছবি

সোমালিয়ার জলদস্যুদের কাছ থেকে এমভি আবদুল্লাহর ২৩ নাবিক মুক্ত

ছবি

আজ পহেলা বৈশাখ,নতুন বছর বরণের দিন,বাঙালির উৎসবের দিন

ছবি

চালের বস্তায় যেসব লেখা বাধ্যতামূলক করল সরকার

ছবি

নাবিকরা শিগগিরই মুক্তি পাবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

পহেলা বৈশাখে নারীরা হেনস্তার শিকার হলে জানাবেন: র‌্যাব ডিজি

ছবি

নববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচছা, ‘সুন্দর ভবিষ্যৎ বিনির্মাণে’ একযোগে কাজ করার আহবান

ছবি

বৈশাখের শুরুতে বৃষ্টির আভাস, বাড়বে গরম

ছবি

সদরঘাটে দুর্ঘটনা: দুই লঞ্চের আটক ৫

ছবি

সদরঘাটে দুর্ঘটনায় ২ লঞ্চের রুট পারমিট বাতিলসহ তদন্তে কমিটি গঠন

ছবি

ঢাকা মিরপুর চিড়িয়াখানায় হাতির আছাড়ে নিহত কিশোর

ছবি

পরিদর্শনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী: ছুটিতে হাসপাতাল কেমন চলছে?

ছবি

দেশ থেকে অপরাজনীতি চিরতরে দূর হওয়া প্রযোজন : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

আওয়ামী লীগ নিতে নয় মানুষকে দিতে এসেছে:

ঢকায় বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত

ছবি

আজ ঈদুল ফিতর, মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব

ছবি

প্রধানমন্ত্রী ঈদের দিন গণভবনে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন

ছবি

রাষ্ট্রপতি ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন

ছবি

প্রধানমন্ত্রী দেশবাসী ও মুসলিম উম্মাহকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন

ছবি

জলদস্যুদের হাতে জিম্মি নাবিক ও জাহাজ উদ্ধারে অনেক অগ্রগতি হয়েছে :পররাষ্ট্রমন্ত্রী

উপেক্ষিত, তবুও উন্নয়নে অন্যদের পাশে থাকতে চান তারা

ছবি

“বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর সাথে থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ”

ছবি

বাংলাদেশে ঈদ বৃহস্পতিবার

ছবি

চিকিৎসকদের রোগী দেখার সংখ্যা নির্দিষ্ট করে দিয়ে স্বাস্থ্যসেবা ও সুরক্ষা আইন করা হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

জাতীয় লজিস্টিক নীতির খসড়া অনুমোদন

বান্দরবানে যৌথ বাহিনীর চিরুনি অভিযানে গ্রেপ্তার ৫৩

ছবি

ব্রাজিলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী: জি-২০ আলোচনায় বাংলাদেশের প্রশংসায়

ছবি

সৌদি আরবে ঈদ কবে জানালো কর্তৃপক্ষ

ছবি

দুই মন্ত্রণালয়কে কিশোর গ্যাং’ সংশোধনে উপর জোর দেওয়া নির্দেশ: প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

বাংলাদেশের সঙ্গে ব্রাজিলের বাণিজ্য বাড়ানোর ব্যাপক সুযোগ রয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

বায়তুল মোকাররমে পাঁচ জামাত জাতীয় ঈদগাহে সাড়ে ৮টায়

ছবি

দেশে ঈদ কবে মঙ্গলবার জানাবে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি

ছবি

ব্রাজিল বাংলাদেশ থেকে সরাসরি তৈরি পোশাক আমদানি করতে পারে : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

পদ্মা সেতুর প্রভাব : যাত্রী নেই গাবতলীতে

ছবি

রুমা ও থানচির নিরাপত্তায় যুক্ত হলো ৪টি সাঁজোয়া যান এপিসি

ছবি

রেলের যাত্রী ভোগান্তির জন্য যদি একজন দালালও পাই কঠোর ব্যবস্থা

ছবি

লিবিয়ায় অপহৃত চার যুবককে ফেরত চায় স্বজনরা

tab

জাতীয়

*৫০ লাখ পরিবারকে ১৫ টাকা দরে দেড় লাখ টন চাল বিতরণ *৩০ স্থানে গরু ৬০০ ও খাসির মাংস ৯০০ টাকা কেজি বিক্রি

রমজানে নিত্যপণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখার আশ্বাস ৪ মন্ত্রি-প্রতিমন্ত্রীর ডিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন

*আঙ্গুর-খেজুরের পরিবর্তে বরই-পেয়ারা দিয়ে ইফতার করার পরামর্শ *কৃষকরা দাম পাচ্ছে তাই পেঁয়াজের দাম কমানো হচ্ছে না

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪

রমজানে নিত্যপণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখার আশ^াস দিয়েছেন মন্ত্রিসভার চার সদস্য। তারা গতকাল জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে ডিসিদের সঙ্গে পৃথক কার্যঅধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানিয়েছেন।

রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে চারদিনব্যাপী এ সম্মেলনের কার্যঅধিবেশন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সম্মেলনে ডিসিদের পাশাপাশি বিভাগীয় কমিশনাররাও ছিলেন। কার্যঅধিবেশনগুলিতে সভাপতিত্ব করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মাহবুব হোসেন।

৫০ লাখ পরিবারকে ১৫ টাকা কেজি দরে চাল:

ডিসিদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার সাংবাদিকদের বলেছেন, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় পবিত্র রমজান উপলক্ষে আগামী ১০ মার্চের মধ্যে ৫০ লাখ পরিবারকে ১৫ টাকা দরে দেড় লাখ টন চাল বিতরণ করা হবে।

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি ১ মার্চ থেকেই ‘লিফটিং’ (ডিলারদের চাল উঠাতে) করতে বলা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘১ থেকে ২০ মার্চ পর্যন্ত আমাদের একটি সিদ্ধান্ত ছিল। সেটি কমিয়ে ১০ মার্চের মধ্যে ৫০ লাখ পরিবারকে দেড় লাখ টন খাদ্য বিতরণ শেষ করা হবে।’

এই উদ্যোগে বাজারে স্বস্তি ফিরবে কিনা এমন প্রশ্নে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দেড় লাখ টন চাল যদি বাজারে ১৫ টাকা দরে যায়, তাহলে ৫০ লাখ পরিবারকে তো আর বাজার থেকে চাল কিনতে হবে না। এতে স্বস্তি আসবে বলে মনে করি।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, মজুদবিরোধী অভিযান ‘অনেকাংশেই সফল’ হয়েছে। ডিসিদের কাছে আবেদন জানিয়েছি, নির্দেশনা দিয়েছি যাতে বস্তার গায়ে জাতের নাম লেখা নিয়ে যে পরিবর্তন এসেছে, সেটি বাস্তবায়নে সার্বিক সহযোগিতা করে।

৩০ ট্রাকে মাংস ও ডিম বিক্রি:

ডিসিদের সঙ্গে কার্যঅধিবেশন শেষে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী আব্দুর রহমান সাংবাদিকদের বলেছেন, রমজান মাসে রাজধানীর ৩০টি স্থানে ট্রাকে করে কম দামে মাংস ও ডিম বিক্রি করা হবে। ১০ মার্চ থেকে ঈদ পর্যন্ত রাজধানীর ৩০টি স্থানে ট্রাকে করে গরুর মাংস ৬০০ ও খাসির মাংস ৯০০ টাকা কেজি হিসেবে বিক্রি করা হবে।

একই সঙ্গে ড্রেসিং করা মুরগির (ব্রয়লার) মাংস প্রতি কেজি ২৮০ টাকা এবং প্রতি পিস ডিম ১০ টাকা ৫০ পয়সা করে বিক্রি করা হবে জানান মন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘ব্যবসায়ীদের কাছে অনুরোধ, আপনারা মানুষকে কষ্ট দিয়ে অধিক মুনাফা লাভের চেষ্টা করবেন না।’

আপাতত ঢাকায় ৩০টি স্থানে মাংস ও ডিম বিক্রি করা হবে জানিয়ে আব্দুর রহমান বলেন, ‘পর্যায়ক্রমে সামর্থ্য অনুসারে আরও বেশি জায়গায় প্রসারিত করার চেষ্টা করব।

কী কী পরিকল্পনা ডিসিদের জানানো হয়েছে-জানতে চাইলে মৎস্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের চ্যালেঞ্জগুলোর মধ্যে আছে, কারেন্টের জাল ব্যবহার। এটা দিয়ে যত্রতত্র মাছ ধরা হয়। যে মাছ থেকে মাছের বিস্তার হবে, সেটাও কারেন্ট জাল দিয়ে ধরা হয়। এ বিষয়টা আমরা ডিসিদের বলেছি। মাইকিং করে জালগুলো তুলে ফেলতে হবে। না করলে জেলা প্রশাসকদের নেতৃত্ব আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে জালগুলো আটক করতে হবে।’

পণ্যের দাম বাড়ার সুযোগ নেই:

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ডিসিদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু।

দেশে পণ্যের ‘যথেষ্ট’ সরবরাহ আছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘রমজান উপলক্ষে এবার কোনো পণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার সুযোগ নেই। আমাদের প্রত্যেকটি বড় তেল উৎপাদনকারী ফ্যাক্টরি ভোক্তা অধিদপ্তর থেকে পরিদর্শন করা হয়েছে। তেলের মূল্য ঠিকভাবে লেখা হচ্ছে কিনা সেটি পরিদর্শন শেষ।’

ডিসিদের বাজার মনিটরিং করতে বলা হয়েছে জানিয়ে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘পরিবহন ব্যবস্থা যাতে শৃঙ্খলিত থাকে এবং সরবরাহে কোথাও যাতে প্রতিবন্ধকতা না হয়, সেই বিষয়ে পরামর্শ ও নির্দেশনা দিয়েছি।’

কৃষক দাম পাচ্ছে, তাই পেঁয়াজের দাম বেশি:

পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়া প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে আহসানুল হক টিটু বলেন, ‘কৃষকরা দাম পাচ্ছে, তাই দাম কমানো হচ্ছে না। কৃষক দাম পেলে আগামীতে আরও পেঁয়াজ উৎপাদন করবে।’

মৌসুমের সময় পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি ৩০-৪০ টাকা হয়, এ সময়ে দাম এত বেশি কেন জানতে চাইলে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কৃষক যাতে পেঁয়াজের দাম পায় সেদিকে জোর দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া বাজারে অন্যান্য দ্রব্যের দাম বেড়েছে, তাই পেঁয়াজের দামও বেড়েছে। এবার হাটগুলোতে ৮০-১০০ টাকার মধ্যে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে, যা গত বছর অর্ধেক ছিল, এটা ঠিক।’

আঙ্গুর-খেজুরের পরিবর্তে বরই-পেয়ারা দিয়ে ইফতার করার পরামর্শ:

আঙ্গুর, খেজুরের পরিবর্তে বরই ও পেয়ারা দিয়ে ইফতার করার পরামর্শ দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন।

ডিসিদের সঙ্গে পৃথক কার্যঅধিবেশন শেষে শিল্পমন্ত্রী সাংবাদিকদের আরো বলেন, ‘আপেল লাগে কেন? আঙুর লাগে কেন? আর কিছু নেই আমাদের। ইফতারে বরই খান, পেয়ারা খান, আমাদের যা আছে সেগুলো ব্যবহার করুন। ইফতারের প্লেট সেভাবে সাজান।’

অনেক পণ্য আমদানি করতে হয়- এজন্য দাম বেশি পরে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের অভাব-অভিযোগ আছে। প্রধানমন্ত্রী বলে দিয়েছেন ইফতার পার্টি হবে না। আপনারা যেমন পরিবারের সমস্যাগুলো দেখেন, সেভাবে দেশের সমস্যাগুলো নিজেদের মনে করে দেখতে হবে।’

দেশের পণ্যগুলো বিশ্বমানের করতে হবে মন্তব্য করে শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘মন্ত্রণালয় কাজ করছে। জেলা প্রশাসকেরা গুরুত্বের সঙ্গে কাজ করছেন। প্রতিটি এলাকার জেলা প্রশাসকদের গুরুত্বপূর্ণ পণ্যগুলো জিআই করার জন্য আবেদন করতে বলা হয়েছে। তারা আন্তরিকভাবে কাজ করছেন।’

অর্থনীতি নিয়ে অনিশ্চয়তা নেই-দাবি অর্থমন্ত্রীর:

ডিসিদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, অর্থনৈতিক সবগুলো সূচক বাড়ছে। কাজেই এখানে ‘অনিশ্চয়তা ও হতাশার’ কিছু নেই।

তিনি বলেন, ‘আমি একটি বিষয় তাদের (ডিসি) বলেছি। এ পর্যন্ত স্বাধীন বাংলাদেশের ইতিহাসে আমরা আজ সর্বোচ্চ স্থানে এসে দাঁড়িয়েছি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। আমাদের যে সূচকগুলো আছে উন্নয়নের, সেগুলো বাড়ছে।’

ফেব্রুয়ারি মাসে ২১৬ মিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স এসেছে জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সবগুলো সূচকই-তো বাড়ছে। কাজেই আমদের এখানে অনিশ্চয়তার কিছু নেই, হতাশারও কিছু নেই। এগুলো নিয়ে মিথ্যা প্রোপাগান্ডা ছড়ানো হচ্ছে।’

মানুষের মূল নজর মূল্যস্ফীতিতে- সে ব্যাপারে ডিসিদের কোনো নির্দেশনা দিয়েছেন কি না জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘খালি ইনফ্লেশনটাই কনসার্ন হয়ে গেলো! আর কিছু না? এক কোটি লোককে কার্ড দেয়া হয়েছে, তারা সস্তা দামে পাচ্ছে।’

এছাড়াও পৃথক কার্যঅধিবেশনে গতকাল বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক, পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক, নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান ডিসিদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

back to top