alt

সম্পাদকীয়

নারী ফায়ার ফাইটার : সমাজের সব স্তরে নারী-পুরুষের সমান অধিকার নিশ্চিত করতে হবে

: মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩

ফায়ার সার্ভিসে ফায়ার ফাইটার হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ১৫ জন নারী। দেশের ইতিহাসে তারাই প্রথমবারের মতো ফায়ার ফাইটার পদে যোগ দিয়েছেন। এ নিয়ে সংবাদ-এ বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, লিঙ্গ-বৈষম্য দূর করতে প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুযায়ী সম্প্রতি ফায়ারম্যান পদের নাম পরিবর্তন করা হয়। উক্ত পদের নতুন নামকরণ করা হয় ফায়ার ফাইটার। এই পরিবর্তনের কারণে উক্ত পদে পুরুষদের পাশাপাশি নারীও প্রার্থী হওয়ার সুযোগ পান। আগে কেবল পুরুষরাই আবেদন করতে পারতেন।

লক্ষণীয় বিষয় হচ্ছে, ফায়ার ফাইটার পদে নিয়োগ পাওয়ার জন্য আবেদন করেছিলেন ২ হাজার ৭০৭ জন নারী। এ থেকে বোঝা যায়, দেশের নারীরা যে কোনো চ্যালেঞ্জ নেয়ার জন্য প্রস্তুত। বরং দেশের অনেক খাতই নারীকে সুযোগ করে দেয়ার জন্য যথেষ্ট প্রস্তুত নয়। ফায়ার সার্ভিস যে নারীদের ফায়ার ফাইটার হিসেবে যোগ দেয়ার পথে বাধা দূর করেছে সেটাকে আমরা সাধুবাদ জানাই। যদিও আরও আগেই এ পদক্ষেপ নেয়া দরকার ছিল।

জানা গেছে, বর্তমানে ফায়ার সার্ভিসে প্রায় সাড়ে ১৪ হাজার কর্মী রয়েছেন। এর মধ্যে ফায়ার ফাইটারের সংখ্যা প্রায় ৮ হাজার। সেখানে মাত্র ১৫ জন নারীকে ফায়ার ফাইটার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হলো। ভবিষ্যতে আরও বেশিসংখ্যক নারীকে ফায়ার সার্ভিসে কাজ করার সুযোগ দেয়া হবে- সেই প্রত্যাশা করি।

যে ১৫ জনকে ফায়ার ফাইটার হিসেবে চূড়ান্ত নিয়োগ দেয়া হয়েছে তারা সবাই যোগ্যতা প্রমাণ করেই নিয়োগ পেয়েছেন। আবেদনকারীর মধ্যে প্রাথমিক যাচাই-বাছাই, শারীরিক যোগ্যতা ও মেডিকেল পরীক্ষা, লিখিত পরীক্ষা ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে তাদের চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত করে নিয়োগপত্র জারি করা হয়েছে। এতে প্রমাণ হয় যে, বৈষম্যমুক্ত সমাজ ও রাষ্ট্রব্যস্থা গড়ে তোলা গেলে নারীরা আপন যোগ্যতার স্বাক্ষর রাখতে পারেন।

নারীরাও পুরুষদের মতোই যেকোনো ক্ষেত্রে সফলতা পেতে পারে- এ বিশ্বাসটি সবার থাকা দরকার। সমাজের সব স্তরে নারী-পুরুষের সমান অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। লিঙ্গ-বৈষম্য দূর করতে সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন আনা প্রয়োজন। নারী-পুরুষের সমতার মানে হচ্ছে জীবনের সর্বক্ষেত্রে নারী-পুরুষের সমান অংশগ্রহণ থাকবে, সমান সুযোগ-সুবিধা থাকবে এবং সমান অধিকার ভোগ করবে। এটা নিশ্চিত করতে হবে রাষ্ট্রকেই। ঘরে-বাইরে সব জায়গায় নারীদের সমান মর্যাদা দেয়ার মাধ্যমে তাদের এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দিতে হবে।

দূষণ রোধে সমন্বিত পরিকল্পনা থাকতে হবে

ভূমিকম্প : ভবিষ্যতের বিপদ মোকাবিলায় টেকসই পরিকল্পনা জরুরি

এইডস প্রতিরোধে সমন্বিত প্রয়াস চালাতে হবে

টেকসই শান্তির জন্য পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন জরুরি

দেওয়ানগঞ্জে যমুনার বালু তোলা বন্ধ হোক

নামমাত্র মূল্যে গাছ বিক্রির অভিযোগ আমলে নিন

শরণখোলা হাসপাতালে লোকবল নিয়োগে ব্যবস্থা নিন

নিষিদ্ধ জাল দিয়ে মাছ শিকার বন্ধ করুন

কৃষিঋণ বিতরণে অনিয়ম বন্ধে ব্যবস্থা নিন

গোয়ালন্দে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন বন্ধ করার অভিযোগ আমলে নিন

বনভূমি দখল বন্ধে ব্যবস্থা নিন

নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে

উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের অভিনন্দন

ছবি

মার্কেজের নিঃসঙ্গতা ও সংহতি

ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে ট্রমা সেন্টার দ্রুত চালু করুন

বিষ দিয়ে মাছ ধরা কঠোরভাবে বন্ধ করুন

আর্সেনিক দূষণ মোকাবিলায় কার্যকর ব্যবস্থা নিন

তাজরীন ট্র্যাজেডি : বিচার পেতে আর কত অপেক্ষা

সওজের জমি দখল করে মসজিদ নির্মাণের অভিযোগ আমলে নিন

অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন

কুতুবপুর উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্র চালু করুন

পাহাড় কাটা বন্ধে ব্যবস্থা নিন

শিক্ষা আইন প্রণয়ন করা গেল না কেন

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আবার রক্ত ঝরল

বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তা চাই

মদনে বর্ণি নদীর সেতুর কাজে বিলম্ব কেন

খাল দখলদারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে

কুমারখালীর বিল দখলমুক্ত করুন

বন্যপ্রাণীদের খাবারের সংকট

পৌর নাগরিকদের দুর্ভোগের অবসান ঘটাতে চাই আন্তরিকতা

ডেঙ্গুর প্রকোপ কেন কমছে না

ভেজাল প্যারাসিটামলে শিশুমৃত্যু ও আদালতের নির্দেশনা

এসএসসির ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি আদায় বন্ধে ব্যবস্থা নিন

টিআরএম প্রকল্প : ক্ষতিপূরণের টাকা কবে মিলবে

সমস্যা-সংকটে কৃষকদের পাশে থাকতে হবে

খাল ব্যবস্থাপনায় আধুনিকায়ন ঘটাতে হবে

tab

সম্পাদকীয়

নারী ফায়ার ফাইটার : সমাজের সব স্তরে নারী-পুরুষের সমান অধিকার নিশ্চিত করতে হবে

মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩

ফায়ার সার্ভিসে ফায়ার ফাইটার হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ১৫ জন নারী। দেশের ইতিহাসে তারাই প্রথমবারের মতো ফায়ার ফাইটার পদে যোগ দিয়েছেন। এ নিয়ে সংবাদ-এ বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, লিঙ্গ-বৈষম্য দূর করতে প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুযায়ী সম্প্রতি ফায়ারম্যান পদের নাম পরিবর্তন করা হয়। উক্ত পদের নতুন নামকরণ করা হয় ফায়ার ফাইটার। এই পরিবর্তনের কারণে উক্ত পদে পুরুষদের পাশাপাশি নারীও প্রার্থী হওয়ার সুযোগ পান। আগে কেবল পুরুষরাই আবেদন করতে পারতেন।

লক্ষণীয় বিষয় হচ্ছে, ফায়ার ফাইটার পদে নিয়োগ পাওয়ার জন্য আবেদন করেছিলেন ২ হাজার ৭০৭ জন নারী। এ থেকে বোঝা যায়, দেশের নারীরা যে কোনো চ্যালেঞ্জ নেয়ার জন্য প্রস্তুত। বরং দেশের অনেক খাতই নারীকে সুযোগ করে দেয়ার জন্য যথেষ্ট প্রস্তুত নয়। ফায়ার সার্ভিস যে নারীদের ফায়ার ফাইটার হিসেবে যোগ দেয়ার পথে বাধা দূর করেছে সেটাকে আমরা সাধুবাদ জানাই। যদিও আরও আগেই এ পদক্ষেপ নেয়া দরকার ছিল।

জানা গেছে, বর্তমানে ফায়ার সার্ভিসে প্রায় সাড়ে ১৪ হাজার কর্মী রয়েছেন। এর মধ্যে ফায়ার ফাইটারের সংখ্যা প্রায় ৮ হাজার। সেখানে মাত্র ১৫ জন নারীকে ফায়ার ফাইটার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হলো। ভবিষ্যতে আরও বেশিসংখ্যক নারীকে ফায়ার সার্ভিসে কাজ করার সুযোগ দেয়া হবে- সেই প্রত্যাশা করি।

যে ১৫ জনকে ফায়ার ফাইটার হিসেবে চূড়ান্ত নিয়োগ দেয়া হয়েছে তারা সবাই যোগ্যতা প্রমাণ করেই নিয়োগ পেয়েছেন। আবেদনকারীর মধ্যে প্রাথমিক যাচাই-বাছাই, শারীরিক যোগ্যতা ও মেডিকেল পরীক্ষা, লিখিত পরীক্ষা ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে তাদের চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত করে নিয়োগপত্র জারি করা হয়েছে। এতে প্রমাণ হয় যে, বৈষম্যমুক্ত সমাজ ও রাষ্ট্রব্যস্থা গড়ে তোলা গেলে নারীরা আপন যোগ্যতার স্বাক্ষর রাখতে পারেন।

নারীরাও পুরুষদের মতোই যেকোনো ক্ষেত্রে সফলতা পেতে পারে- এ বিশ্বাসটি সবার থাকা দরকার। সমাজের সব স্তরে নারী-পুরুষের সমান অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। লিঙ্গ-বৈষম্য দূর করতে সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন আনা প্রয়োজন। নারী-পুরুষের সমতার মানে হচ্ছে জীবনের সর্বক্ষেত্রে নারী-পুরুষের সমান অংশগ্রহণ থাকবে, সমান সুযোগ-সুবিধা থাকবে এবং সমান অধিকার ভোগ করবে। এটা নিশ্চিত করতে হবে রাষ্ট্রকেই। ঘরে-বাইরে সব জায়গায় নারীদের সমান মর্যাদা দেয়ার মাধ্যমে তাদের এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দিতে হবে।

back to top