alt

সম্পাদকীয়

মডেল মসজিদ প্রসঙ্গে

: শনিবার, ১২ জুন ২০২১

আট হাজার ৭২২ কোটি টাকা ব্যয়ে সারাদেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ধর্মনিরপেক্ষ একটি রাষ্ট্রের পক্ষে বিশেষ একটি ধর্মীয় সম্প্রদায়ের জন্য প্রার্থনালয় নির্মাণ করা সঙ্গত কিনা- এ বিতর্কের মধ্যেই প্রকল্পের কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৫০টি মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী গত বৃহস্পতিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সেগুলো উদ্বোধন করেছেন।

প্রকল্প পরিচালক মো. নজিবর রহমান গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘বিশ্বে কোন মুসলিম শাসকের একসঙ্গে ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণ এই প্রথম।’ একসঙ্গে ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণের কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, ইসলামের ভ্রাতৃত্ব ও মূল্যবোধের প্রচার এবং উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ইসলামের ‘প্রকৃত মর্মবাণী’ প্রচার করার লক্ষ্যে সরকার এ প্রকল্প নিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেছেন, মডেল মসজিদ জঙ্গিবাদ ও নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে ভূমিকা রাখবে। মসজিদগুলো প্রধানমন্ত্রীর আশাবাদ অনুযায়ী যথাযথ ভূমিকা রাখতে পারে কিনা সেটা সময়ই বলে দেবে। আমরা শুধু বলতে চাই, যে লক্ষ্যের কথা বলে মসজিদ নির্মাণ করা হয়েছে সেই লক্ষ্য অর্জনে জোরালো মনিটরিং থাকতে হবে। জঙ্গিবাদ, নারীর প্রতি সহিংসতা, সাম্প্রদায়িকতা, অজ্ঞতা ও কুসংস্কার রোধে বিদ্যমান মসজিদগুলো কী ভূমিকা রাখছে সেটাও নজরদারির মধ্যে আনা জরুরি।

একটি উগ্র ধর্মীয় গোষ্ঠী ইসলামের ‘প্রকৃত মর্মবাণী’ উপেক্ষা করে বরাবরই প্রকাশ্যে বাঙালি সংস্কৃতি, ধর্মনিরপেক্ষতা, অসাম্প্রদায়িকতা, নারীর স্বাধীনতার বিরুদ্ধে নানা মতবাদ প্রচার করছে। মসজিদ-মাদ্রাসার মতো ধর্মীয় স্থাপনার মাইকে ঘোষণা দিয়ে সাম্প্রদায়িক হামলা চালানো, ফতোয়া জারি করা, গুজব রটানোর নজির দেশে রয়েছে। উগ্র বা সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী যেন মডেল মসজিদসহ দেশের কোন মসজিদ-মাদ্রাসার অপব্যবহার করতে না পারে সে বিষয়ে সজাগ থাকতে হবে।

হুমকির মুখে থাকা বাঘ সুন্দরবনকে বাঁচাবে কী করে

পাহাড় ধসে মৃত্যু প্রতিরোধে স্থায়ী পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করুন

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে সরকারের অঙ্গীকারের বাস্তবায়ন চাই

ডেঙ্গু প্রতিরোধে চাই সম্মিলিত প্রচেষ্টা

পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যু প্রসঙ্গে

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন কার নিরাপত্তা দিচ্ছে?

সেতু নির্মাণের নামে জনগণের অর্থের অপচয় বন্ধ করতে হবে

আয় বৈষম্য কমানোর পথ খুঁজতে হবে

নদী খননে অনিয়ম কাম্য নয়

আইসিইউ স্থাপনে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ কেন মানা হয়নি

সরকারের ত্রাণ সহায়তায় অনিয়ম বন্ধ করতে হবে

পরিকল্পনাহীনতায় মানুষের ভোগান্তি

চাষিরা যেন আম উৎপাদনের সুফল পান

কঠোর বিধিনিষেধ প্রসঙ্গে

উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি : বড় মূল্য দিতে হতে পারে

অ্যান্টিবায়োটিকের যথেচ্ছ ব্যবহার বন্ধ করতে হবে

ডেঙ্গু প্রতিরোধে সম্মিলিত প্রচেষ্টা চালাতে হবে

কোরবানির পশুকেন্দ্রিক চাঁদাবাজি বন্ধ করুন

যথাসময়ে বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাস পরিশোধ করুন

দ্রুত সড়ক-মহাসড়ক সংস্কার করুন

কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের প্রশ্নবিদ্ধ ভূমিকা

হাসপাতালটি কেন সিআরবিতেই করতে হবে

অগ্নি দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ফায়ার সার্ভিসের সুপারিশ বাস্তবায়ন করা জরুরি

চালের দামে লাগাম টানুন

অনিয়ম-দুর্নীতির পুনরাবৃত্তি রোধ করতে হবে

বন্ধ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে ইউনিসেফের আহ্বান

নারায়ণগঞ্জে ‘জঙ্গি আস্তানা’ প্রসঙ্গে

স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে

গণটিকাদান শুরু : ‘হার্ড ইমিউনিটি’র লক্ষ্য অর্জন হবে কি

করোনাকালের বিষণ্ণতা: চাই সচেতনতা

ক্ষুধার মহামারী সম্পর্কে সতর্ক থাকতে হবে

জয় হোক মানবতার

শ্রমিক মৃত্যুর দায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এড়াতে পারে না

সাঁকো সংস্কার করে জনগণের দুর্ভোগ লাঘব করুন

করোনা-রোগীদের খাবারের বরাদ্দ যায় কোথায়

টিসিবিকে মান বজায় রেখে পণ্যের সরবরাহ বাড়াতে হবে

tab

সম্পাদকীয়

মডেল মসজিদ প্রসঙ্গে

শনিবার, ১২ জুন ২০২১

আট হাজার ৭২২ কোটি টাকা ব্যয়ে সারাদেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ধর্মনিরপেক্ষ একটি রাষ্ট্রের পক্ষে বিশেষ একটি ধর্মীয় সম্প্রদায়ের জন্য প্রার্থনালয় নির্মাণ করা সঙ্গত কিনা- এ বিতর্কের মধ্যেই প্রকল্পের কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৫০টি মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী গত বৃহস্পতিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সেগুলো উদ্বোধন করেছেন।

প্রকল্প পরিচালক মো. নজিবর রহমান গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘বিশ্বে কোন মুসলিম শাসকের একসঙ্গে ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণ এই প্রথম।’ একসঙ্গে ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণের কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, ইসলামের ভ্রাতৃত্ব ও মূল্যবোধের প্রচার এবং উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ইসলামের ‘প্রকৃত মর্মবাণী’ প্রচার করার লক্ষ্যে সরকার এ প্রকল্প নিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেছেন, মডেল মসজিদ জঙ্গিবাদ ও নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে ভূমিকা রাখবে। মসজিদগুলো প্রধানমন্ত্রীর আশাবাদ অনুযায়ী যথাযথ ভূমিকা রাখতে পারে কিনা সেটা সময়ই বলে দেবে। আমরা শুধু বলতে চাই, যে লক্ষ্যের কথা বলে মসজিদ নির্মাণ করা হয়েছে সেই লক্ষ্য অর্জনে জোরালো মনিটরিং থাকতে হবে। জঙ্গিবাদ, নারীর প্রতি সহিংসতা, সাম্প্রদায়িকতা, অজ্ঞতা ও কুসংস্কার রোধে বিদ্যমান মসজিদগুলো কী ভূমিকা রাখছে সেটাও নজরদারির মধ্যে আনা জরুরি।

একটি উগ্র ধর্মীয় গোষ্ঠী ইসলামের ‘প্রকৃত মর্মবাণী’ উপেক্ষা করে বরাবরই প্রকাশ্যে বাঙালি সংস্কৃতি, ধর্মনিরপেক্ষতা, অসাম্প্রদায়িকতা, নারীর স্বাধীনতার বিরুদ্ধে নানা মতবাদ প্রচার করছে। মসজিদ-মাদ্রাসার মতো ধর্মীয় স্থাপনার মাইকে ঘোষণা দিয়ে সাম্প্রদায়িক হামলা চালানো, ফতোয়া জারি করা, গুজব রটানোর নজির দেশে রয়েছে। উগ্র বা সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী যেন মডেল মসজিদসহ দেশের কোন মসজিদ-মাদ্রাসার অপব্যবহার করতে না পারে সে বিষয়ে সজাগ থাকতে হবে।

back to top