alt

সম্পাদকীয়

বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেলে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, নিয়মিত নজরদারি চালাতে হবে

: বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১

বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল পুনরুদ্ধারে রাজধানীর কামরাঙ্গীর চর এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করছে ঢাকা জেলা প্রশাসন ও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। সেখানকার ৭৪ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে আগামী ২০ জুনের মধ্যে প্রতিবেদন আকারে জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। অভিযানের প্রথম দিনে লোহারপুল এলাকা থেকে ব্যাটারিঘাট পর্যন্ত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে ১০টি।

আদালতের নির্দেশে তালিকা অনুযায়ী অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা শুরু হছে- এটা ভালো খবর। এখন জরুরি হচ্ছে এ অভিযান অব্যাহত রাখা। তালিকায় অনেক প্রভাবশালীদের স্থাপনা রয়েছে, কোন ফাঁক-ফোকরে সেগুলো যেন বাদ না পড়ে। সম্প্রতি রাজধানীর মোহাম্মদপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী সেতুর পাশে প্রভাবশালীদের অবৈধ স্থাপনা বাদ রেখে বিআইডাব্লিউটিএ’র নদীর সীমানাখুঁটি বসানোর খবর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।

আর সব উচ্ছেদ অভিযানের মতো এই অভিযানও যেন দখল-উচ্ছেদ-পুনঃদখলের একই চক্রে ঘুরপাক না খায়। অতীতে দেখা গেছে, কোন দখল উচ্ছেদ করার কিছুদিন পর আবারও দখলও হয়ে গেছে। সেই দখল উচ্ছেদের জন্য আবার আদলতে যেতে হয়, নতুন করে নির্দেশনা আনতে হয়, চালাতে হয় নতুন অভিযান। বছরের পর বছর এভাবেই চলতে থাকে ! দখল-উচ্ছেদ-পুনঃদখলের এ খেলার অবসান ঘটাতে হবে।

একই এলাকায় একই রকম উচ্ছেদ অভিযান বারবার চালানোর কেন প্রয়োজন হয় সেটা একটা প্রশ্ন। মূলত নজরদারির অভাবে নদ-নদীগুলো রক্ষা করা যাচ্ছে না। দখল উচ্ছেদের পর সংশ্লিষ্ট কর্র্তৃপক্ষ নিয়মিত মনিটর করলে সেটা আবার দখল হওয়ার কথা নয় বা দখল হলেও শুরুতেই তা বন্ধ করা যায়। বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল দখল করে সেখানে চারতলা পাকা ভবনসহ ৭৪টি স্থাপনা একদিনে নির্মিত হয়নি। কিন্তু যখন এসব অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করা হয় তখন বাধা দেয়ার কেউ থাকে না। আমরা বলতে চাই, বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল দখলমুক্ত করার পর নিয়মিত মনিটর করতে হবে।

নদী দখল করে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা শুধু উচ্ছেদ করাই যথেষ্ট নয়। দখলকারীদের বিরুদ্ধে যথাযত ব্যবস্থা নিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে। তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয় না বলেই দেশের নদী-নালা, খাল-বিল, জলশয় দখল হয়ে যাচ্ছে।

পাহাড়ি ঢলে বন্যা, ক্ষতিগ্রস্তদের দ্রুত সহায়তা দিন

শিল্পকারখানা খোলার ঝুঁকি মোকাবিলায় প্রস্তুতি কী

হুমকির মুখে থাকা বাঘ সুন্দরবনকে বাঁচাবে কী করে

পাহাড় ধসে মৃত্যু প্রতিরোধে স্থায়ী পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করুন

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে সরকারের অঙ্গীকারের বাস্তবায়ন চাই

ডেঙ্গু প্রতিরোধে চাই সম্মিলিত প্রচেষ্টা

পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যু প্রসঙ্গে

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন কার নিরাপত্তা দিচ্ছে?

সেতু নির্মাণের নামে জনগণের অর্থের অপচয় বন্ধ করতে হবে

আয় বৈষম্য কমানোর পথ খুঁজতে হবে

নদী খননে অনিয়ম কাম্য নয়

আইসিইউ স্থাপনে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ কেন মানা হয়নি

সরকারের ত্রাণ সহায়তায় অনিয়ম বন্ধ করতে হবে

পরিকল্পনাহীনতায় মানুষের ভোগান্তি

চাষিরা যেন আম উৎপাদনের সুফল পান

কঠোর বিধিনিষেধ প্রসঙ্গে

উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি : বড় মূল্য দিতে হতে পারে

অ্যান্টিবায়োটিকের যথেচ্ছ ব্যবহার বন্ধ করতে হবে

ডেঙ্গু প্রতিরোধে সম্মিলিত প্রচেষ্টা চালাতে হবে

কোরবানির পশুকেন্দ্রিক চাঁদাবাজি বন্ধ করুন

যথাসময়ে বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাস পরিশোধ করুন

দ্রুত সড়ক-মহাসড়ক সংস্কার করুন

কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের প্রশ্নবিদ্ধ ভূমিকা

হাসপাতালটি কেন সিআরবিতেই করতে হবে

অগ্নি দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ফায়ার সার্ভিসের সুপারিশ বাস্তবায়ন করা জরুরি

চালের দামে লাগাম টানুন

অনিয়ম-দুর্নীতির পুনরাবৃত্তি রোধ করতে হবে

বন্ধ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে ইউনিসেফের আহ্বান

নারায়ণগঞ্জে ‘জঙ্গি আস্তানা’ প্রসঙ্গে

স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে

গণটিকাদান শুরু : ‘হার্ড ইমিউনিটি’র লক্ষ্য অর্জন হবে কি

করোনাকালের বিষণ্ণতা: চাই সচেতনতা

ক্ষুধার মহামারী সম্পর্কে সতর্ক থাকতে হবে

জয় হোক মানবতার

শ্রমিক মৃত্যুর দায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এড়াতে পারে না

সাঁকো সংস্কার করে জনগণের দুর্ভোগ লাঘব করুন

tab

সম্পাদকীয়

বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেলে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, নিয়মিত নজরদারি চালাতে হবে

বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১

বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল পুনরুদ্ধারে রাজধানীর কামরাঙ্গীর চর এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করছে ঢাকা জেলা প্রশাসন ও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। সেখানকার ৭৪ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে আগামী ২০ জুনের মধ্যে প্রতিবেদন আকারে জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। অভিযানের প্রথম দিনে লোহারপুল এলাকা থেকে ব্যাটারিঘাট পর্যন্ত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে ১০টি।

আদালতের নির্দেশে তালিকা অনুযায়ী অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা শুরু হছে- এটা ভালো খবর। এখন জরুরি হচ্ছে এ অভিযান অব্যাহত রাখা। তালিকায় অনেক প্রভাবশালীদের স্থাপনা রয়েছে, কোন ফাঁক-ফোকরে সেগুলো যেন বাদ না পড়ে। সম্প্রতি রাজধানীর মোহাম্মদপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী সেতুর পাশে প্রভাবশালীদের অবৈধ স্থাপনা বাদ রেখে বিআইডাব্লিউটিএ’র নদীর সীমানাখুঁটি বসানোর খবর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।

আর সব উচ্ছেদ অভিযানের মতো এই অভিযানও যেন দখল-উচ্ছেদ-পুনঃদখলের একই চক্রে ঘুরপাক না খায়। অতীতে দেখা গেছে, কোন দখল উচ্ছেদ করার কিছুদিন পর আবারও দখলও হয়ে গেছে। সেই দখল উচ্ছেদের জন্য আবার আদলতে যেতে হয়, নতুন করে নির্দেশনা আনতে হয়, চালাতে হয় নতুন অভিযান। বছরের পর বছর এভাবেই চলতে থাকে ! দখল-উচ্ছেদ-পুনঃদখলের এ খেলার অবসান ঘটাতে হবে।

একই এলাকায় একই রকম উচ্ছেদ অভিযান বারবার চালানোর কেন প্রয়োজন হয় সেটা একটা প্রশ্ন। মূলত নজরদারির অভাবে নদ-নদীগুলো রক্ষা করা যাচ্ছে না। দখল উচ্ছেদের পর সংশ্লিষ্ট কর্র্তৃপক্ষ নিয়মিত মনিটর করলে সেটা আবার দখল হওয়ার কথা নয় বা দখল হলেও শুরুতেই তা বন্ধ করা যায়। বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল দখল করে সেখানে চারতলা পাকা ভবনসহ ৭৪টি স্থাপনা একদিনে নির্মিত হয়নি। কিন্তু যখন এসব অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করা হয় তখন বাধা দেয়ার কেউ থাকে না। আমরা বলতে চাই, বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল দখলমুক্ত করার পর নিয়মিত মনিটর করতে হবে।

নদী দখল করে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা শুধু উচ্ছেদ করাই যথেষ্ট নয়। দখলকারীদের বিরুদ্ধে যথাযত ব্যবস্থা নিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে। তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয় না বলেই দেশের নদী-নালা, খাল-বিল, জলশয় দখল হয়ে যাচ্ছে।

back to top