alt

সম্পাদকীয়

রাস্তাটি সংস্কার করুন

: শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার মুশুল্লী চৌরাস্তা থেকে কালিগঞ্জ বাজার পর্যন্ত রাস্তাটির বেহাল দশা হয়েছে বলে জানা গেছে। চার কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে এ রাস্তাটির অধিকাংশ জায়গায়ই কার্পেটিং উঠে গেছে। সেখানে ছোট-বড় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে এসব খান-খন্দে পানি জমে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে যাত্রীসাধারণ ও বিভিন্ন যানবাহন চালকদের। প্রায়ই গাড়ি উল্টে ছোট-বড় নানান দুর্ঘটনা ঘটছে। এ নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার সংবাদ-এ বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

এলাকাবাসী জানিয়েছেন, রাস্তাটি পূর্বে গ্রামীণ মাটির রাস্তা ছিল। তিন বছর পূর্বে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) পাকা করে। রাস্তাটি ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের সঙ্গে সংযুক্ত। তাই স্থানীয়দের চলাচলে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। তা ছাড়া রাজগাতী ও মুশুল্লী ইউনিয়নসহ কয়েকটি ইউনিয়নের জনসাধারণের উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন স্থানে চলাচলের একমাত্র রাস্তা এটি।

জানা গেছে, ভারী যানবাহন চলাচল করায় রাস্তার বিভিন্ন জায়গা দেবে গিয়ে গর্ত ও ভাঙনের সৃষ্টি হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে রাস্তার উপর পানি জমে পিচ উঠে গিয়ে ছোট-বড় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। গ্রামীণ এ রাস্তাটি ভারী যানবাহন চলাচলের উপযোগী নয় বলে জানিয়েছেন উপজেলা প্রকৌশলী কর্মকর্তা। ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত পণ্য পরিবহনে বা ভারী যানবহন চলাচলে দেশের অনেক রাস্তা-সড়ক-মহাসড়ক এবং সেতুই ক্ষতিগ্রস্থ হয়। অনেক জায়গায়ই যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হয় না। যেমনটা হয়নি নান্দাইলের এই রাস্তায়।

রাস্তাটি তিন বছর আগে নির্মাণ করা হলেও এর মান কেমন ছিল, সেটা একটা প্রশ্ন। কারণ, উন্নত মানের বিটুমিন ব্যবহার করলে ভারী বৃষ্টিতেও রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া কথা নয়। দেশে রাস্তা বা সড়ক নির্মাণে পদে পদে চরম অনিয়ম-দুর্নীতি-লুটপাটের অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি ২০১৮ সালে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) অনুসন্ধানেও উঠে এসেছে। দুদকের অনুসন্ধানে নিম্নমানের নির্মাণসামগ্রী দিয়ে সড়ক নির্মাণ, কাজ শেষ হওয়ার আগে বিল প্রদান, টেন্ডার নিয়ে কারসাজি, ঘুষ গ্রহণ ও নজরদারির দুর্বলতা বিশেষভাবে শনাক্ত করা হয়।

জনসাধারণের চলাচলের গুরুত্ব বিবেচনা করে রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের উদ্যোগ নিতে হবে। রাস্তা সংস্কারে নির্মাণসামগ্রীর মান যথাযথভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। কারণ, নিম্নমানের নির্মাণসামগ্রী হলে আয়ুষ্কাল শেষ হওয়ার আগেই রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে জনসাধারণের দুর্ভোগ যেমন হয়, তেমনি রাষ্ট্রের অর্থেরও অপচয় হয়। রাস্তা নির্মাণ স্থায়ী ও টেকসই করার জন্য বিটুমিনের বদলে কংক্রিট ব্যবহার করার সুপারিশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। বিষয়টি বিবেচনা করে দেখা যেতে পারে। এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে গ্রামীণ রাস্তা দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। এ ব্যাপারে স্থানীয়দেরও সচেতন হতে হবে, তাদের সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।

কন্যাশিশু নির্যাতনের ভয়াবহ চিত্র

মুহিবুল্লাহ হত্যার সুষ্ঠু বিচার করা জরুরি

অপ্রয়োজনীয় সি-সেকশন প্রসঙ্গে

বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ওপর হামলার বিচার কি হবে

নদী খননে জোর দিন

জ্বালানি নিরাপত্তার স্বার্থে তেল পরিশোধনের সক্ষমতা বাড়ানো জরুরি

বাল্যবিয়ে বন্ধে কাজীদের ভূমিকা

নদী দখল-দূষণ বন্ধে সংশ্লিষ্টদের দায়িত্বশীল হতে হবে

পাহাড় কাটা বন্ধে ব্যবস্থা নিন

বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে নিয়মের মধ্যে আনা যাচ্ছে না কেন

সুন্দরবনে বিষ দিয়ে মাছ ধরা কঠোরভাবে বন্ধ করুন

নৌকাডুবিতে মর্মান্তিক মৃত্যু

বিদ্যালয়ে কেন ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম

যুদ্ধ নয়, শান্তি চাই

কুয়াকাটায় পর্যটকদের ভোগান্তি কমবে কবে

বন্যপ্রাণীর খাবারের সংকট দূর করতে হবে

মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা চলাকালে জেলেদের পর্যাপ্ত সহায়তা দিন

টিসিবির পণ্য বিক্রিতে অনিয়মের অভিযোগ আমলে নিন

কৃষককে কেন ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে

শিশুর সুরক্ষায় সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে

রুখতে হবে বাল্যবিয়ে

দ্রুত রাস্তা নির্মাণ করুন

নারী ফুটবল দলকে অভিনন্দন

খালে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ বন্ধ করুন

নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নের চ্যালেঞ্জ

অবৈধ গ্যাস সংযোগ প্রসঙ্গে

নারী ও শিশু নির্যাতনের মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করতে হবে

তিন চাকার যান কেন মহাসড়কে

পথশিশুদের অধিকার রক্ষায় কাজ করতে হবে

চায়না দুয়ারি জালের ব্যবহার বন্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিন

গবাদিপশুর লাম্পি স্কিন রোগ

গণপরিবহনে ভাড়া নৈরাজ্য

জলাবদ্ধতা ও যানজটে রাজধানীবাসীর দুর্ভোগ

বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণ করুন

সড়ক দুর্ঘটনায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু প্রসঙ্গে

সরকারি অফিসের নতুন সময়সূচি কেন মানা হচ্ছে না

tab

সম্পাদকীয়

রাস্তাটি সংস্কার করুন

শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার মুশুল্লী চৌরাস্তা থেকে কালিগঞ্জ বাজার পর্যন্ত রাস্তাটির বেহাল দশা হয়েছে বলে জানা গেছে। চার কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে এ রাস্তাটির অধিকাংশ জায়গায়ই কার্পেটিং উঠে গেছে। সেখানে ছোট-বড় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে এসব খান-খন্দে পানি জমে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে যাত্রীসাধারণ ও বিভিন্ন যানবাহন চালকদের। প্রায়ই গাড়ি উল্টে ছোট-বড় নানান দুর্ঘটনা ঘটছে। এ নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার সংবাদ-এ বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

এলাকাবাসী জানিয়েছেন, রাস্তাটি পূর্বে গ্রামীণ মাটির রাস্তা ছিল। তিন বছর পূর্বে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) পাকা করে। রাস্তাটি ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের সঙ্গে সংযুক্ত। তাই স্থানীয়দের চলাচলে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। তা ছাড়া রাজগাতী ও মুশুল্লী ইউনিয়নসহ কয়েকটি ইউনিয়নের জনসাধারণের উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন স্থানে চলাচলের একমাত্র রাস্তা এটি।

জানা গেছে, ভারী যানবাহন চলাচল করায় রাস্তার বিভিন্ন জায়গা দেবে গিয়ে গর্ত ও ভাঙনের সৃষ্টি হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে রাস্তার উপর পানি জমে পিচ উঠে গিয়ে ছোট-বড় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। গ্রামীণ এ রাস্তাটি ভারী যানবাহন চলাচলের উপযোগী নয় বলে জানিয়েছেন উপজেলা প্রকৌশলী কর্মকর্তা। ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত পণ্য পরিবহনে বা ভারী যানবহন চলাচলে দেশের অনেক রাস্তা-সড়ক-মহাসড়ক এবং সেতুই ক্ষতিগ্রস্থ হয়। অনেক জায়গায়ই যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হয় না। যেমনটা হয়নি নান্দাইলের এই রাস্তায়।

রাস্তাটি তিন বছর আগে নির্মাণ করা হলেও এর মান কেমন ছিল, সেটা একটা প্রশ্ন। কারণ, উন্নত মানের বিটুমিন ব্যবহার করলে ভারী বৃষ্টিতেও রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া কথা নয়। দেশে রাস্তা বা সড়ক নির্মাণে পদে পদে চরম অনিয়ম-দুর্নীতি-লুটপাটের অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি ২০১৮ সালে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) অনুসন্ধানেও উঠে এসেছে। দুদকের অনুসন্ধানে নিম্নমানের নির্মাণসামগ্রী দিয়ে সড়ক নির্মাণ, কাজ শেষ হওয়ার আগে বিল প্রদান, টেন্ডার নিয়ে কারসাজি, ঘুষ গ্রহণ ও নজরদারির দুর্বলতা বিশেষভাবে শনাক্ত করা হয়।

জনসাধারণের চলাচলের গুরুত্ব বিবেচনা করে রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের উদ্যোগ নিতে হবে। রাস্তা সংস্কারে নির্মাণসামগ্রীর মান যথাযথভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। কারণ, নিম্নমানের নির্মাণসামগ্রী হলে আয়ুষ্কাল শেষ হওয়ার আগেই রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে জনসাধারণের দুর্ভোগ যেমন হয়, তেমনি রাষ্ট্রের অর্থেরও অপচয় হয়। রাস্তা নির্মাণ স্থায়ী ও টেকসই করার জন্য বিটুমিনের বদলে কংক্রিট ব্যবহার করার সুপারিশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। বিষয়টি বিবেচনা করে দেখা যেতে পারে। এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে গ্রামীণ রাস্তা দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। এ ব্যাপারে স্থানীয়দেরও সচেতন হতে হবে, তাদের সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।

back to top