alt

সম্পাদকীয়

ভালুকায় সড়ক সংস্কারের কাজ বন্ধ কেন

: বৃহস্পতিবার, ২৫ মে ২০২৩

ময়মনসিংহের ভালুকায় স্কয়ার মাস্টারবাড়ী সড়কের সংস্কার কাজ চলছিল। হঠাৎ করেই সড়কের সংস্কার কাজ বন্ধ করে দিয়েছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। বৃষ্টির পানি জমে সড়ক চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ফলে স্থানীয় বাসিন্দাদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দ্রুত সড়কের কাজ শুরু করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এ নিয়ে গত বুধবার সংবাদ-এ বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা বলছেন, ছয়-সাতটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী এ সড়ক পথেই চলাচল করে। পাশাপাশি মিলকারখানার হাজারও শ্রমিকের আসা-যাওয়ার একমাত্র ভরসা এ সড়ক। প্রায়ই সড়কটি জলমগ্ন থাকে। শিক্ষার্থী, জনসাধারণ ও শ্রমিকদের এ সড়কে যাতায়াত-যোগাযোগ করার সময় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। সড়কে সৃষ্ট গর্তে রিকশা-ভ্যানগাড়ি উল্টে দুর্ঘটনাও ঘটে মাঝে-মধ্যেই। দীর্ঘদিন ধরে সড়কের এমন করুণ অবস্থার কারণে ব্যবসায়ীরাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

শুধু যে ভালুকায় সড়কের সংস্কার কাজ মাঝপথে বন্ধ করা হয়েছে তা না। এমন ঘটনা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ঘটতে দেখা যায়। অভিযোগ রয়েছে, ঠিকাদাররা স্থানীয় প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কথার তোয়াক্কা করেন না। তারা তাদের মর্জিমতো কাজ করেন। এতে জনগণের সুবিধা হলো নাকি অসুবিধা হলো- সেটা নিয়ে তারা মাথা ঘামান না। সড়ক নির্মাণে দায়িত্বপ্রাপ্ত ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের কাজে জবাবদিহিতা থাকা জরুরি। তারা খেয়ালখুশি মতো কাজ করবে বা কাজ ফেলে রাখবে- সেটা হতে পারে না।

ঠিকাদারদের কাজ যাদের মনিটরিং করার কথা, তারা তাদের দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করেন কিনা সেই প্রশ্নও রয়েছে। ঠিকাদাররা ঠিকমতো কাজ করল কিনা- সেটা যদি ঠিকভাবে মনিটরিং করা হতো, তাহলে ভালুকা বা দেশের অন্যান্য এলাকায় সড়ক সংস্কারের কাজ বন্ধ রাখার সাহস ঠিকাদাররা পেতেন না। ঠিকাদারদের গাফিলতি, অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চাইলেও অনেক ক্ষেত্রে প্রশাসন ব্যর্থ হয়। দেখা যায়, তারা রাজনৈতিক প্রভাবশালী ব্যক্তি। আবার প্রশাসনের কিছু অসাধু কর্মকর্তাও নিজের আখের গোছাতে ঠিকাদারদের পক্ষাবলম্বন করেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। এ অবস্থার অবসান হওয়া উচিত। নইলে জনগণের যাতায়াত-যোগাযোগের দুর্ভোগ-ভোগান্তি দূর হবে না।

ভালুকায় সড়ক সংস্কারের কাজ অসমাপ্ত রাখা হয়েছে কেন সেটা জানা জরুরি। সেখানে ঠিকাদারদের কোনো গাফিলতি আছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে হবে। জনসাধারণের নির্বিঘ্নে চলাফেরা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সড়কটি সংস্কারের কাজ দ্রুত শেষ করা হয়েছে- এমনটাই আমরা দেখতে চাই।

অতিরিক্ত সেচ খরচ বন্ধে ব্যবস্থা নিন

মঙ্গলময় রাত

হাওরে বাঁধ নির্মাণে গাফিলতি কাম্য নয়

খতনা করাতে গিয়ে শিশুর মৃত্যু : সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার করুন

কক্সবাজার সৈকতে কচ্ছপ মরার কারণ উদ্ঘাটন করুন, ব্যবস্থা নিন

বাড়বে বিদ্যুতের দাম, মূল্যস্ফীতির কী উপায় হবে

এখনো কেন চালু হলো না ট্রমা সেন্টার

এত উদ্যোগের পরও অর্থপাচার বাড়ল কীভাবে

চুড়িহাট্টা অগ্নিকাণ্ড : বিচারে ধীরগতি কেন

অমর একুশে

শিক্ষা ক্যাডারে পদোন্নতি নিয়ে অসন্তোষ কেন

কিশোর গ্যাং কালচারের অবসান ঘটাতে চাই সম্মিলিত প্রচেষ্টা

সরকারি খাল উদ্ধারে ব্যবস্থা নিন

ধীরগতির যানবাহন কেন মহাসড়কে

নদীর দখলদারদের কেন ‘পুরস্কৃত’ করা হবে

ফের ঊর্ধ্বমুখী মূল্যস্ফীতি

প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন এলাকায় বরফকল কেন

উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রমে হরিলুট বন্ধ করুন

সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যের ওষুধ কেন মিলছে না

রেলক্রসিং হোক সুরক্ষিত

বিনামূল্যের পাঠ্যবই বিক্রির বিহিত করুন

জিকে সেচ প্রকল্পের খালে পানি সরবরাহ নিশ্চিত করুন

পোরশার স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ দিন

সাগর-রুনি হত্যার বিচারে আর কত অপেক্ষা

চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধ প্রকল্পের কাজ দ্রুত শুরু হোক

দেশি পণ্যের জিআই স্বীকৃতির জন্য উদ্যোগী হয়ে কাজ করতে হবে

উখিয়ায় আবাদি ও বনের জমি রক্ষায় ব্যবস্থা নিন

সড়ক নির্মাণ ও সংস্কারে অনিয়ম-দুর্নীতির অবসান ঘটাতে হবে

একটি পাকা সেতুর জন্য আর কত অপেক্ষা করতে হবে

নির্ভুল জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার ক্ষেত্রে সমস্যা কোথায়

পাখির খাদ্য সংকট ও আমাদের দায়

কাবিখা-কাবিটা প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ আমলে নিন

কৃষিতে তামাক চাষের ক্ষতিকর প্রভাব

এলপিজি বিক্রি করতে হবে নির্ধারিত দরে

সাঘাটায় বিএমডিএর সেচ সংযোগে ঘুষ দাবি, তদন্ত করুন

সরকারি খাল দখলমুক্ত করুন

tab

সম্পাদকীয়

ভালুকায় সড়ক সংস্কারের কাজ বন্ধ কেন

বৃহস্পতিবার, ২৫ মে ২০২৩

ময়মনসিংহের ভালুকায় স্কয়ার মাস্টারবাড়ী সড়কের সংস্কার কাজ চলছিল। হঠাৎ করেই সড়কের সংস্কার কাজ বন্ধ করে দিয়েছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। বৃষ্টির পানি জমে সড়ক চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ফলে স্থানীয় বাসিন্দাদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দ্রুত সড়কের কাজ শুরু করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এ নিয়ে গত বুধবার সংবাদ-এ বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা বলছেন, ছয়-সাতটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী এ সড়ক পথেই চলাচল করে। পাশাপাশি মিলকারখানার হাজারও শ্রমিকের আসা-যাওয়ার একমাত্র ভরসা এ সড়ক। প্রায়ই সড়কটি জলমগ্ন থাকে। শিক্ষার্থী, জনসাধারণ ও শ্রমিকদের এ সড়কে যাতায়াত-যোগাযোগ করার সময় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। সড়কে সৃষ্ট গর্তে রিকশা-ভ্যানগাড়ি উল্টে দুর্ঘটনাও ঘটে মাঝে-মধ্যেই। দীর্ঘদিন ধরে সড়কের এমন করুণ অবস্থার কারণে ব্যবসায়ীরাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

শুধু যে ভালুকায় সড়কের সংস্কার কাজ মাঝপথে বন্ধ করা হয়েছে তা না। এমন ঘটনা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ঘটতে দেখা যায়। অভিযোগ রয়েছে, ঠিকাদাররা স্থানীয় প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কথার তোয়াক্কা করেন না। তারা তাদের মর্জিমতো কাজ করেন। এতে জনগণের সুবিধা হলো নাকি অসুবিধা হলো- সেটা নিয়ে তারা মাথা ঘামান না। সড়ক নির্মাণে দায়িত্বপ্রাপ্ত ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের কাজে জবাবদিহিতা থাকা জরুরি। তারা খেয়ালখুশি মতো কাজ করবে বা কাজ ফেলে রাখবে- সেটা হতে পারে না।

ঠিকাদারদের কাজ যাদের মনিটরিং করার কথা, তারা তাদের দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করেন কিনা সেই প্রশ্নও রয়েছে। ঠিকাদাররা ঠিকমতো কাজ করল কিনা- সেটা যদি ঠিকভাবে মনিটরিং করা হতো, তাহলে ভালুকা বা দেশের অন্যান্য এলাকায় সড়ক সংস্কারের কাজ বন্ধ রাখার সাহস ঠিকাদাররা পেতেন না। ঠিকাদারদের গাফিলতি, অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চাইলেও অনেক ক্ষেত্রে প্রশাসন ব্যর্থ হয়। দেখা যায়, তারা রাজনৈতিক প্রভাবশালী ব্যক্তি। আবার প্রশাসনের কিছু অসাধু কর্মকর্তাও নিজের আখের গোছাতে ঠিকাদারদের পক্ষাবলম্বন করেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। এ অবস্থার অবসান হওয়া উচিত। নইলে জনগণের যাতায়াত-যোগাযোগের দুর্ভোগ-ভোগান্তি দূর হবে না।

ভালুকায় সড়ক সংস্কারের কাজ অসমাপ্ত রাখা হয়েছে কেন সেটা জানা জরুরি। সেখানে ঠিকাদারদের কোনো গাফিলতি আছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে হবে। জনসাধারণের নির্বিঘ্নে চলাফেরা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সড়কটি সংস্কারের কাজ দ্রুত শেষ করা হয়েছে- এমনটাই আমরা দেখতে চাই।

back to top