alt

চিঠিপত্র

চিঠি : অনলাইন বিনিয়োগে সতর্ক হোন

: শনিবার, ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

তথ্যপ্রযুক্তি প্রসারের সঙ্গে সঙ্গে মানুষ প্রতিদিন এমন কিছুর প্রত্যক্ষ সাক্ষী হচ্ছে, যা কখনো কল্পনায়ও আসেনি। তথ্যপ্রযুক্তির কল্যাণে লেনদেন ব্যবস্থার আধুনিকায়ন হয়েছে। এসেছে ডিজিটাল পেমেন্ট পদ্ধতি। এতে ঘরে বসেই লেনদেন করা যাচ্ছে নিমিষে। সেই সঙ্গে বাড়ছে ডিজিটাল প্রতারণাও। সম্প্রতি অ্যাপভিত্তিক এমএলএম স্কিম এমটিএফইর ফাঁদে পড়ে নিঃস্ব হয়েছেন দেশ-বিদেশের লাখ লাখ মানুষ। দেশ থেকেই কয়েক হাজার কোটি টাকা চলে গেছে এই অ্যাপের মাধ্যমে।

শুধু এমটিএফই নয়, দেশে প্রায়ই এমন প্রতারকচক্র সক্রিয় হয়ে জনগণের টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হয়ে যায় প্রতারণা রুখতে সরকারের পক্ষ থেকে কোনো দৃশ্যমান ব্যবস্থা না নেয়াটা সত্যিই দুঃখজনক। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মতে, মাইক্রোক্রেডিটভিত্তিক প্রতারণা দেখার দায়িত্ব বাংলাদেশ ব্যাংকের। তবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এ বিষয়ে কিছু বলতে রাজি নয়।

প্রতারকদের বিরুদ্ধে সরকারকে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। জনস্বার্থ চিন্তা করতে হবে। সরকারের সাইবার সিকিউরিটিকে আরো বেশি কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে। এছাড়াও সাধারণ মানুষকেও আত্মসচেতন হতে হবে। অনলাইন বিনিয়োগের কোনো লোভনীয় প্রস্তাবকে এড়িয়ে যেতে হবে।

মানুষকে আকৃষ্ট করতে নানা রকম লোভনীয় অফার দেয়াই প্রতারকদের ব্যবসায়িক পলিসি। আগেও যত অনলাইন ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান লোভনীয় অফার দিয়েছে, তার অধিকাংশই ছিল প্রতারণার ফাঁদ। তাই বিনিয়োগের ক্ষেত্রে প্রথমেই যেটি প্রয়োজন, তা হলো ‘সচেতনতা’। কোনো আকর্ষণীয় বা লোভনীয় বিজ্ঞাপন বা অফার দেখেই হুট করে সম্মোহিত হওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। যেহেতু লোভনীয় অফারের অধিকাংশই প্রতারণার ফাঁদ, তাই অনলাইন বিনিয়োগে এসব লোভনীয় অফারকে ‘না’ বলুন।

শাহ্ মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ

ছবি

বেকারত্ব নিরসনে কুটির শিল্পের ভূমিকা

দুর্যোগ পূর্ববর্তী প্রস্তুতি

ছবি

সোনালি পাটের প্রয়োজনীয়তা

কালীকচ্ছের ধর্মতীর্থ বধ্যভূমিতে স্মৃতিসৌধ নির্মাণের দাবি

চিঠি : হলে খাবারের মান উন্নত করুন

চিঠি : স্বাস্থ্য শিক্ষা বিষয়ে ডিপ্লোমাধারীদের বৈষম্য দূর করুন

চিঠি : শিক্ষার মান উন্নয়ন চাই

চিঠি : সড়ক আইন বাস্তবায়ন করুন

চিঠি : রাস্তায় বাইক সন্ত্রাস

চিঠি : কঠিন হয়ে পড়ছে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতা

চিঠি : ডিসেম্বরের স্মৃতি

চিঠি : টেকসই ও সাশ্রয়ী ক্লিন এনার্জি

চিঠি : নকল গুড় জব্দ হোক

চিঠি : সড়কে বাড়ছে লেন ঝরছে প্রাণ

চিঠি : ঢাকাবাসীর কাছে মেট্রোরেল আশীর্বাদ

চিঠি : কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন জরুরি

চিঠি : পরিচ্ছন্ন ক্যাম্পাস চাই

চিঠি : তারুণ্যের শক্তি কাজে লাগান

চিঠি : এইডস থেকে বাঁচতে সচেতন হোন

চিঠি : অতিথি পাখি নিধন বন্ধ হোক

চিঠি : হাসুন, সুস্থ থাকুন

চিঠি : হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি বন্ধ হোক

চিঠি : রাজনীতিতে তরুণ সমাজের অংশগ্রহণ

চিঠি : মাদককে ‘না’ বলুন

চিঠি : পুনরুন্নয়ন প্রকল্প : পাল্টে যাবে পুরান ঢাকা

চিঠি : শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান

চিঠি : চন্দ্রগঞ্জে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চাই

চিঠি : বাড়ছে বাল্যবিয়ে

চিঠি : টিকটকের অপব্যবহার রোধ করতে হবে

চিঠি : আত্মবিশ্বাস ও আস্থা

চিঠি : শিক্ষকরা কি প্রকৃত মর্যাদা পাচ্ছে

চিঠি : শিক্ষার্থীদের সঙ্গে স্থানীয়দের সম্প্রীতি চাই

চিঠি : সকালে ও বিকেলে মেট্রোরেল চলুক

চিঠি : অতিথি পাখি নিধন বন্ধ করতে হবে

চিঠি : ঢাবি’র কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার আধুনিকায়ন করা হোক

চিঠি : নিত্যপণ্যের দাম

tab

চিঠিপত্র

চিঠি : অনলাইন বিনিয়োগে সতর্ক হোন

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

শনিবার, ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

তথ্যপ্রযুক্তি প্রসারের সঙ্গে সঙ্গে মানুষ প্রতিদিন এমন কিছুর প্রত্যক্ষ সাক্ষী হচ্ছে, যা কখনো কল্পনায়ও আসেনি। তথ্যপ্রযুক্তির কল্যাণে লেনদেন ব্যবস্থার আধুনিকায়ন হয়েছে। এসেছে ডিজিটাল পেমেন্ট পদ্ধতি। এতে ঘরে বসেই লেনদেন করা যাচ্ছে নিমিষে। সেই সঙ্গে বাড়ছে ডিজিটাল প্রতারণাও। সম্প্রতি অ্যাপভিত্তিক এমএলএম স্কিম এমটিএফইর ফাঁদে পড়ে নিঃস্ব হয়েছেন দেশ-বিদেশের লাখ লাখ মানুষ। দেশ থেকেই কয়েক হাজার কোটি টাকা চলে গেছে এই অ্যাপের মাধ্যমে।

শুধু এমটিএফই নয়, দেশে প্রায়ই এমন প্রতারকচক্র সক্রিয় হয়ে জনগণের টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হয়ে যায় প্রতারণা রুখতে সরকারের পক্ষ থেকে কোনো দৃশ্যমান ব্যবস্থা না নেয়াটা সত্যিই দুঃখজনক। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মতে, মাইক্রোক্রেডিটভিত্তিক প্রতারণা দেখার দায়িত্ব বাংলাদেশ ব্যাংকের। তবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এ বিষয়ে কিছু বলতে রাজি নয়।

প্রতারকদের বিরুদ্ধে সরকারকে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। জনস্বার্থ চিন্তা করতে হবে। সরকারের সাইবার সিকিউরিটিকে আরো বেশি কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে। এছাড়াও সাধারণ মানুষকেও আত্মসচেতন হতে হবে। অনলাইন বিনিয়োগের কোনো লোভনীয় প্রস্তাবকে এড়িয়ে যেতে হবে।

মানুষকে আকৃষ্ট করতে নানা রকম লোভনীয় অফার দেয়াই প্রতারকদের ব্যবসায়িক পলিসি। আগেও যত অনলাইন ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান লোভনীয় অফার দিয়েছে, তার অধিকাংশই ছিল প্রতারণার ফাঁদ। তাই বিনিয়োগের ক্ষেত্রে প্রথমেই যেটি প্রয়োজন, তা হলো ‘সচেতনতা’। কোনো আকর্ষণীয় বা লোভনীয় বিজ্ঞাপন বা অফার দেখেই হুট করে সম্মোহিত হওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। যেহেতু লোভনীয় অফারের অধিকাংশই প্রতারণার ফাঁদ, তাই অনলাইন বিনিয়োগে এসব লোভনীয় অফারকে ‘না’ বলুন।

শাহ্ মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ

back to top