alt

চিঠিপত্র

চিঠি : অস্থায়ী আবাসনে শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগ

: শুক্রবার, ১৯ নভেম্বর ২০২১

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) ছাত্রীদের জন্য মোট আবাসিক হল ৪টি। এই স্বল্পসংখ্যক হলের বিপরীতে ছাত্রীর সংখ্যা অনেক বেশি। আবাসন সংকট মেটাতে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে নুন হল নির্মাণের প্রস্তাবনা রয়েছে। সাময়িক সমাধান হিসেবে কিছু ছাত্রীর বিশ্ববিদ্যালয়ের হেলথকেয়ারে রাখা হয়েছে। চারতলা বিশিষ্ট এই হেলথকেয়ারের উপরের দুইতলা ছাত্রীদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখানে বিভিন্ন অনুষদের প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী অবস্থান করছে।

প্রকৃতপক্ষে এটা কোনো হল না হওয়ায় এখানে হলের পরিবেশ বা একটি হলের সাধারণ সুযোগ-সুবিধা কোনোটিই দেয়া হচ্ছে না। খাওয়া-দাওয়া বা ওয়াশরুম এমনকি খাবার পানি সংগ্রহ করতে গেলেও অনেক বেগ পেতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। হেলথকেয়ারের ভেতরে বা আশপাশে নেই কোনো ক্যান্টিন বা খাবার হোটেল। যার ফলে প্রত্যেককে খাবারের জন্য নির্ভর করতে হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জব্বারের মোড়ের হোটেলগুলোর ওপর।

জব্বারের মোড়সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সব হোটেলে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে নিম্নমানের খাবার তৈরি করা হয়। ফলে হেলথকেয়ারে থাকা নতুন শিক্ষার্থীদের কোনো না কোনো শারীরিক সমস্যা লেগেই থাকে। তাছাড়া এখানে রান্নার জন্য কোনো ব্যবস্থা না থাকায় প্রত্যেক শিক্ষার্থীর পক্ষে রান্না করাও সম্ভব হয় না। খাবারের এমন সমস্যা শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার উপরও নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। হেলথকেয়ারে থাকা শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্যসম্মত ক্যান্টিন স্থাপনে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

শিলমুন নাহার মুন

চিঠি : দুমকিতে বাসস্ট্যান্ড চাই

চিঠি : স্বাস্থ্যবিধি মানার বিকল্প নেই

চিঠি : জন্মসনদে এত ভুল কেন?

চিঠি : স্পিড ব্রেকার প্রসঙ্গে

চিঠি : জাবি শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবীমা নিশ্চিত করুন

চিঠি : অসতর্কতায় সড়ক দুর্ঘটনা

চিঠি : তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের মূল ধারায় সম্পৃক্ত করুন

চিঠি : নিরাপদ সড়কের দাবি

চিঠি : বিদেশের কারাগারে আটক বাংলাদেশিদের মুক্তির ব্যবস্থা নিন

চিঠি : শীতার্ত মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসুন

চোরচক্র থকেে সাবধান

প্রিয়জনের চিঠি পেতে গুনতে হয় না প্রহর

চিঠি : গণপরিবহনে যাত্রী ভোগান্তি

চিঠি : হাতিয়া গণহত্যা

চিঠি : আদালতের কর্মচারীদের অবৈধ অর্থ আদায় প্রসঙ্গে

চিঠি : মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা

চিঠি : এসেছে হেমন্ত

চিঠি : বিদায় অনুষ্ঠানের একাল-সেকাল

প্লাস্টিকের বিনিময়

বন্যহাতি রক্ষা করতে হবে

চিঠি : ছিন্নমূল মানুষের সহযোগিতায় এগিয়ে আসুন

চিঠি : বিন্নি ধানের খই

চিঠি : বাকৃবির গণরুম সমস্যার সমাধান চাই

চিঠি : পরিবেশবান্ধব বাহন

চিঠি : স্মার্টফোনের দাম কমানো হোক

ফেনীতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় চাই

পনির-এ আছে পুষ্টি

চিঠি : ইপিজেড : সম্ভাবনার নতুন দ্বার

চিঠি : স্বেচ্ছায় রক্তদান

চিঠি : নিরাপদ সড়ক চাই

চিঠি : বাকৃবিতে ছাত্রী হলে নিরাপত্তা সংকট

চিঠি : জানার জন্য পড়তে হবে

ডাচণ্ডবাংলা ব্যাংকের শিক্ষাবৃত্তি

নবায়নযোগ্য জ্বালানি

চিঠি : তামাক কোম্পানির প্রচারের কূটকৌশল

চিঠি : কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কের দুর্দশা

tab

চিঠিপত্র

চিঠি : অস্থায়ী আবাসনে শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগ

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

শুক্রবার, ১৯ নভেম্বর ২০২১

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) ছাত্রীদের জন্য মোট আবাসিক হল ৪টি। এই স্বল্পসংখ্যক হলের বিপরীতে ছাত্রীর সংখ্যা অনেক বেশি। আবাসন সংকট মেটাতে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে নুন হল নির্মাণের প্রস্তাবনা রয়েছে। সাময়িক সমাধান হিসেবে কিছু ছাত্রীর বিশ্ববিদ্যালয়ের হেলথকেয়ারে রাখা হয়েছে। চারতলা বিশিষ্ট এই হেলথকেয়ারের উপরের দুইতলা ছাত্রীদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখানে বিভিন্ন অনুষদের প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী অবস্থান করছে।

প্রকৃতপক্ষে এটা কোনো হল না হওয়ায় এখানে হলের পরিবেশ বা একটি হলের সাধারণ সুযোগ-সুবিধা কোনোটিই দেয়া হচ্ছে না। খাওয়া-দাওয়া বা ওয়াশরুম এমনকি খাবার পানি সংগ্রহ করতে গেলেও অনেক বেগ পেতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। হেলথকেয়ারের ভেতরে বা আশপাশে নেই কোনো ক্যান্টিন বা খাবার হোটেল। যার ফলে প্রত্যেককে খাবারের জন্য নির্ভর করতে হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জব্বারের মোড়ের হোটেলগুলোর ওপর।

জব্বারের মোড়সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সব হোটেলে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে নিম্নমানের খাবার তৈরি করা হয়। ফলে হেলথকেয়ারে থাকা নতুন শিক্ষার্থীদের কোনো না কোনো শারীরিক সমস্যা লেগেই থাকে। তাছাড়া এখানে রান্নার জন্য কোনো ব্যবস্থা না থাকায় প্রত্যেক শিক্ষার্থীর পক্ষে রান্না করাও সম্ভব হয় না। খাবারের এমন সমস্যা শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার উপরও নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। হেলথকেয়ারে থাকা শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্যসম্মত ক্যান্টিন স্থাপনে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

শিলমুন নাহার মুন

back to top