alt

চিঠিপত্র

চিঠি : দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির লাগাম টানুন

: শনিবার, ০৪ মার্চ ২০২৩

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাওয়ার ঘটনা অস্বাভাবিক নয়। সংবাদপত্রের পাতা খুললে দেখা যায় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের উর্ধ্বগতি। ভঙ্গুর অর্থনীতি আর অনিয়ন্ত্রিত বাজার ব্যবস্থাই ঠেলে দিচ্ছে দারিদ্র্যতার মুখে। বাজারে এমন কোনো দ্রব্য নেই, যার মূল্য অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পায়নি। চাল, ডাল, তেল, চিনি, ডিম, শাক-সবজি, মুরগি ও গরুর মাংস ইত্যাদিসহ বস্ত্র, অন্য যন্ত্রপাতি এবং কাঁচামাল সবকিছু লাগামহীন।

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব তেল, গ্যাসের ওপর পড়তে পারে। কিন্তু ডিম, শাক-সবজি, মুরগি ও গরুর মাংসের উপর প্রভাব বিস্তার করল কে? সরকার মূল্য নির্ধারণ করে দিলেও বিক্রি হচ্ছে চড়া দামে। এটাই হলো সিন্ডিকেট, কালোবাজারি, দুর্নীতিবাজ আর মজুমদারদের কারচুপি। যার ফলে বলি হচ্ছে খেটে খাওয়া শ্রমজীবী মানুষ। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও মধ্যবিত্তদের বাজারে গেলে মাথায় হাত। হিমশিম খেতে হয় নিজেদের পরিবারের প্রয়োজনটুকু মেটাতে। এগুলো দেখার কেউ নেই? ভোক্তা অধিকার কর্তৃপক্ষ কতটুকু সোচ্চার? সবকিছুই এখন প্রশ্ন! তাই অনতিবিলম্বে সরকারকে বাজার স্বাভাবিক রাখার জন্য অনুরোধ করছি।

মোহাম্মদ আল-আমিন

শিক্ষার্থী, লোকপ্রশাসন বিভাগ, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়

চিঠি : হলে খাবারের মান উন্নত করুন

চিঠি : স্বাস্থ্য শিক্ষা বিষয়ে ডিপ্লোমাধারীদের বৈষম্য দূর করুন

চিঠি : শিক্ষার মান উন্নয়ন চাই

চিঠি : সড়ক আইন বাস্তবায়ন করুন

চিঠি : রাস্তায় বাইক সন্ত্রাস

চিঠি : কঠিন হয়ে পড়ছে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতা

চিঠি : ডিসেম্বরের স্মৃতি

চিঠি : টেকসই ও সাশ্রয়ী ক্লিন এনার্জি

চিঠি : নকল গুড় জব্দ হোক

চিঠি : সড়কে বাড়ছে লেন ঝরছে প্রাণ

চিঠি : ঢাকাবাসীর কাছে মেট্রোরেল আশীর্বাদ

চিঠি : কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন জরুরি

চিঠি : পরিচ্ছন্ন ক্যাম্পাস চাই

চিঠি : তারুণ্যের শক্তি কাজে লাগান

চিঠি : এইডস থেকে বাঁচতে সচেতন হোন

চিঠি : অতিথি পাখি নিধন বন্ধ হোক

চিঠি : হাসুন, সুস্থ থাকুন

চিঠি : হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি বন্ধ হোক

চিঠি : রাজনীতিতে তরুণ সমাজের অংশগ্রহণ

চিঠি : মাদককে ‘না’ বলুন

চিঠি : পুনরুন্নয়ন প্রকল্প : পাল্টে যাবে পুরান ঢাকা

চিঠি : শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান

চিঠি : চন্দ্রগঞ্জে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চাই

চিঠি : বাড়ছে বাল্যবিয়ে

চিঠি : টিকটকের অপব্যবহার রোধ করতে হবে

চিঠি : আত্মবিশ্বাস ও আস্থা

চিঠি : শিক্ষকরা কি প্রকৃত মর্যাদা পাচ্ছে

চিঠি : শিক্ষার্থীদের সঙ্গে স্থানীয়দের সম্প্রীতি চাই

চিঠি : সকালে ও বিকেলে মেট্রোরেল চলুক

চিঠি : অতিথি পাখি নিধন বন্ধ করতে হবে

চিঠি : ঢাবি’র কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার আধুনিকায়ন করা হোক

চিঠি : নিত্যপণ্যের দাম

চিঠি : শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চাই পরিচ্ছন্ন শৌচাগার

চিঠি : বায়ুদূষণ থেকে রাজধানীকে রক্ষা করুন

চিঠি : পর্যটনকেন্দ্রে খাবারের অস্বাভাবিক মূল্য

চিঠি : ঐতিহ্যবাহী গ্রামীণ খেলাধুলা

tab

চিঠিপত্র

চিঠি : দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির লাগাম টানুন

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

শনিবার, ০৪ মার্চ ২০২৩

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাওয়ার ঘটনা অস্বাভাবিক নয়। সংবাদপত্রের পাতা খুললে দেখা যায় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের উর্ধ্বগতি। ভঙ্গুর অর্থনীতি আর অনিয়ন্ত্রিত বাজার ব্যবস্থাই ঠেলে দিচ্ছে দারিদ্র্যতার মুখে। বাজারে এমন কোনো দ্রব্য নেই, যার মূল্য অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পায়নি। চাল, ডাল, তেল, চিনি, ডিম, শাক-সবজি, মুরগি ও গরুর মাংস ইত্যাদিসহ বস্ত্র, অন্য যন্ত্রপাতি এবং কাঁচামাল সবকিছু লাগামহীন।

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব তেল, গ্যাসের ওপর পড়তে পারে। কিন্তু ডিম, শাক-সবজি, মুরগি ও গরুর মাংসের উপর প্রভাব বিস্তার করল কে? সরকার মূল্য নির্ধারণ করে দিলেও বিক্রি হচ্ছে চড়া দামে। এটাই হলো সিন্ডিকেট, কালোবাজারি, দুর্নীতিবাজ আর মজুমদারদের কারচুপি। যার ফলে বলি হচ্ছে খেটে খাওয়া শ্রমজীবী মানুষ। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও মধ্যবিত্তদের বাজারে গেলে মাথায় হাত। হিমশিম খেতে হয় নিজেদের পরিবারের প্রয়োজনটুকু মেটাতে। এগুলো দেখার কেউ নেই? ভোক্তা অধিকার কর্তৃপক্ষ কতটুকু সোচ্চার? সবকিছুই এখন প্রশ্ন! তাই অনতিবিলম্বে সরকারকে বাজার স্বাভাবিক রাখার জন্য অনুরোধ করছি।

মোহাম্মদ আল-আমিন

শিক্ষার্থী, লোকপ্রশাসন বিভাগ, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়

back to top