alt

চিঠিপত্র

চিঠি : বাকৃবির শিক্ষাভাতা বাড়ানো হোক

: শনিবার, ০৪ মার্চ ২০২৩

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

বাংলাদেশে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) ১৯৬১ সালে যাত্রা শুরু করে। শিক্ষাক্ষেত্রে তাদের অবদান কম নয়। ২০২২ পর্যন্ত ৫৪,৬৪৮ জনকে স্নাতক ডিগ্রি প্রদান করেছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ থেকে ছয় মাস অন্তর (এক সেমিস্টার) শিক্ষার্থীদের চলাচল এবং মাসিক হাত খরচ চালানোর জন্য প্রতি মাসে ২০০ টাকা হারে ১২০০ টাকা প্রদান করা হয়।

কিন্তু বর্তমানে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়াতে সেই প্রতি সেমিস্টারে যে শিক্ষাভাতা দেয়া হয় সে টাকা দিয়ে শিক্ষার্থীদের ১ সপ্তাহও চলা সম্ভব হয় না। এমতাবস্থায় অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের মাস খরচ চালানোর জন্য টিউশনি কিংবা ফ্রিল্যান্সিং করে অর্থ উপার্জন করা লাগে। একটি টেকনিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে এখানে শিক্ষার্থীদের প্রতিটি বিষয় মাঠপর্যায়ের ব্যবহারিক শিক্ষা এবং গবেষণায় অংশগ্রহণ করতে হয়, যা সময়সাপেক্ষ।

এ অবস্থায় শিক্ষার্থীরা তাদের টিউশন অথবা ফ্রিল্যান্সিং করার মাধ্যমে অত্যধিক সময় নষ্ট হয়। এছাড়া অনেকের আর্থিক অবস্থা অসচ্ছল থাকায় বাধাগ্রস্ত হচ্ছে তাদের পড়াশোনায়। তাই শিক্ষার্থীদের সার্বিক শিক্ষা ব্যবস্থার সাথে সাথে শিক্ষাভাতা বৃদ্ধি করা অতি জরুরি। শিক্ষার নিশ্চিত বিকাশে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আর্থিক সমস্যা দূরীকরণ ও শিক্ষাভাতা বৃদ্ধি করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

আহসান উল্লাহ উৎস

চিঠি : হলে খাবারের মান উন্নত করুন

চিঠি : স্বাস্থ্য শিক্ষা বিষয়ে ডিপ্লোমাধারীদের বৈষম্য দূর করুন

চিঠি : শিক্ষার মান উন্নয়ন চাই

চিঠি : সড়ক আইন বাস্তবায়ন করুন

চিঠি : রাস্তায় বাইক সন্ত্রাস

চিঠি : কঠিন হয়ে পড়ছে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতা

চিঠি : ডিসেম্বরের স্মৃতি

চিঠি : টেকসই ও সাশ্রয়ী ক্লিন এনার্জি

চিঠি : নকল গুড় জব্দ হোক

চিঠি : সড়কে বাড়ছে লেন ঝরছে প্রাণ

চিঠি : ঢাকাবাসীর কাছে মেট্রোরেল আশীর্বাদ

চিঠি : কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন জরুরি

চিঠি : পরিচ্ছন্ন ক্যাম্পাস চাই

চিঠি : তারুণ্যের শক্তি কাজে লাগান

চিঠি : এইডস থেকে বাঁচতে সচেতন হোন

চিঠি : অতিথি পাখি নিধন বন্ধ হোক

চিঠি : হাসুন, সুস্থ থাকুন

চিঠি : হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি বন্ধ হোক

চিঠি : রাজনীতিতে তরুণ সমাজের অংশগ্রহণ

চিঠি : মাদককে ‘না’ বলুন

চিঠি : পুনরুন্নয়ন প্রকল্প : পাল্টে যাবে পুরান ঢাকা

চিঠি : শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান

চিঠি : চন্দ্রগঞ্জে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চাই

চিঠি : বাড়ছে বাল্যবিয়ে

চিঠি : টিকটকের অপব্যবহার রোধ করতে হবে

চিঠি : আত্মবিশ্বাস ও আস্থা

চিঠি : শিক্ষকরা কি প্রকৃত মর্যাদা পাচ্ছে

চিঠি : শিক্ষার্থীদের সঙ্গে স্থানীয়দের সম্প্রীতি চাই

চিঠি : সকালে ও বিকেলে মেট্রোরেল চলুক

চিঠি : অতিথি পাখি নিধন বন্ধ করতে হবে

চিঠি : ঢাবি’র কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার আধুনিকায়ন করা হোক

চিঠি : নিত্যপণ্যের দাম

চিঠি : শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চাই পরিচ্ছন্ন শৌচাগার

চিঠি : বায়ুদূষণ থেকে রাজধানীকে রক্ষা করুন

চিঠি : পর্যটনকেন্দ্রে খাবারের অস্বাভাবিক মূল্য

চিঠি : ঐতিহ্যবাহী গ্রামীণ খেলাধুলা

tab

চিঠিপত্র

চিঠি : বাকৃবির শিক্ষাভাতা বাড়ানো হোক

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

শনিবার, ০৪ মার্চ ২০২৩

বাংলাদেশে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) ১৯৬১ সালে যাত্রা শুরু করে। শিক্ষাক্ষেত্রে তাদের অবদান কম নয়। ২০২২ পর্যন্ত ৫৪,৬৪৮ জনকে স্নাতক ডিগ্রি প্রদান করেছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ থেকে ছয় মাস অন্তর (এক সেমিস্টার) শিক্ষার্থীদের চলাচল এবং মাসিক হাত খরচ চালানোর জন্য প্রতি মাসে ২০০ টাকা হারে ১২০০ টাকা প্রদান করা হয়।

কিন্তু বর্তমানে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়াতে সেই প্রতি সেমিস্টারে যে শিক্ষাভাতা দেয়া হয় সে টাকা দিয়ে শিক্ষার্থীদের ১ সপ্তাহও চলা সম্ভব হয় না। এমতাবস্থায় অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের মাস খরচ চালানোর জন্য টিউশনি কিংবা ফ্রিল্যান্সিং করে অর্থ উপার্জন করা লাগে। একটি টেকনিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে এখানে শিক্ষার্থীদের প্রতিটি বিষয় মাঠপর্যায়ের ব্যবহারিক শিক্ষা এবং গবেষণায় অংশগ্রহণ করতে হয়, যা সময়সাপেক্ষ।

এ অবস্থায় শিক্ষার্থীরা তাদের টিউশন অথবা ফ্রিল্যান্সিং করার মাধ্যমে অত্যধিক সময় নষ্ট হয়। এছাড়া অনেকের আর্থিক অবস্থা অসচ্ছল থাকায় বাধাগ্রস্ত হচ্ছে তাদের পড়াশোনায়। তাই শিক্ষার্থীদের সার্বিক শিক্ষা ব্যবস্থার সাথে সাথে শিক্ষাভাতা বৃদ্ধি করা অতি জরুরি। শিক্ষার নিশ্চিত বিকাশে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আর্থিক সমস্যা দূরীকরণ ও শিক্ষাভাতা বৃদ্ধি করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

আহসান উল্লাহ উৎস

back to top