alt

চিঠিপত্র

চিঠি : তারুণ্যের শক্তি কাজে লাগান

: শুক্রবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

জনশুমারি ও গৃহগণনা প্রতিবেদন জানাচ্ছে, দেশের মোট জনসংখ্যার চার ভাগের এক ভাগই তরুণ। যাদের বয়স ১৫ থেকে ২৯ বছর। দেশে তরুণ জনগোষ্ঠী ৪ কোটি ৫৯ লাখ। যা মোট জনসংখ্যার ২৭.৯৬ শতাংশ। দেশে কর্মক্ষম মানুষ ৬২ শতাংশ। যাদের বয়স ১৫ থেকে ৫৯ বছর। সংখ্যায় ১০ কোটি ৫০ লাখ।

তরুণ প্রজন্মই জাতির প্রাণশক্তি। ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ড, যা দেশের কর্মক্ষম জনসংখ্যার অর্থাৎ ১৫ থেকে ৬৪ বছর বয়সী জনসংখ্যার আধিক্যকে বোঝায়। আর এ ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ড (তারুণ্যের লভ্যাংশ) একটি দেশে থাকে ১০ বছর।

কিন্তু আমাদের দেশে এ বৃহত্তর তরুণ সমাজের একটা বিরাট অংশ কোনো প্রকার উৎপাদনমুখী কাজে জড়িত নেই। দেশীয় আর্থসামাজিক দুরাবস্থায়, শিক্ষিত যুবকদের অধিকাংশই অলসভাবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম চালিয়ে সময় পার করছেন। বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া তরুণদের অবস্থা আরো ভয়াবহ। কর্মময় জীবনের সোনালি সময়গুলো শুয়ে-বসে কাটছে।

তরুণদের উৎপাদনমুখী কাজে লাগানোর সুযোগ করে দিতে হবে। সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে তরুণরা যাতে কিছু কাজ করতে পারে সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রযুক্তিগত ও কারিগরি দক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে তারা যাতে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত হতে পারে, সেজন্য অধিকতর পরিকল্পনা করতে হবে। তবেই এ জনশক্তি পরিণত হবে জনসম্পদে। আর দেশের অর্থনীতি এগিয়ে যাবে স্বনির্ভর বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে।

শামসের তাবরিজ চৌধুরী

চিঠি : হলে খাবারের মান উন্নত করুন

চিঠি : স্বাস্থ্য শিক্ষা বিষয়ে ডিপ্লোমাধারীদের বৈষম্য দূর করুন

চিঠি : শিক্ষার মান উন্নয়ন চাই

চিঠি : সড়ক আইন বাস্তবায়ন করুন

চিঠি : রাস্তায় বাইক সন্ত্রাস

চিঠি : কঠিন হয়ে পড়ছে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতা

চিঠি : ডিসেম্বরের স্মৃতি

চিঠি : টেকসই ও সাশ্রয়ী ক্লিন এনার্জি

চিঠি : নকল গুড় জব্দ হোক

চিঠি : সড়কে বাড়ছে লেন ঝরছে প্রাণ

চিঠি : ঢাকাবাসীর কাছে মেট্রোরেল আশীর্বাদ

চিঠি : কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন জরুরি

চিঠি : পরিচ্ছন্ন ক্যাম্পাস চাই

চিঠি : এইডস থেকে বাঁচতে সচেতন হোন

চিঠি : অতিথি পাখি নিধন বন্ধ হোক

চিঠি : হাসুন, সুস্থ থাকুন

চিঠি : হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি বন্ধ হোক

চিঠি : রাজনীতিতে তরুণ সমাজের অংশগ্রহণ

চিঠি : মাদককে ‘না’ বলুন

চিঠি : পুনরুন্নয়ন প্রকল্প : পাল্টে যাবে পুরান ঢাকা

চিঠি : শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান

চিঠি : চন্দ্রগঞ্জে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চাই

চিঠি : বাড়ছে বাল্যবিয়ে

চিঠি : টিকটকের অপব্যবহার রোধ করতে হবে

চিঠি : আত্মবিশ্বাস ও আস্থা

চিঠি : শিক্ষকরা কি প্রকৃত মর্যাদা পাচ্ছে

চিঠি : শিক্ষার্থীদের সঙ্গে স্থানীয়দের সম্প্রীতি চাই

চিঠি : সকালে ও বিকেলে মেট্রোরেল চলুক

চিঠি : অতিথি পাখি নিধন বন্ধ করতে হবে

চিঠি : ঢাবি’র কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার আধুনিকায়ন করা হোক

চিঠি : নিত্যপণ্যের দাম

চিঠি : শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চাই পরিচ্ছন্ন শৌচাগার

চিঠি : বায়ুদূষণ থেকে রাজধানীকে রক্ষা করুন

চিঠি : পর্যটনকেন্দ্রে খাবারের অস্বাভাবিক মূল্য

চিঠি : ঐতিহ্যবাহী গ্রামীণ খেলাধুলা

চিঠি : অনলাইন আসক্তি দূর করতে হবে

tab

চিঠিপত্র

চিঠি : তারুণ্যের শক্তি কাজে লাগান

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

শুক্রবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩

জনশুমারি ও গৃহগণনা প্রতিবেদন জানাচ্ছে, দেশের মোট জনসংখ্যার চার ভাগের এক ভাগই তরুণ। যাদের বয়স ১৫ থেকে ২৯ বছর। দেশে তরুণ জনগোষ্ঠী ৪ কোটি ৫৯ লাখ। যা মোট জনসংখ্যার ২৭.৯৬ শতাংশ। দেশে কর্মক্ষম মানুষ ৬২ শতাংশ। যাদের বয়স ১৫ থেকে ৫৯ বছর। সংখ্যায় ১০ কোটি ৫০ লাখ।

তরুণ প্রজন্মই জাতির প্রাণশক্তি। ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ড, যা দেশের কর্মক্ষম জনসংখ্যার অর্থাৎ ১৫ থেকে ৬৪ বছর বয়সী জনসংখ্যার আধিক্যকে বোঝায়। আর এ ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ড (তারুণ্যের লভ্যাংশ) একটি দেশে থাকে ১০ বছর।

কিন্তু আমাদের দেশে এ বৃহত্তর তরুণ সমাজের একটা বিরাট অংশ কোনো প্রকার উৎপাদনমুখী কাজে জড়িত নেই। দেশীয় আর্থসামাজিক দুরাবস্থায়, শিক্ষিত যুবকদের অধিকাংশই অলসভাবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম চালিয়ে সময় পার করছেন। বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া তরুণদের অবস্থা আরো ভয়াবহ। কর্মময় জীবনের সোনালি সময়গুলো শুয়ে-বসে কাটছে।

তরুণদের উৎপাদনমুখী কাজে লাগানোর সুযোগ করে দিতে হবে। সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে তরুণরা যাতে কিছু কাজ করতে পারে সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রযুক্তিগত ও কারিগরি দক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে তারা যাতে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত হতে পারে, সেজন্য অধিকতর পরিকল্পনা করতে হবে। তবেই এ জনশক্তি পরিণত হবে জনসম্পদে। আর দেশের অর্থনীতি এগিয়ে যাবে স্বনির্ভর বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে।

শামসের তাবরিজ চৌধুরী

back to top