alt

চিঠিপত্র

চিঠি : শব্দ দূষণ প্রতিরোধে করণীয়

: শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

শব্দ দূষণ একটি নীরব ঘাতক। আর এই শব্দ দূষণের শিকার হচ্ছে সাধারণ জনগণ। শব্দ দূষণের ফলে জাতি আজ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। শব্দ দূষণ কারা করছে তা নির্ণয়ে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে। শব্দ দূষণ প্রতিরোধে আমাদের সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। সরকারি প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে আসতে হবে।

শব্দ দূষণের ক্ষতিকর দিক সম্পর্কে ব্যাপক জনসচেতনা তৈরি করতে হবে এবং পরিবেশ রক্ষায় স্থানীয়, জেলা, বিভাগীয় পর্যায়ে কাজ করতে হবে। সরকারের এনফোর্সমেন্ট কর্তৃপক্ষকে শব্দমাপক যন্ত্র প্রদান করতে হবে, যেন তারা শব্দ পরিমাপ করে পদক্ষেপ নিতে পারেন। শব্দ দূষণ রোধে চিহ্নিত পরিবেশ অধিদপ্তর, বিআরটিএ, সিটি করপোরেশন পৃথকভাবে দায়িত্ব ভাগ করে সমন্বয় করে কাজ করতে হবে। ধর্মীয় অনুষ্ঠানে মাইকের শব্দ সীমাবদ্ধ রাখতে হবে। সামাজিক অনুষ্ঠানে ঢোল, বাজনা মাইকের শব্দ নিজ নিজ কমিউনিটি সেন্টর বা বিয়েবাড়ির মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে হবে।

সবাইকে শব্দ দূষণ প্রতিরোধে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। অনুরূপভাবে পরিবহনের শ্রমিক-মালিক ট্রাফিক বিভাগ ঐক্যবদ্ধভাবে শব্দ দূষণ প্রতিরোধে এগিয়ে আসলে এ সমস্যা থেকে উত্তরণ সম্ভব হবে।

আব্বাস উদ্দিন আহমদ

চিঠি : হলে খাবারের মান উন্নত করুন

চিঠি : স্বাস্থ্য শিক্ষা বিষয়ে ডিপ্লোমাধারীদের বৈষম্য দূর করুন

চিঠি : শিক্ষার মান উন্নয়ন চাই

চিঠি : সড়ক আইন বাস্তবায়ন করুন

চিঠি : রাস্তায় বাইক সন্ত্রাস

চিঠি : কঠিন হয়ে পড়ছে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতা

চিঠি : ডিসেম্বরের স্মৃতি

চিঠি : টেকসই ও সাশ্রয়ী ক্লিন এনার্জি

চিঠি : নকল গুড় জব্দ হোক

চিঠি : সড়কে বাড়ছে লেন ঝরছে প্রাণ

চিঠি : ঢাকাবাসীর কাছে মেট্রোরেল আশীর্বাদ

চিঠি : কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন জরুরি

চিঠি : পরিচ্ছন্ন ক্যাম্পাস চাই

চিঠি : তারুণ্যের শক্তি কাজে লাগান

চিঠি : এইডস থেকে বাঁচতে সচেতন হোন

চিঠি : অতিথি পাখি নিধন বন্ধ হোক

চিঠি : হাসুন, সুস্থ থাকুন

চিঠি : হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি বন্ধ হোক

চিঠি : রাজনীতিতে তরুণ সমাজের অংশগ্রহণ

চিঠি : মাদককে ‘না’ বলুন

চিঠি : পুনরুন্নয়ন প্রকল্প : পাল্টে যাবে পুরান ঢাকা

চিঠি : শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান

চিঠি : চন্দ্রগঞ্জে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চাই

চিঠি : বাড়ছে বাল্যবিয়ে

চিঠি : টিকটকের অপব্যবহার রোধ করতে হবে

চিঠি : আত্মবিশ্বাস ও আস্থা

চিঠি : শিক্ষকরা কি প্রকৃত মর্যাদা পাচ্ছে

চিঠি : শিক্ষার্থীদের সঙ্গে স্থানীয়দের সম্প্রীতি চাই

চিঠি : সকালে ও বিকেলে মেট্রোরেল চলুক

চিঠি : অতিথি পাখি নিধন বন্ধ করতে হবে

চিঠি : ঢাবি’র কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার আধুনিকায়ন করা হোক

চিঠি : নিত্যপণ্যের দাম

চিঠি : শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চাই পরিচ্ছন্ন শৌচাগার

চিঠি : বায়ুদূষণ থেকে রাজধানীকে রক্ষা করুন

চিঠি : পর্যটনকেন্দ্রে খাবারের অস্বাভাবিক মূল্য

চিঠি : ঐতিহ্যবাহী গ্রামীণ খেলাধুলা

tab

চিঠিপত্র

চিঠি : শব্দ দূষণ প্রতিরোধে করণীয়

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন

শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩

শব্দ দূষণ একটি নীরব ঘাতক। আর এই শব্দ দূষণের শিকার হচ্ছে সাধারণ জনগণ। শব্দ দূষণের ফলে জাতি আজ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। শব্দ দূষণ কারা করছে তা নির্ণয়ে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে। শব্দ দূষণ প্রতিরোধে আমাদের সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। সরকারি প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে আসতে হবে।

শব্দ দূষণের ক্ষতিকর দিক সম্পর্কে ব্যাপক জনসচেতনা তৈরি করতে হবে এবং পরিবেশ রক্ষায় স্থানীয়, জেলা, বিভাগীয় পর্যায়ে কাজ করতে হবে। সরকারের এনফোর্সমেন্ট কর্তৃপক্ষকে শব্দমাপক যন্ত্র প্রদান করতে হবে, যেন তারা শব্দ পরিমাপ করে পদক্ষেপ নিতে পারেন। শব্দ দূষণ রোধে চিহ্নিত পরিবেশ অধিদপ্তর, বিআরটিএ, সিটি করপোরেশন পৃথকভাবে দায়িত্ব ভাগ করে সমন্বয় করে কাজ করতে হবে। ধর্মীয় অনুষ্ঠানে মাইকের শব্দ সীমাবদ্ধ রাখতে হবে। সামাজিক অনুষ্ঠানে ঢোল, বাজনা মাইকের শব্দ নিজ নিজ কমিউনিটি সেন্টর বা বিয়েবাড়ির মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে হবে।

সবাইকে শব্দ দূষণ প্রতিরোধে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। অনুরূপভাবে পরিবহনের শ্রমিক-মালিক ট্রাফিক বিভাগ ঐক্যবদ্ধভাবে শব্দ দূষণ প্রতিরোধে এগিয়ে আসলে এ সমস্যা থেকে উত্তরণ সম্ভব হবে।

আব্বাস উদ্দিন আহমদ

back to top