alt

মুক্ত আলোচনা

হিন্দু সম্পত্তি দখলের অপচেষ্টা

সামসুজ্জামান

: সোমবার, ২১ জুন ২০২১

‘সংবাদ’ পত্রিকায় প্রকাশিত দুটি সংবাদ যে কোন বিবেকবান মানুষকে উদ্বিগ্ন করে তুলবে। গত ১০ জুন প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়েছে- ‘গভীর রাতে হিন্দুদের বাড়ি অবরুদ্ধ করে হুমকি’। ঘটনাটি চাঁদপুরের ১৪নং ওয়ার্ডের বাবুরহাটের। রাতের আঁধারে সনাতন ধর্মাবলম্বীর কয়েকটি বাড়িঘর অবরুদ্ধ করে একদল সন্ত্রাসী দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছে। অবশ্য এলাকার লোকজন এসে পড়ায় সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে কয়েকটি দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করেছে।

১১ জুন প্রকাশিত অপর এক খবরে দেখা যায়- ভোলা জেলা শহরের পৌর ৪নং চরনোয়াবাদ এলাকায় শত বছরের পৈতৃক বাড়ি ও সম্পত্তি থেকে সুবোল চন্দ্র মালের পরিবারকে উচ্ছেদের জন্য মনিয়া হয়ে উঠেছে একদল ভূমিদস্যু। এলাকার কুখ্যাত ভূমিদস্যু সাহাবুদ্দিনের নেতৃত্বে এ ঘটনা ঘটেছে। সাহাবুদ্দিন তার লোকজন দিয়ে জোরপূর্বক বাড়ির মধ্যে পিলার গেড়েছেন। সুবোল চন্দ্রের পিতামহের সঙ্গে জমিজমা সংক্রান্ত কোন বিরোধও ছিল না।

সাতক্ষীরায় সরকারদলীয় ক্যাডাররা একটি হিন্দুপল্লীতে হানা দিয়েছিল। যশোরের মণিরামপুরের মালোপাড়ার তা-বের দৃশ্য আমাদের মন থেকে এখনও মুছে যায়নি। সেখানে অবস্থা এতটাই ভয়াভহ রূপধারণ করেছিল যে, খোদ প্রধানমন্ত্রী সরেজমিন সেখানে এসেছিলেন এবং একটি পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপন করে দিয়ে যান। এসব সন্ত্রাসীর এমন কাজ নেই যা তারা করেনি। বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয়া, লুটতরাজ, ধর্ষণ সবকিছুই করেছে সন্ত্রাসীরা। মণিরামপুর মালোপাড়ার তা-ব প্রধানমন্ত্রী স্বচক্ষে দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেছিলেন।

বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পরও কেন পাকিস্তানি সাম্প্রদায়িকতার বীজ এখনও রয়েছে

একটি মহল এমন ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি এবং ভাবমূর্তি নস্যাতের চেষ্টা করছে। তারা ঘোলাপানিতে মাছ শিকারের অপেক্ষায় আছে। আমরা দেখেছি কক্সবাজারের রামুতে কীভাবে হামলা চালানো হয়েছিল। যে ক্ষত আজও শুকায়নি। বাগেরহাটের নাথপাড়ার ঘটনা এখনও আমাদের পীড়া দেয়। সেখান থেকে কিছু সনাতন ধর্মাবলম্বী পরিবার অসহায়ের মতো জমিজমা কমদামে বিক্রিও করে ভারতে চলে যায়।

অভিযোগ আছে, প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় এসব ঘটে থাকে। কিন্তু প্রশ্ন হলো প্রশাসন কেন কঠোর হাতে এসব ঘটনা দমন করছে না। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পরও কেন পাকিস্তানি সাম্প্রদায়িকতার বীজ এখনও রয়েছে দেশে? সরকার কি ইচ্ছা করলে পারে না এসব কা- বন্ধ করতে?

ছবি

বুদ্ধির মুক্তি আন্দোলনে কাজী আবদুল ওদুদ

শিশুর ব্যক্তিত্ব বিকাশে মায়ের প্রভাব

নিবন্ধন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ই-কমার্স প্রতারণারোধ করতে চাইছে সরকার

খ্রিস্টীয় নববর্ষের ইতিবৃত্ত

ডিজিটাল বাংলাদেশ: উদ্ভাবনে পাল্টে গেছে নাগরিক সেবা

সামগ্রিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো এখন সময়ের দাবী

ত্রৈমাসিক ‘অঙ্ক ভাবনা’

‘ই-এডুকেশন এন্ড লার্নিং’ এ বাংলাদেশের “গ্লোবাল আইসিটি এক্সসেলেন্স এওয়ার্ড” অর্জন ও করণীয়

ছবি

শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজের ৫৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

ছবি

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়: গৌরবের ৫৫ বছর

আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী দিবস

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনে গ্লোকোমিটারের সঠিক ব্যবহার জরুরি

ডায়াবেটিস অতিমারিতে বিশ্ব: রুখতে প্রয়োজন সচেতনতা

ছবি

বাংলায় প্রথম বিজ্ঞান বিষয়ক পাঠ্যপুস্তক প্রণেতা অক্ষয়কুমার দত্ত

ইন্টেলিজেন্ট ডিজাইন: বস্তুনিষ্ঠ নয়, ব্যক্তিনিষ্ঠ

গবেষণাতেই মিলবে জটিল রোগের সঠিক সমাধান

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা দিবস

ছবি

হুদুড় দুর্গা : হিন্দুত্ব ও ব্রাহ্মণ্য আধিপত্যের বিরুদ্ধে সুপ্ত প্রতিবাদ

এই দুঃখ কোথায় রাখি?

বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস

ব্যাংক ইন্টারেস্ট কি সুদ, আরবিতে যা রিবা?

বিশ্ব শিক্ষক দিবস ও শিক্ষা পুনরুদ্ধারে শিক্ষকদের চ্যালেঞ্জ

তথ্য আমার অধিকার, জানা আছে কী সবার’- প্রেক্ষিত পর্যালোচনা

ছবি

ডিজিটাল বাংলাদেশ জননেত্রী শেখ হাসিনার এক সফল উন্নয়ন দর্শন

ছবি

ফুসফুসের সুরক্ষা এবং সুস্বাস্থ্যের উন্নয়ন

ছবি

চার সন্তান হত্যার দায়ে সাজাপ্রাপ্ত এক মা

নোভাভ্যাক্সের টিকাই এ মুহূর্তে সেরা

ছবি

বাংলাদেশে ফল উৎপাদন ও সম্ভাবনাময় বিদেশি ফল

ছবি

স্মরণ : তারেক মাসুদ, ‘ছবির ফেরিওয়ালা’

স্বাধীনতা সংগ্রামের অফুরান প্রেরণার উৎস মহীয়সী নারী ফজিলাতুন্নেছা মুজিব

ছবি

২১ বছরে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

মার্কেটিং মাইওপিয়া

মানসিক সুস্থতা কতটা জরুরি?

ছবি

সৌন্দর্যের লীলাভূমি সিকিম

মায়ের বুকের দুধ পানে অগ্রগতি

ছবি

গ্রামীণ অর্থনীতির বিকাশে নারীর ক্ষমতায়ন

tab

মুক্ত আলোচনা

হিন্দু সম্পত্তি দখলের অপচেষ্টা

সামসুজ্জামান

সোমবার, ২১ জুন ২০২১

‘সংবাদ’ পত্রিকায় প্রকাশিত দুটি সংবাদ যে কোন বিবেকবান মানুষকে উদ্বিগ্ন করে তুলবে। গত ১০ জুন প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়েছে- ‘গভীর রাতে হিন্দুদের বাড়ি অবরুদ্ধ করে হুমকি’। ঘটনাটি চাঁদপুরের ১৪নং ওয়ার্ডের বাবুরহাটের। রাতের আঁধারে সনাতন ধর্মাবলম্বীর কয়েকটি বাড়িঘর অবরুদ্ধ করে একদল সন্ত্রাসী দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছে। অবশ্য এলাকার লোকজন এসে পড়ায় সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে কয়েকটি দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করেছে।

১১ জুন প্রকাশিত অপর এক খবরে দেখা যায়- ভোলা জেলা শহরের পৌর ৪নং চরনোয়াবাদ এলাকায় শত বছরের পৈতৃক বাড়ি ও সম্পত্তি থেকে সুবোল চন্দ্র মালের পরিবারকে উচ্ছেদের জন্য মনিয়া হয়ে উঠেছে একদল ভূমিদস্যু। এলাকার কুখ্যাত ভূমিদস্যু সাহাবুদ্দিনের নেতৃত্বে এ ঘটনা ঘটেছে। সাহাবুদ্দিন তার লোকজন দিয়ে জোরপূর্বক বাড়ির মধ্যে পিলার গেড়েছেন। সুবোল চন্দ্রের পিতামহের সঙ্গে জমিজমা সংক্রান্ত কোন বিরোধও ছিল না।

সাতক্ষীরায় সরকারদলীয় ক্যাডাররা একটি হিন্দুপল্লীতে হানা দিয়েছিল। যশোরের মণিরামপুরের মালোপাড়ার তা-বের দৃশ্য আমাদের মন থেকে এখনও মুছে যায়নি। সেখানে অবস্থা এতটাই ভয়াভহ রূপধারণ করেছিল যে, খোদ প্রধানমন্ত্রী সরেজমিন সেখানে এসেছিলেন এবং একটি পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপন করে দিয়ে যান। এসব সন্ত্রাসীর এমন কাজ নেই যা তারা করেনি। বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয়া, লুটতরাজ, ধর্ষণ সবকিছুই করেছে সন্ত্রাসীরা। মণিরামপুর মালোপাড়ার তা-ব প্রধানমন্ত্রী স্বচক্ষে দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেছিলেন।

বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পরও কেন পাকিস্তানি সাম্প্রদায়িকতার বীজ এখনও রয়েছে

একটি মহল এমন ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি এবং ভাবমূর্তি নস্যাতের চেষ্টা করছে। তারা ঘোলাপানিতে মাছ শিকারের অপেক্ষায় আছে। আমরা দেখেছি কক্সবাজারের রামুতে কীভাবে হামলা চালানো হয়েছিল। যে ক্ষত আজও শুকায়নি। বাগেরহাটের নাথপাড়ার ঘটনা এখনও আমাদের পীড়া দেয়। সেখান থেকে কিছু সনাতন ধর্মাবলম্বী পরিবার অসহায়ের মতো জমিজমা কমদামে বিক্রিও করে ভারতে চলে যায়।

অভিযোগ আছে, প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় এসব ঘটে থাকে। কিন্তু প্রশ্ন হলো প্রশাসন কেন কঠোর হাতে এসব ঘটনা দমন করছে না। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পরও কেন পাকিস্তানি সাম্প্রদায়িকতার বীজ এখনও রয়েছে দেশে? সরকার কি ইচ্ছা করলে পারে না এসব কা- বন্ধ করতে?

back to top